http://www.hazarikapratidin.com RSS feed from hazarikapratidin.com en http://www.hazarikapratidin.com - গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113851 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642601216_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642601216_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সম্প্রতি গ্যাসের দাম বাড়াতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) কাছে প্রস্তাব জমা দেওয়া শুরু করেছে গ্যাস সঞ্চালন, উৎপাদন ও বিতরণ কোম্পানিগুলো। কিন্তু দাম বাড়ানোর এই উদ্যোগের বিরোধিতা করেছেন দেশের শিল্পোদ্যোক্তারা।<br><br>তারা বলছেন, গ্যাসের দাম বাড়লে উৎপাদন খরচও বাড়বে, যা শিল্পের প্রতিযোগিতা সক্ষমতা কমিয়ে দেবে। মহামারিকালে অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো ব্যাহত হবে।<br><br>বুধবার (১৯ জানুয়ারি) এফবিসিসিআই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত পাওয়ার, এনার্জি, ইউটিলিস-বিষয়ক এফবিসিসিআইয়ের স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রথম সভায় গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগে ব্যবসায়ীরা উদ্বেগ প্রকাশ করেন।<br><br>বৈঠকে এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু জানান, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে চীন ও ভারত আরও ২০ বছর কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু রাখবে। বাংলাদেশেও শিল্পের বিকাশের স্বার্থে দেশে মজুত থাকা কয়লার সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেওয়া উচিত সরকারের।<br><br>তিনি গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম ব্যাপকভাবে শুরু করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, বাপেক্স একা না পারলে বেসরকারি খাতের সঙ্গে যৌথ অংশীদারত্বে অনুসন্ধান কূপ খননে গতি আনা উচিত।<br><br>স্ট্যান্ডিং কমিটির ডিরেক্টর-ইন-চার্জ ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আবুল কাশেম খান বলেন, দেশে জ্বালানি খাতে আমদানি-নির্ভরতা বাড়ছে, যা ভবিষ্যতের জন্য নিরাপদ নয়। দীর্ঘমেয়াদি জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ও শিল্পায়ন অব্যাহত রাখতে দেশীয় সম্পদকে কাজে লাগানো জরুরি। কয়লা উত্তোলন করে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পক্ষে মত দেন তিনি।<br><br>এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক মো. নাসের বলেন, বিতরণ ব্যবস্থায় চরম অব্যবস্থাপনার কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদনের সুফল বঞ্চিত হচ্ছেন দেশের ব্যবসায়ীরা।<br><br>এ খাতে শৃঙ্খলা আনতে বিতরণ কোম্পানিগুলোর ব্যবস্থাপনার ভার বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেওয়ার পরামর্শ দেন স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য সাংবাদিক মোল্লা এম আমজাদ হোসেন। তিনি বলেন, তেল ও গ্যাস অনুসন্ধানের জন্য সরকারের অন্তত আরও ১০০ কূপ খনন করা উচিত। এছাড়া অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো পুরোপুরি প্রস্তুত না হওয়া পর্যন্ত বাইরের কারখানাগুলোকে গ্যাস-বিদ্যুতের সংযোগ অব্যাহত রাখার পক্ষে মত দেন জ্বালানি বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার’র এই সম্পাদক।<br><br>সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে ওয়ান-স্টপ সলিউশন, চরের অনাবাদি জমিতে সোলার প্যানেল স্থাপন, সরকারিভাবে গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রমের উদ্যোগ নেওয়া, বর্জ্য ও চালের কুড়া থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প হাতে নেওয়ার দাবি জানান কমিটির সদস্যরা।<br><br>বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান ও এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের এমডি ও সিইও হুমায়ুন রশিদ। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে দেশি-বিদেশি উৎসের মধ্যে সমন্বয় নিশ্চিত করা না গেলে দেশের জ্বালানি খাতের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে।<br><br>বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন কমিটির কো-চেয়ারম্যান মো. সালাউদ্দীন ইউসুফ, মোহাম্মদ আলী দ্বীন, নাজমুল হক ও এফবিসিসিআইয়ের মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজল হক।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 20:06:35 1970-01-01 00:00:00 ই-কমার্সে আস্থা ফেরাতে ফেব্রুয়ারিতে চালু হচ্ছে নিবন্ধন: পলক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113850 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642601179_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642601179_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ই-কমার্স খাতে স্থিতিশীলতা আনতে ফেব্রুয়ারিতে ইউনিক বিজনেস আইডির (ইউবিআইডি) মাধ্যমে নিবন্ধন প্রক্রিয়া চালু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।<br><br>জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল কমার্স খাতে স্থিতিশীলতা আনার লক্ষ্যে ডিজিটাল ব্যবসায় নিবন্ধনের জন্য ইউবিআইডি এবং অভিযোগ নিষ্পত্তির প্রক্রিয়া সেন্ট্রাল লজিস্টিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিসিএমএস) আগামী ফেব্রুয়ারিতে উদ্বোধন করা হবে। আর মার্চে ডিজিটাল আন্তঃলেনদেন প্ল্যাটফর্ম ‘বিনিময়’ উদ্বোধন করা হবে। এছাড়া পরবর্তীতে সেন্ট্রাল লজিস্টিক ট্র্যাকিং প্ল্যাটফর্ম (সিএলটিপি) চালু করা হবে।<br><br>প্রতিমন্ত্রী বুধবার (১৯ জানুয়ারি) আইসিটি বিভাগের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি ই-কমার্স খাতে স্থিতিশীলতা আনার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এবং আইসিটি বিভাগের কারিগরি সহায়তায় নির্মীয়মান প্ল্যাটফর্ম ও উদ্যোগসমূহের বর্তমান নির্মাণ অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় অংশ নেন।<br><br>প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল ব্যবসায়ীদের সবাইকে ইউবিআইডিতে নিবন্ধন করতে হবে। এর মাধ্যমে ফেসবুকভিত্তিক যারা ব্যবসা করছেন, তারাও নিবন্ধনের আওতায় আসবেন। নিবন্ধিত কোনো প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কারও অভিযোগ থাকলে সিসিএমএস-এর মাধ্যমে তা নিষ্পত্তি করা হবে।’<br><br>তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম তৈরির মাধ্যমে ডিজিটাল ব্যবসায় যে আস্থাহীনতা, বিশ্বাসযোগ্যতা ও স্বচ্ছতার অভাব দেখা দিয়েছে, তা দূর করা হবে।’<br><br>আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে এটুআই পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী, এটুআই টেকনিক্যাল হেড রেজওয়ানুল হক জামিসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা পর্যালোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 20:05:57 1970-01-01 00:00:00 দোষ থাকলে সরকারের সিদ্ধান্ত মেনে নেব: শাবিপ্রবি উপাচার্য http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113849 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600951_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600951_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় উপাচার্যের যদি দোষ থাকে তবে সরকার যে সিদ্ধান্ত দেবে তাই মেনে নেবে বলে জানিয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।<br><br>বুধবার (১৯ জানুয়ারি) নিজ বাসভবনে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে শিক্ষার্থীদের পদত্যাগ দাবি প্রসঙ্গে তিনি এ মন্তব্য করেন।<br><br>উপাচার্য বলেন, এ ঘটনায় উপাচার্যের যদি কোনো দোষ থেকে থাকে তাহলে তদন্ত কমিটি গঠন হবে। তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে সরকার যে সিদ্ধান্ত নেবে তাই মেনে নেব। দরকার হলে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে তদন্ত কমিটি হতে পারে।<br><br>তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের উপর হামলার ঘটনায় আমি খুবই মর্মাহত। যখন তাদের দাবি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে তখনই কে বা কারা পুলিশের উপর হামলা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।<br><br>শিক্ষার্থীরা আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিক্ষক প্রতিনিধিরা গালিগালাজ সহ্য করেও আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু শিক্ষার্থীরা তা প্রত্যাখ্যান করছে। শিক্ষক সমিতির নেতৃত্বে যোগাযোগ করতে গেলেও তারা তাদের ফিরিয়ে দেয়।<br><br>শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনায় তৃতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি চলছে। বুধবার বিকেল ৩টায় উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশন শুরু করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, প্রক্টরিয়াল বডি এবং ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক পদত্যাগ না করা পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে বলে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 20:02:14 1970-01-01 00:00:00 চলে গেলেন ‘মাসুদ রানা’ সিরিজের স্রষ্টা কাজী আনোয়ার হোসেন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113848 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600726_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600726_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জনপ্রিয় ধারার স্পাই থ্রিলার সিরিজের স্রষ্টা ‘মাসুদ রানা’র লেখক এবং সেবা প্রকাশনীর কর্ণধার কাজী আনোয়ার হোসেন ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।<br><br>কাজী আনোয়ার হোসেনের মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেন তার পুত্রবধূ মাসুমা মাইমুর। তিনি এক ফেসবুক পোস্টে লিখেন, ‘নিভে গেছে দীপ জনমের তরে, জ্বলিবে না সে তো আর। দূর আকাশের তারা হয়ে গেছে আমার ছেলেটা।’<br><br>তিনি আরও লিখেন, আমার ছোট্ট ছেলেটা। আর কোনোদিনও আমার পিছু পিছু ঘুরে খুঁজবে না মায়ের গায়ের মিষ্টি গন্ধ। কোনোদিনই না। কিন্তু মাকে ছেড়ে থাকবে কীভাবে ওই অন্ধকার ঘরে আমার ছেলেটা? একা, শুধু একা? কী সব বকছি জানি না। আব্বা (কাজী আনোয়ার হোসেন) আর নেই। চলে গেছেন আমাদের ছেড়ে।<br><br>এর আগে ২৯ ডিসেম্বর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণ ইউনিটে (আইসিইউ) রাখা হয়। সর্বশেষ গত ১০ জানুয়ারি থেকে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় বলে জানিয়েছেন তার ছেলে কাজী শাহনূর হোসেন।<br><br>কাজী আনোয়ার হোসেন ১৯৩৬ সালে ১৯ জুলাই ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পুরো নাম কাজী শামসুদ্দিন আনোয়ার হোসেন। ডাক নাম ‘নবাব’। তার বাবা প্রখ্যাত বিজ্ঞানী, গণিতবিদ ও সাহিত্যিক কাজী মোতাহার হোসেন, মা সাজেদা খাতুন। আনোয়ার হোসেনরা চার ভাই ও সাত বোন।<br><br>কাজী আনোয়ার হোসেন জনপ্রিয় মাসুদ রানা সিরিজের স্রষ্টা। সেবা প্রকাশনীর কর্ণধার হিসেবে তিনি ষাটের দশকের মধ্যভাগে মাসুদ রানা নামক গুপ্তচর চরিত্রকে সৃষ্টি করেন। এছাড়া কুয়াশা নামে আরও একটি জনপ্রিয় চরিত্র তৈরি করেন তিনি। কুয়াশা সিরিজের প্রায় ৭৬টির মতো কাহিনি রচনা করেছেন।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:58:30 1970-01-01 00:00:00 বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় ফের এক নম্বরে ঢাকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113847 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600693_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600693_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কোয়ালিটি ইনডেক্সের (একিউআই) রিপোর্ট অনুসারে পৃথিবীর সবচেয়ে দূষিত শহরের তালিকায় আবার এক নম্বরে উঠে এসেছে ঢাকার নাম।<br><br>বুধবার (১৯ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) ঢাকার স্কোর রেকর্ড করা হয়েছে ২৬৯। যাকে পৃথিবীতে সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর বায়ু বলা হচ্ছে।<br><br>এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের অস্বাস্থ্যকর শহরের তালিকায় ঢাকার পরই রয়েছে চীনের উহান। এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) শহরটির স্কোর ২৫২। আর তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের নয়া দিল্লি। শহরটির একিউআই স্কোর ২১৪।<br><br>এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে ওই এলাকার বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব পড়তে পারে, বিশেষ করে শিশু, বৃদ্ধ ও রোগীরা স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে পারে। আর একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে সেটা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচনা করা। এ অবস্থায় বাড়ির বাইরের চলাচলে সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়।<br><br>এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের সূচক একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত সেটা পরিমাপ করে থাকে। বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে- বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ এবং ওজোন (ও৩)।<br><br>২০১৯ সালের মার্চ মাসে পরিবেশ অধিদপ্তর ও বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিবেদনে ঢাকার বায়ু দূষণের প্রধান তিনিট উৎস চিহ্নিত করে। প্রধান তিনটি উৎস হলো, ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলো।<br><br>জাতিসংঘের দেওয়া একটি তথ্য থেকে জানা যায়, বায়ুদূষণের কারণে প্রতি বছর নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলোতে প্রতি বছর অন্তত ৭০ লাখ মানুষের অকাল মৃত্যু ঘটে।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:57:55 1970-01-01 00:00:00 ৪০ দেশের বুথ থেকে টাকা উত্তোলন, ঢাকায় এসে ধরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113846 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600656_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600656_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, জার্মানি, কানাডা, সৌদি আরব ও স্পেনে গিয়ে এসব দেশের নাগরিকদের ক্রেডিট কার্ড ক্লোন করেন। এরপর টাকা তুলে নেন বুথ থেকে। এভাবে প্রায় ৪০টি দেশের বুথ থেকে টাকা উত্তোলনের পর আসেন বাংলাদেশে। এখানে এসে পুলিশের হাতে ধরা খেলেন এক তুর্কি নাগরিক।<br><br>বুধবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সিটিটিসির প্রধান মো. আসাদুজ্জামান।<br><br>আন্তর্জাতিক এটিএম কার্ড ক্লোনিং স্কেমিং চক্রের এই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার নাম হাকান জানবুরকান। তিনি তুরস্কের নাগরিক। সম্প্রতি ভারতে পুলিশ হেফাজত থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসেন।<br><br>মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর গুলশান-১ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম বিভাগ। তার সঙ্গে গ্রেপ্তার হন বাংলাদেশের নাগরিক মো. মফিউল ইসলাম।<br><br>এ সময় তাদের কাছ থেকে পাঁচটি বিভিন্ন মডেলের ফোন, একটি ল্যাপটপ, ১৫টি ক্লোন কার্ডসহ মোট ১৭টি কার্ড জব্দ করা হয়।<br><br>আসাদুজ্জামান বলেন, গ্রেপ্তার তুরস্কের নাগরিক গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর বাংলাদেশে আসেন। এরপর চলতি বছরের ২-৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের বিভিন্ন বুথে গিয়ে কার্ড ক্লোনিং স্কেমিংয়ের মাধ্যমে শতাধিক বার টাকা উত্তোলনের চেষ্টা করেন। কিন্তু ব্যর্থ হন।<br><br>ইস্টার্ন ব্যাংক অ্যান্টি স্কেমিং টেকনোলজি ব্যবহার করায় অ্যালার্ম সিস্টেমের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারে। ফলে তারা হ্যাকারদের হাত থেকে স্কেমিং রোধ করতে সক্ষম হয়। এই নাগরিক একাধিক পাসপোর্ট ব্যবহার করে বাংলাদেশে এসেছেন বলে জানান সিটিটিসির প্রধান।<br><br>এই কর্মকর্তা বলেন, এর আগে ২০১৬, ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালেও বাংলাদেশে আসেন হাকান জানবুরকান। তখনও তার উদ্দেশ্য ছিল বুথ থেকে টাকা তুলে নেওয়া। সে সময় বাংলাদেশে এসে তার সহযোগী গ্রেপ্তার মফিউল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এই মফিউল ইসলামের ভাই একই অপরাধে গ্রেপ্তার হয়ে ভারতে জেলে রয়েছেন।<br><br>সিটিটিসি প্রধান বলেন, গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর তুরস্কের ওই নাগরিক বাংলাদেশে এসে পল্টনে একটি আবাসিক হোটেলে অবস্থান করেন। এরপর ২-৪ জানুয়ারি ইস্টার্ন ব্যাংকের বিভিন্ন বুথে গিয়ে ক্লোনিংয়ের মাধ্যমে টাকা ওঠানোর চেষ্টা করেন।<br><br>জিজ্ঞাসাবাদে তুরস্কের এই নাগরিক জানান, ভারতের আসামে পল্টন বাজার পুলিশ স্টেশনে এটিএম স্কেমিং মামলায় দুই বাংলাদেশিসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন তিনি। তখন তারা ভারতের বিভিন্ন এটিএম বুথ থেকে প্রায় ১০ লাখ রুপি আত্মসাৎ করেন।<br><br>দেশটিতে জেলে থাকার সময় আগরতলার গোবিন্দ বল্লভ প্যান্ট হাসপাতালে পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় পালিয়ে যান তুরস্কের নাগরিক। পরবর্তী সময়ে এক ভারতীয় ব্যক্তির সহায়তায় দুই লাখ রুপির বিনিময়ে সিকিম হয়ে নেপাল পৌঁছান তিনি। সেখান থেকে ট্রাভেল ডকুমেন্ট সংগ্রহ করে নিজ দেশে ফিরে যান এবং নতুন পাসপোর্ট তৈরি করেন। এই চক্রে একাধিক বাংলাদেশি, তুরস্ক, বুলগেরিয়া, মেক্সিকো, ইন্ডিয়াসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক জড়িত রয়েছে বলে জানা যায়।<br><br>গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে রাজধানীর পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। কার্ড ক্লোনিং অপরাধে আরও কারা জড়িত এসব বিষয় জিজ্ঞাসাবাদে জানা যাবে বলে জানান আসাদুজ্জামান।<br><br>কোন ভিসায় হাকান জানবুরকান বাংলাদেশে এসেছিলেন- জানতে চাইলে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, তিনি ব্যবসায়িক ভিসায় বাংলাদেশে আসেন।<br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:57:18 1970-01-01 00:00:00 সাত ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে ধরল দুদক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113845 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600611_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600611_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ভুয়া এমবিবিএস পাসের সনদ ব্যবহার করে চিকিৎসক হিসেবে রেজিস্ট্রেশন নেওয়া সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।<br><br>বুধবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে দুদকের উপপরিচালক সেলিনা আখতার মনির নেতৃত্বে একটি টিম তাদের রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।<br><br>গ্রেপ্তারের বিষয়টি ঢাকা টাইমসকে নিশ্চিত করেন দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেন।<br><br>যে সাত ভুয়া চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তার হলেন- কুমিল্লার ইমান আলী ও মাসুদ পারভেজ, সাতক্ষীরার সুদেব সেন, টাঙ্গাইলের তন্ময় আহমেদ, চাঁদপুরের মো. মোক্তার হোসাইন, গাজীপুরের মো. কাউসার ও নারায়ণগঞ্জের রহমত আলী।<br><br>গ্রেপ্তার না হওয়া মামলার আসামি ভুয়া চিকিৎসকরা হলেন, ভোলার মো. মাহমুদুল হাসান, ঢাকার মো. আসাদ উল্লাহ, বাগেরহাটের শেখ আতিয়ার রহমান, ফেনীর মো. সাইফুল ইসলাম ও সিরাজগঞ্জের মো. আসলাম হোসেন।<br><br>এছাড়া তাদের সহযোগিতার দায়ে অন্য দুই আসামি হলেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের রেজিস্ট্রার মো. জাহিদুল হক বসুনিয়া ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ বোরহান।<br><br>দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, তারা চীনের স্কুল অব ইন্টারন্যাশনাল এডুকেশন তাইশান মেডিকেল ইউনিভার্সিটি থেকে এমবিবিএস পাসের ভুয়া সনদ নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলেন।<br><br>সচিব বলেন, এর আগে ১২ জন ভুয়া চিকিৎসকসহ বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের রেজিস্ট্রারসহ ১৪ বিরুদ্ধে ২০২০ সালের ২ ডিসেম্বর মামলা করে দুদক। এসব সনদ যাচাই-বাছাই করতে চীনে পাঠায় দুদক।<br><br>দুদক সচিব বলেন, অভিযুক্তদের মধ্যে চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি মাহমুদুল হক নামে একজন ভুয়া চিকিৎসক হাইকোর্টে আগাম জামিন চাইতে গেলে তাকে জামিন না দিয়ে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।<br><br>মাহবুব হোসেন বলেন, রেকর্ডপত্র যাচাইকালে দেখা যায় তাদের এমবিবিএস সার্টিফিকেটগুলো ভুয়া। সবমিলিয়ে তাদের সংখ্যা ১২। এমবিবিএস সনদধারী ওই ব্যক্তিরা কখনো চীনের তাইশান মেডিকেল ইউনিভার্সিটিতে পড়ালেখা করেননি।<br><br>মামলার এজাহারে আরও বলা হয়, এমবিবিএস সনদের সঠিকতা যাচাই করার জন্য সনদপত্রগুলোর অনুলিপি বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ‘স্কুল অব ইন্টারন্যাশনাল এডুকেশন তাইশান মেডিকেল ইউনিভার্সিটি’তে পাঠানো হয়। চীনের ওই ইউনিভিার্সিটি জানায় তাদের কাছে এই ছাত্রদের কোনো রেকর্ড নেই।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:56:33 1970-01-01 00:00:00 পি কে হালদারের অর্থ কেলেঙ্কারি: বাংলাদেশ ব্যাংকের ৪ কর্মকর্তাকে তলব http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113844 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600578_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600578_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারের (পি কে হালদার) সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার কেলেঙ্কারির মামলায় অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের চার কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আগামী ২৪ জানুয়ারি তাদেরকে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হয়ে বক্তব্য দিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।<br><br>দুদকের উপ-পরিচালক ও তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান আনোয়ার প্রধানের সই করা পৃথক নোটিশে তাদের তলব করা হয়েছে। বুধবার দুদকের জনসংযোগ দপ্তর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।<br><br>যাদের তলব করা হয়েছে তারা হলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ ফেরদৌস কবির, এ.বি.এম মোবারক হোসেন, উপপরিচালক মো. হামিদুল আলম ও সহকারী পরিচালক মো. কাদের আলী।<br><br>ক্যাসিনো অভিযানের ধারাবাহিকতায় পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রায় তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগ ওঠে। দুর্নীতির সংশ্লিষ্টতায় এখন পর্যন্ত ৮৩ ব্যক্তির প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার সম্পদ আদালতের মাধ্যমে ফ্রিজ করেছে দুদক। পর্যায়ক্রমে তিন ধাপে এখন পর্যন্ত ৫২ আসামি ও অভিযোগসংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।<br><br>দুদক উপপরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানের নেতৃত্বে একটি টিম পি কে হালদারের আর্থিক কেলেঙ্কারির বিষয়টি অনুসন্ধান করছে। ওই টিম এরই মধ্যে ১৫টি মামলা করেছে। ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা ভুয়া ঋণের নামে উত্তোলন করে আত্মসাতের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানের ৩৭ জনের বিরুদ্ধে ১০টি মামলা এবং ৩৫০ কোটি ৯৯ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস’র ৩৩ শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পৃথক পাঁচটি মামলা করেছে দুদক।<br><br>২০২১ সালের ৮ জানুয়ারি দুদকের অনুরোধে পি কে হালদারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দিয়ে ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। তার কেলেঙ্কারিতে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়েছেন ১১ জন। তাদের মধ্যে উজ্জ্বল কুমার নন্দী, পি কে হালদারের সহযোগী শংখ বেপারী, রাশেদুল হক, অবান্তিকা বড়াল ও নাহিদা রুনাইসহ আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:56:04 1970-01-01 00:00:00 ফুটপাতের টাইলস ভাঙায় দুই বাড়ির নির্মাণকাজ বন্ধ করলেন মেয়র http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113843 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600550_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600550_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রাস্তায় নির্মাণ সামগ্রী রেখে জনসাধারণের চলাচল ব্যহত ও ফুটপাতের টাইলস ভাঙার দায়ে দুইটি বাড়িটির নির্মাণকাজ সম্পূর্ণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।<br><br>বুধবার সকাল পৌঁনে ৯টার দিকে রাজধানীর মহানগর আবাসিক এলাকা ও পশ্চিম রামপুরা এলাকায় ঝটিকা পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন। এ সময় ডিএনসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।<br><br>মেয়র বলেন, ‘শুধু জরিমানা করে ক্ষ্যান্ত হলে চলবে না, নিয়মিত মামলা করে এদের বিরুদ্ধে স্থায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।’<br><br>ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘নগরবাসীর সেবা সুনিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে দায়িত্বে এসেছি। জনসাধারণ কষ্ট করবে, অন্যরা বাড়ি বানাবে রাস্তায় মালামাল রেখে তা হতে দেওয়া যায় না। শহরের বারটা বাজিয়ে কাউকে ব্যক্তিগত ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না।’<br><br>তিনি বলেন, ‘কেউ ড্রেন বন্ধ করে দোকান বসিয়েছে, কেউ সরকারি পঁয়সায় করা চমৎকার রাস্তা-ফুটপাত দখল করে বাড়ি নির্মাণ করছে। এগুলো অন্যায়, এগুলো মেনে নেওয়া যায় না।’<br><br>সাধারণ মানুষের কাছে এই অন্যায়গুলোর সামাজিক প্রতিরোধের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের নিজেদের এগিয়ে আসতে হবে। আমরা সকলে মিলে সচেতন হলে কেউ ফুটপাত রাস্তা বন্ধ করতে পারবে না। কেউ ড্রেনে পানি প্রবেশের লাইন বন্ধ করতে পারবে না।’<br><br>অব্যবস্থাপনার দায়ে কয়েকটি দোকানমালিকের ট্রেড লাইসেন্স পরীক্ষা করে জরিমানারও নির্দেশ দিয়েছেন উত্তর সিটি মেয়র। এ সময় অনুমোদন না থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে কয়েকটি দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়।<br><br>এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় গুলশান-২ নগর ভবনের সামনে থেকে মেয়র আতিকুল ইসলাম মহানগর আবাসিক এলাকার দিকে রওনা দেন।<br><br>এ সময় অন্যদের মধ্যে করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জোবায়দুর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহ. আমিরুল ইসলাম, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এস এম শরিফুল-উল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। <br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:55:29 1970-01-01 00:00:00 রমজানে নিত্যপণ্যের মূল্য স্বাভাবিক রাখতে ডিসিদের নির্দেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113842 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600509_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600509_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আসন্ন রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে এখন থেকেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে সরকার। ওই সময়ে দ্রব্যমূল্য ঠিক রাখতে জেলা প্রশাসকদের শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে বলেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।<br><br>মন্ত্রী বলেন ‘ডিসিদের বলেছি, সামনে রমজান মাস আসছে, কিছু কিছু জিনিসের দাম আমরা ঠিক করে দেই। সেগুলো কঠোরভাবে তদারকি করতে হবে। সে সময় যেন তারা খুব শক্ত ভূমিকায় থাকেন, আইনগত ব্যবস্থা যেন নেন।’<br><br>রাজধানীর ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে ডিসি সম্মেলনে অংশ নিয়ে বুধবার সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।<br><br>কোরবানি ঈদের সময় চামড়া কেনাবেচা ইস্যুতেও ডিসিদের শক্ত অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানান টিপু মুনশি। তিনি বলেন, ‘কোরবানির সময় চামড়া কেনাবেচার বিষয়টি যেন তদারকি করেন। কেউ যাতে দাম থেকে বঞ্চিত না হন।’<br><br>ডিসিদের সঙ্গে কী বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ডিসিদের ওপর আমাদের অনেকখানি নির্ভরতা আছে। জিনিসপত্র যখন মফস্বল থেকে আসে চাঁদাবাজিতে যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, দাম যাতে না বাড়ে, মধ্যস্বত্বভোগী যাতে কমিয়ে আনা যায়, কৃষক যাতে ন্যায্য দাম পায়- এসব ব্যাপারে তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে।’<br><br>এ সময় ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির বিষয়েও কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর ২০ লাখ টন ভোজ্যতেল দরকার হয়। দেশে ২ লাখ টন উৎপাদিত হয়। বাইরে থেকে তেল আনতে হয় বলে আন্তর্জাতিক বাজারে যখন দাম বাড়ে, তখন দেশেও এর প্রভাব পড়ে। এখন তেলের কনটেইনারের দাম যেটা দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা ছিল, সেটার দাম ৮-১০ হাজার হয়েছে।<br><br>‘যার ফলে দামের ওপর প্রভাব পড়ে। ফলে দেড়-দুই মাস পর পর বসে দাম অ্যাডজাস্ট করতে হচ্ছে। এটা না করলে সামনে রমজান মাস তারা তো এলসি ওপেন করবে না, সেটা আরও ভয়াবহ হবে। এ জন্য তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে, আগামী মাসের ৬-৭ তারিখে বসে আন্তর্জাতিক বাজার এবং এর সঙ্গে আনুষঙ্গিক খরচ মিলিয়ে দাম নির্ধারণ করব। এ বিষয়ে আজ আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’<br><br>ব্যবসায়ীদের এলসি না খোলার প্রবণতার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, ‘যদি ব্যবসায়ী দেখে লস হবে, তখন কী সরকার তাকে ফোর্স করতে পারে? এ জন্য তাদের সঙ্গে চুক্তি করতে হবে। আমাদের দেখতে হবে তারা যাতে বেশি লাভ করতে না পারে। লস দিয়ে তারা তো আমদানি করবে না।’ <br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:54:47 1970-01-01 00:00:00 যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি চালু: ফ্লাইট বাতিল করলো বেশ কয়েকটি বিমান সংস্থা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113841 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600044_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642600044_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি চালুর জেরে বেশ কয়েকটি ফ্লাইটের সিডিউল পরিবর্তন বা বাতিল করেছে আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন্সগুলো।<br><br>মোবাইল ফোনে ৫জির সংযোগ ও বিমান চলাচলের জটিল প্রযুক্তির সঙ্গে এর সংশ্লিষ্টতা এ সংকট তৈরি করেছে।<br><br>মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনের খবরে বলা হয়, আমিরাত, এয়ার ইন্ডিয়া, অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ, জাপান এয়ারলাইন্স ও লুৎফুন্নেছার মতো এয়ারলাইন্সগুলো এ ইস্যুটিকে কেন্দ্র করে ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা দেয়।<br><br>আমিরাত বলছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রের নয়টি বিমানবন্দরে ফ্লাইট বাতিল করেছে। এ বিমানবন্দরগুলো হলো- বোস্টন, শিকাগো ও’হেয়ার, ডালাস ফোর্ট ওয়ার্থ, হোস্টনের জর্জ বুশ ইন্টারকন্টিনাল, মিয়ামি, নেওয়ার্ক, ওরল্যান্ডো, স্যান ফ্রান্সিসকো ও শিয়াটল।<br><br>আশঙ্কা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে বিমানবন্দরের কাছাকাছি ৫-জি পরিষেবা বিমানের মূল নিরাপত্তা ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।<br><br>৫-জি পরিষেবার জন্য খারাপ আবহাওয়ায় অবতরণের সময় ব্যবহৃত সংবেদনশীল নেভিগেশন সরঞ্জামগুলোর ক্ষতি হতে পারে। এই কারণেই এ রকম সিদ্ধান্তের পথে হাঁটছে বিমান সংস্থাগুলো।<br><br>জাপানের বিমান সংস্থাগুলো এবং এএনএ হোল্ডিংস ইনকর্পোরেটেড মঙ্গলবার জানিয়েছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রের নির্দিষ্ট কিছু রুটে বিমান চালানো বন্ধ করবে। তারা যুক্তরাষ্ট্রে নিজেদের ৭৭৭ জেট বিমানের উড়ান বন্ধ রাখবে বলেও জানিয়েছে।<br><br>কোরিয়ান বিমান সংস্থাগুলো জানিয়েছে, তাদের ৭৭৭ এবং ৭৪৭-৮ বিমানগুলো ৫-জি পরিষেবার জন্য প্রভাবিত হয়েছে এবং বিমানগুলোর রুট পরিবর্তন করছে। এয়ার ইন্ডিয়া লিমিটেডও সতর্ক করেছে যে, ১৯ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাষ্ট্রে বিমান যাওয়া-আসার সংখ্যা হ্রাস পাবে।<br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:46:51 1970-01-01 00:00:00 বিএনপির সমর্থক হয়ে থাকব, অন্য দলে যাবো না: তৈমূর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113840 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642599993_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642599993_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে লড়ে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পর দল থেকেও বহিষ্কার হয়েছেন অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। এ নিয়ে খুব বেশি আক্ষেপ না করে বললেন, ‘বিএনপি বহিষ্কার করলেও দল পরিবর্তন করব না, অন্য কোনো দলেও যোগ দেব না। দলের একজন অনুগত কর্মী হিসেবেই কাজ করে যাব।’<br><br>বুধবার নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর এলাকায় নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।<br><br>গত ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে হাতি প্রতীকে নির্বাচন করেন তৈমূর আলম খন্দকার। এই নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেওয়ায় তিনি স্বতন্ত্র হিসেবে অংশ নেন।<br><br>নির্বাচনের কয়েক দিন আগে তাকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।<br><br>এরমধ্যে মঙ্গলবার বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে দল থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়।<br><br>চিঠিতে বলা হয়, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপির গঠনতন্ত্র মোতাবেক দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সব পদ থেকে তৈমূর আলম খন্দকারকে বহিষ্কার করা হলো।<br><br>একই দিন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকেও বহিষ্কার করা হয়। তিনি তৈমূর আলমের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ছিলেন।<br><br>সংবাদ সম্মেলনে তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, ‘বিএনপির যারা আমাকে নির্বাচন চলাকালে অব্যাহতি দিয়েছিল, এখন বহিষ্কার করেছে। এর অর্থ হলো তৈমূরকে ভোটটা দিও না। তারাই পল্টন অফিস থেকে আমার অনেক নেতাকে বলেছিল তৈমূরের পক্ষে যেও না। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের বিএনপি তো ভোটটা দেবে, কাকে দেবে? তাদের কথায় প্রমাণ হয় ভোটটা নৌকায় যাবে, এটাই চেয়েছিল তারা। আমি ভাবতেও পারিনি দলীয় মহাসচিবের কথা কচুপাতার পানিতে পরিণত হবে। কারণ, মহাসচিব বলেছিলেন- দলগতভাবে বিএনপি নির্বাচনে যাবে না, কিন্তু কেউ ব্যক্তিগতভাবে স্থানীয় নির্বাচনে গেলে দলের কোনো আপত্তি থাকবে না।’<br><br>নাম না উল্লেখ করে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় কেন্দ্রিক কিছু নেতার প্রতি ইঙ্গিত করে তৈমূর বলেন, ‘কেন্দ্র থেকে বা দল থেকে তো আমাকে একবারের জন্যও বলেনি আপনি নির্বাচন কইরেন না। তাহলে দলের যারা পল্টন অফিসে বসে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের আমার নির্বাচনে যেতে নিষেধ করেছিল তারা অবশ্যই চেয়েছিল ভোটটা নৌকায় পড়ুক।‘<br><br>সামনের দিনের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘দল আমাকে রাজপথের আন্দোলন সংগ্রাম থেকে মুক্তি দিয়েছে, এখন আমার সামনে দুটি কাজই খুঁজে পেয়েছি। একটি হল যাকে আমি মায়ের মতো শ্রদ্ধা করি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য এবং ভোট ডাকাতির মেশিন ইভিএমের বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি করা।’<br><br>খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ করেন সদ্য বহিষ্কৃত এই বিএনপি নেতা। তিনি বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ করেবা তিনি যেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেন। ইতিহাসে আপনার নাম লেখা থাকবে। যদি অনুমতি না দেন, তবে কি বিপর্যয় হবে সেটা ভবিষ্যত বলে দেবে।<br><br>নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে বহিষ্কার প্রসঙ্গে তৈমূর বলেন, ‘আমার ক্ষেত্রে যা করার করেছে কিন্তু এটিএম কামালের মতো নেতাকে বহিষ্কার করা আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের শামিল। কারণ, বিএনপি করতে গিয়ে ত্যাগী এটিএম কামাল বহুবার মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেছেন। আরেকজন এটিএম কামাল সৃষ্টি করা নারায়ণগঞ্জে খুবই কঠিন হবে।’<br><br>পরাজিত প্রার্থী তৈমূর বলেন, ‘অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান থাকবে কেউ ইভিএম মেনে নেবেন না। এটা ভোট ডাকাতের বাক্স। আমাদের দেশের আমলাতন্ত্র মেরুদণ্ডহীন। ঔপনিবেশিক প্রশাসনিক আমলের আদলে চলছে এখনো। তাদের পক্ষ থেকে নিরপেক্ষ ভূমিকা আশা করা যায় না। ইভিএমে নির্বাচনে গেলে কোনোভাবেই ভোট ডাকাতি রুখতে পারবে না জনগণ।’<br><br>তৈমূর বলেন, ‘আমি মনে করি রাজনীতি করতে গেলে একটা দল থাকতে হয়। কিন্তু পদ পদবি দরকার হয় না। ব্যক্তি ইমেজ ভালো থাকলে জনগণ এমনিতেই আপনার পাশে থাকবে। নির্বাচন কমিশন একটা মিথ্যার ফ্যাক্টরি, প্রশাসন একটা মিথ্যার ফ্যাক্টরি। জনগণ এখন মিথ্যার কষাঘাতে জর্জড়িত। এই মিথ্যার বিরুদ্ধে দাঁড়ানোই হবে আমার কাজ। আমি জাতীয়তাবাদী ইসলামি মূল্যবোধে বিশ্বাসী। আমি না হয় বিএনপির কর্মী বা সমর্থক হয়ে থাকব। সমর্থককে তো আর বহিষ্কার করতে পারবে না। আমি বিএনপির সমৃদ্ধি কামনা করি, তারেক রহমানের বাংলাদেশে আগমন কামনা করি। তার সুস্বাস্থ্য কামনা করি। একই সঙ্গে বেগম খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি কামনা করি।’<br><br><br><br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-19 19:46:13 1970-01-01 00:00:00 প্রশাসন ক্যাডাররা যেতে চান জাতিসংঘ মিশনে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113839 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642599951_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/19/1642599951_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বর্তমানে জাতিসংঘ মিশনে দেশের সেনা, নৌ, বিমানবাহিনীসহ পুলিশ ও আনসার সদস্যরা কাজ করছেন। এ বিষয়ে আন্তবাহিনী সমন্বয়ের প্রয়োজন আছে। তাই বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তারা জাতিসংঘ শান্তি মিশনে যেতে চান।<br><br>জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত আলোচনার জন্য লিখিত এ প্রস্তাব দেন রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার।<br><br>বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত আলোচনা শেষে সাংবাদিকরা এ প্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কে এম আলী আজম বলেন, ইউএন মিশনের বিষয়টি নির্ভর করে যে দেশে ইউএন মিশন যাবে এবং সেখানে ইউএনের তরফ থেকে চাহিদার ওপর ভিত্তি করে।<br><br>যেসব দেশের লোকজন ইউএন মিশনে বেশি কাজ করেন, সেসব দেশের লোকজন এ সুযোগ-সুবিধাগুলো পান। এ বিষয়ে জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।<br><br>করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় সর্বোচ্চ সতর্কতা মানার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ডিসি সম্মেলনে। এ বিষয়ে জনপ্রশাসনসচিব বলেন, ওমিক্রন খুব বেশি ছড়াচ্ছে। ডিসিরা আগে যেমন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন, আগের মতো এখনো সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা পর্যায়ে যাতে সব কার্যক্রম পরিচালিত হয়, এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।</body></HTML> 2022-01-19 19:37:09 1970-01-01 00:00:00 বিএনপি থেকে তৈমূর আলম বহিষ্কার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113838 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570460_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570460_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক তৈমূর আলম খন্দকারকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বহিষ্কারের ঘোষণা দেয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির গঠনতন্ত্র মোতাবেক দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পদ থেকে তৈমূর আলম খন্দকারকে বহিষ্কার করা হল।<br><br>নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পরাজয়ের এক দিন পর তাঁর ব্যাপারে দল এই সিদ্ধান্ত নিল। নির্বাচনের আগে তাঁর দলীয় পদ ‘প্রত্যাহার’ করে নিয়েছিল দলটি। একই দিনে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামালকেও দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। <br><br>চিঠিতে এ টি এম কামালের উদ্দেশে বলা হয়েছে, ‘দলীয় শৃঙ্খলাপরিপন্থী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির গঠনতন্ত্র মোতাবেক আপনাকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হলো।’ <br>উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকারের সঙ্গে কোনো বিএনপি নেতা-কর্মী থাকলে তাদের বিরুদ্ধে দল থেকে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল আগেই। এরই ধারাবাহিকতায় বহিষ্কার হলেন এ টি এম কামাল। <br>এ টি এম কামাল সিটি নির্বাচনে তৈমূর আলম খন্দকারের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।</body></HTML> 2022-01-19 11:33:55 1970-01-01 00:00:00 মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় সাংবাদিক নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113837 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570372_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570372_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন দৈনিক সময়ের আলোর সিনিয়র রিপোর্টার এবং ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির and nbsp; ‘ডিআরইউ’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাবীবুর রহমান। মঙ্গলবার মধ্যরাত আড়াইটার দিকে রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, বেগুনবাড়ি সিদ্দিক মাস্টার ঢালে মসজিদের সামনে একটি মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডের সঙ্গে ধাক্কা খায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ওই মোটরসাইকেল আরোহীকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। <br><br>পরে সঙ্গে থাকা আইডি কার্ড থেকে নিশ্চিত করা যায় যে নিহত ব্যক্তি দৈনিক সময়ের আলো পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার। and nbsp; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর হাবীবুর রহমান সময়ের আলোতে যোগদানের আগে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে কাজ করেছেন। <br>ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাবীবুর রহমান সময়ের আলো পত্রিকায় আওয়ামী লীগ বিটের রিপোর্টার ছিলেন।</body></HTML> 2022-01-19 11:32:26 1970-01-01 00:00:00 জালিয়াতি চক্রের মাধ্যমে এনআইডি নেন আরসা নেতার ভাই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113836 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570244_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570244_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আরাকান স্যালভেশন আর্মির (আরসা) প্রধান আতাউল্লাহর ভাই ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে জালিয়াতি চক্রের মাধ্যমে এনআইডি নেন বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কর্মকর্তারা। তারা জানান,আতাউল্লাহর ভাই শাহ আলী ২০১৮ সালে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেছিলেন। ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে ইসির সার্ভারে তার নাম তুলে দেয়া হয়েছিল। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান গতকাল গণমাধ্যমকে জানান, শাহ আলীর আবেদনপত্রে তেমন কিছুই নেই। ভোটার হতে হলে অনেকগুলো প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়। এনআইডিটি ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় তখন থেকেই তা অকার্যকর আছে।<br><br>এ বিষয়ে উখিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সালাউদ্দিন জানান, শাহ আলী কীভাবে এনআইডি নিয়েছেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। এদিকে শাহ আলী চট্টগ্রাম নগরের দেওয়ান বাজারের জয়নাব কলোনির স্থায়ী বাসিন্দা বলে পরিচয় দিলেও তাকে সেখানকার বাসিন্দারা চেনেন না। জানা গেছে, ইসির এনআইডি সার্ভারে শাহ আলীর যে নিবন্ধন ফরমটি (ফরম-২) ব্যবহার করা হয়েছে, তা কেবল এক পৃষ্ঠার। সাধারণত নিবন্ধন ফরম দুই পৃষ্ঠার হয়। এখানে ফরমের দ্বিতীয় পৃষ্ঠাটি নেই। ওই পৃষ্ঠায় তথ্য সংগ্রহকারী, শনাক্তকারী ও যাচাইকারীর নাম ও এনআইডি নম্বর থাকে।<br><br>ইসি সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে লাকী নামের এক নারী স্মার্ট কার্ড তুলতে গেলে বেরিয়ে আসে এনআইডি জালিয়াতির বিষয়টি। কমিশনের হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ ব্যবহার করে চক্রটি রোহিঙ্গা এবং অন্যদের ভোটার করত বলে তদন্তে উঠে এসেছে।<br>গত রোববার শাহ আলীকে অস্ত্র, মাদকসহ গ্রেপ্তারের পর উখিয়া থানায় করা পুলিশের মামলার এজাহারে তার কাছ থেকে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়া কথা উল্লেখ করা হয়। এর আগে শাহ আলীকে উখিয়ার কুতুপালং ৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নৌকার মাঠ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।</body></HTML> 2022-01-19 11:30:17 1970-01-01 00:00:00 স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113835 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570171_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642570171_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রাজবাড়ীর পাংশার মাছপাড়া এলাকায় লিপি বেগম নামে এক নারীকে (৩০) কুপিয়ে হত্যা করেছে স্বামী রুবেল সরদার। বুধবার সকাল ৮টার দিকে মাছপাড়া ইউনিয়নের কালীনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্বামী রুবেল সরদারকে আটক করেছে পুলিশ। জানা গেছে, ওই নারীর স্বামী রুবেল সরদার মাছের ব্যবসা করতেন। কিন্তু এখন কিছুই করেন না। এ নিয়ে তাদের সংসারে প্রায় ঝামেলা হতো। বুধবার সকালে দা দিয়ে লিপিকে কুপিয়ে হত্যা করেন রুবেল। পরে স্থানীয়রা তাকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়।<br><br>পাংশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীর স্বামীকে আটক করেছেন।</body></HTML> 2022-01-19 11:28:42 1970-01-01 00:00:00 সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে চুপ থাকবে না বাংলাদেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113834 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569970_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569970_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাংলাদেশ সব দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে চায়, কারও সঙ্গে বৈরীতা চায় না। তবে আঘাত এলে বাংলাদেশ প্রতিঘাত করবে ​বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, কারও সঙ্গে যুদ্ধ নয়। তবে সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে চুপ করে বসে থাকবে না বাংলাদেশ। বুধবার সকালে সোয়া ১০টার দিকে ডিএসসিএসসি কোর্স-২০২১-২২ সমাপনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি গণবভন থেকে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যোগ দেন।<br><br>সেনাবাহিনীর সদস্যের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশেকে ভালো বাসতে হবে, দেশে জন্য নিবেদিত হতে হবে। মাথা উঁচু করে চলতে হবে।<br>নিজেকে সেনাপরিবারের সদস্য উল্লেখ করে শেখ হাসিনা আরও বলেন, আমার দুই ভাই আর্মি অফিসার ছিল। ক্যাপ্টেন শেখ কামাল একজন উদ্যমী সৃজনশীল ও প্রাণবন্ত সেনা অফিসার ছিলেন। ঢাকা সেনানিবাসস্থ দ্বিতীয় ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পদে যোগদান করেন শেখ জামাল। বক্তব্যে সেনা নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে মিয়ানমারের প্রতি তাগাদা দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত আছে।</body></HTML> 2022-01-19 11:25:07 1970-01-01 00:00:00 রাশিয়া যেকোনো মুহূর্তে ইউক্রনে আক্রমণ করতে পারে: যুক্তরাষ্ট্র http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113833 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569825_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569825_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>রাশিয়া যেকোনো মুহূর্তে ইউক্রেনে আক্রমণ করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার কূটনীতিকদের মধ্যে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠককে সামনে রেখে মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) এমন তথ্য জানাল দেশটি। প্রেস সচিব জেন সাকি বলেন, 'আমরা এমন একটা পর্যায়ে আছি যেখানে রাশিয়া যেকোনো মুহূর্তে ইউক্রেনে আক্রমণ শুরু করতে পারে।'<br><br>সাকির ইউক্রেন ঘিরে পরিস্থিতির এমন চরিত্রায়ন প্রকাশ্যে আসলো যখন আগামী শুক্রবার জেনেভায় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এন্টনি ব্লিনকেনের সঙ্গে রাশিরার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের বৈঠকের কথা রয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা বলেন, ব্লিনকেনের লক্ষ্য রাশিয়াকে ইউক্রেন থেকে পিছিয়ে আনতে কূটনৈতিক পথ বের করা। সীমান্তে রাশিয়ার সেনা মোতায়েনে ইউক্রেন, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় দেশগুলো গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। যদি মস্কো বারবার হামলার পরিকল্পনার কথা অস্বীকার করেছে।<br><br>সূত্র: এনডিটিভি <br></body></HTML> 2022-01-19 11:21:52 1970-01-01 00:00:00 যে কারণে স্বামীর হাতে খুন হলেন চিত্রনায়িকা শিমু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113832 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569672_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642569672_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">গেলো সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকালে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকা থেকে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর (৩৫)বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শিমুকে হত্যা করার অভিযোগে তার স্বামী শাখাওয়াত আলীম নোবেল ও তার বন্ধু ফরহাদকে গ্রেপ্তার করেছে কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। নিহতের বড় ভাই শহীদুল ইসলাম খোকন বাদী হয়ে মামলাটি করেন।<br><br>এদিকে শিমুর মরদেহ উদ্ধারের পর তাকে হত্যার তীর যায় চিত্রনায়ক জায়েদ খানের দিকে। তবে জল বেশি দূর গড়ানোর আগেই ফাঁস হয় হত্যা রহস্য। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে শিমুর খুনি। সম্পর্কে যিনি এই অভিনেত্রীর স্বামী। প্রথমে শিমুর স্বামী নোবেল ও বন্ধু ফরহাদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের সংশ্লিষ্টতা প্রতীয়মান হওয়ায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।<br><br>দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক ও দাম্পত্য জীবনে কলহ থাকায় শিমুকে হত্যা করেছেন বলে জানায় নোবেল। আর হত্যার পর লাশ গুমের জন্য তার বন্ধু ফরহাদের সহযোগিতা নেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নোবেল তার স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। শিমু হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে চিত্রনায়ক জায়েদ খান বলেন, 'শিমুর সাথে গত দুই বছরে আমার দেখা বা কথা হয়নি। আর এখন যা দেখছেন তা হলো সামনে ৩-৪ জনকে রেখে পেছনে কলকাঠি নাড়ছেন অন্য কেউ। আমি দুই টার্ম নির্বাচিত হয়েছি, আমার সাফল্য অনেকেরই পছন্দ হচ্ছে না। শিমুর হত্যাকারীকে যদি র‍্যাব আজকে না ধরতো তাহলে আমার বিরুদ্ধে আন্দোলন হতো এফডিসিতে। আমার কি হইতো খালি চিন্তা করেন একবার! আমি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাতে চাই র‍্যাব ও পুলিশকে।'<br><br>প্রসঙ্গত, অভিনেত্রী শিমুর ১৯৯৮ সালে সিনেমায় অভিষেক হয়। তিনি প্রায় ২৫টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া অর্ধশতাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। এ ছাড়া তিনি একটি টিভি চ্যানেলের মার্কিটিং বিভাগে কর্মরত ছিলেন। শিমু চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী সমিতির সদস্যপদ হারানো ১৮৪ জনের মধ্যে একজন। তিনি ভোটাধিকার ফিরে পেতে আন্দোলন করছিলেন।</body></HTML> 2022-01-19 11:20:20 1970-01-01 00:00:00 এক উপাদান ব্যবহারেই দূর হবে শরীরের ফাটা দাগ! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113831 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513574_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513574_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">শরীরের ফাটা দাগ বা স্ট্রেচ মার্ক নিয়ে অনেকেই চিন্তিত থাকেন। কারণ এই দাগ একবার প্রকাশ পেলে তা আর সহজে ঠিক করা যায় না। অনেকেই বাজারচলতি বিভিন্ন প্রসাধনী যেমন তেল বা ক্রিম ব্যবহারে এই দাগ দূর করার চেষ্টা করেন। তবে তাতেও কাজ হয় না।<br><br>আসলে শরীরের ওজন বৃদ্ধি বা হ্রাসের কারণে স্ট্রেচ মার্ক দেখা দেয়। এ ছাড়াও গর্ভাবস্থায় নারীর শরীরে স্ট্রেচ মার্কের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ময়েশ্চারাইজেশন অপরিহার্য।<br><br>এজন্য বাজারের বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার না করে বরং ঘরোয়া উপায়ে এ সমস্যার সমাধান করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে বিশেষ এক উপাদান।<br><br>আর তা হলো শিয়া বাটার। এই একটি উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমেই শরীরের ফাটা দাগ থেকে সহজেই মিলবে মুক্তি। জেনে নিন কীভাবে ব্যবহার করবেন শিয়া বাটার-<br><br>এজন্য ১ টেবিল চামচ শিয়া বাটার নিন। ডাবল বয়লার পদ্ধতিতে শিয়া বাটারে বাটি গরম পানির উপরে রেখে গলিয়ে নিন। তারপর একটু ঠান্ডা করেই শরীরের ফাটা দাগগুলোতে ব্যবহার করে ম্যাসাজ করুন আঙুল দিয়ে।<br><br>এটি ত্বকে ২০-৩০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। এরপর একটি ভেজা তোয়ালে দিয়ে মুছে ফেলুন। নিয়মিত শিয়া বাটার ব্যবহারের মাধ্যমে দেখবেন ধীরে ধীরে ফাটা দাগ ভরাট হয়ে যাবে।<br><br>এ ছাড়াও ভালো ফলাফলের জন্য শিয়া বাটার দিয়ে প্যাকও তৈরি করতে পারেন। জেনে নিন উপায়-<br><br> and gt; এজন্য ব্যবহার করতে পারেন শিয়া বাটার, ক্যাস্টর অয়েল ও লেবুর রসের মিশ্রণ। এজন্য আধা কাপ শিয়া বাটার গলিয়ে নিন। এরপর এতে ২ টেবিল চামচ তাজা লেবুর রস ও কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল ভালো করে মিশিয়ে নিন।<br><br>এবার শরীরের ফাটা দাগের উপর বৃত্তাকার গতিতে আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন। আধা ঘণ্টা পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপনি এটি প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারেন।<br><br> and gt; শিয়া বাটার, অ্যালোভেরা ও অলিভ অয়েল ব্যবহারেও ভালো ফল পাবেন। এজন্য আগে শিয়া বাটার গলিয়ে তার সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল ও অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন।<br><br>এবার অল্প পরিমাণে মিশ্রণটি নিয়ে স্ট্রেচ মার্কের ওপর লাগিয়ে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করুন। যতক্ষণ না ত্বক এটি শুষে নেয় ততক্ষণ এটি রেখে দিন। প্রদিন ব্যবহার দ্রুত ফাটা দাগ দূর হবে।<br><br> and gt; শিয়া বাটার ও গোলাপ জলের মিশ্রণও ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য একইভাবে শিয়া বাটার গলিয়ে এর সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে ফাটা দাগে ব্যবহার করুন। এটি ২০-৩০ মিনিট ত্বকে রেখে দিন ও পরে ভেজা তোয়ালে দিয়ে মুছে ফেলুন।<br><br> and gt; স্ক্রাবিংও করতে পারে ফাটা দাগের উপর। এজন্য শিয়া বাটার, চিনি ও আমন্ড অয়েল মিশিয়ে তৈরি করুন স্ক্রাব। এরপর মিশ্রণটি স্ট্রেচ মার্কের উপরে লাগিয়ে প্রায় ৩-৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন।<br><br>ত্বকে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত এসব উপায়ে শিয়া বাটার ব্যবহারের মাধ্যমে দ্রুত শরীরের ফাটা দাগ থেকে মুক্তি পাবেন।<br><br>সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:45:53 1970-01-01 00:00:00 দীর্ঘক্ষণ প্রস্রাব চেপে রাখলে হতে পারে যে মারাত্মক বিপদ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113830 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513533_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513533_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">প্রস্রাব শরীরের সুস্থতার ইঙ্গিত দেয়। প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে নানা ধরনের ক্ষতিকর পদার্থ বেরিয়ে যায়। তবে অনেকেরই অভ্যাস রয়েছে প্রস্রাব চেপে রাখার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই অভ্যাস ঢেকে আনতে পারে মারাত্মক সমস্যার।<br><br>১০-১৫ মিনিট প্রস্রাব চেপে রাখলে তেমন সমস্যা নেই। তবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা প্রস্রাব চেপে রাখলে দেখা দিতে পারে ঘোর সমস্যা। সেক্ষেত্রে আপনার এই অভ্যাস আজই বদলান।<br><br>​বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রত্যেকেরই উচিত প্রস্রাব পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই টয়লেট করে ফেলার। পানি পান করার পর শরীরের প্রয়োজনের ব্যতিত বাকিটা কিডনিতে জমা হয়। এরপর শরীরের অন্যান্য খারাপ উপাদানের সঙ্গে পানি ব্লাডারে জমে।<br><br>ব্লাডার যখন পূর্ণ হয় পানিতে তখনই ব্রেইনে সংকেত যায় প্রস্রাব পেয়েছে। সেই সংকেত পাওয়ার পরই মূত্রত্যাগ করা জরুরি। জেনে নিন প্রস্রাব চেপে রাখলে সেব ক্ষতি হতে পারে-<br><br>​কিডনি থেকে বের হওয়ার পর মূত্র যায় ব্লাডারে। সেখানেই জমে মূত্র। আমাদের ব্লাডার একবারে ৪০০-৫০০ মিলিমিটার মূত্র ধরে রাখতে পারে। যার পরিমাণ মোটামুটি দুই কাপ। এর বেশি হলেই ব্লাডারের উপর চাপ পড়ে।<br><br> and gt; তাই এ পরিমাণ মূত্র ব্লাডারে পৌঁছালেই তা খালি করে দেওয়া উচিত। যদিও এক-দুইদিন এমন সমস্যা হলে তেমন কোনো সমস্যা হয় না। তবে দিনের পর দিন এমনটি হলে ব্লাডারের উপর মারাত্মক চাপ পড়ে। এরপর ব্লাডারের অসুখ হতে দেখা যায়।<br><br>​ধরুন আপনি রোজই প্রস্রাব চেপে রাখছেন। এর মাধ্যমে ব্লাডারের অসুখ হওয়া খুব স্বাভাবিক। তবে এক্ষেত্রে একটা সময়ের পর ব্লাডার নিজের ক্ষমতাও হারাতে থাকে। তখন প্রস্রাব ধরে রাখলে তলপেটে প্রচণ্ড ব্যথা হতে পারে। তাই এ অভ্যাস থেকে আজই মুক্তি পাওয়া উচিত।<br><br>​ and gt; and gt; ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা ইউটিআিই খুবই জটিল ধরনের এক সংক্রমণ। এক্ষেত্রে দীর্ঘক্ষণ টয়লেট চেপে রাখার কারণে মানুষ এই সমস্যায় আক্রান্ত হতে পারেন।<br><br>প্রস্রাব চেপে রাখলে জীবাণুরা শরীরে বেশিক্ষণ থাকার সুবিধা পায়। তখন দেখা দেয় নানা সমস্যা। এক্ষেত্রে প্রস্রাব করার সময় জ্বালা, ইউরিনের রং বদলে যাওয়া, তলপেটে ব্যথা, ইউরিনে গন্ধ ইত্যাদি সমস্যা দেখা যায়।<br><br>​দিনে কতবার প্রস্রাব করবেন?<br><br>যদিও এ বিষয়টি একেকজনের শরীরের উপর নির্ভর করে। ফলে প্রস্রাবও সবার শরীরে সমান তৈরি হয় না। তবে দিনে ৪-১০ বার প্রস্রাব হলো স্বাভাবিক।<br><br>এক্ষেত্রে ৬-৮ বার হলো প্রস্রাবের গড়। সুস্থ থাকতে প্রস্রাব পেলেই দ্রুত টয়লেটে যেতে হবে। না হলেই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাবে।<br><br>সূত্র: হেলথলাইন<br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:45:10 1970-01-01 00:00:00 হঠাৎই সর্দি-গলাব্যথা, ওমিক্রনের লক্ষণ নয় তো? http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113829 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513493_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513493_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সবাইকে ভাবাচ্ছে। ডেল্টার পর ওমিক্রন আগমনের পর থেকেই রূপ বদল করেছে কোভিড। সঙ্গে বদলে গিয়েছে রোগের কিছু উপসর্গও। প্রথমে করোনা আক্রান্ত রোগীর বেশিরভাগই হারিয়েছেন স্বাদ-গন্ধের অনুভূতি।<br><br>তবে ওমিক্রনের ক্ষেত্রে এই বিষয়টি আবার প্রকাশ পাচ্ছে না। ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্য দফতরের সমীক্ষা বলছে, ওমিক্রনের সংক্রমণে স্বাদ-গন্ধ লোপ পাওয়ার উপসর্গ বিশেষ দেখা যাচ্ছে না।<br><br>১ লাখ ৭৪ হাজার ৭৫৫ জন ওমিক্রন আক্রান্ত ও ৮৭ হাজার ৯৩০ জন ডেল্টা আক্রান্ত রোগীর উপরে এই সমীক্ষা করেছে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য দফতর।<br><br>গবেষণার তথ্য অনুযায়ী দেখা গেছে, ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে শতকরা ১৩ জন হারিয়েছেন স্বাদ ও গন্ধের অনুভূতি। তবে মোট রোগীর অর্ধেরও বেশি অর্থাৎ ৫৪ শতাংশই গলা ব্যথা অনুভব করছেন।<br><br>অন্যদিকে ডেল্টা আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৩৪ শতাংশ রোগীর ক্ষেত্রে দেখা গেছে গলা ব্যথা ও স্বাদ গন্ধ হারানোর উপসর্গ। এসব উপসর্গ ছাড়াও নাক দিয়ে পানি পড়া, জ্বর, কাশি বা ক্লান্তির মতো উপসর্গগুলো তো আছেই।<br><br>সব মিলিয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ দিয়েছেন, এ সময় হঠাৎ করেই সর্দি কিংবা গলাব্যথা হলে স্বাদ-গন্ধের অনুভূতি হারানোর অপেক্ষা না করে দ্রত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ও কোভিড টেস্ট করাতে হবে।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:44:34 1970-01-01 00:00:00 সকালের যে ৪ কাজেই ভালো থাকবে দাম্পত্য! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113828 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513459_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513459_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দাম্পত্য জীবনে একে অন্যের পাশে থাকা খুবই জরুরি। এতে দুজনের মধ্যে পারস্পারিক বন্ধন আরও মজবুত হয়। সুখী দাম্পত্য জীববনের মূল মন্ত্রই হলো একে অপরকে ভালো রাখা।<br><br>তবে কর্মব্যস্ত জীবনে বেশিরভাগ দম্পতির মধ্যেই সম্পর্ক খারাপ হয়ে ছোটখাট বিষয় নিয়ে। তাই সম্পর্ক ভালো রাখার দায়িত্ব নিজেদেরই নিতে হবে।<br><br>বিশেষজ্ঞদের মতে, দিনের শুরুটা যদি ভালোবাবে হয়, তাহলে সারাদিনও ভালো কাটবে। এজন্য ঘুম থেকে উঠেই পালন করুন একটি রুটিন। তাহলে দেখবে আপনার দাম্পত্য ভালো থাকবে।<br><br>সকালের শুরুটা এমনভাবেই শুরু করুন যাতে কারও প্রতি কারও অভিযোগ বা ক্ষোভ না থাকে। তাই আজ থেকে মেনে চলুন ৪টি নিয়ম-<br><br> and gt; সকালে ঘুম থেকে উঠেই সঙ্গীর কপালে একটি মর্নিং কিস দিন। সেই চুমু আবার যেন বেশি দীর্ঘ না হয়। আপনার চুমুতে যেন থাকে বিশ্বাস। এভাবেই সকালে সঙ্গীকে চমকে দিন। আশা করছি সারাদিনই ভালো কাটবে আপনার।<br><br> and gt; সকালে উঠেই সঙ্গীর প্রশংসা করুন। প্রশংসা যে কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে। তাই সকালেই সঙ্গীর প্রশংসা করুন। তবে প্রশংসা করার জন্য আবার কোনো গুরুতর কারণ খুঁজতে যাবেন না।<br><br> and gt; সকালের নাস্তা মিলেমিশে তৈরি করুন। পরে একসঙ্গে বসে খান। ব্রেকফাস্ট যেন দুজনের পছন্দমতো হয়। সকালে একসঙ্গে সময় কাটানোর পর দেখবেন সারাদিন এমনিই ভালো কাটবে।<br><br> and gt; কর্মব্যস্ততার কারণে হাসতে ভুলবেন না। অনেকেই অফিসে থাকাকালীন কাজের ব্যস্ততায় সঙ্গীর সঙ্গে বাজে ব্যবহার করে ফেলেন। যা একেবারেই উচিত নয়। বর্তমানে কাজের চাপে বহু মানুষ হাসতে ভুলে যাচ্ছেন।<br><br>এই হাসিহীন জীবনে দাম্পত্যেও চাপ ফেলছে। তবে শত ব্যস্ততার মধ্যেও পরিবারের সঙ্গে হাসিমুখে থাকুন। কারণ দিনশেষে আপনার সঙ্গী ও পরিবারই সব বিপদে পাশে থাকবে। তাই দাম্পত্য জীবন ভালো রাখুন।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:43:54 1970-01-01 00:00:00 করোনামুক্তির পর অতিরিক্ত চুল পড়লে দ্রুত যা করবেন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113827 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513415_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513415_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনার প্রভাবে শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। এমনকি করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠলে কিংবা রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পরও শরীরে নানা সমস্যা দেখা দেয়।<br><br>যাকে বলা হয় পোস্ট কোভিড। এমন সমস্যায় আপনি একা নন, কোভিড সেরে যাওয়ার পরও নানা রকম শারীরিক সমস্যা থেকেই যায়। তার মধ্যে অন্যতম চুল পড়ার সমস্যা।<br><br>চিকিৎসকরা বলছেন, যে কোনো বড় অসুখের পর কয়েক দিন চুল পড়া স্বাভাবিক। তবে হঠাৎ অতিরিক্ত চুল পড়া শুরু হলে অনেকেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। যেহেতু শরীরে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করা শুরু হয়েছে, তাই কোভিড থেকে সেরে ওঠার কয়েক সপ্তাহ পরে চুল পড়তে পারে।<br><br>এমনিতে চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসকরা হজমের গোলমাল বা পানি ঘাটতি আছে বলে মনে করেন। তবে যত্নের অভাবে চুল পড়ে তাহলে কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।<br><br>ডায়েট, ব্যায়াম, যোগব্যায়াম, মেডিটেশন, উপযুক্ত ঘুমের মাধ্যমে চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে। এ বিষয়ে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞদের মত হলো, প্রতিদিন ১০০টি চুল পড়া স্বাভাবিক। কোভিড বা যে কোনো অসুস্থতা জ্বর শরীরে প্রদাহ ও চাপের কারণে বেশি চুল ঝরতে পারে। একে বলা হয় টেলোজেন এফ্লুভিয়াম।<br><br>সাধারণত মাথার চুলের ৮০ শতাংশ থাকে অ্যানাজেন পর্যায়। ১৭-১৮ শতাংশ থাকে টেলোজেন পর্যায়ে ও ২-৩ শতাংশ থাকে ক্যাটাজেন পর্যায়। তবে বড় কোনো অসুখ হলে ক্যাটাজেন পর্যার সংখ্যাটা বেড়ে ৮-১০ শতাংশ হতে পারে।<br><br>ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া বা চিকেন পক্সের পরও চুল পড়ার সমস্যা বেড়ে যায়। তবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আগে যদি কেউ অন্য কোনো ভোগেন তাহলে তাদের আরও সতর্ক থাকতে হবে। জেনে নিন কোভিড মুক্তির পর চুল পড়ার সমস্যা রুখতে যা যা করবেন-<br><br> and gt; চুলে অতিরিক্ত তেল ব্যবহার করবেন না।<br><br> and gt; ডায়েটে পর্যাপ্ত আয়রন রাখুন।<br><br> and gt; নিয়মিত বাদাম, আখরোট, ভেজানো চিনাবাদাম, চিয়া সিড, সবুজ শাক-সবজির বেশি করে খেতে হবে।<br><br> and gt; চুল পড়া বেড়ে গেলে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসার জন্য আপনার চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলুন।<br><br> and gt; হালকা সালফেট-মুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।<br><br> and gt; চুলে অত্যধিক তাপ ও রাসায়নিকযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহার করবেন না।<br><br> and gt; খুশকি-সম্পর্কিত সমস্যা থাকওে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।<br><br>সূত্র: ইকোনোমিকস টাইমস<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:43:07 1970-01-01 00:00:00 সর্দি-কাশি সারাবে তুলসির জাদুকরী পানীয়! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113826 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513362_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513362_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">শীত আসতেই সর্দি-কাশির সমস্যা বেড়ে যায়। একে তো শীতের মৌসুম তার উপরে আবার করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। করোনার নতুন আতঙ্ক ওমিক্রন খুব দ্রুত ছড়াচ্ছে।<br><br>এ সময় নিজেকে সুরক্ষিত অনেকেই ভারসা রাখছেন আয়ুর্বেদের ওপরে। কারণ এই অসুখের নির্দিষ্ট করে কোনো ওষুধ নেই। একমাত্র শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারলেই লড়াই করা যায় করোনা কিংবা ওমিক্রনের সঙ্গে।<br><br>এই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ভারতের আয়ুষ মন্ত্রক থেকে একটি গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে। যেখানে একটি আয়ুর্বেদিক কাড়া বা পাচনের কথা বলা আছে।<br><br>মাত্র দু’মিনিট খরচ করে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলা যায় এই পানীয়। তুলসির এই পানীয় শুধু সর্দি-কাশিই দূর করে না, ব্যক্তির শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী করে। বহু রোগের চিকিৎসায় প্রাচীনকাল থেকেই তুলসির ব্যবহার হয়ে আসছে।<br><br>তুলসিতে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি ফাঙ্গাল ও অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য আছে। এর ব্যবহার ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাল সংক্রমণের ঝুঁকি কমায়। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক তুলসির জাদুকরী এই পানীয় তৈরির সহজ উপায়-<br><br>উপকরণ<br><br>১. তুলসির ১০-১২টি পাতা<br>২. লেমনগ্রাস পাতা একটি<br>৩. আদা কুচি এক টুকরো<br>৪. পানি ৪ কাপ ও<br>৫. গুড় ৩ টেবিল চামচ।<br><br>পদ্ধতি<br><br>প্রথমে তুলসি পাতা ও লেমনগ্রাস ভালো করে ধুয়ে নিন। এরপর একটি প্যানে পানি মাঝারি আঁচে ফুটিয়ে নিন। সামান্য গরম হয়ে এলে তুলসি পাতা, লেমন গ্রাস ও আদা দিয়ে ৪-৫ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এরপর এতে গুড় দিয়ে আঁচ বন্ধ করে দিন।<br><br>চামচ দিয়ে মিশ্রণ নাড়তে থাকুন যাতে গুড় গলে যায়। ১-২ মিনিট পর কাপে ঢেলে চায়ের মতো পান করুন এই পানীয়।<br><br>আপনি চাইলে তুলসির এই মিশ্রণে ২-৩টি কালো গোলমরিচও দিতে পারেন। আপনি যদি স্বাদ চান তাহলে একটি এলাচ মিশিয়ে নিতে পারেন।<br><br>লেমন গ্রাস ছাড়াও আপনি এই পানীয় তৈরি করতে পারেন। নিয়মিত এই মিশ্রণ খেলে সর্দি-কাশির সঙ্গে সঙ্গে শরীরের বিভিন্ন প্রদাহ কমে। এমনকি ক্রনিক অসুখের ঝুঁকি ও প্রকোপ কমে।<br><br>ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, আর্থ্রাইটিস সবই আছে এই তালিকায়। করোনা রোগীর অবস্থা খারাপ হয় প্রদাহের কারণেই। তাই রোগ ঠেকাতে নিয়মিত এই পানীয় খেলে বিপদের ঝুঁকি কিছুটা কমতে পারে।<br><br>সূত্র: এই সময়<br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:42:21 1970-01-01 00:00:00 গোলাপের ফেসপ্যাক ব্যবহারেই পাবেন গোলাপি ত্বক! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113825 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513312_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642513312_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ত্বকের সৌন্দর্য্য বাড়াতে কতজনই না কত কিছু ব্যবহার করেন। তবে রাসায়সনিকযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহার না করে সৌন্দর্যচর্চায় ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক উপাদানে। ঠিক তেমনই এক উপাদান হলো গোলাপ। প্রাচীন কাল থেকেই রূপচর্চায় গোলাপ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।<br><br>গোলাপ জল তো সবার ঘরেই থাকে! এ ছাড়াও গোলাপের পাপড়ি দিয়ে রূপচর্চা করা হয়। প্রাচীনকাল থেকে এখনো রূপচর্চায় গোলাপ একইভাবেই জনপ্রিয়।<br><br>উজ্জ্বল ও দাগহীন ত্বক পেতে নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন গোলাপের ফেসপ্যাক। তার আগে জেনে নিন ত্বকের যত্নে গোলাপ কীভাবে কাজ করে-<br><br> and gt; ময়েশ্চারাইজার হিসেবে শুষ্ক ও সংবেদনশীল ত্বকের জন্য গোলাপের পাপড়ি দারুণ কাজ করে। গোলাপের পাপড়িতে থাকা প্রাকৃতিক তেল ত্বকের কোষের মধ্যে আর্দ্রতা ধরে রাখে। ত্বককে আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে।<br><br> and gt; সানস্ক্রিন হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন গোলাপ। চাইলে ঘরেই গোলাপ দিয়ে তৈরি করতে পারেন সানস্ক্রিন।<br><br> and gt; কম বেশি সবারই চোখের চারপাশেই কালো ছোপ পড়ে যায়। স্ট্রেস, ক্লান্তি ও অনিদ্রার কারণেই মূলত এই কালো ছাপ পড়ে। ডার্ক সার্কলের সমস্যার সমাধান কতে পারে গোলাপ।<br><br>গোলাপের পাপড়ির ফেসপ্যাক তৈরি করবেন যেভাবে-<br><br> and gt; গোলাপ ও চন্দনের ফেসপ্যাক তৈরি করতে প্রথমে গোলাপের পাপড়ি বেটে নিন। এর সঙ্গেই দুই টেবিল চামচ চন্দন গুঁড়া মিশিয়ে নিন। এরপর গোলাপজল মিশিয়ে দিয়ে মসৃণ পেস্ট তৈরি করে পুরো মুখে লাগিয়ে আধা ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন।<br><br> and gt; চাইলে গোলাপের পাপড়ি বেটে এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে পরিষ্কার মুখে ভালো করে আধা ঘণ্টা লাগিয়ে রাখুন। যাদের তৈলাক্ত ত্বক, তারা এর সঙ্গে এক টেবিল চামচ টকদই মিশিয়ে লাগান। দেখবেন ত্বকের তৈলাক্তভাব কমবে।<br><br> and gt; গোলাপ ও কমলালেবু দিয়েও তৈরি করতে পারেন ফেসপ্যাক। এজন্য গোলাপের পাপড়ি ও কমলালেবুর খোসা কয়েকদিন রোদে রেখে শুকিয়ে নিন। তারপর ভালো করে গুঁড়া করে নিন।<br><br>এজন্য এক টেবিল চামচ গোলাপ আর কমলালেবুর খোসার পাউডারের সঙ্গে টকদই শিশিয়ে তৈরি করে নিন ঘন পেস্ট।<br><br>মুখে আর গলায় মেখে ব্যবহার করুন এই প্যাক। আধা ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত গোলাপের ফেসপ্যাক ব্যবহারে পাবেন উজ্জ্বল গোলাপি ত্বক।</body></HTML> 2022-01-18 19:41:18 1970-01-01 00:00:00 উপহারের ঘর: ডিসিরা চান বহুতল ভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘না’ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113824 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512853_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512853_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ভূমি ও গৃহহীনদের জমিসহ ঘর করে দিচ্ছে সরকার। তবে এ প্রকল্পের কাজ করতে গিয়ে নানান অসঙ্গতি দেখা দিয়েছে। ফলে দীর্ঘমেয়াদি, টেকসই ও জমি সাশ্রয়ের জন্য বহুতল ভবন করার প্রস্তাব দিয়েছেন জেলা প্রশাসকরা (ডিসি)।<br><br>মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে ডিসিদের অধিবেশনে এ প্রস্তাব দেওয়া হয়। তবে ডিসিদের এ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে নাকচ করে দেওয়া হয়েছে।<br><br>অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। তিনি বলেন, ‘আশ্রয়ণ প্রকল্পে ডিসিরা বহুতল ভবন করার প্রস্তাব দিয়েছেন। বহুতল ভবন হলে সেটা স্থায়ী হবে। তবে বহুতল ভবন করতে অনেক টাকা প্রয়োজন। এতে প্রধানমন্ত্রীর যে প্রত্যাশা, মুজিববর্ষে কেউ ভূমিহীন বা গৃহহীন থাকবে না, সেই প্রত্যাশা বাস্তবায়নের জন্য এটা করার সুযোগ নেই।’<br><br>মুখ্য সচিব বলেন, ‘বহুতল ভবন হলে তাদের সেখানে ৫০-১০০ বছর থাকতে হবে। তবে আমরা চাই, আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে তারা নিজেদের অবস্থান থেকে উত্তরণ করতে পারবেন। বহুতল ভবন হলে যেটা অসম্ভব হয়ে পড়বে।’<br><br>তিনি আরও বলেন, ‘ডিসিরা আরও কিছু প্রস্তাবনা দিয়েছেন, যেগুলো বাস্তব তা গ্রহণ করা হবে। যেগুলো বাস্তবসম্মত নয়, সেগুলো তাদের বুঝিয়ে বলা হয়। প্রধানমন্ত্রীও কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন, যেগুলো বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।’<br><br>মাঠ প্রশাসনে কাজ করতে গিয়ে ডিসিরা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস বলেন, ‘এমন কোনো বিষয় পাইনি। তবে করোনা মহামারিসহ বিভিন্ন সময়ে জেলা প্রশাসক ও বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা সমন্বয় করে কাজ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। সেটা নিয়ে আমি গর্বিত।’<br> and nbsp;<br><br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:33:52 1970-01-01 00:00:00 শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হচ্ছে না: শিক্ষামন্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113823 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512819_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512819_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) ডিসি সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের এমন কথা জানান তিনি।<br><br>শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। সে কারণে এখনই শিক্ষার্থীদের সশরীরে পাঠদান বন্ধ রাখা হচ্ছে না।<br><br>দীপু মনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়লে বন্ধ করে দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা বাসায় বসে অনলাইন ক্লাস করবে। তার সঙ্গে নিয়মিত অ্যাসাইনমেন্ট কাজ দেওয়া হবে। এর আগ পর্যন্ত সশরীরে পাঠদান বন্ধ করে দেওয়ার কোনো চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে না।<br><br>তিনি বলেন, কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ওমিক্রনে আক্রান্ত হলেও বর্তমানে তারা আইসোলেশনে রয়েছে। কেউই গুরুতর অসুস্থ হয়নি বলে আমরা খোঁজ-খবর নিয়েছি। আজ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের সঙ্গে আমরা বৈঠক করেছি। তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।<br><br>দীপু মনি আরও বলেন, ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রমকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত ৮৫ লাখ শিক্ষার্থী ভ্যাকসিনেশনের আওতায় এসেছে। আমরা নিয়মিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে মনিটরিং করছি। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আগামী দু-একদিনের মধ্যে জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শ কমিটির সঙ্গে বৈঠক করা হবে।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:33:19 1970-01-01 00:00:00 পাবলিক পরীক্ষার জন্য আলাদা কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113822 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512783_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512783_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">পাবলিক পরীক্ষা পরিচালনার জন্য উপজেলা সদরে আলাদাভাবে পরীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে ভবন নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে। আলাদা ভবন নির্মাণ করা হলে পাবলিক পরীক্ষার সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ না রেখে ক্লাস চালু রাখা যাবে। এছাড়া প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় এসব ভবন ব্যবহার করা যাবে।<br><br>একইসঙ্গে কারিগরি শিক্ষার প্রসারে সব বিভাগীয় শহরে শিক্ষাবোর্ড নির্মাণ, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ ও প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পুল গঠন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের লেনদেন ব্যাংকের মাধ্যমে সম্পন্ন করা এবং উপজেলা পর্যায়ে মাধ্যমিক শিক্ষা কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেছেন জেলা প্রশাসকরা।<br><br>মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) জেলা প্রশাসক সম্মেলনে এসব প্রস্তাব তুলে ধরনের তারা। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীসহ শিক্ষা সংক্রান্ত তিন বিভাগের সচিব ও অধিদপ্তরের মহাপরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন। তাদের হাতে এসব সুপারিশ তুলে দেওয়া হয়েছে।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:32:46 1970-01-01 00:00:00 ৬ দিনে ঢাকায় তিন নবজাতকের লাশ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113821 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512742_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512742_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">গত ছয় দিনে রাজধানীর পৃথক তিনটি স্থান থেকে তিন নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। কোনো নবজাতকেরই পরিচয় মেলেনি।<br><br>গত বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টন এলাকায় এক নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার পাওয়া যায়। নির্মাণাধীন ভবনের পাশে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে করে পল্টন থানা পুলিশ।<br><br>নবজাতকটি একজন ছেলে শিশু। নবজাতকটি সেদিনই ভূমিষ্ঠ হয়েছিল। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।<br><br>এর চার দিন পর মোহাম্মদপুরের রামচন্দ্রপুর খালে পাওয়া যায় আরও এক নবজাতকের মরদেহ।<br><br>প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, সোমবার সকালে খালের পানিতে ভূমিষ্ঠ হওয়া এক ছেলে নবজাতকের মরদেহ দেখতে পেয়ে তারা পুলিশে খবর দেন। পরে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ গিয়ে মোহাম্মদিয়া হাউজিং লিমিটেডের ১ নম্বর রোডের কালভার্টের পাশের খাল থেকে এক দিন বয়সী নবজাতকটির মরদেহ উদ্ধার করে। পরে মরদেহটি শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।<br><br>এর পরদিনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শেখ রাসেল টাওয়ারের বিপরীত পাশের ডাস্টবিনে মেলে আরও এক নবজাতকের মরদেহ।<br><br>সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। পরে ময়নাতদন্তের জন্য সেটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। মৃত নবজাতকটি একদিন বয়সী।<br><br>পুলিশের ভাষ্য, মৃত নবজাতকের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অজ্ঞাত কোনো ব্যক্তি মৃত অবস্থায় তাকে ডাস্টবিনে ফেলে রেখে গেছে।<br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:32:02 1970-01-01 00:00:00 বিএনপি বিদেশে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ করেছে: তথ্যমন্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113820 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512695_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512695_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি ‘রুখে’ দেওয়ার পাশাপাশি রপ্তানি বাণিজ্যে ‘প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির’ জন্য বিএনপি অর্থ ব্যয় করে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ করে নানা দেশে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্য-সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ। <br><br>মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ মন্তব্য করেন।<br><br>হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট বিশেষ করে বিএনপি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত -এই কথাটা আমরা বহুদিন ধরে বলে আসছি তারপরও হয়তো অনেকের মনে নানা প্রশ্ন ছিল। প্রকৃতপক্ষে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি রুখে দেওয়ার জন্য, দেশের রপ্তানি বাণিজ্যে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির জন্য বিএনপি রীতিমতো অর্থ ব্যয় করে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন জায়গায় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র করছে।’ <br><br>তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন,২০১৫ সালে বিএনপি রাজনৈতিক দল হিসেবে লবিস্ট ফার্মের মাধ্যমে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তথ্য দাখিল করে। সেখানে বিএনপি এই ফার্মের সাথে একটি চুক্তিতে আবদ্ধ হয় যেটি শাহরিয়ার আলম পার্লামেন্টে জানিয়েছেন। বিএনপি তাদের নয়া পল্টনের অফিসের ঠিকানা দিয়ে এই ফার্মের সাথে চুক্তিটা করেছে।<br><br>হাছান মাহমুদ বলেন, ‘এই ফার্মকে তারা প্রতি মাসে পঞ্চাশ হাজার ডলার করে এবং শুরুতে দেড় লাখ ডলার এডভান্স দিয়েছে। অর্থাৎ প্রায় দুই মিলিয়ন ডলার তারা তিন বছরে পে করেছে। নয়া পল্টনের অফিসের ঠিকানা দিয়ে করা চুক্তি অস্বীকার করার কোনো সুযোগ নাই। শুধু তাই নয় বিভিন্ন ঠিকানা দিয়ে বিভিন্ন নামে তারা ১২টিরও বেশি লবিস্ট ফার্মের সাথে চুক্তি করেছে এবং মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার তারা এই ক্ষেত্রে ব্যয় করেছে। অর্থাৎ দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার জন্য দেশবিরোধী অপপ্রচার চালানোর জন্য, দেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি রূখে দেয়ার জন্য, দেশে রপ্তানি বাণিজ্যে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার জন্য বিএনপি প্রতিষ্ঠান হিসেবে লবিস্ট নিয়োগ করে এই কাজগুলো করছে।’ <br><br>বিএনপির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার এটি একটি রাজনৈতিক সরকার। আমরা বিশ্বাস করি, এদেশের ক্ষমতার মালিক হচ্ছে জনগণ। জনগণ যাদেরকে মনে করবে তাদেরকেই ক্ষমতায় বসাবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জনগণের রায় ও জনগণের শক্তির ওপর ভর করেই দেশ পরিচালনা করেছে। আর বিএনপি বিশ্বাস করে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের ওপর এবং সন্ত্রাস, নৈরাজ্যের ওপর।’ <br><br>ওয়াশিংটন পোস্টে খালেদা জিয়ার এক নিবন্ধের কথা মনে করিয়ে দিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, ওয়াশিংটন টাইমসে বেগম খালেদা জিয়ার নিজের নামে নিবন্ধ লিখেছিলো, কয়েক বছর আগে। সেই নিবন্ধে তিনি বাংলাদেশের পণ্য যুক্তরাষ্ট্রে যাতে আমদানি বন্ধ করে সেজন্য আহ্বান জানিয়েছিলেন। একটি রাজনৈতিক দলের নেত্রী কিভাবে দেশের বিরুদ্ধে বিদেশি একটি পত্রিকায় নিবন্ধ লিখে বলে যে বাংলাদেশ থেকে যাতে যুক্তরাষ্ট্র আমদানি না করে।’ <br><br>বিদেশে অর্থ ব্যয় করে লবিস্ট নিয়োগ করার বিষয়টি তদন্ত করতে নির্বাচন কমিশন, দুদক ও আয়কর বিভাগের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি।<br><br>তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি দেশে তাদের অফিসের ঠিকানা দিয়ে চুক্তি করে বিদেশি লবিস্ট ফার্মকে লাখ লাখ ডলার ‘পে’ করছে, নির্বাচন কমিশনে তারা যে ব্যয়ের হিসাব দিয়েছে, সেখানে তো এই হিসাব দেয়নি, নির্বাচন কমিশনের উচিত তাদেরকে তলব করা। দ্বিতীয়ত: এই লাখ লাখ ডলার তারা কোথা থেকে পায়, কোথা থেকে আসে, সেটিও তো তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। আমি মনে করি এখানে দুদকেরও ভূমিকা রাখা প্রয়োজন। পাশাপাশি আয়কর বিভাগ থেকেও এ বিষয়ে তদন্ত ও তাদের তলব করা প্রয়োজন।’<br><br>দেশবিরোধী চক্রান্তে লিপ্ত থাকার অভিযোগ এনে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপি দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত এবং সেটার দালিলিক প্রমাণ আমাদের হাতে আছে। যে রাজনৈতিক দল দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে and nbsp; লিপ্ত সে দলের কি দেশে রাজনীতি করার অধিকার আছে!’ <br><br>আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি জনগণের ওপর, জনগণের রায়ের ওপর বিশ্বাস করে না। তারা মনে করছে এ ধরণের প্রোপাগান্ডা চালালে তাদেরকে কেউ কোলে করে এনে ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে। সরকারের পররাষ্ট্র দপ্তরসহ নানা মেকানিজম এ বিষয়ে কাজ করছে।’<br><br><br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:31:20 1970-01-01 00:00:00 ফের বাড়লো জ্বালানি তেলের দাম http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113819 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512659_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512659_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক বাজারে মঙ্গলবার জ্বালানি তেলের দাম অর্থাৎ ব্রেন্ট ক্রুড তেলের দাম ১ দশমিক ৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ব্যারেলপ্রতি ৮৭ দশমিক ৮৫ ডলার। একইসঙ্গে ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ফিউচারের দাম ২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ দশমিক ৫৬ ডলার।<br><br>এতে এই ধরনের তেলের দাম ২০১৪ সালের অক্টোবরের পর সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে।<br><br>কয়েক সপ্তাহ ধরেই জ্বালানি বিশ্লেষকেরা আশঙ্কা করছিলেন, তেলের দাম আবারও বাড়বে। বিশ্লেষকদের এই আশঙ্কাই সত্য বলে প্রমাণিত হলো।<br><br>জ্বালানি বিশ্লেষকদের দাবি, ইউরোপ ও আমেরিকায় এবার তীব্র শীত পড়ায় ঘর গরম রাখতে জ্বালানির চাহিদা অনেকটা বেড়েছে। চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে দামও বাড়ছে।<br><br>মহামারি করোনার শুরুতে জ্বালানি তেলের চাহিদা কমে যাওয়ায় দাম অনেক কমে গিয়েছিল। পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তেলের দাম এখন ৭ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে গেছে।<br><br>কয়েক মাস আগেই ধারণা করা হচ্ছিল, তেলের দাম ব্যারেলপ্রতি ১০০ ডলার ছাড়িয়ে যাবে। এতে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের গতি ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়।<br><br>এই পরিস্থিতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাজারে তেল ছেড়ে সরবরাহ বৃদ্ধির চেষ্টা করে। চীন ও ভারতও একই পথে হাঁটে। এতে তেলের মূল্যবৃদ্ধির ধারায় ছেদ পড়ে। এ ছাড়া ওপেকও দিনে অতিরিক্ত চার লাখ ব্যারেল তেল বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দেয়।<br><br>কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক পরিস্থিতির পরিবর্তন এবং ওপেকসহ সহযোগী দেশগুলো সরবরাহ বৃদ্ধির অঙ্গীকার রাখতে না পারলে জ্বালানির দাম আবারও ব্যারেলপ্রতি ১০০ ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারে।<br><br>২০২১ সালের শুরুতেই তেলের দাম বৃদ্ধির প্রবণতা দেখা যায়। কয়েক দফা দাম বেড়ে করোনার মধ্যে প্রথমবার ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম ৬০ ডলারে উঠে আসে। এর মাধ্যমে মহামারি শুরু হওয়ার আগের দামে ফিরে যায় তেল।<br><br>২০২২ সালের শুরু থেকেই আর্ন্তজাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দামে বেশ চাঙ্গাভাব বিরাজ করছে। নতুন বছরের ১ম সপ্তাহের মতো ২য় সপ্তাহের ধারাবাহিকতায় আর্ন্তজাতিক বাজারে জ্বালানি ৩য় সপ্তাহেও তেলের দামে বড় উত্থান অব্যাহত রয়েছে।ফলে ২০১৪ সালের অক্টোবরের পর অর্থাৎ প্রায় ৭ বছর পর সর্বোচ্চ দামে উঠে এসেছে জ্বালানি তেল। <br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:30:37 1970-01-01 00:00:00 ছোট দোকানগুলোতেও ইএফটি মেশিন দেয়ার প্রস্তাব http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113818 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512613_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512613_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">গ্রামগঞ্জ থেকেও আরও বেশি ভ্যাট আদায়ের মাধ্যমে সরকারের রাজস্ব বাড়াতে স্থানীয়ভাবে প্রতিষ্ঠিত বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি ছোট দোকানগুলোতেও ইএফটি মেশিন দেয়ার প্রস্তাব করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।<br><br>মঙ্গলবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত ডিসি সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে ‘অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ সম্পর্কিত বিষয়াদি’র ওপর সাধারণ আলোচনা পর্বে এ প্রস্তাব দেন আ ক ম মোজাম্মেল হক।<br><br>মন্ত্রী বলেন, মেশিনটির সহজলভ্যতা নিশ্চিত করার জন্য সরকার নিজ উদ্যোগে মেশিনটি সরবরাহ করবে। পরে মেশিনের দাম কিস্তিতে পরিশোধ করবেন দোকানিরা। এ বিষয়ে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের পাশাপাশি সারা দেশে জেলা প্রশাসকদের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনাও দেন তিনি।<br><br>তিনি বলেন, ‘আজকাল গ্রাম পর্যায়ে মানুষের সামর্থ্য বেড়েছে। সেখানে অনেক কেনাকাটা হচ্ছে। অথচ এই কেনাকাটায় যে অর্থের প্রবাহ হচ্ছে, তার থেকে সরকার পাচ্ছে খুবই কম। যারা দিচ্ছে সেটিও সঠিক দিচ্ছে কি না প্রশ্ন সাপেক্ষ।’<br><br>তাই বিষয়টিতে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগকে আরও জোর তদারকি করতে বলেন মন্ত্রী। সেই সঙ্গে জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে সারা দেশে ছোট দোকানগুলোতেও সরকারি উদ্যোগে একটি করে মেশিন দেয়ার প্রস্তাব দেন তিনি।<br><br>জেলা প্রশাসক সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় বিষয়ক আলোচনায় চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট এলাকা এবং চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের কন্ট্রোল এলাকায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত দুটি বিশেষ স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করার কথা জানান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।<br><br>এ সময় তিনি জেলা প্রশাসকদের কাছে কোন এলাকায় এ রকম স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করা যায় এবং সেখান নিষ্কণ্টক জমি পাওয়া গেলে মন্ত্রণালয়কে স্থানীয় পর্যায়ে থেকে প্রস্তাব করার অনুরোধ জানান।<br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:29:53 1970-01-01 00:00:00 অভ্যন্তরীণ যাত্রীর চাপ সামাল দিতে শাহজালালে হচ্ছে ২ লাউঞ্জ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113817 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512574_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512574_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনার কারণে নিরাপদে ও দ্রুত গন্তব্যে ফিরতে যাত্রীদের অনেকেই বেছে নেন আকাশ পথ। এক্ষেত্রে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ দেশের সাতটি অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দরে দিন দিন বাড়ছে যাত্রীর চাপ। ঢাকা থেকে প্রতিদিন অভ্যন্তরীণ রুটে কমপক্ষে ৯-১০ হাজার যাত্রী চলাচল করেন। তাদের চাপ সামাল দিতে বেকায়দায় পড়েন বিমানবন্দরের নিরপত্তাকর্মীরা।<br><br>কর্মকর্তারা জানান, যাত্রীদের চাপ সামাল দেওয়ার পাশাপাশি সেবার মান বাড়ানোর জন্য এরই মধ্যে অত্যাধুনিক দু'টি যাত্রী লাউঞ্জ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। প্রায় ৩০ বছরের পুরোনো অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের পরিত্যক্ত ছাদে ৮ হাজার বর্গফুটের এই লাউঞ্জ নির্মাণের কাজ চলছে। দু'টি বেসরকারি ব্যাংকের সহযোগিতায় প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ লাউঞ্জ নির্মাণ করছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। এতে থাকছে বসার ব্যবস্থাসহ অন্যান্য সুবিধা। ওঠা-নামায় থাকবে লিফট। এক্ষেত্রে বেবিচকের তহবিল থেকে ব্যয় হচ্ছে না কোনো অর্থ। স্বল্পমূল্যে ভাড়া নিয়ে এ লাউঞ্জ নির্মাণ করছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।<br><br>সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের দুটি লাউঞ্জে থাকছে ৩০০ যাত্রী বসার ব্যবস্থা, নামাজের স্থান, বেবিকেয়ার রুম ও স্মোকিং রুম। এছাড়া থাকছে স্ক্যানিং মেশিনসহ নিরাপত্তা সরঞ্জাম। <br><br>বেবিচকের এক কর্মকর্তা জানান, শিগগিরই এর নির্মাণ কাজ শেষ হচ্ছে। শাহজালালের মতো অন্য বিমানবন্দরগুলোর অভ্যন্তরীণ টার্মিনালেও একই ব্যবস্থা রাখা হবে। <br><br>এদিকে কক্সবাজারকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রূপান্তরের কাজ চলছে। ওই কাজের অংশ হিসেবে অভ্যন্তরীণ টার্মিনাল ঢেলে সাজানো হচ্ছে। <br><br>অভ্যন্তরীণ রুটে নিয়মিত যাতায়াত করা তৌফিক নামে এক যাত্রী জানান, বিমানবন্দরে বসার স্থান তেমন না থাকায় সমস্যায় পড়তে হয়। নতুন লাউঞ্জ হলে ভোগান্তি থেকে রক্ষা পাবেন যাত্রীরা।<br><br>এ ব্যাপারে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম. মফিদুর রহমান সমকালকে বলেন, দীর্ঘদিন পড়ে থাকা অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের ছাদে নির্মাণ করা হচ্ছে অত্যাধুনিক লাউঞ্জ। শিগগিরই শেষ হচ্ছে এ কাজ। <br><br>তিনি বলেন, দিন দিন বাড়ছে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের যাত্রী সংখ্যা। তবে যাত্রীদের তুলনায় বসার স্থান তেমন ছিল না। এক সঙ্গে ৮-১০টি ফ্লাইটের যাত্রীরা বিমানবন্দরে এলে তাদের সামাল দিতে হিমশিম খেতে হতো নিরাপত্তা কর্মীদের। এখন আর এই সমস্যা থাকছে না।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:29:16 1970-01-01 00:00:00 আইভীর শপথ যেভাবে, জানালেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113816 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512535_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512535_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আইন অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) নবনির্বাচিত মেয়র সেলিনা হায়াত আইভীর শপথ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম।<br><br>তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জে নির্বাচন ইভিএমে হয়েছে। ভালো নির্বাচন হয়েছে। শতভাগ নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে। এটা আমাদের জন্য ভালো এক্সামপল।<br><br>মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।<br><br>দেশের নির্বাচনের প্রতি ডিপ্লোম্যাটদের আস্থা ও বিশ্বাস বেড়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বসেছিলাম। বাংলাদেশের নির্বাচন ব্যবস্থা নিয়ে বিভিন্ন কথা হয়েছে। সেক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জের নির্বাচন আমাদের জন্য ভালো কাজ করেছে।<br><br>এসময় বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হয় বলে প্রমাণিত হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী। <br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:28:35 1970-01-01 00:00:00 মানিকগঞ্জে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সাত সদস্য গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113815 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512501_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512501_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় অভিযুক্ত আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। and nbsp; ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত মালামাল ও ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করেছে পুলিশ। <br><br>মঙ্গলবার বিকেলে মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। <br><br>পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান বলেন, গত ৮ জানুয়ারি দৌলতপুর উপজেলার চক মিরপুর এলাকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরুজ্জামানের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ১০-১২ জনের একটি ডাকাত দল রাতে ঘরের বারান্দার গ্রিল কেটে ভেতরে ঢুকে স্বর্ণ অলঙ্কার ও নগদ টাকাসহ ৪ লাখ ৩৩ হাজার টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় দৌলতপুর থানায় নূরুজ্জামান বাদী হয়ে একটি ডাকাতি মামলা করেন। <br><br>মামলা হওয়ার পর ডাকাত সদস্যদের ধরতে বিশেষ একটি টিম গঠন করা হয়। টিমের সদস্যরা and nbsp; ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় অভিযান পরিচালনা করে পর্যায়ক্রমে সাত জনকে গ্রেপ্তার করে ও তাদের কাছ থেকে ডাকাতির মালামালের কিছু অংশ উদ্ধার করা হয়। <br><br>গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর উপজেলার মীরহাটাইল এলাকার মৃত কুদ্দুসের ছেলে রুস্তম (৫০), ওয়াইল গ্রামের মৃত আমজাদের ছেলে ইমন (৪০), চরকাটারী গ্রামের নুরু শেখের ছেলে মোঃ আরিফ শেখ (২৬), একই গ্রামের মোহাম্মদ আব্দুল শেখের ছেলে মোঃ রুবেল (২৬), মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলার জাফরগঞ্জ গ্রামের ইউসুফ আলী শেখের ছেলে সানোয়ার হোসেন ছানু (২৬), সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর থানার রতনদিয়া এলাকার বহুত আলী বেপারীর ছেলে মোঃ বাবুল হোসেন (৩৬) ও একই জেলার চৌহালী থানার চর পাচুরিয়া এলাকার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলামের ছেলে মোস্তফা কামাল (৩৭)। <br><br>এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, খুন, মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে ও ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে। <br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:28:01 1970-01-01 00:00:00 ফেরি স্বল্পতা দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে, দুপাড়ে তীব্র যানজট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113814 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512463_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512463_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি স্বল্পতায় ঘাটের দুপাড়ে দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট। পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে ফেরির নাগাল পেতে ২৫ থেকে ৩০ ঘণ্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে।<br><br>বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্মকর্তারা জানিয়েছেন সোমবার রাতে হঠাৎ করে নৌরুটে চলাচলকারী দুইটি ফেরি বিকল হয়ে পড়ে। এতে দৌলতদিয়া ঘাট অভিমুখে পণ্যবাহী ট্রাক ও কার্ভাডভ্যানের দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার সকাল থেকে ফেরি দুটি পুনরায় চলাচল শুরু হলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি।<br><br>বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক খোরশেদ আলম সমকালকে জানান, গত রাতে হঠাৎ করেই দুটি রো রো (বড়) ফেরির যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিলে তা পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতিতে মেরামত জন্য পাঠানো হয়। আর এতে করে যানবাহন পারাপারে ধীরগতির কারণেই দৌলতদিয়া প্রান্তে যানবাহনের দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়। মেরামত শেষে সকাল থেকেই ফেরি দুটি যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৭টি ফেরি যানবাহন পারাপার করছে।<br><br>মঙ্গলবার দুপুরে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, দৌলতদিয়া ঘাটের জিরো পয়েন্ট হতে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ ফিডমিলস পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে শত শত পণ্যবোঝাই ট্রাকের দীর্ঘ সারি। এছাড়াও আরেকটি লাইনে ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহসড়কের দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুল পর্যন্ত শতাধিক যাত্রীবাহী বাস ও কাঁচামালবাহী ট্রাক সিরিয়ালে আটকে রয়েছে। তবে যাত্রীবাহী বাস ও কাঁচামালবাহী ট্রাকগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। and nbsp;<br><br>দৌলতদিয়া ঘাটের যানজট পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গোয়ালন্দ মোড়ের রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের কল্যাণপুর পর্যন্ত সিরিয়ালে অপেক্ষা করছে অসংখ্য পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান।<br><br>এদিকে দুর্ভোগ কমাতে যাত্রীবাহি বাস ও পচনশীল পন্যবাহী ট্রাক অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করায় সাধারণ পন্যবাহী ট্রাক চালকরা পড়েছেন মহা বিপাকে। এসব ট্রাককে ফেরির নাগাল পেতে অন্তত ২৫-৩০ ঘণ্টা সিরিয়ালে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।<br><br>দৌলতদিয়া ঘাটে সিরিয়ালে আটকে থাকা ট্রাকচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সোমবার রাত ২টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটে এসে সিরিয়ালে আটকা পড়েছি। কখন ফেরির নাগাল পাব তা জানি না।’<br><br>ট্রাকচালক সুজন শেখ বলেন, ‘ঘাটে প্রতিনিয়তই কোনো না কোনো দুর্ভোগে পড়তে হয়। তবে গত কয়েকদিন ঘাটে কোনো দুর্ভোগ ছাড়াই পারাপার হচ্ছিলাম। হঠাৎ করেই রাতে দুটি ফেরি নষ্ট হয়ে পড়ায় যানবাহন পারাপারে ধীরগতি তৈরি হয়। সে কারণেই ঘাটে যানবাহনের সারিও বাড়তে থাকে। সকাল থেকে পুনরায় ফেরি দুটি চলাচল শুরু হলেও যানবাহনের চাপ থাকায় দীর্ঘ সিরিয়ালের সৃষ্টি হয়েছে।’<br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:27:26 1970-01-01 00:00:00 অনুমোদন পেল ধানের ১০টি নতুন জাত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113813 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512429_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512429_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বোরো মৌসুমে চাষের জন্য ধানের ১০ নতুন জাত অনুমোদন দিয়েছে সরকার। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) উদ্ভাবিত ২টি ইনব্রিড, বাংলাদেশ পরমাণু গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উদ্ভাবিত ১টি ইনব্রিড, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে ব্র্যাক উদ্ভাবিত ১টি ইনব্রিড ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ৬টি হাইব্রিড জাত নিবন্ধন ও ছাড় করা হয়েছে।<br><br>মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে কৃষি সচিব ও জাতীয় বীজ বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সায়েদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় বীজ বোর্ডের ১০৬তম সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়।<br><br>কৃষি সচিব বলেন, হাইব্রিডের ফলন বেশি। স্বল্প জমি থেকে বেশি উৎপাদনের জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় এখন হাইব্রিডের জাত উদ্ভাবন ও আবাদ বৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। এরই মধ্যে অনেকগুলো প্রায় ২১৮টি জাতের নিবন্ধন হয়েছে। এখন থেকে আরও মানসম্পন্ন ও দীর্ঘসময় ধরে কৃষককে লাভবান করবে, এমন জাত নিবন্ধনে গুরুত্ব দেওয়া হবে।<br><br>কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ব্রি উদ্ভাবিত ছাড়কৃত ব্রি ধান-১০১ ব্যাকটেরিয়াজনিত পোড়া রোগ প্রতিরোধী ও ব্রি ধান-১০২ জিংকসমৃদ্ধ। ট্রায়ালে ব্রি ধান-১০১ এর গড় ফলন হেক্টর প্রতি ৭ দশমিক ৭২ টন, আর ব্রি ধান-১০২ এর ৮ দশমিক ১১ টন। ব্রি ধান-১০২ ধানে জিংকের পরিমাণ ২৫ দশমিক ৫ মিলিগ্রাম/কেজি। বিনা উদ্ভাবিত বিনা ধান-২৫ ট্রায়ালে গড় ফলন হেক্টর প্রতি ৭ দশমিক ৬৪ টন পাওয়া গেছে। এটির চাল অতি লম্বা ও সরু, ভাত সাদা, ঝরঝরে ও সুস্বাদু। জীবনকাল ১৪৫ দিন।<br><br>বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ব্র্যাক উদ্ভাবিত ব্র্যাক ধান-২ এর গড় ফলন হেক্টর প্রতি ৭ দশমিক ৩৬ টন। দানা চিকন, সুগন্ধযুক্ত ও আগাম জাত। জীবনকাল ১৩৯ দিন। এছাড়া, বেসরকারি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ৬টি হাইব্রিড ধানের ফলাফল পুনরায় পর্যালোচনা করে নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে।<br><br>সভায় মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (বীজ) আব্দুল্লাহ সাজ্জাদ, অতিরিক্ত সচিব কমলারঞ্জন দাশ, বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মো. বখতিয়ার, বিএডিসির চেয়ারম্যান এএফএম হায়াতুল্লাহ, ব্রি’র মহাপরিচালক শাহজাহান কবীর, বিনার মহাপরিচালক মির্জা মোফাজ্জল ইসলামসহ বীজ বোর্ডের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:26:44 1970-01-01 00:00:00 প্রতারণার মামলায় রিজেন্টের সাহেদের বিচার শুরু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113812 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512390_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/18/1642512390_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জালিয়াতিতে ধরা রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদের বিরুদ্ধে একটি প্রতারণা মামলায় বিচার শুরু হয়েছে। ঢাকার উত্তরা পশ্চিম থানায় একজন বালু ব্যবসায়ীর দায়ের করা প্রতারণার মামলাটিতে সাহেদের সঙ্গে তার দুই সহযোগীর বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত।<br><br>মঙ্গলবার ঢাকার মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী তিন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর জন্য ১৫ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করে দেন। এই মামলায় সাহেদ ছাড়া অভিযুক্ত অপর দুজন হলেন শিপন আলী ও মাসুদ পারভেজ। এর মধ্যে মাসুদ ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)। তাদের তিনজনের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় প্রতারণা, বিশ্বাস ভঙ্গ, অর্থ আত্মসাত এবং হুমকির অভিযোগ আনা হয়েছে।<br><br>রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান জানান, অভিযোগ গঠনের শুনানিতে আসামিরা নিজেদের নিদোর্ষ দাবি করে ন্যায়বিচার চান। তাদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে বিচারক অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।<br><br>মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, শিপন আলী ২০১৯ সালের ২৭ অক্টোবর এস এম শিপনের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান থেকে ১৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকার ৫০ লাখ সিএফটি বালু কেনেন। এর মূল্য পরিশোধের জন্য দেয়া চেক ডিজঅনার হয়। এরপর প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে বাদী মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালে ৮ নভেম্বর সাহেদসহ তিনজনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন সিআইডির পুলিশের পরিদর্শক আকরাম হোসেন।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2022-01-18 19:26:13 1970-01-01 00:00:00 বেনাপোলে আমদানি-রফতানি বন্ধ, আটকে আছে শতাধিক ট্রাক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113811 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642507159_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642507159_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বেনাপোলের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোলে পরিচয়পত্র নিয়ে জটিলতায় দ্বিতীয় দিনের মতো বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি বন্ধ রয়েছে। তবে স্বাভাবিক রয়েছে রফতানি কার্যক্রম। এর ফলে কাঁচামালসহ শত শত পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে পেট্রাপোল বন্দরে। এর মধ্যে রফতানিমূখী শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালামাল রয়েছে। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল থেকে মঙ্গলবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত আমদানি বন্ধ ছিল। কখন নাগাদ আমদানি কার্যক্রম চালু হবে তা কেউ বলতে পারেনি। এ বিষয়ে পেট্রাপোল ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে বিএসএফ, কাস্টমস ও বন্দরের বৈঠকের পর কোন ফলপ্রসূ আলোচনা না হওয়ায় মঙ্গলবারও আমদানি বন্ধ থাকছে। নানা সমস্যায় দুই দিন পর পর এই পথে আমদানি বন্ধ করে দেওয়ায় ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।<br><br>বনগাঁ গুডস ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক বুদ্ধদেব বিশ্বাস জানান, এতদিন আমরা সংগঠনের পরিচয়পত্র নিয়ে পেট্রাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানির কাজ করে আসছিলাম। গত শনিবার (১৫ জানুয়ারি) পেট্রাপোল বিএসএফ থেকে বলা হয় ভারতীয় কাস্টমস, বন্দর, সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ও ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ স্বাক্ষরের পরিচয়পত্র ছাড়া কাউকে বন্দর এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এ কারণে শনিবার ৮ ঘন্টা বন্ধ থাকে আমদানি-রফতানি। পরে এক বৈঠকে আলোচনার পর পুনরায় চালু হয় আমদানি-রফতানি। আমরা সময় চাইলেও তারা আজ সোমবার (১৭ জানুয়ারি) পর্যন্ত সময় দেন। ২ দিনের মধ্যে ৪টি সংস্থা থেকে পরিচয়পত্র সংগ্রহ করাও কঠিন। সে কারণে বাধ্য হয়ে বাংলাদেশে রফতানি পণ্য বন্ধ করে দেওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। সবার সাথে কথা বলে রফতানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আজও বৈঠক হয়েছে কোন সিদ্ধান্তে পৌছেতে পারেনি কেউ। <br><br>হঠাৎ করে বিএসএফের এমন কর্মকাণ্ডকে হয়রানি অভিযোগ এনে সোমবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য আমদানি বাণিজ্য বন্ধ রেখেছে ভারতের ২৪ পরগনা বনগাঁ গুড ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন নামে একটি বাণিজ্যিক সংগঠন। এদিকে আমদানি বন্ধ থাকায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে শত শত টাক পণ্য নিয়ে বেনাপোলে প্রবেশের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে। দ্রুত বাণিজ্য চালু না হলে ক্ষতির আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে বাণিজ্য চালু করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলছেন ব্যবসায়ী নেতারা।<br><br>বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের কার্গো বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন জানান, ভারতের বগনা বনগাঁ গুডস ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন তাদের চিঠিতে জানিয়েছে। তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়টি মিমাংসা না হওয়া পর্যন্ত বেনাপোল বন্দরের সাথে আমদানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে। তবে বাণিজ্য সচলের জন্য ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সাথে বৈঠক চলছে।<br><br>বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি মো. রাজু জানান, এ পথে ভারত থেকে পণ্য আমদানি বন্ধ রয়েছে বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে জেনেছি। তবে দু‘দেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।<br><br>বেনাপোল স্থল বন্দরের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) সঞ্জয় বাড়ৈ বলেন, ভারতীয় অভ্যন্তরীণ ঝামেলায় সোমবার সকাল থেকে আমদানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। তবে যাতে বাণিজ্য চালু হয় বিভিন্ন ভাবে তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে।<br><br>উল্লেখ্য, প্রতিদিন ভারত থেকে সাড়ে ৩০০ ট্রাক বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি ও ১৫০ ট্রাক পণ্য ভারতে রফতানি হয়ে থাকে। প্রতিদিন আমদানি পণ্য থেকে সরকারের ২০ থেকে ৩৫ কোটি টাকা পর্যন্ত রাজস্ব আয় হয়। যাত্রী যাতায়াত হয় দিনে ৬০০ জনের মতো। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও দেশের অর্থনৈতিকে সচল রাখতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে বাংলাদেশ বাণিজ্য ও যাত্রী যাতায়াত সচল রাখার চেস্টা করলেও ভারতীয়রা একের পর এক নানা সমস্যা সৃস্টি করে বাণিজ্য বন্ধ করে দিচ্ছে। এমনিতে বনগাঁ পৌর পার্কিং এ এক একটি ট্রাক এক মাসেরও অধিক সময় আটকে রাখা হচ্ছে। তারপরও আমদানি বাণিজ্যে অচলাবস্থা সৃষ্টিতে বাণিজ্যে মারাত্মক প্রভাব পড়ছে। এসব কারণে ব্যবসায়ীরা এ বন্দর থেকে মুখ ঘুরিয়ে অন্য বন্দরে চলে যাচ্ছে। <br></body></HTML> 2022-01-18 17:58:55 1970-01-01 00:00:00 বর্তমানে আক্রান্তদের ২০ শতাংশেরই ওমিক্রন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113810 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642507058_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642507058_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দেশে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তদের মধ্যে ২০ শতাংশই দক্ষিণ আফ্রিকার ধরন ওমিক্রনে আক্রান্ত। মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) জিনোম সিকোয়েন্সিং রিসার্চ প্রজেক্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক (সুপারভাইজার) শারফুদ্দিন আহমেদ এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন। কেভিড-১৯ এর জিনোম সিকোয়েন্সিং গবেষণার উদ্দেশ্য কেভিড-১৯ এর জিনোম চরিত্র উন্মোচন, মিউটেশনের ধরন এবং বৈশ্বিক কোভিড-১৯ ভাইরাসের জিনোমের সঙ্গে এর আন্তঃসম্পর্ক বের করা এবং বাংলাদেশি কোভিড-১৯ জিনোমের ডাটাবেজ তৈরি করা।<br><br>তিনি বলেন, ‘এ প্রতিবেদন বিএসএমএমইউ-এর চলমান গবেষণার ৬ (ছয়) মাস ১৫ (পনের) দিনের ফল, আমরা আশা করি পরবর্তী সপ্তাহগুলোয় হালনাগাদ করা ফল জানাতে পারব। ২৯ জুন ২০২১ থেকে ৮ জানুয়ারি ২০২২ পর্যন্ত দেশব্যাপী কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের ওপর এ গবেষণা পরিচালিত হয় ‘ গবেষণায় দেশের সব বিভাগের প্রতিনিধিদের স্যাম্পলিং করা হয়। গবেষণায় মোট ৭৬৯ কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগীর স্যাম্পল থেকে নেক্সট জেনারেশন সিকোয়েন্সিংয়ের মাধ্যমে জিনোম সিকোয়েন্সিং করা হয়।<br><br>বিএসএমএমইউর গবেষণায় ৯ মাস থেকে শুরু করে ৯০ বছর বয়স পর্যন্ত রোগী অন্তর্ভুক্ত ছিল। এতে ২১ থেকে ৫৮ বছর বয়সের রোগীর সংখ্যা বেশি। যেহেতু কোনো বয়সসীমাকেই কোভিড ১৯-এর জন্য ইমিউন করছে না, সে হিসেবে শিশুদের মধ্যেও কোভিড সংক্রমণ রয়েছে।<br>গবেষণায় বলা হয়, কোভিড আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে যাদের কো-মরবিডিটি রয়েছে যেমন- ক্যানসার, শ্বাসতন্ত্রের রোগ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস তাদের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যা বেশি পেয়েছিলাম। পাশাপাশি ষাটোর্ধ্ব বয়সের রোগীদের দ্বিতীয়বার সংক্রমণ হলে সেক্ষেত্রে মৃত্যুঝুঁকি বেশি পরিলক্ষিত হয়েছে।</body></HTML> 2022-01-18 17:57:11 1970-01-01 00:00:00 বদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113809 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506739_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506739_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কক্সবাজার-৪ আসনের সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।<br>দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় অভিযোগ গঠন বাতিল চেয়ে এমপি আব্দুর রহমান বদির আনা আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে বিচারিক আদালতে মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন।<br><br>দুদকের পক্ষে আইনজীবী এডভোকেট মো. খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের জানান, অভিযোগ গঠনের সময় আব্দুর রহমান বদি অব্যাহতি চেয়েছেন। কিন্তু সে আবেদন খারিজ করে দেন বিচারিক আদালত। পরে সেই খারিজাদেশের বিরুদ্ধে তিনি হাইকোর্টে আবেদন করেন। আজ তার আইনজীবী আদালতে জানান হাইকোর্টে এ মামলা তারা চালাবেন না। এ জন্য তাদের আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করেছেন এবং বিচারিক আদালতকে দ্রুত মামলাটি নিষ্পত্তি করতে বলেছেন।<br><br>৫৬ লাখ ১১ হাজার ৫০০ টাকার সম্পদ গোপন ও ৭৯ লাখ ৩৭ হাজার ৭৯৭ টাকা জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর আব্দুর রহমান বদির বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। দীর্ঘদিন স্থগিত থাকার পর মামলাটির কার্যক্রম ২০১৭ সালে সচল হয়।<br>এ মামলায় ২০২০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর তার অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন চট্রগ্রামের বিচারিক আদালত। ওই আদেশ বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিভিশন করেন আব্দুর রহমান বদি।<br>সূত্র: বাসস</body></HTML> 2022-01-18 17:51:20 1970-01-01 00:00:00 হাফ ভাড়া দেওয়ায় শিক্ষার্থীর ঘড়ি-মানিব্যাগ কেড়ে নিয়ে মারধর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113808 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506496_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506496_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাসে হাফ ভাড়া দেওয়ায় মারধর করে ঘড়ি ও মানিব্যাগ কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন তিতুমীর কলেজের দুই শিক্ষার্থী। মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর মহাখালী এলাকায় মনজিল পরিবহনের এটি বাসের চালক ও হেলপার মিলে এমনটা করেন বলে জানান ওই দুই শিক্ষার্থী।<br><br>পরে তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থীরা মহাখালী এলাকায় মনজিল পরিবহনের ৭/৮টি বাস আটকে দেয়। শিক্ষার্থীদের দাবি, ওই চালক-হেলপারকে ঘটনাস্থলে আনতে হবে। ক্ষতিপূরণসহ মানিব্যাগ ও হাতঘড়ি ফিরিয়ে দিতে হবে। হামলাকারী চালক ও হেলপারের বিরুদ্ধে মামলাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে।<br>শিক্ষার্থীদের বরাতে পুলিশ জানায়, সকাল ৮টার দিকে মহাখালী কাঁচাবাজার এলাকা থেকে নাহিদ ও দুর্জয় নামে তিতুমীর কলেজের অর্থনীতির ৪র্থ বর্ষের দুই শিক্ষার্থী খিলক্ষেত যাওয়ার উদ্দেশে বাসে ওঠেন। তারা হাফ ভাড়া দিতে চাইলে মনজিল বাসের হেলপার সম্পূর্ণ ভাড়া চান। ভাড়া নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।<br><br>এক পর্যায়ে বাসটির চালক ও হেলপার দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করেন। এরপর শিক্ষার্থীদের মানিব্যাগ ও হাতঘড়ি কেড়ে নিয়ে বাস থেকে নামিয়ে দিয়ে চলে যান। ঘটনার পর শিক্ষার্থীরা তিতুমীর কলেজে ফিরে আসেন। এরপর ঘটনার খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মহাখালী কাঁচাবাজারের সামনে এসে মনজিল পরিবহনের অন্য ৭/৮টি বাস আটকে দেন তারা।<br><br>গুলশান ট্রাফিক বিভাগের মহাখালী জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) আশফাক আহমেদ জানান, হাফ ভাড়া না নিয়ে তিতুমীর কলেজের দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করে নামিয়ে দেওয়ার অভিযোগে শিক্ষার্থীরা মনজিল পরিবহনের কয়েকটি বাস আটকে দিয়েছেন। পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে রয়েছেন। মনজিল পরিবহনের মালিকপক্ষকে ঘটনাস্থলে আসতে বলা হয়েছে, বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে। <br></body></HTML> 2022-01-18 17:46:34 1970-01-01 00:00:00 চীন সীমান্তে এস-৪০০ মোতায়েন করবে ভারত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113807 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506339_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506339_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>রাশিয়া থেকে পাঁচটি এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কিনছে ভারত। চলতি বছরের মধ্যেই সব ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাই চীন সীমান্তে মোতায়েনের পরিকল্পনা রয়েছে নয়াদিল্লির। ২০১৮ সালে রাশিয়ার কাছ থেকে আকাশ প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাটির ৫টি ইউনিট কিনতে মোট ৫৪৩ কোটি মার্কিন ডলারের চুক্তি করে ভারত। রাশিয়া ইতোমধ্যে ভারতকে এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সরবরাহ করতে শুরু করেছে।<br><br>আকাশ ও সমুদ্রপথে এগুলো ভারতে পৌঁছাচ্ছে। এ বছরের মধ্যেই রাশিয়া চুক্তি অনুযায়ী সব ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহের কাজ শেষ করতে পারবে বলে নয়াদিল্লি আশা করছে। চীনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত বিরোধ দীর্ঘদিনের এবং দুই দেশ এ কারণে সংঘর্ষেও জড়িয়েছে। ২০২০ সালের মে মাসেও লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।<br><br>সূত্র: পার্সটুডে</body></HTML> 2022-01-18 17:44:51 1970-01-01 00:00:00 তিনি বললেন, ‘আমার বয়স এত না’ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113806 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506200_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642506200_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কুমিল্লা প্রতিনিধি ॥ </span><br>কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ ইসমাইল প্রায় ৯০ বছর বয়সে বিয়ে করে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। and nbsp; সোমবার দুপুরে কুমিল্লা নগরীর দেশওয়ালীপট্টির ৪০ বছর বয়সী এক নারীকে বিয়ে করেন তিনি। অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ইসমাইল কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন পাঁচবার। তার পাঁচ ছেলে রয়েছে। বিয়েতে ৫০ জনের মতো আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন। and nbsp;<br><br>নতুন এই দম্পতির বিয়ের ছবি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ রসঘন আলাপ চলছে। বরের বয়স নিয়ে অনেকেই রসিকতা করার চেষ্টা করছেন। তবে বেশিরভাগ মানুষই বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন। তার প্রথম স্ত্রী মাহমুদা বেগম সাত বছর আগে মারা গেছেন। তাই নিঃসঙ্গতা কাটানোর জন্যই তিনি বিয়ে করেছেন। তিনি ১৯৭০ সালে কুমিল্লার আদালতে আইনজীবী হিসেবে কাজ শুরু করেন। এখনও তিনি নিয়মিত আদালতে যান, মামলা লড়েন।<br><br>বিয়ে প্রসঙ্গে তিনি গণমাধ্যমকে বলেছেন, শেষ বয়সে শরীরে শক্তি থাকে না। এ সময় একজন সঙ্গী হলে পথচলা সহজ হয়। তাই বিয়ে করলাম। and nbsp; বয়স নিয়ে তিনি বলেন, ৯০-৯৩ বলা হলেও আমার বয়স আসলে অত না। ৮৫-৮৬ হতে পারে। <br></body></HTML> 2022-01-18 17:42:03 1970-01-01 00:00:00 শিমুকে খুন করে স্বামী, লাশ গুমে বন্ধু ফরহাদ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113805 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642505843_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642505843_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কেরানিগঞ্জে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় তার স্বামী নোবেল ও নোবেলের বন্ধু ফরহাদকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, দাম্পত্য কলহের জের ধরে তাকে (শিমু) হত্যা করেছে স্বামী নোবেল। আর লাশ গুমে সে বন্ধু ফরহাদের সহযোগিতা নেয়। মঙ্গলবার ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এসব কথা বলেন ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন সরদার।<br><br>প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার শিমুর স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল চিত্রনায়িকা শিমুকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেছেন বলেও জানান এসপি মারুফ। তিনি বলেন, চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুকে পারিবারিক ও দাম্পত্য কলহের জেরে তার স্বামী নোবেল হত্যা করেছে। প্রাথমিকভাবে এই হত্যার দায় স্বীকার করেছেন তিনি। এর আগে অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় তার স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল এবং বন্ধু ফরহাদকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার দিবাগত রাতে র‌্যাব তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আটক করে। পরে শিমুর স্বামী সাখাওয়াত জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। আটকের সময় তাদের কাছ থেকে একটি ‘রক্তমাখা প্রাইভেটকার’ উদ্ধার করা হয়েছে। গাড়িটিতে রক্তের চিহ্ন আছে।<br><br>এর আগে সোমবার সকাল ১০ টায় কেরানীগঞ্জ থেকে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তার মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকায় স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতালে মর্গে রাখা হয়। পরিবারসূত্রে জানা যায়, গত রোববার (১৬ জানুয়ারি) কলাবাগানের বাসা থেকে নিখোঁজ হন শিমু। এই ঘটনায় কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। পরদিন শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।<br><br>এ বিষয়ে নিহত শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন রাতে সাংবাদিকদের জানায়, তার বোন জামাই নোবেল প্রায়ই শিমুকে মারধর করতেন। সে মাদকাসক্ত। র‌্যাব ও পুলিশের কাছে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে।</body></HTML> 2022-01-18 17:34:57 1970-01-01 00:00:00 শৈত্যপ্রবাহে কাবু নিম্ন আয়ের মানুষ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113804 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642481025_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642481025_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দিনাজপুরে এখন মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলমান। ঘন কুয়াশা এবং শৈত্যপ্রবাহের কারণে শীতে কাবু হয়ে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। অনেকেই কর্মহীন দিন কাটাচ্ছেন। আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন তারা। মঙ্গলবার ( ১৮ জানুয়ারি) সকালে দিনাজপুরে তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ১০.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড় ও তেঁতুলিয়ায় ৯.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা তোফাজ্জাল হোসেন।<br><br>তিনি জানান, দিনাজপুরে সকাল ৬ টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১০.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাতাসের আদ্রতা ৯৪ শতাংশ, বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৪-৫ কিলোমিটার। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এটি উত্তর বা উত্তর পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৮-১০ কিলোমিটার গতিতে ধাবিত হতে পারে। <br>আজ রংপুরে ১২.০, সৈয়দপুরে ১১.৬, রাজারহাটে ১১.৯, ডিমলায় ১১.৮, বদলগাছিতে ১০.০, যশোরে ১০.৬, চুয়াডাঙ্গায় ১০.৪ রাজশাহীতে ১১.০, শ্রীমঙ্গলে ১১.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড হয়েছে। <br></body></HTML> 2022-01-18 10:43:02 1970-01-01 00:00:00 প্রাইভেটকার খাদে পড়ে ২ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113803 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642480836_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642480836_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের পৌরসভার দত্তপাড়া এলাকায় প্রাইভেটকারটি খাদে পড়ে সোনারগাঁ থানার দুই উপ-পরিদর্শক (এসআই) নিহত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। নিহতরা হলেন, ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার মুনসুরাবাদ গ্রামের কাজী নুরুল ইসলামের ছেলে কাজী সালেহ আহম্মেদ ও গোপালগঞ্জের চরভাটপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে এস এম শরীফুল ইসলাম। তারা সোনারগাঁ থানায় কর্তরত ছিলেন।<br><br>নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম জানান, রোববার সোনারগাঁয়ের মোগড়াপাড়া এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি প্রাইভেট কার থেকে ৪২ হাজার পিস ইয়াবাসহ এক মাদক পাচারকারীকে আটক হয়। পরে তাদের থানায় নিয়ে মামলা করা হয়। আজ বিকেলে ওই মামলার কাজে আদালতে যাওয়ার পথে দত্তপাড়া এলাকায় একটি গাড়িকে সাইট দিতে গিয়ে পুলিশের গাড়িটি খাদে পুকুরে পড়ে গাড়িটি মূহুর্তের মধ্যে পানিতে তলিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কাজী সালেহ আহম্মেদ ও শরিফুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন।<br><br></body></HTML> 2022-01-18 10:40:09 1970-01-01 00:00:00 শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের রাষ্ট্রপতির কাছে খোলা চিঠি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=113802 http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642480690_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2022/01/16/1642480690_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বেশ কয়েকদিন থেকেই উত্তাল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি)। রোববার (১৬ জানুয়ারি) ৩ দফা দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ঘটনায় রাতভর আন্দোলন করেছে তারা। রাতে শাবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ চেয়ে রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য্য মো. আব্দুল হামিদের and nbsp; উদ্দেশ্যে খোলা চিঠি পাঠ করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এতে রাষ্ট্রপতির কাছে শিক্ষার্থীবান্ধব উপাচার্য নিয়োগ দিয়ে ক্যাম্পাসের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান তারা।<br><br>সোমবার (১৭ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে উপাচার্যের বাস ভবনের সামনে আন্দোলনরত অবস্থায় এ চিঠি পাঠ করেন শিক্ষার্থীরা।<br>রাষ্ট্রপতির কাছে খোলা চিঠিতে শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি। ১৯৭১ সালে ৩০ লক্ষ শহীদ ও ২ লক্ষ বীরাঙ্গনার ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের বিধি মোতাবেক, আপনি আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য। আমাদের শিক্ষার্থীদের নিরাপদ শিক্ষা পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য আপনি সাংবিধানিক বিধি মোতাবেক আপনার প্রতিনিধিস্বরূপ উপাচার্য নিয়োগ করে থাকেন। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা দেশের কল্যাণে নিজেদের প্রস্তুত করার উদ্দেশ্যে অধ্যয়নে নিবেদিত আছি।<br><br>রোববার (১৬ জানুয়ারি) শাবিপ্রবির ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া আইআইসিটি ভবনের সামনে নিরাপদ আবাসন পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য ৩ দফা দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর বিনা উস্কানিতে সুপরিকল্পিতভাবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদে পুলিশ নিষ্ঠুর হামলা চালায়। এ সময় বাংলাদেশের জনগণের টাকায় ক্রয়কৃত আধুনিক অস্ত্রসজ্জিত পুলিশের নির্বিচার লাঠিচার্জ, রাবার বুলেট ও সাউন্ড গ্রেনেডের স্বীকার হন নিরস্ত্র শিক্ষার্থীরা।<br><br>এতে গুরুতর আহত হয়েছে অন্তত ৪০ জন শিক্ষার্থী, যাদের মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ২০ এর বেশি। কারো মাথা ফেটেছে, রাবার বুলেট ও সাউন্ড গ্রেনেডের স্প্লিন্টারের আঘাতে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়ে মারাত্মক আহত হয়েছেন অনেকে । ছাত্রীদের ওপর নিষ্ঠুর ভাবে পুরুষ পুলিশ সদস্যরা লাঠি চার্জ করেছে। ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক পুলিশ ডেকে এনে শিক্ষার্থীদের ওপর এমন নৃশংস হামলার ঘটনা স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন।<br><br>দাবি না মেনে উল্টো পুলিশী হামলায় শিক্ষার্থীদের মৃত্যু ঝুঁকিতে ফেলার ঘটনায় শাবিপ্রবির উপাচার্য যেভাবে মূল কুশীলবের ভূমিকা পালন করেছেন তা সরাসরি সংবিধান বিরোধী এবং আপনার (রাষ্ট্রপতি) কর্তৃক জনাব ফরিদ উদ্দিন আহমদের ওপর অর্পিত দ্বায়িত্বের সরাসরি বরখেলাপ।<br><br>চিঠিতে আরও বলা হয়, এ ঘটনায় শাবিপ্রবির সাবেক ও বর্তমান সব শিক্ষার্থী হতবাক এবং সংক্ষুদ্ধ। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মনে প্রাণে বিশ্বাস করে, আমাদের আচার্য তার জীবন অভিজ্ঞতা থেকে এটুকু বুঝতে পারেন যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দেশ, দশ ও নিজেদের ভালোমন্দ অনুধাবন করার সক্ষমতা রাখেন। দিনের মত পরিষ্কার যে আপনার প্রতিনিধি হিসেবে জনাব ফরিদ উদ্দিন আহমদ এই বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের দ্বায়িত্ব পালনের সকল নৈতিক, যৌক্তিক ও সাংবিধানিক যোগ্যতা হারিয়েছেন। এ ঘটনা আমাদের দৃঢ়প্রতিজ্ঞা করেছে, এই অথর্ব, অযোগ্য ও স্বৈরাচারী ব্যক্তিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী ক্ষমতায় বহাল রাখা বিশ্ববিদ্যালয়ের মূলমন্ত্রের পরিপন্থি। বর্তমানে কোনো শিক্ষার্থীই এই উপাচার্যের দায়িত্বে থাকাকালে ক্যাম্পাসে নিরাপদ বোধ করছে না। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে গতদিনের হামলার পর আজ (সোমবার) সারাদিন ক্যাম্পাসে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে জলকামান ও রায়টকারসহ পুলিশের উপস্থিতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনিরাপত্তার পরিবেশ তৈরি করেছে।<br><br>বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে আমরা আমাদের আচার্যর কাছে আবেদন করছি অবিলম্বে ক্যাম্পাসে মোতায়েনকৃত অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়ে আমাদের নিরাপত্তা বিধান করুন। এ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে, শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা উপচার্যের পদ থেকে গতকালের হামলার মূল মদদদাতা জনাব ফরিদ উদ্দিন আহমদের অবিলম্বে পদত্যাগ দাবি করে তাকে শাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান হিসেবে মহামান্য আচার্যের কাছে আমাদের আবেদন, আপনার সরাসরি হস্তক্ষেপে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্যের পদত্যাগ নিশ্চিত করে, একজন সৎ ও যোগ্য ব্যক্তিকে উপাচার্য হিসেবে অতিসত্ত্বর নিয়োগ দিয়ে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখতে উদ্যোগ নিন। <br></body></HTML> 2022-01-18 10:37:43 1970-01-01 00:00:00