http://www.hazarikapratidin.com RSS feed from hazarikapratidin.com en http://www.hazarikapratidin.com - হেফাজত নেতা খুরশিদ কাসেমীসহ গ্রেপ্তার ২ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105934 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016973_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016973_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সহ-সভাপতি এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমীকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।<br>বুধবার বিকালে ওয়ারী বিভাগের একটি টিম রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।<br>একই দিন বিকালে খেলাফত মজলিসের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুফতি শারাফত হোসাইনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গুলশান ডিবি পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে।<br>ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) মাহবুব আলম জানান, বিকালে ৫টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে খুরশিদ আলম কাসেমীকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওয়ারী গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি) আব্দুল আহাদ বলেন, হেফাজতের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সহ-সভাপতি এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমীকে বিকালে মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বরের ঘটনায় মামলা রয়েছে। সেই মামলাত গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।<br>এদিকে গুলশান ডিবি পুলিশের আরেকটি দল খেলাফত মজলিসের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুফতি শারাফত হোসাইনকে গ্রেপ্তার করেছে। তার বিরুদ্ধেও ২০১৩ সালের নাশকতার মামলা রয়েছে।<br>এর আগে, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আতাউল্লাহ আমীনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে পল্টন থানায় ২০১৩ সালের নাশকতার মামলা ছিল।<br>সম্প্রতি হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক ধরপাকড় চলছে। কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতাকে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:55:00 1970-01-01 00:00:00 দরিদ্রদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105933 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016947_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016947_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, দুঃস্থ, ভাসমান এবং অসচ্ছল মানুষের সহায়তায় ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।<br>প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে এই অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার প্রেস সচিব ইহসানুল করিম। তিনি বলেন, “লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, দুঃস্থ, ভাসমান এবং অসচ্ছল মানুষকে সহায়তার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে প্রধানমন্ত্রী এই অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন।”<br>স্থানীয় তালিকার ভিত্তিতে একেবারে প্রান্তিক পর্যায় পর্যন্ত জনগণ এই সুবিধা পাবেন বলেও জানান ইহসানুল করিম।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:55:00 1970-01-01 00:00:00 তিন মাসের মধ্যে টিকা রফতানির ‘নিশ্চয়তা’ নেই: সিরাম সিইও http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105932 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016909_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016909_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক<br>ভারতে আঘাত হেনেছে করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ। প্রায় প্রতিদিনই সেখানে চলছে আক্রান্ত-মৃত্যুর রেকর্ড ভাঙার ভয়ঙ্কর খেলা। এমন পরিস্থিতিতে গত মাসের শেষদিকে বিদেশে করোনার টিকা রফতানি স্থগিত করে ভারতীয় সরকার। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা। তবে তাতে থোড়াই কেয়ার ভারতের। আগামী তিন মাসের মধ্যে এই পরিস্থিতি পরিবর্তনের কোনও সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন বিশ্বের বৃহত্তম টিকা উৎপাদনকারী ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সিরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আদর পুনেওয়ালা। বুধবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, টিকা রফতানির কোনও নিশ্চয়তা নেই এবং এই মুহূর্তে আমরাও মনে করছি, এমন সংক্রমণের সময়ে আগামী দুই মাসের মধ্যে আমাদের রফতানির দিকে তাকানো উচিত হবে না।<br>সিরাম সিইও বলেন, হতে পারে জুন-জুলাইয়ে আমরা আবারও সামান্য পরিমাণে টিকা রফতানি শুরু করতে পারি। তবে এই মুহূর্তে আমরা দেশকেই অগ্রাধিকার দেব। ভারতে আগামী ১ মে থেকে নতুন ধাপে শুরু হচ্ছে করোনারোধী টিকাদান কার্যক্রম। এ পর্যায়ে ১৮ বছরের বেশি বয়সী সবাইকেই টিকা দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে প্রতি মাসে দেশটির আরও ২০ লাখ ডোজ বেশি প্রয়োজন পড়বে। তবে সিরামের জন্য সেই চাহিদা পূরণ বেশ চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়িয়েছে।<br>প্রথমত, টিকা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ভারত সরকারের কাছে তিন হাজার কোটি রুপি চেয়েছিলেন আদর পুনেওয়ালা। সেই অর্থ এখনও তার হাতে পৌঁছায়নি।<br>এ বিষয়ে সিরাম প্রধান বলেন, আমরা মিডিয়াতে বারবার দেখছি, তিন হাজার কোটি রুপি মঞ্জুর হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, এটি শিগগিরই আমাদের হাতে এসে পৌঁছাবে। তবে আমরা এই অর্থের জন্য অপেক্ষা করিনি, উৎপাদন বাড়াতে ব্যাংক থেকে অর্থ ধার করেছি। আশা করছি, এই সপ্তাহেই সরকার থেকে আমাদের কাছে ওই অর্থ পৌঁছাবে।<br>সিরামের সামনে বড় আরেকটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে টিকার কাঁচামাল রফতানিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা। চলতি সপ্তাহে আদর পুনেওয়ালা টুইটের মাধ্যমে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও ঠিকঠাক সাড়া মেলেনি।<br>সিরাম প্রধান বলেন, মার্কিন প্রশাসন মিডিয়ার মাধ্যমে সাড়া দিয়েছে। আমরা খবরে তাদের বলতে দেখেছি, তারা বিষয়টিতে অবগত এবং পরিস্থিতি বুঝতে পারছেন। তারা বিষয়টি দেখছেন। কিন্তু এখনও কাঁচামাল রফতানি চালু হয়নি।<br>তিনি জানান, এর কারণে ভারতে কোভিশিল্ডের উৎপাদন বা দামে কোনও প্রভাব পড়বে না। তবে কোভোভ্যাক্সের ওপর প্রভাব পড়তে পারে। আগামী তিন মাসের মধ্যে এটি ভারতের বাজারে ছাড়ার কথা রয়েছে।<br>আদর পুনেওয়ালা বলেন, এটি আমাদের দামের ওপর প্রভাব ফেলবে না। কারণ আমরা যুক্তরাষ্ট্রের বিকল্প সরবরাহকারী খুঁজে নিতে পারব। এতে শুধু একটু বেশি সময় লাগবে এই যা। তাতে কোভোভ্যাক্স মজুতে বাধা পড়তে পারে, সৌভাগ্যবশত কোভিশিল্ডে নয়।<br>কোভোভ্যাক্স হচ্ছে মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের আবিষ্কৃত করোনা টিকা, যা সিরামের কারখানায় উৎপাদিত হওয়ার কথা।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:54:00 1970-01-01 00:00:00 ৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105931 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016868_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016868_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে কঠোর বিধিনিষেধ চলাকালীন সময়ে সীমিত আকারে দিনে চার ঘণ্টা খোলা থাকবে ব্যাংক বর্হিভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান। গ্রাহকদের জরুরি আর্থিক সেবা দিতে এ নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।<br>বুধবার (২১ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে।<br>জানা গেছে, গত ১৪ এপ্রিল থেকে বিধিনিষেধ চলাকালেও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। ব্যাংকের সঙ্গে সমন্বয় করে প্রতিষ্ঠানগুলো যে যার মতো খোলা রেখেছে। তবে আজ সার্কুলার দিয়ে খোলার বিষয়ে সময়সূচি নির্ধারণ করে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।<br>আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের পাঠানো নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গ্রাহকদের জরুরি আর্থিক সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করে সীমিত আকারে আর্থিক প্রতিষ্ঠান কার্যক্রম চালু থাকবে। এতে বলা হয়েছে, গ্রাহকদের হিসাবে মেয়াদপূর্তিতে স্থায়ী আমানত নগদায়ন, ঋণের কিস্তি জমাদান ইত্যাদি জরুরি আর্থিক সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে ২০২১ সালের ২২ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিন ছাড়া আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সর্বোচ্চ দুটি শাখা (একটি ঢাকায় ও অপরটি ঢাকার বাইরে) ও প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। এ লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করে প্রয়োজনীয় জনবলের বিন্যাস ও উপস্থিতির বিষয়টি প্রতিষ্ঠানগুলো স্বীয় বিবেচনায় সম্পন্ন করবে।<br>আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩ এর ১৮(ছ) ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে সার্কুলারে বলা রয়েছে।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:54:00 1970-01-01 00:00:00 শান্তর সেঞ্চুরি, প্রথম দিনটি শুধুই বাংলাদেশের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105930 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016817_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016817_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্পোর্টস ডেস্ক:<br>পা্ল্েলকেলেতে অবিশ্বাস্য একদিন উপহার দিয়েছেন তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, নাজমুল হোসেন শান্তরা। স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বোলারদের নিয়ে রীতিমত ছেলেখেলা করেছেন তারা। তাতেই টেস্টের প্রথম দিন শেষে রানপাহাড় গড়ার পথে বাংলাদেশ। ২ উইকেটে ৩০২ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনে খেলতে নামবে টাইগাররা। উইকেটে আছেন সেঞ্চুরিয়ান শান্ত, হাফসেঞ্চুরিয়ান মুমিনুল।<br>এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলতি দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটির প্রথম দিনে বুধবার (২১ এপ্রিল) পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেয় বাংলাদেশ। কিন্তু দলীয় ৮ রানেই বিদায় নেন ওপেনার সাইফ হাসান। লঙ্কান পেসার বিশ্ব ফার্নান্দোর করা ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন সাইফ (০)। যদিও শুরুতে নট আউটের ইশারা করেন ফিল্ড আম্পায়ার। কিছুক্ষণ দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভোগার পর রিভিও নেন স্বাগতিক অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে। আর তাতে সিদ্ধান্ত আউট আসে।<br>শুরুর ধাক্কা সামাল দেন তামিম ও শান্ত। তামিম তো রীতিমত ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাট করেন। ৫৩ বলে তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারে ২৯তম ফিফটিও। এর মধ্যে ৪০ রানই আসে বাউন্ডারি থেকে। এক সময় তো বলের চেয়ে রানই ছিলো বেশি। ফিফটির কাছাকাছি গিয়ে নিজেকে কিছুটা সামলে নেন এই বাঁহাতি ওপেনার।<br>তামিম ফিফটির দেখা পাওয়ার পর রানের গতি কিছুটা কমে আসে। দ্বিতীয় সেশনে লঙ্কান বোলাররাও গুড লেন্থ খুঁজে পান। এরমধ্যেও ১২০ বলে ৭ চারে ফিফটি তুলে নেন শান্ত। এটি তার ক্যারিয়ারের মাত্র দ্বিতীয় টেস্ট ফিফটি। অন্যপ্রান্তে তামিম ছুটছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। দুজনে ১৪৪ রানের দারুণ জুটিও গড়েন।<br>কিন্তু বিশ্ব ফার্নান্দোর বলে স্লিপে থাকা থিরিমান্নের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১০ রান দূরে থামেন তামিম। ১০১ বল খেলে এই ইনিংসটি সাজানোর পথে ১৫টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন এই বাঁহাতি। তার বিদায়ের পর ক্রিজে আসা মুমিনুল ধীরেসুস্থে ব্যাটিং করে শান্তকে দারুণ সঙ্গ দেন। এই জুটিতে ৩১১ বলে আসে ১৫০ রান।<br>এরইমধ্যে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি পেয়ে যান শান্ত। ২৩৫ বলে ১২ চার ও এক ছক্কায় পাওয়া এই সেঞ্চুরি নাজমুলের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত ২৮৮ বলে ১৪টি চার ও এক ছক্কায ১২৬ রানে অপরাজিত থাকেন।<br>১১৭ বলে হাফসেঞ্চুরি করা মুমিনুলও দারুণ ধর্য্যের পরিচয় দেন। তিনি ১৫০ বল মোকাবিলা করে ৬টি চারের সাহায্যে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন।<br>লঙ্কান বোলারদের মধ্যে একমাত্র সফল ছিলেন বিশ্ব ফার্নান্দো। তিনি ২টি উইকেটই তুলে নেন।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:53:00 1970-01-01 00:00:00 শপিং মল-দোকান খোলার সিদ্ধান্ত শিগগির আসতে পারে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105929 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016768_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016768_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারের পক্ষ থেকে দুই দফা সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সর্বশেষ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রজ্ঞাপনে সর্বাত্মক লকডাউন ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ মানুষজনের চলাচলের প্রতি কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। <br>চলমান লকডাউনের কারণে ঈদকেন্দ্রিক ব্যবসা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীরা। তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকানপাট ও বিপণিবিতান খুলে দেওয়ার দাবি করছেন। এমন পরিস্থিতিতে সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে দোকানমালিকদের ধৈর্য ধরতে বলা হয়েছে।<br>তবে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন মনে করছেন আগামী সোমবার (২৬ এপ্রিল) থেকে দেশের সব দোকানপাট ও বিপণিবিতান খুলে দেওয়া হতে পারে।<br>বুধবার তিনি বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছি। আমরা সবসময় মনেকরি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অভিভাবক হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই জন্য আমরা কখনো ওনার কাছে আবেদন করে খালি হাতে ফেরত আসিনি। <br>ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের চোখে মুখে শুধু বালুচর। আমাদের সব ইনভেস্টমেন্ট এখন নষ্ট হওয়ার পথে। সেই ক্ষেত্রে আমরা আশা করতেছি আগামী রোববার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে একটা সুসংবাদ পাব, যাতে আমরা সোমবার দোকাপাট খুলতে পারি।<br>দোকান ও শপিং মল খুলে দেওয়া হলে ব্যবসায়ীরা শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করবে বলে মনে করছেন হেলাল উদ্দিন।<br>সরকারের দেওয়া বিধিনিষেধ অনুযায়ী দোকানপাট ও শপিং মল বন্ধ রাখা হয়েছে। ঈদের আগে যদি দোকানপাট ও শপিং মল খোলার সিদ্ধান্ত না আসে তাহলে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা পথে বসে যাবেন। এসব বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রী আগামী সোমবার দোকান ও বিপণিবিতান খুলে দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে মনে করেন দোকান মালিক সমিতির নেতারা। <br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:52:00 1970-01-01 00:00:00 খালেদা জিয়ার সঙ্গে বাবুনগরীর কোনোদিন দেখা হয়নি: হেফাজত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105928 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016742_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016742_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>২০১৩ সালের ৫ মে'র ঘটনার এক সপ্তাহ আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর যে গোপন বৈঠকের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, তার প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এই সংবাদকে 'মিথ্যাচার' বলে উল্লেখ করে সংগঠনটি।<br>বুধবার (২১ এপ্রিল) এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর হাফেজ মাওলানা তাজুল ইসলামের (পীর সাহেব ফিরোজশাহ) পক্ষে প্রতিবাদলিপি পাঠানো হয়।<br>মাওলানা তাজুল ইসলাম বলেন, 'হেফাজতের শীর্ষ নেতৃত্বকে কলঙ্কিত করতে মুফতি ফখরুল ইসলামের কাছ থেকে পুলিশ মিথ্যা স্বীকারোক্তি আদায় করেছে। এই স্বীকারোক্তি একজন সর্বজন শ্রদ্ধেয় শীর্ষ আলেমের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছু নয়। দেশবাসী এমন মিথ্যা স্বীকারোক্তি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।'<br>তিনি বলেন, 'হেফাজত আমীরের কাছ থেকে আমি জেনেছি- ২০১৩ সালে রিমান্ডে পুলিশকে বলেছেন, খালেদা জিয়ার সঙ্গে বাবুনগরীর কোনোদিন সামনাসামনি দেখা পর্যন্ত হয়নি। অথচ মুঈনুদ্দীন রুহি ও ফখরুল ইসলাম এ বিষয়ে মিথ্যাচার করেছেন। তারা এই দাবির স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ হাজির করতে পারবে না।'<br>মাওলানা তাজুল ইসলাম বলেন, 'রমজান মাসে আলেম-ওলামার ওপর পুরনো মিথ্যা মামলা সচল করে দমন-পীড়ন চালানো হচ্ছে। গুটিকয়েক নীতি-আদর্শচ্যুত সাবেক নেতাকে এতে দাবার গুটি হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। অথচ ২০১৩ সাল বেশি দিন আগের ঘটনা নয়। এখনও ইন্টারনেটে সার্চ দিলে সহজেই জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত তখনকার সংবাদে খুঁজে পাওয়া যাবে, সে সময় কোন নেতার কী ভূমিকা ছিল।'<br>প্রতিবাদলিপিতে সরকার ও প্রশাসনের প্রতি আলেম-ওলামাদের ওপর দমন-পীড়ন, মিথ্যা মামলা এবং অপবাদ বন্ধের দাবি জানান মাওলানা তাজুল ইসলাম।<br>প্রসঙ্গত, সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয় যে, ৫ মে শাপলা চত্বরে হেফাজতে ইসলাম অবরোধ কর্মসূচি পালন করতে যাওয়ার ঠিক এক সপ্তাহ আগে খালেদা জিয়ার সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছিলেন জুনায়েদ বাবুনগরী। ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারীর আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এই তথ্য জানান সংগঠনের ঢাকা মহানগর কমিটির তৎকালীন প্রচার সম্পাদক মুফতি ফখরুল ইসলাম।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:52:00 1970-01-01 00:00:00 আগামী বাজেট দরিদ্র মানুষের জন্য http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105927 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016716_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016716_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>আগামী অর্থবছরের বাজেট দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য নিবেদিত থাকবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।<br>বুধবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।<br>দরিদ্রদের নিয়ে চালানো দুটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের জরিপের বিষয়ে তুলে ধরে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘গরিব মানুষের জন্য আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে তাদেরকে গরিব থেকে বের করে নিয়ে আসা। যারা অতিরিক্ত গরিব আছে তারা গরিব হবে এবং যারা গরিব আছে তাদেরকে আমরা মূলস্রোতধারায় নিয়ে আসব। সেভাবেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আর গবেষণা করে যদি তারা কোনো তথ্য দিয়ে থাকে সেটা পরিসংখ্যান ব্যুরো দেখবেন। তাদের অ্যাসেসমেন্টে আমরা গ্রহণ করব। সেটা এখনো তৈরি হয়নি, হলে আমরা অবশ্যই আপনাদের জানাবো।’ দরিদ্রদের মূলস্রোতে আনতে বাজেটে বড় একটি বরাদ্দ দরকার, সেক্ষেত্রে নতুন করে সামাজিক সুরক্ষাখাতে বাড়তি কোনো বরাদ্দ রাখবেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের আগামী বাজেট নিবেদিত থাকবে এ দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য। এরাই অগ্রাধিকার পাবে। সুতরাং আমরা ’মানুষের জীবন-জীবিকার জন্য বাজেটে জায়গা করে দেবো।’ গতবছর দরিদ্রদের অর্থ বিতরণে গোলমাল হয়েছে, এবছর ৩৫ লাখ মানুষকে আড়াই হাজার টাকা করে দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত কী জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের মিসম্যাচটা হওয়ার কারণ হলো- আমাদের যেসব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর বা পিছিয়েপড়া জনগণের কথা বলছেন, তাদের যে আইডিটাকার্ড বা মাধ্যম রয়েছে সেখানে সরাসরি ট্রান্সফার করে দেই। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে সেটি ট্রান্সফারের উপযুক্ত থাকে না। সেজন্য একটু বিলম্ব হয়। কিন্তু আমরা কাজগুলো করছি। যাদেরকে আমরা আড়াই হাজার টাকা করে দেবো, সরকারের সিদ্ধান্ত হচ্ছে এই টাকা সরাসরি ট্রান্সফার করা। সরাসরি ট্রান্সফার করতে গেলে সিস্টেম ডেভেলপ করতে হবে। আর একবার যদি সিস্টেমে চলে আসে তাহলে ভবিষ্যতে এর চেয়ে সহজ কাজ আর হবে না। তখন আমরা কম সময়ে অনেক বেশি কাজ করতে পারব।’<br>প্রধানমন্ত্রী ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন সুতরাং এই আড়াই হাজার টাকা বিতরণের কাজ শিগগির শুরু হবে বলেও জানান তিনি।<br>সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়টি অনুমোদন হয়েছে, সর্বশেষ দুইটি মিটিংয়ে একই বিষয় উঠে বাতিল হয়েছিল, সে বিষয়ে জানতে চাইলে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আগে আমরা বাতিল করিনি। যে শর্তগুলো ছিল সেগুলো আমরা পূরণ করে নিয়ে এসেছি। এগুলো একই প্রকল্প। আগেরগুলোর সঙ্গে দেখলে বোঝা যাবে বিভিন্ন জিনিস এনে যুক্ত করতে হয়েছে। যেসব মহাসড়কে আমাদের পরিবহনের জন্য এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব এসেছিল সেগুলো একটার পর একটা অনুমোদন হচ্ছে। একই জিনিসগুলো আসছে।’<br>করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের সঙ্কট রয়েছে বলে গণমাধ্যমে এসেছে, আজ বৈঠকে ভ্যাকসিনের বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কিছু বলেছেন কি-না জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আজ স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের যে প্রস্তাব এসেছিল ১৩ হাজার ৮৮১টি কমিউনিটি ক্লিনিকের জন্য আমরা এসেনসিয়াল ড্রাগস থেকে ওষুধ কিনব। এর বাইরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অন্য কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা করি নাই এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো প্রকল্পও আমাদের সামনে আসেনি।’<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:51:00 1970-01-01 00:00:00 রোগীকে বাসায় রেখে অক্সিজেন দেওয়া বিপজ্জনক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105926 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016673_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016673_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>দেশে করোনা মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হয়েছে। হাসপাতালগুলোতে দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট। অনেকেই বাধ্য হয়ে বাসায় রেখেই রোগীকে চিকিৎসা দিচ্ছেন। তবে বাসায় রেখে করোনা রোগীকে অক্সিজেন দেওয়ার পরিণতি ভয়ঙ্কর হতে পারে বলে জানিয়েছেন দেশর প্রখ্যাত মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. রিদউয়ানুর রহমান।<br>স্বাস্থ্য বিষয়ক সংবাদমাধ্যম ডক্টর টিভির এক টকশোতে তিনি একথা বলেন।<br>তিনি বলেন, বাসায় একজন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধান ছাড়া অনেক অক্সিজেন দেওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। তবে যাদের মানসিক কারণে শ্বাসকষ্ট হচ্ছে, তারা অক্সিজেন দেওয়ার পরে বাসায় যেতে পারে। আমরা জাতীয় নীতিমালা অনুযায়ীও এটা অনুমোদন করতে পারি না।<br>প্রখ্যাত মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. রিদউয়ানুর রহমান আরও বলেন, শ্বাসকষ্ট অনেক সময় ভয়ের কারণেও হয়। এটি বাড়তে বাড়তে অনেক সময় আইসিইউ পর্যন্ত লাগতে পারে। ধীরে ধীরে রোগীর অক্সিজেন চাহিদা বাড়বে এবং সেই অনুপাতে অক্সিজেন সরবরাহ করতে হবে। এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে রক্তে ৯০ শতাংশ অক্সিজেন সরবরাহ করা।<br>বিশেষজ্ঞ এ চিকিৎসক বলেন, গত বছর করোনা আক্রান্ত হওয়ার চেয়ে এবারের সংক্রমণ ধরন অনেকটাই আলাদা। এবার খুব দ্রুতই একজন রোগীর অক্সিজেন দরকার হচ্ছে। অধিকাংশ রোগী হসপাতালে আসতে দেরি করছে। ফলে তারা প্রয়োজনীয় সেবা পাচ্ছে না। প্রায় ৫০ শতাংশে রোগী মারা যাচ্ছেন হাসাপাতালে আসার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে। তিনি বলেন, অক্সিজেন নিজের বাসায় রাখার পর যদি মেডিকেল বা চিকিৎসক দ্বারা রক্ষণাবেক্ষণ না করা হয়, তাহলে সেটা কোনোভাবেই নিরাপদ নয়। এটা দেখার জন্য একজন চিকিৎসক থাকবেন এবং তিনিই সিদ্ধান্ত নিবেন যে, কখন রোগীকে কতটুকু অক্সিজেন দিতে হবে। এটার জন্য অবশ্যই রোগীকে মেডিকেল সংস্পর্শে আসতে হবে।<br>অধ্যাপক ডা. রিদউয়ানুর রহমান বলেন, একজন সাধারণ মানুষের দ্বারা এটা বোঝা সম্ভব নয়। তবে নিয়ম হচ্ছে অক্সিজেন ঘনত্ব যদি ৯২ এর নিচে হয়, তাহলে তাকে অবশ্যই হাসপাতালে নিতে হবে। কিন্তু হঠাৎ করে পালস অক্সিমিটারে কারো ঘনত্ব ৯০ বা ৯১ পাওয়া যেতে পারে। অথবা কিছু রোগী আছে ভয় পেয়ে শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। তাহলে তাদের বড় ধরনের অক্সিজেন ঘাটতি নেই। তাদের অল্প অক্সিজেন দিলেই স্বাভাবিক হচ্ছে। তারপরেও বাসায় বসে অক্সিজেন দেওয়াটা অনেক ঝুঁকির।<br>তিনি বলেন, মেডিকেল তত্ত্বাবধান ছাড়া অক্সিজেন দেওয়া অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ এবং এটা ভয়ঙ্কর। কারো যদি অক্সিজেন স্যাচুরেশন বা ঘনত্ব ৮০ হয় এবং অক্সিজেন দেওয়ার পর সেটা ৯৫-তে পৌঁছলো। এ সময় রোগী বুঝতে শুরু করবে যে তিনি বাসায় থেকে ভালো আছেন, এটাই তার জন্য ভয়ঙ্কর।<br>অধ্যাপক রিদউয়ানুর রহমান বলেন, রোগীর সাময়িক ভালো লাগতে পারে। কিন্তু হঠাৎ যে কোনো সময় সেটা নেমে যেতে পারে। এমনকি ৫০ এর নিচে নেমে যেতে পারে। ওই সময় যদি হাসপতালে নিতে দেরি হয়, তাহলে সেটিই মৃত্যুর জন্য বড় ঝুঁকি।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:50:00 1970-01-01 00:00:00 ফিতরা সর্বনিম্ন ৭০, সর্বোচ্চ ২৩১০ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105925 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016609_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016609_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>রমজানে এ বছরও বাংলাদেশে ফিতরার হার জনপ্রতি সর্বনিম্ন ৭০ টাকা ও সর্বোচ্চ ২ হাজার ৩১০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত বছরও সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকাই ছিল তবে সর্বোচ্চ ছিল দুই হাজার ২০০ টাকা।<br>বুধবার (২১ এপ্রিল) জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটির এক ভার্চুয়াল সভায় এই হার নির্ধারণ করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সভাপতি ও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। এতে ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সদস্য ও বিশিষ্ট আলেমরা উপস্থিত ছিলেন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে, ইসলামী শরিয়াহ মতে মুসলমানরা সামর্থ্য অনুযায়ী গম, আটা, খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের যেকোনো একটি পণ্যের নির্দিষ্ট পরিমাণ বা এর বাজারমূল্য ফিতরা হিসেবে গরিবদের মধ্যে বিতরণ করতে পারবেন।<br>আটার ক্ষেত্রে এর পরিমাণ এক কেজি ৬৫০ গ্রাম (অর্ধ সা’)। খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রামের (এক সা’) মাধ্যমে সাদকাতুল ফিতর (ফিতরা) আদায় করতে হয়। এসব পণ্যের বাজারমূল্য হিসাব করে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন ফিতরা নির্ধারণ করা হয়।<br>সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উন্নতমানের আটা বা গমের ক্ষেত্রে ফিতরা এক কেজি ৬৫০ গ্রাম (অর্ধ সা’) বা এর বাজারমূল্য ৭০ টাকা। যবের ক্ষেত্রে (এক সা’) তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য ২৮০ টাকা ফিতরা দিতে হবে।<br>এছাড়া তিন কেজি ৩০০ গ্রাম কিসমিস বা এর বাজারমূল্য এক হাজার ৩২০ টাকা দিয়ে ফিতরা আদায় করা যাবে। খেজুরের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য এক হাজার ৬৫০ টাকা ও পনিরের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য দুই হাজার ৩১০ টাকা দিয়ে ফিতরা আদায় করতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।<br>ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, ফিতরার পণ্যের স্থানীয় খুচরা বাজারমূল্যের তারতম্য রয়েছে। সে অনুযায়ী স্থানীয় মূল্য পরিশোধ করলেও ফিতরা আদায় হবে।<br>সভায় ফিতরা সংক্রান্ত কমিটির উপস্থিত সদস্যরা উল্লেখ করেন, নেছাব পরিমাণ (সাড়ে ৭ তোলা স্বর্ণ বা সাড়ে ৫২ তোলা রুপার সমপরিমাণ) মালের মালিক হলে মুসলমান নারী-পুরুষের ওপর ঈদের দিন সকালে সাদকাতুল ফিতর আদায় করা ওয়াজিব হয়? ঈদের নামাজে যাওয়ার পূর্বে ফিতরা আদায় করতে হয়।<br>চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৩ বা ১৪ মে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।<br>সভায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের গভর্নর মাওলানা মুহাম্মদ কাফিলুদ্দীন সরকার ও হাফেজ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ রুহূল আমীন, মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান সাঈদ, মাওলানা মো. আব্দুর রাজ্জাক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক মো. আনিছুর রহমান সরকার, উপ-পরিচালক মাওলানা আবদুল জলীল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, মুহাদ্দিস মুফতি ওয়ালিয়ূর রহমান খান ও মুফাসসির মাওলানা মুহাম্মদ আবু সালেহ পাটোয়ারীসহ দেশের বিশিষ্ট আলেম ওলামারা উপস্থিত ছিলেন।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:49:46 1970-01-01 00:00:00 আমদানির নামে দেশে আসছে নিম্নমানের ভেজাল বিটুমিন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105924 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016560_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><hr><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016560_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>বিদেশ থেকে আমদানির নামে ভেজাল ও নিম্নমানের বিটুমিন আসছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তদারকি না থাকা এবং ক্ষেত্রবিশেষে দুর্বল থাকায় প্রতি মাসেই আসছে কোটি কোটি টাকার ভেজাল ও নিম্নমানের বিটুমিন। ওইসব ভেজাল বিটুমিন দিয়েই দেশের বিভিন্ন শহর এবং গ্রামের হাজার হাজার কিলোমিটার সড়কের উন্নয়নকাজ চলছে। আর নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহার করায় অল্প সময়ের মধ্যে রাস্তা নষ্ট হওয়ায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। পাশাপাশি সরকারের অপচয় হচ্ছে শত শত কোটি টাকা।<br>জানা গেছে, দেশে বিটুমিনের চাহিদার মাত্র ২০ শতাংশ পূরণ করে সরকারি উৎপাদন প্রতিষ্ঠান ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড। বাকি ৮০ শতাংশের চাহিদা মেটানো হয় আমদানি করা বিটুমিনে। কিন্তু বাস্তবতা হলো, বিটুমিন আমদানির পুরো প্রক্রিয়াই প্রশ্নবিদ্ধ। অনুসন্ধানে জানা গেছে, দেশে আমদানি করা বিটুমিনের বিএসটিআই অনুমোদন নেই। পাশাপাশি বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন ও বুয়েটের অনুমোদন ছাড়াই বিটুমিন আসছে দেশে। সরেজমিনে দেখা গেছে, আমদানি করা বিটুমিন অবৈজ্ঞানিক উপায়ে মাসের পর মাস রাখা হচ্ছে। এতে বিটুমিনের গুণগত মান নষ্ট হচ্ছে।<br>ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির (আইইউটি) সহযোগী অধ্যাপক ও বিটুমিন বিশেষজ্ঞ ড. নাজমুস সাকিব বলছেন, উৎপাদন থেকে আমদানি পর্যন্ত অসাধু ব্যবসায়ীরা নানাভাবে আমদানি করা বিটুমিনের গুণগত মান নষ্ট করে। মুনাফার লোভে বিটুমিন বিক্রি হচ্ছে হাতে হাতে। আর প্রতিবারই মিশছে ভেজাল। আর অনেক ক্ষেত্রে আমদানি করা বিটুমিনের উৎসও অজানা থাকে।<br>সড়ক যোগাযোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিএসটিআইর অনুমোদনহীন ও র্কর্তৃপক্ষের চোখ ফাঁকি দিয়ে আমদানি করা এসব নিম্নমানের বিটুমিন আবার রাস্তায় ব্যবহার হচ্ছে। ফলে দেশের ৬০-৭০ শতাংশ রাস্তা নির্মাণের ৬ মাস থেকে ১ বছরের মধ্যেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।<br>বিশেষজ্ঞরা আরো বলছেন, আমদানি করা নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহারে রাষ্ট্রের ত্রিমুখী ক্ষতি হচ্ছে। প্রথমত বৈদেশিক মুদ্রার অপচয় হচ্ছে এবং দ্বিতীয়ত টেকসই উন্নয়ন হচ্ছে না। আর তৃতীয়ত কিছু অসাধু ঠিকাদার আর অসৎ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙা যাচ্ছে না। এজন্য টেকসই সড়ক উন্নয়নে দেশীয় ভালো মানের বিটুমিন ব্যবহারের পাশাপাশি নির্মাণকাজে তদারকি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন তারা।<br>অনুসন্ধানে আরো জানা গেছে, বিএসটিআই, বুয়েট কিংবা ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেডের গুণগত মান যাচাইয়ের সুযোগ কম থাকায় আমদানিকারকরা বিদেশ থেকে কম দামি নিম্নমানের কিংবা ভেজাল ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিন আমদানি করছেন এবং সেইসব বিটুমিন এখন দেশের বিভিন্ন সড়কে ব্যবহার করা হচ্ছে। এতে দেশের সড়কগুলো টেকসই হচ্ছে না। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী, ৮০-১০০ গ্রেডের পরিবর্তে ৬০-৭০ গ্রেডের গাঢ় বিটুমিন ব্যবহারের কথা বলা আছে। বিএসটিআই কর্মকর্তারা বলছেন, আন্তর্জাতিক পণ্যের মান ধরলে গ্রেড অনুযায়ী ৫০ থেকে ৭০ পর্যন্ত খুবই উন্নত মানের বিটুমিন।<br>সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলীরা জানান, দেশে দুই ধরনের বিটুমিন বাজারজাত হয়। একটি ৬০-৭০ গ্রেডের, যা অধিকতর গাঢ়। এই শ্রেণির বিটুমিন রাস্তার পিচ ঢালাইয়ের কাজে ব্যবহৃত হলে সড়ক উন্নত ও টেকসই হয়ে থাকে। আর ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিন কিছুটা তরল। তরল বিটুমিন দিয়ে পিচ ঢালাই হলে রাস্তা টেকসই হয় না।<br>তারা আরো জানান, ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিন গুণগত মানে তরল বা পাতলা হওয়ার কারণে গ্রীষ্মকালে সড়কগুলো গলে ঢিবির মতো উঁচু-নিচু বা ঢেউয়ের আকৃতি ধারণ করে। এতে সড়কে সৃষ্টি হয় অসংখ্য ছোট-বড় গর্ত। আবার বর্ষায় বৃষ্টির সময় ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিন দ্রুত নষ্ট হয়ে যায় এবং সড়কে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়।<br>খুলনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ‘দেশের সড়কে ৬০-৭০ গ্রেডের বিটুমিন ব্যবহার করা উত্তম। এই গ্রেডের বিটুমিন ব্যবহার হলে সড়ক খুবই টেকসই থাকে। ৮০-১০০ গ্রেডের বিটুমিন পাতলা হওয়ায় পিচ ঢালাইয়ের কাজ হলে গ্রীষ্মকালে রাস্তা গলে যায়। আমাদের আবহাওয়ার জন্য ৬০-৭০ গ্রেডের বিটুমিনই উপযোগী, এটি ব্যবহারে সড়ক টেকসই হয়।’<br>বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) সূত্র জানায়, দেশে বছরে প্রায় দুই লাখ মেট্রিক টন বিটুমিনের চাহিদা রয়েছে। এর মধ্যে বিপিসির নিয়ন্ত্রণাধীন ইস্টার্ন রিফাইনারি ৭০ হাজার টন উৎপাদন করে। বাকি বিটুমিন মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়।<br>অনুসন্ধানে জানা গেছে, বেসরকারিভাবে আমদানি করা বিটুমিন ভেজাল এবং গুণগত মান যাচাইয়ের খুব বেশি সুযোগ না থাকায় নিম্নমানের বিটুমিনই দিয়ে দেশের সড়কের কাজ হচ্ছে।<br>বিএসটিআইর এক কর্মকর্তা বলেন, দেশের বাজারে আমদানি করা বিটুমিনের নামে ভেজাল এবং মানহীন বিটুমিনে ছেয়ে গেছে। ওইসব ভেজাল এবং নকল বিটুমিনে সড়ক উন্নয়নের কাজ হওয়ায় সড়ক টেকসই হচ্ছে না। কম দামের ভেজাল বিটুমিনে সড়কের কাজ হওয়ায় রাস্তা দ্রুত ভেঙে যাওয়ার কারণেই সাধারণ মানুষের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। সড়ক উন্নয়নের কাজ করার কয়েক মাসের মধ্যেই ওইসব সড়ক নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:49:06 1970-01-01 00:00:00 লাইভে এসে সহযোগিতা চাইলো হাটহাজারী মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105923 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016362_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016362_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>দেশের প্রাচীন ও সর্ববৃহৎ কওমি দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাটহাজারী মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এসে প্রথমবারের মতো বিশেষ সহযোগিতার আবেদন করেছে। বুধবার (২১ এপ্রিল) বিকালে মাদ্রাসার নিজস্ব ফেসবুক পেইজে লাইভে লিখিত বক্তব্য পাঠের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে মাদ্রাসার প্রতি সদয় এবং সহযোগিতার জন্য আবেদন জানানো হয়।<br>এ সময় হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিচালনা পরিষদের প্রধান আল্লামা মুফতি আব্দুস সালাম চাটগামী, হেফাজতে ইসলামের আমির ও মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, পরিচালনা পরিষদ সদস্য আল্লামা ইয়াহিয়া, সিনিয়র শিক্ষক মুফতি জসিম উদ্দিন, সরকারি শিক্ষা পরিচালক মাওলানা শোয়েবসহ সিনিয়র শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন।<br>এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মাদ্রাসার শিক্ষক ড. নুরুল আফছার আজহারী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯০ সনে প্রতিষ্ঠিত হয়ে ১২০ বৎসর আল্লাহর রহমত ও দয়া এবং সর্বসাধারণের আর্থিক অনুদান ও সাহায্য-সহযোগিতার উপর ভিত্তি করেই এ জামিয়া ইসলামের নিরলস খেদমত করে আসছে।<br>তবে করোনা পরিস্থিতির জন্য সরকার কর্তৃক ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের কারণে জন চলাচল ব্যাপকভাবে সীমিত হয়ে পড়ায় মাদ্রাসার শিক্ষক ও প্রতিনিধিরা আপনাদের কাছে গিয়ে মাহে রমজানের জাকাত, ফিতরা ও অন্যান্য দানের অর্থ সংগ্রহে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়েছেন।<br>আর আল্লাহ না করুন, এবারের রমজানেও যদি জামিয়ার গোরাবা ফাণ্ডে অর্থ সংগ্রহে প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়তে হয়, তাহলে প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক শিক্ষাকার্যক্রম এবং হাজার হাজার গরীব ও এতিম ছাত্রের ভরণ-পোষণ চালু রাখা সংকটের মুখে পড়তে পারে।<br>এতে বলা হয়, চলমান লকডাউন পরিস্থিতির কারণে এ বছরও মাদ্রাসার প্রতিনিধিরা হয়তো আপনাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগের সুযোগ পাবেন না।<br>গত বছরের মতো চলতি রমজানেও আপনাদের প্রিয় এই প্রতিষ্ঠানের বিশাল ব্যয় নির্বাহে সহযোগিতার অংশ হিসেবে নিজ নিজ সদকা-ফিতরা, নযর, কাফফারা ও দানের অর্থ ব্যক্তিগতভাবে বা এলাকাভিত্তিক সম্মিলিতভাবে মাদরাসার ব্যাংক একাউন্ট বা বিকাশ নম্বরে জমা করে এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম এবং বহুমুখী দ্বীনি খিদমতের ধারা অব্যাহত রাখতে আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন। <br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:45:46 1970-01-01 00:00:00 রাজধানীতে বাসা থেকে কিশোরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105922 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016335_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016335_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>রাজধানীর মধ্য নন্দীপাড়া এলাকার একটি বাসা থেকে সাদিয়া (১৬) নামের এক কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) রাত পৌনে ২টার দিকে খবর পেয়ে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করে খিলগাঁও থানা পুলিশ।<br>সাদিয়া ঝালকাঠি সদরের চাঁদকাঠি গ্রামের রিকশাচালক আফজাল মিয়ার মেয়ে। বর্তমানে মধ্য নন্দীপাড়া এলাকার ওই বাসায় ভাড়া বাসায় পরিবারের সঙ্গে থাকতো সে। খিলগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জালাল উদ্দিন জানান, মঙ্গলবার রাতে খবর পেয়ে রুমের দরজা ভেঙে কাঠের রোয়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করি। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।<br>তিনি জানান, পরিবারের সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি, ওই কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। তবে কী কারণে আত্মহত্যা করেছে, তা জানার চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।<br>সাদিয়ার বাবা আফজাল মিয়া জানান, আমরা সবাই রাতে খাবার খেয়ে ১১টার দিকে ঘুমিয়ে পড়ি। পরে রাত ১টার দিকে মেয়ের মা উঠে ঘরের দরজা খোলা দেখতে পায়। পাশের রুমে দরজা লাগিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে সাদিয়া।তার মানসিক সমস্যা ছিলো। তবে কী কারণে গলায় ফাঁস দিয়েছে আমরা এ বিষয়ে কিছু বলতে পারবো না।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:45:19 1970-01-01 00:00:00 গাছ থেকে নারকেল সংগ্রহ নিয়ে বিতন্ডা, বড় ভাইকে পিটিয়ে হত্যা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105921 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016305_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619016305_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>পিরোজপুরের নাজিরপুরে গাছ থেকে নারিকেল সংগ্রহ নিয়ে বাগবিতণ্ডায় বড় ভাই মো. মহসিন মোল্লাকে (৫০) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই ও তার ছেলেদের বিরুদ্ধে। বুধবার (২১ এপ্রিল) উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়নের বাকসি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।<br>নিহত মহসিন মোল্লা ওই গ্রামের মৃত হাশেম মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় একজন অটোরাইস মিলের মিস্ত্রী। হামলার সাথে জড়ির থাকার অভিযোগে দুই ভাতিজাকে আটক করেছে পুলিশ।<br>পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্র জানায়, বুধবার সকালে মহসিন মোল্লা পৈত্রিক জমির গাছ থেকে নারিকেল সংগ্রহ করছিলেন। এসময় ছোট ভাই রুস্তুম মোল্লা তাকে বাধা দেন। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে রুস্তুম মোল্লা ও সন্তানরা মারধর করে ও লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এতে মহসিন মোল্লা গুরুতর আহত হন। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।<br>নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার ইসরাত জাহান জেরিন বলেন, তার মাথায় আঘাতের কারণে নাক ও মুখ থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।<br>নাজিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আশ্রাফুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ নিহতের ভাতিজা রসুল মোল্লা ও রিয়াজ মোল্লাকে আটক করেছেন।<br> and nbsp;</body></HTML> 2021-04-21 20:44:47 1970-01-01 00:00:00 মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের শীর্ষে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105920 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014971_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014971_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক<br>বিশ্বে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের শীর্ষে রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো। ২০২০ সালে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে শীর্ষ পাঁচটি দেশের মধ্যে চারটিই মধ্যপ্রাচ্যের। মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মৃত্যুদণ্ড বিষয়ক বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর বিবিসির।<br>২০২০ এ প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর বিশ্বে মোট ৪৮৩টি মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ৮৮ শতাংশই কার্যকর হয়েছে শুধুমাত্র ইরান, মিসর, ইরাক ও সৌদি আরবে।<br>এতে বলা হয়, করোনাভাইরাস মহামারির চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও এই দেশগুলো মানুষকে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার ‘নির্মম ও শীতল’ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।<br>এই সংখ্যাটি গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে কম এবং এতে চীনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। ধারণা করা হয়, চীনে প্রতিবছর হাজার হাজার মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা ঘটে। তবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রকৃত সংখ্যা জানা অসম্ভব কারণ এটিকে রাষ্ট্রীয় গোপনীয় তথ্য হিসেবে জনসম্মুখে প্রকাশ করা হয় না।<br>২০১৯ সালে মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকায় মোট মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছিল ৫৭৯টি। ২০২০ সালে তা কমে ৪৩৭ তে নেমে এসেছে।<br>এর মধ্যে সৌদি আরবে গত বছর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা ৮৫ শতাংশ কমেছে। মোট ২৭টি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে। এছাড়া ইরাকে কমেছে ৫০ শতাংশ- মোট ৪৫টি।<br>তবে মিসরে উলটো চিত্র দেখা গেছে। দেশটিতে গত বছর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের হার বেড়েছে তিনশ শতাংশ। ২০২০ সালে ১০৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করে দেশটি। এর ফলে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে মিসর।<br>ইরানে গত বছর ২৪৬টি মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা ঘটেছে। মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দেশটি। চীনের পরেই এর অবস্থান।<br>আমনেস্টি জানায়, ইরানের প্রশাসন সরকারের বিরোধীতাকারী, বিক্ষোভকারী ও ক্ষুদ্র জাতিসত্তার সদস্যদের দমন করতে ‘রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে’ মৃত্যুদণ্ডের বিধানের ব্যবহার বৃদ্ধি করেছে।<br>দেশটিতে তিনটি মৃত্যদণ্ড কার্যকরের ঘটনা ঘটেছে যেখানে দণ্ডপ্রাপ্তদের বয়স ১৮ বছরের কম ছিল। এটি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের লঙ্ঘন।<br>কাতার ২০ বছরের মধ্যে গত বছর প্রথম একটি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় দেশটি ‘আশংকাজনকভাবে পিছিয়েছে’ বলে উল্লেখ করেছে অ্যামনেস্টি।<br>সৌদি আরবে মাদক সংক্রান্ত অপরাধে মৃত্যুদণ্ড স্থগিত করায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা হ্রাস পেছে। তবে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, জি২০ দেশগুলোর প্রেসিডেন্ট হিসেবে সমালোচনা এড়াতেও দেশটির সরকার মৃত্যুদণ্ডের সংখ্যা কমিয়েছে।</body></HTML> 2021-04-22 20:22:00 1970-01-01 00:00:00 মিয়ানমারে জান্তার অভিযানে আড়াই লাখ মানুষ ঘরছাড়া http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105919 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014938_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014938_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের বেসামরিক সরকারকে সরিয়ে দেশের ক্ষমতা দখল করে নেয় সামরিক বাহিনী। এর কয়েকদিন পর থেকেই সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে নামে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। তারা বেসামরিক সরকারের হাতে ক্ষমতা ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানায়। কিন্তু সাধারণ মানুষকে বিক্ষোভ থেকে প্রতিহত করতে অভিযান শুরু করে সামরিক জান্তা সরকার। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক এক বিশেষ দূত বুধবার জানিয়েছেন, বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে জান্তার বিভিন্ন অভিযানে দেশটির প্রায় আড়াই লাখ মানুষ এখন ঘরছাড়া। সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে গণ-বিক্ষোভ দমনে কঠোর শক্তি প্রয়োগ করেছে সামরিক সরকার। গত ১ ফেব্রুয়ারির সামরিক অভ্যুত্থানের সময় বেসামরিক সরকারের প্রধান অং সান সু চিসহ বেশ কয়েকজন নেতাকে আটক করা হয়। একটি পর্যবেক্ষণ সংস্থা জানিয়েছে, সাধারণ মানুষের বিক্ষোভে পুলিশের অভিযানে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৭৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আটক হয়েছে আরও ৩ হাজার ৩শ জন। মিয়ানমারের মানবাধিকার পর্যবেক্ষণকারী বিশেষ দূত টম অ্যান্ড্রিউস বুধবার এক টুইট বার্তায় বলেন, জান্তা সরকারের আক্রমণে মিয়ানমারের আড়াই লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। এটা জানতে পেরে সত্যিই অবাক হয়েছি।<br>তিনি বলেন, এই মানবিক বিপর্যয় মোকাবিলায় বিশ্বকে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে হবে। ফ্রি বার্মা রেঞ্জার্স নামের একটি মানবিক সহায়তা সংস্থা জানিয়েছে, গত সপ্তাহে সেনাবাহিনীর অভিযান এবং বিমান হামলার কারণে আনুমানিক কমপক্ষে ২৪ হাজার মানুষ উত্তরাঞ্চলীয় কারেন রাজ্য থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছে।<br>কারেন ন্যাশনাল ইউনিয়ন ব্রিগেড ৫'য়ের মুখপাত্র পাদোহ মান মান বুধবার এক বিবৃতিতে বলেন, দুই হাজারের বেশি মানুষ মিয়ানমারে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে থাইল্যান্ডে পালাচ্ছে। এই লোকজন আর হয়তো দেশে ফিরবে না। তিনি বলেন, তারা সবাই তাদের গ্রামের কাছাকাছি জঙ্গলে লুকিয়ে আছে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:22:00 1970-01-01 00:00:00 এবার আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা জার্মানির http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105918 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014905_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014905_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>যুক্তরাষ্ট্রের পর এবার আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিল জার্মানি। বুধবার দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগামী জুলাইয়ের প্রথম দিক থেকেই তারা তাদের সৈন্যদের আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাহারের পরিকল্পনা করছে।<br>এর আগে যুক্তরাষ্ট্র এক ঘোষণায় জানিয়েছে, আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তারা তাদের সৈন্যদের আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাহার করে নেবে। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের এই প্রক্রিয়া শুরু হবে আগামী ১ মে থেকে। তবে ওইদিন শুধু মার্কিন বাহিনীই নয়, আফগানিস্তান থেকে বিদায় নিতে শুরু করবে ন্যাটো সেনারাও।<br>গত বছরের ২৯ ফেব্রুয়ারি কাতারের রাজধানী দোহায় শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরের পর মার্কিন প্রশাসন ঘোষণা দিয়েছিল, তালেবান যদি প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে, তাহলে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোট আফগানিস্তান থেকে পরবর্তী ১৪ মাসের (২০২১ সালের মে) মধ্যে সকল সেনা প্রত্যাহার করে নেবে।<br>জার্মানির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র এএফপিকে বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের চিন্তা হচ্ছে সেনা প্রত্যাহারের সময়কাল কমিয়ে আনা। আগামী ৪ জুলাই থেকে এই প্রক্রিয়া শুরুর পরিকল্পনা করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ন্যাটোর পক্ষ থেকে নেয়া হবে বলেও জোর দেন তিনি। ন্যাটোর ৯ হাজার ৬শ সদস্যের শক্তিশালী প্রশিক্ষণ এবং সহায়তা মিশন রয়েছে আফগানিস্তানে। এর মধ্যে মার্কিন সেনাবাহিনী অন্তর্ভূক্ত এবং ন্যাটো ওয়াশিংটনের সামরিক শক্তির ওপর বিশেষভাবে নির্ভরশীল। ন্যাটোতে বর্তমানে ৩৬টি সদস্য ও অংশীদারী দেশের সদস্যরা রয়েছে।<br>১ হাজার ১শ সেনা নিয়ে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় বৃহত্তম সৈন্য দল রয়েছে জার্মানির। তালেবান এবং আফগান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনায় অচলাবস্থার পরেও সেখান থেকে সেনা সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিচ্ছে বিভিন্ন দেশ।<br>সম্প্রতি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন আফগানিস্তান থেকে তার দেশের সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে বলেছেন, সন্ত্রাসবাদের হুমকি আফগানিস্তান থেকে অন্য দেশে সরে গেছে এবং ওয়াশিংটনকে চীন ও মহামারির মতো বিষয়গুলোতে এখন নজর দিতে হবে।<br>গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা করেন যে, এ বছর নাইন ইলেভেনের হামলার ২০ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে আফগানিস্তান থেকে প্রায় আড়াই হাজার মার্কিন সামরিক বাহিনী প্রত্যাহার করে নেয়া হবে। এর মাধ্যমে দেশটিতে বিশ বছর ধরে থাকা মার্কিন সেনা উপস্থিতির অবসান হতে যাচ্ছে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:21:00 1970-01-01 00:00:00 অবশেষে ভ্যাকসিন পাচ্ছে সিরিয়া http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105917 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014878_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014878_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>প্রথম ব্যাচে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের ডোজ পাঠানো হয়েছে যুদ্ধ-বিধ্বস্ত সিরিয়ায়। জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বুধবার দেশটিতে ভ্যাকসিনের ডোজ পৌঁছে যাওয়ার কথা। দেশটির কয়েক লাখ মানুষ ইতোমধ্যেই চরম মানবিক সঙ্কটে দিন পার করছে। এর মধ্যে করোনা যেন ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’।<br>কোভ্যাক্স প্রকল্পের আওতায় অ্যাস্ট্রেজেনেকার ৫৩ হাজার ৮শ ভ্যাকসিনের ডোজ যাচ্ছে সিরিয়ায়। জাতিসংঘের সহায়তায় কোভ্যাক্স প্রকল্পের মাধ্যমে দরিদ্র দেশগুলোতে ভ্যাকসিন কর্মসূচি চালুর পরিকল্পনা রয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এই প্রকল্পের আওতায় ধনী দেশগুলোর পাশাপাশি দরিদ্র দেশগুলোতেও ভ্যাকসিন নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে।<br>বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে কাজ করছেন এমন একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মাহমুদ দাহের বলেন, ভ্যাকসিন পৌঁছে গেলে আমরা আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু করব।<br>কোভ্যাক্স কার্যক্রমের আওতায় এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১শ'টি স্থানে ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে। সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জন্য ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে। বিদ্রোহী অধ্যুষিথ ইদলিবও ওই অঞ্চলের অন্তর্ভূক্ত।<br>ইদলিবে প্রথমদিকে চিকিৎসা কর্মীদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। কারণ এই মহামারিতে তারা সম্মুখ সারির যোদ্ধা হিসেবে জীবন বাজি রেখে মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।<br>দ্বিতীয় দফায় ৬০ বছরের বেশি বয়সী লোকজনকে ভ্যাকসিন দেয়া হবে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের জটিল রোগে আক্রান্ত বা ঝুঁকিতে থাকা লোকজনকেও ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হবে।<br>কোভ্যাক্স প্রকল্পের আওতায় সিরিয়ার অন্যান্য অঞ্চলেও ভ্যাকসিন পৌঁছে দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। ইদলিবেরর স্বাস্থ্য দফতরের মেডিকেল কর্মকর্তা ইমাদ জাহরান বলেন, ভ্যাকসিন কার্যক্রম আগামী মাসের শুরুতে হওয়ার কথা ছিল এবং তিন সপ্তাহের মধ্যেই শেষ হওয়ার কথা ছিল।<br>চলতি বছরের শেষ নাগাদ সিরিয়ার ২০ শতাংশ মানুষকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার লক্ষ্য নেয়া হয়েছে। ২০১১ সাল থেকে সংঘাতের কারণে এখন পর্যন্ত দেশটিতে ৩ লাখ ৮৮ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:21:04 1970-01-01 00:00:00 করোনার ভারতীয় ধরনে কার্যকর ফাইজারের ভ্যাকসিন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105916 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014853_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014853_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>করোনার ভারতীয় ধরনের ফাইজারের ভ্যাকসিন বেশ কার্যকর বলে জানিয়েছে ইসরায়েল। সম্প্রতি বিভিন্ন দেশ থেকে ইসরায়েলে ফেরত আটজনের শরীরে করোনার ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়।<br>বুধবার ইসরায়েলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ডিরেক্টর জেনারেল হেজি লেভি জানিয়েছেন, করোনার ভারতীয় ধরন রুখতে ফাইজারের ভ্যাকসিন কাজ করছে বলে তারা মনে করছেন।<br>তবে একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, করোনার এই ধরনটি মোকাবিলায় ফাইজারের টিকার কার্যকারিতা খানিকটা হলেও হ্রাস পাচ্ছে। অবশ্য সরকারি ভাবে এখনও কিছু ঘোষণা করা হয়নি।<br>করোনার অতিসংক্রামক ব্রিটেন, ব্রাজিল এবং দক্ষিণ আফ্রিকার স্ট্রেইনের পর বিশ্ব জুড়ে এখন আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ভারতীয় স্ট্রেইন। ভারতে প্রথমে চিহ্নিত হওয়ায় এই করোনা স্ট্রেইনটি নিয়ে গবেষণা চলছে ব্রিটেন এবং আয়ারল্যান্ডেও।<br>অ্যাস্ট্রাজেনেকাসহ বেশ কিছু সংস্থার ভ্যাকসিন ভারতীয় স্ট্রেইনে খুব একটা কার্যকরী নয় বলে আগেই জানিয়েছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তাই লেভির আশ্বাসে নতুন আশা দেখা দিয়েছে। ইসরায়েলের ৯৩ লাখ মানুষের মধ্যে ৮১ শতাংশ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছে। <br>দেশটিতে সংক্রমণও বেশ নিয়ন্ত্রণেই। তবে পুরো বিশ্বের ছবি কিন্তু এক রকম নয়। সোমবার জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রস আধানম ঘেব্রিয়েসুস বলেন, এশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গত আট সপ্তাহ ধরে সংক্রমণ লাফিয়ে বাড়ছে। শুধু গত সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে অর্ধকোটির বেশি মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন।<br>শেষ পাঁচ সপ্তাহ ধরে বেড়েছে মৃতের সংখ্যাও। দুই ক্ষেত্রে সংক্রমণ বৃদ্ধির হার উদ্বেগজনক। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বলেন, মহামারির শুরু থেকে প্রথম ৯ মাসে ১০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। পরের চার মাসে তা বেড়ে হয়েছে ২০ লাখ। তার তিন মাস পরে এখন মোট মৃতের সংখ্যা ৩০ লাখে দাঁড়িয়েছে।<br>তিনি বলেন, প্রবীণদের ভ্যাকসিন পর্ব শেষ হয়ে গেছে বলে অনেক দেশই বিধি-নিষেধ আলগা করার কথা ভাবছে। কিন্তু এবার বেশি আক্রান্ত হচ্ছে ২৫ থেকে ৫৯ বছর বয়সীরা। কারণ তারা অনেক বেশি বাইরে বের হচ্ছে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-22 20:20:00 1970-01-01 00:00:00 যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গ কিশোরী নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105915 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014832_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014832_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইও অঙ্গরাজ্যের কলম্বাস শহরে পুলিশের গুলিতে এক কৃষ্ণাঙ্গ কিশোরী নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা ৪৫ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে।<br>ছুরিকাঘাতের চেষ্টা থামাতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম কলম্বাস ডিসপ্যাচ।<br>এক সংবাদ সম্মেলনে কলম্বাসের পুলিশ বিভাগ জানায়, ৯১১ তে কল পেয়ে পুলিশ শহরের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে ঘটনাস্থলে যায়।<br>কলম্বাস পুলিশ একটি বডিক্যাম ভিডিও প্রকাশ করেছে যেখানে দেখা গেছে, মেয়েটিকে গুলি করার আগে কয়েকজন মানুষ মিলে এক ব্যক্তির ওপর হামলা চালাচ্ছে।<br>পুলিশ জানায়, ভিডিওতে দেখা গেছে একটি কিশোরী মেয়ে দু’জন নারীকে ছুরিকাঘাত করার চেষ্টা করছে। তখন একজন পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে একটি বাড়ির গাড়ি বের করার আঙ্গিনায় পৌঁছান। তিনি ওই কিশোরীকে লক্ষ্য করে কয়েকবার গুলি করেন (ভিডিওতে চারটি গুলির শব্দ শোনা গেছে)। এরপর মেয়েটি পার্ক করা একটি গাড়ির পাশে মাটিতে পড়ে যায়। একটি ছুরি মেয়েটির পাশে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।<br>এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলে জানিয়ে পুলিশ স্থানীয় অধিবাসীদের শান্ত থাকার অনুরোধ জানিয়েছে।<br>কলম্বাসের মেয়র অ্যান্ড্রু গিন্থার টুইটারে লিখেছেন, ‘আজ বিকেলে দুঃখজনকভাবে একটি তরুণী মেয়ে প্রাণ হারিয়েছে। আমরা এখনও বিস্তারিত সব কিছু জানি না। এ বিষয়ে আরও তথ্য পাওয়া মাত্র আমরা তা জানাব।’<br>ফ্রাঙ্কলিন কাউন্টির শিশু সেবার এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, নিহত মেয়েটির নাম মা’খিয়া ব্রায়ান্ট। মেয়েটি শিশুকিশোরদের লালন-পালন কেন্দ্রে ছিল বলে জানান ওই মুখপাত্র।<br>এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ জনতা ঘটনাস্থলে জড়ো হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যমগুলো।<br>জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার দায়ে মঙ্গলবার মিনেয়াপলিসের পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চৌভিনকে দোষী সাব্যস্ত করার রায় আসার কিছুক্ষণ আগেই ওহাইওতে এ ঘটনা ঘটল।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:20:22 1970-01-01 00:00:00 ট্রেনে ‘সন্দেজনক বস্তু’: জনশূন্য লন্ডন ব্রিজ স্টেশন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105914 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014809_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/21/1619014809_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>ট্রেনের ভেতর ‘সন্দেহজনক বস্তু’ পাওয়ায় খালি করে দেয়া হয়েছে যুক্তরাজ্যের লন্ডন ব্রিজ স্টেশন। ঘটনাস্থলের ওপর চক্কর দিতে দেখা গেছে পুলিশের বেশ কয়েকটি হেলিকপ্টারকে। নিরাপত্তার খাতিরে রুটের অন্য ট্রেনগুলোকেও ঘুরিয়ে দেয়া হয়েছে। খবর দ্য মেট্রোর।<br>ট্রেন চলাচল বন্ধ করে স্টেশন খালি করার ঘটনায় আটকা পড়েছিলেন ব্রিটিশ অভিনেতা ড্যানিয়েল কুনান। তিনি টুইটারে বলেন, লন্ডনে অদ্ভুত দৃশ্য। সবখানে পুলিশ, স্টেশন খালি করা হচ্ছে এবং মানুষজনকে জোরপূবর্ক প্ল্যাটফর্ম থেকে নামানো হচ্ছে। আকাশে বেশ কয়েকটি হেলিকপ্টার উড়ছে।<br>আরেক অভিনেতা বেন ইয়েটস বলেন, লন্ডন ব্রিজ থেকে দূরে থাকুন। তারা (পুলিশ) একটি সন্দেহজনক বস্তু খুঁজে পাওয়ায় ট্রেনের বাইরে আটকা পড়েছিলাম। ট্রেন পলিচানাকারী টেমসলিংক এক বিবৃতিতে বলেছে, সাবধানতাবশত স্টেশন খালি করা হয়েছে। যেসব ট্রেন লন্ডন ব্রিজে থামত, সেগুলো ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে। ব্রিটিশ ট্রান্সপোর্ট পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ট্রেনে সন্দেহজনক বস্তু থাকার খবর পেয়ে নিরাপত্তা কর্মকর্তারা লন্ডন ব্রিজ স্টেশনে পৌঁছান। বিশেষজ্ঞ কর্মকর্তারা বস্তুটি দেখছেন।<br>এর ঘণ্টাখানেক পর পুলিশ আরেক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে, বস্তুটি সন্দেহজনক কিছু নয়। স্টেশন আবারও খুলে দেয়া হবে।<br>তারা আরও বলেছে, আমরা এ ধরনের খবর সবসময় গুরুত্বসহকারে নেই। ভ্রমণকালে সন্দেহজনক কিছু নজরে পড়লেই সঙ্গে সঙ্গে জানানোর আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপোর্ট পুলিশ।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:19:47 1970-01-01 00:00:00 নাঙ্গলকোটে ১১বছরের মাদ্রাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105913 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619013516_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619013516_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কুমিল্লা প্রতিনিধি ॥<br>কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার দৌলখাঁড় ইউনিয়নের অর্শদীয়া মধ্যমপাড়া নেছার বাড়ীর ষষ্ঠ শ্রেণির মাদ্রাসার ছাত্রী আনোয়ার হোসেনের ১১ বছর বয়সী বড় মেয়ে বুধবার দুপুর ১টার সময় গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে মেয়েটির পা নিচে খাঠের সাথে লাগানো ছিল যেটা রহস্য জনক মৃত্যু বলে ধারণা করা হচ্ছে। জানা যায়, তাঁর বাবা-মা ধান আনতে যায় অন্য গ্রামে। এসে দেখে তাঁর মেয়ের মৃতদেহ ঘরে ঝুলে আছে।<br><br>এই বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে যে এটি আত্মহত্যা। পরিবারের লোকজন বকাবকি করলে একপর্যায়ে সে আত্মহত্যা করে এমনটি আমরা জানতে পেরেছি। বিস্তারিত তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে। মেয়ে শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।</body></HTML> 2021-04-21 19:57:30 1970-01-01 00:00:00 শান্তর সেঞ্চুরিতে প্রথম দিন বাংলাদেশের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105912 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619013420_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619013420_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥</span><br>শুরুটা মোটেও ভালো ছিল না বাংলাদেশের। দলীয় মাত্র ৮ রানে প্রথম উইকেট হারিয়ে বসে। সেখান থেকে নান্দনিক ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশকে পথ দেখালেন তামিম ইকবাল ও নাজমুল হোসেন শান্ত। দুজনেই খেলেছেন অসাধারণ দুটি ইনিংস। সেঞ্চুরির কাছাকাছি গিয়ে তামিম থামলেও ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নেন শান্ত। দুই টপ অর্ডারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে পাল্লেকেলেতে টেস্টের প্রথম দিন শেষে স্বস্তিতে বাংলাদেশ।<br>আজ বুধবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টের প্রথম দিন শেষে দুই উইকেটে ৩০২ রান করে বাংলাদেশ। দিন শেষে ১২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তাঁর সঙ্গে ৬৪ রানে অপরাজিত আছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।<br><br>এদিন আগে ব্যাট করে শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। সাদমান ইসলামের বদলে ওপেনিংয়ে সুযোগ পাওয়া সাইফ হাসান আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি। রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফিরেন তরুণ এই ওপেনার।<br>ইনিংসের তৃতীয় ওভারে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওভারের প্রথম বলে ফার্নান্দোর বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে ফেরেন ওপেনার সাইফ। অবশ্য ফার্নান্দোর এলবির আবেদনে প্রথমে সাড়া দেননি আম্পায়ার। এরপর and nbsp; অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে রিভিউ নেন। ফার্নান্দোর লেংথ বল সোজা সাইফের সামনের প্যাডে আঘাত করেছিল। দেখার ছিল, বলটি লেগ স্টাম্পে লাগবে না কি বেরিয়ে যাবে। রিভিউতে দেখা যায় বলটি সোজা স্টাম্পেই হিট করত। দলীয় ৮ রানে প্রথম উইকেটের পতন হয় বাংলাদেশের।<br><br>তবে শুরুতে উইকেট হারানোর ধাক্কা ভালোভাবে সামাল দেন তামিম। তরুণ ব্যাটসম্যান শান্তকে নিয়ে এগিয়ে যান বড় স্কোরের দিকে। লাঞ্চের আগে এই জুটিতে চড়ে স্কোরবোর্ডে ১০৬ রান তোলে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ৫৩ বলে ক্যারিয়ারের ২৯ তম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম। পঞ্চাশ ছোঁয়ার পর আগাচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হলো না। সেঞ্চুরি থেকে ১০ রান দূরে থেকে সাজঘরে ফিরেন তামিম।<br>৯০ রানের মাথায় ফার্নান্দোর বলেই স্লিপে ক্যাচ দিয়ে আউট হন দেশসেরা ওপেনার। ১০১ বলে তাঁর ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৫টি বাউন্ডারি দিয়ে। বাঁহাতি পেসারের অফ স্টাম্পের বাইরের বল গ্লাইড করার চেষ্টা করেন তামিম। বল একটু বেশি লাফিয়ে ব্যাটের কানা ছুঁয়ে চলে যায় স্লিপে ফিল্ডারের হাতে। ১৪৪ রানে থামে শান্ত-তামিমের জুটি।<br><br>তামিম ফেরার পর মুমিনুলের সঙ্গে জুটি বাঁধেন শান্ত। ব্যক্তিগত সপ্তম টেস্ট খেলতে নেমে দারুণ দৃঢ়তা দেখান। তামিমের মতো ভুল না করে এগিয়ে যান তিনি। একই সঙ্গে মুমিনুলও উইকেটে থিতু হয়ে যান। এই জুটিতে চড়ে ভালোভাবে দিন শেষ করে বাংলাদেশ। <br>এর মধ্যে টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন শান্ত। তিন অঙ্কের ঘরে যেতে ২৩৬ বল খেলেছেন তিনি। তাঁর শতকটি সাজানো ছিল ১২ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়।<br><br></body></HTML> 2021-04-21 19:56:29 1970-01-01 00:00:00 তামিম না পারলেও শতক তুলে নিলেন শান্ত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105911 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012632_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012632_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক হয় নাজমুল হোসেন শান্তর। দীর্ঘ চার বছরে মাত্র ছয়টি টেস্টে খেলার সুযোগ হয়েছিল। সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল ৭১ রানের। সব মিলিয়ে মোট রান করেছেন ২৪১টি। নিয়মিত রান না পাওয়া জাতীয় দলে আসা যাওয়া মধ্যেই থাকতে হচ্ছিল তাকে। অবশেষে শতক পেলেন শান্ত। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম শতকটি তুলে নিলেন বাম-হাতি এই ব্যাটার।<br>মঙ্গলবার ক্যান্ডির পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টস জেতার পর ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক। শুরুতেই ওপেনার সাইফ হাসান ফিরে যান। ছয় বল খেলে রানের খাতা না খুলেই বিদায় নেন ডান-হাতি এই ব্যাটার। দ্বিতীয় উইকেটে তামিম ইকবাল ও নাজমুল হাসান শান্ত মিলে ১৪৪ রানের জুটি গড়েন। দ্রুত রান তুলতে থাকেন তামিম। অন্যদিকে ধীর গতিতে ক্রিজে থিতু হতে থাকেন শান্ত। মাত্র ১০ রানের জন্য শতক তুলতে ব্যর্থ জন তামিম। ১০১ বলে ৯০ রানের ইনিংস খেলে ফিরে যান এই ওপেনার। তৃতীয় উইকেটে দলনেতা মুমিনুলকে সঙ্গে নিয়ে শতরানের জুটি গড়েন শান্ত। শতকের খুব কাছে তামিম ফিরে গেলেও হতাশ করেননি শান্ত। সাদা পোশাকে প্রথম আন্তর্জাতিক শতক তুলতে শান্ত খেলেছেন ২৩৫ বল। ১২টি চার ও একটি ছক্কাই ইনিংসটি সাজিয়েছেন তিনি। দীর্ঘদিন জাতীয় দলে সুবিধা না করতে পারলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে শান্তর পারফরমেন্স নজর কাড়া। ৪৬টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলে ৩ হাজার ৪৫ রান রয়েছে নামের সঙ্গে। ৭টি শতক ও ১৫টি অর্ধশতকের মালিকের সর্বোচ্চ স্কোর অপরাজিত ২৫৩ রান। এদিকে শান্তর সঙ্গে ক্রিজে থাকা মুমিনুল অর্ধশতক তোলার পথে। ১১৪ বলে অধিনায়কের রান ৪৮। অন্যদিকে ২৪০ বলে ১০৩ রান শান্তর। ৭৬ ওভার পর্যন্ত ২ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৫৫ রান। লঙ্কানদের হয়ে দুটি উইকেটই তুলে নিয়েছেন বিশ্ব ফার্নান্দো।</body></HTML> 2021-04-21 19:43:20 1970-01-01 00:00:00 আইপিএল ছেড়ে চলে গেলেন লিভিংস্টোন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105910 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012583_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012583_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্থ এবং ভারত করোনাভাইরাসের রেড জোনে থাকার কারণে আইপিএল শুরু হওয়ার মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই দেশে ফিরে গেলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান লিয়াম লিভিংস্টোন। রাজস্থান রয়্যালস দলে বাংলাদেশি পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের সতীর্থ ছিলেন তিনি। গত এক বছর ধরে জাতীয় দল এবং বিভিন্ন লিগের খেলায় অংশ নিয়েছেন লিভিংস্টোন। দুভাগ্যবশত অধিকাংশ সময়েই বায়ো বাবলের মধ্যেই থাকতে তাকে। এরপর ভারতের আসেন টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে। সিরিজ শেষে সরাসরি আইপিএলের দল রাজস্থানে যোগ দিয়েছেন। তবে তিন ম্যাচের একটিতেও একাদশে জায়গা হয়নি লিভিংস্টনের।<br>২৭ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান গতবছরের মার্চে অংশ নিয়েছিলেন পাকিস্তান সুপার লিগে। তখন করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে সারাবিশ্বের ক্রিকেট স্থগিত করে দেয়া হয়। মে মাসে রুদ্ধদ্বার অবস্থায় ইংল্যান্ডের অনুশীলনে ডাকা হয় তাকে। পরে আয়ারল্যান্ড, পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের রিজার্ভ স্কোয়াডেও ছিলেন তিনি। বায়ো বাবলজনিত অবসাদের কারণে আইপিএলকে না বলে দেয়া প্রথম খেলোয়াড় নন লিভিংস্টোন। তার আগে গত মাসে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার মিচেল মার্শও একই কারণে আসেননি আইপিএল খেলতে। এছাড়া বিগব্যাশের কয়েকজন খেলোয়াড়ও বায়ো বাবলের কারণে নিজেদের নাম সরিয়ে নিয়েছিলেন। আইপিএলের পয়েন্ট টেবিলে খুব একটা ভালো অবস্থানে নেই লিভিংস্টোনের দল রাজস্থান রয়্যালস। তিন ম্যাচে মাত্র একটিতে জিতে পয়েন্ট টেবিলের ছয় নম্বরে রয়েছে তারা। আর টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে বিরাট কোহলির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। একটি ম্যাচেও হারেনি তারা। ৩ ম্যাচে তিনটিতেই জিতে সর্বোচ্চ ৬ পয়েন্ট বেঙ্গালুরুর। <br>আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা দিল্লী ক্যাপিটালস ৪ ম্যাচ খেলে ৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 19:42:48 1970-01-01 00:00:00 করোনায় আক্রান্ত ধোনির বাবা-মা হাসপাতালে ভর্তি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105909 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012551_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012551_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বাবা-মা। রাঁচির পালস সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তার বাবা পান সিং এবং মা দেবকী দেবীকে।<br>মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বুধবার কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে মাঠে নামবেন চেন্নাই অধিনায়ক ধোনি। কিন্তু ঠিক এর আগেই এলো এই দুঃসংবাদ। হাসপাতালে আপাতত পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে ধোনির বাবা-মাকে। তবে তাদের বয়স বেশি হওয়ায় দুশ্চিন্তায় রয়েছে ধোনির পরিবার। এদিকে আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী, টুর্নামেন্টের মাঝে বায়ো-বাবল ছেড়ে বের হওয়ার উপায় নেই ধোনির। তাই মা-বাবার সঙ্গে আপাতত দেখা হচ্ছে না ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়কের।</body></HTML> 2021-04-21 19:42:16 1970-01-01 00:00:00 ঘরের মাঠে জিততে পারল না চেলসি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105908 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012531_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012531_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পোর্তোকে হারিয়ে ইতোমধ্যেই সেমিফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করা চেলসির লিগে এসে হঠাৎ ছন্দ পতন। ঘরের মাঠে পুচকে ব্রাইটন রুখে দিল দারুণ ফর্মে থাকা টমাস টুখেলের শিষ্যদের। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ম্যাচটি গোলশূন্য ব্যবধানে ড্র হয়েছে। ব্রাইটনের বিপক্ষে ম্যাচ শুরুর আগে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজের বাইরে প্রায় হাজার খানেক সমর্থক জড়ো হয়ে তাদের প্রিয় দল চেলসির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়। এর মাঝেই খবর আসে, সুপার লিগ থেকে নিজেদের সরিয়ে নিতে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুরোধ জানানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে চেলসি, সরে দাঁড়িয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। বাইরে সমর্থকদের প্রতিবাদের কারণে টিম বাসের স্টেডিয়ামে আসতে দেরি হওয়ায় ম্যাচ শুরু হয় নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট পরে। শুরু থেকে বল দখলে চেলসি এগিয়ে থাকলেও প্রথমার্ধে গোলের উদ্দেশে তারা শট নিতে পারে কেবল ৩টি, এর দুটি লক্ষ্যে ছিল, ব্রাইটনের ৪ শটের একটি।<br>ষোড়শ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে ক্রিস্টিয়ান পুলিসিকের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। ২২তম মিনিটে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার অ্যাডাম ওয়েবস্টারের ভুলে ভালো পজিশনে বল পান কাই হার্ভাটজ। কাছ থেকে তার শট ফেরান গোলরক্ষক রবের্ত সানচেস। পরক্ষণে দূর থেকে কুর্ত জুমার শটও ঠেকান তিনি। দ্বিতীয়ার্ধে তেমন একটা সুবিধা করতে পারেনি স্বাগতিকরা। জুমার ভুলে ৭৮তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেওয়ার দারুণ একটি সুযোগ পান ব্রাইটনের অ্যাডাম লালানা। কিন্তু বাইরে মেরে হতাশ করেন তিনি। পরের মিনিটে ভাগ্যের ফেরে গোল পায়নি সফরকারীরা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ড্যানি ওয়েলবেকের জোরালো শট পোস্টে লাগে। যোগ করা সময়ে ক্যালাম হাডসন-ওডোইকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ব্রাইটনের বেন হোয়াইট। ড্র হওয়ার ফলে ৩২ ম্যাচে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠেছে টমাস টুখেলের শিষ্যরা। <br>সমান ম্যাচ মাত্র ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে ব্রাইটনের অবস্থান ১৭ নম্বরে। আর ৩১ ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিরে শীর্ষেই থাকছে ম্যানচেস্টার সিটি। সমান ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে রয়েছে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।</body></HTML> 2021-04-21 19:39:52 1970-01-01 00:00:00 কোটি টাকা মূল্যের ভারতীয় পণ্যসহ ১৮ জন আটক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105907 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012355_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012355_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥ </span><br>ময়মনসিংহে কোটি টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্যসহ ১৮ জনকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪। বুধবার (২১ এপ্রিল) ভোরে ময়মনসিংহের গৌরিপুর উপজেলার বেলতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে আটক করা হয় তাদের।<br>বুধবার বিকেলে র‌্যাব-১৪ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসাইন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমাদের বিশেষ একটি দল বুধবার গৌরীপুর উপজেলার বেলতলী বড় মসজিদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় কোটি টাকা মূল্যের ভারতীয় পণ্য বহনকারী ০৬টি ট্রাক ও কার্ভাডভ্যানসহ ১৮ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলো সোলাইমান কবির (৪০), চিত্তরঞ্জন দে (৫১), মো. মতিন (৩৬), মো. খায়রুল ইসলাম (২০), মো. আনোয়ার হোসেন (৩০), মো. আকরাম (২০), মো. মিরাজ (৩০), মো. মমিন (৩২), মো. ইমরান (২৫), মো. রাজু মিয়া (৩০), মো. নজরুল ইসলাম (৪০), মো. মাহফুজুর রহমান (৪০), মো. কামরুল ইসলাম (২২), মো. রুবেল (৩৪), সুমন মীর (৩২), মো. হারেস (৪৭), মো. রাজু (৩২), মো. সাব্বির (২০)।<br>র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও জানান, আটককৃতদের কাছ থেকে ভারতীয় এক হাজার থ্রি-পিচ, ২৫০ লেহেঙ্গা, ১২ হাজার কেজি জিরা, ৩৫০ পিস শাড়ি, ৩ হাজার ২০০ পিস সাবান, ২০ হাজার পিস মেহেদী, ৪ হাজার পিস চকলেট, ৭ হাজার পিস ক্রিম উদ্ধার করা হয়েছে। এসব ভারতীয় পণ্য অবৈধভাবে বাংলাদেশে আনা হয়েছে বলে আটককৃতরা স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে গৌরীপুর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।</body></HTML> 2021-04-21 19:38:58 1970-01-01 00:00:00 ককটেলকে খেলনা ভেবে দৃষ্টিহীন মহরমী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105906 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012321_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012321_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥<br>চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার গনকা বিদিরপুর মহল্লায় ককটেলকে খেলনা ভেবে খেলার সময় বিস্ফোরণে কবজি হারানো মহরমীর চোখের দৃষ্টিও ফেরানো সম্ভব হয়নি। গত আড়াই মাসে বেশ কয়েক দফায় ঢাকায় চিকিৎসা করানো হলেও চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার দুই চোখই অন্ধ হয়ে গেছে। আশাহত হয়ে মহরমীকে নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন স্বজনরা। দৃষ্টিহীন মহরমীর সামনে এখন অনিশ্চিত আগামী। শিশু মহরমী পায়নি একটা নিরাপদ খেলার পরিবেশ। এ দায় কী আমাদের সমাজ, রাষ্ট্র এড়াতে পারে। শিশু মহরমীকে এখন অনিশ্চিত আগামীর পথে বেঁচে থাকার সংগ্রাম করতে হবে। কতটা পাশে থাকবে আমাদের সমাজ বা রাষ্ট্র। আর যারা ককটেল ফেলে রেখেছিলো তাদের শাস্তি কতটা হবে এমন প্রশ্ন আবারও সামনে এসেছে। এক সময় প্রাণচঞ্চল মহরমী এখন পরনির্ভরশীল মা অথবা বাড়ির অন্য কারো সহযোগিতা ছাড়া ইচ্ছে হলেও সে কোথাও যেতে পারে না। মূলত মায়ের সহযোগিতা নিয়েই চলছে তার সব কাজকর্ম। মহরমী আবারও পড়ালেখা করতে চায়, দৃষ্টিহীনদের স্কুলে সে সুযোগ পেলে ভর্তি হবে। যদিও চাঁপাইনবাবগঞ্জে সে সুযোগ নেই। স্কুলে যাওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়ে মহরমী বলেন ‘আমি তো অন্ধ হয়ে গেছি। এখন অন্ধদের স্কুলে ভর্তি হব, যদি সুযোগ পায়।’ and nbsp; মহরমীর মা মাসকুরা খাতুন জানান, ১ ফেব্রুয়ারি ককটেল বিস্ফোরণে মহরমীর কবজি উড়ে যায়, এ সময় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয় হয়। পরে দেখা যায় চোখও মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এরপর রাজশাহী থেকে চোখের চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। মিরপুরের বাংলাদেশ আই হসপিটালের অধ্যাপক ডা. গোলাম রসুলের কাছে দেখানো হয়। কয়েক-দফা চেষ্টার পর তিনি জানিয়েছেন মহরমী আর দৃষ্টি ফিরে পাবে না।<br>তিনি আরও জানান, মহরমীর নষ্ট হয়ে যাওয়া দুই চোখের মধ্যে একটা চোখে কিছু স্প্লিন্টার রয়ে গেছে। যার কারণে অপারেশন করে চোখটিই অপসারণ করতে হবে দ্রুতই। সেখানেও ৫০ হাজার টাকা খরচ হবে। ঈদের পর টাকা জোগাড় করে চোখ অপসারণ করবেন। এদিকে ককটেলে বিস্ফোরণের পর এলাকার বিবাদমান দুইটি গ্রুপের অন্তত ১৫ জনকে আসামি করে পুলিশ মামলা দায়ের করেছিল। পরে এ মামলায় সেই সময় অনেকেই গ্রেপ্তার হয়ে ফের জামিনে বের হয়ে এসেছেন। এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোজাফফর হোসেন বলেন, ওই ঘটনার পর পুলিশ বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছিল। তারপরে আসামিদের গ্রেপ্তারও করা হয়েছিল। কিন্তু এখন অনেকেই জামিনে আছেন। এ মামলার তদন্ত শেষের দিকে। আমরা দ্রুতই মামলার অভিযোগপত্র আদালতে উপস্থাপন করব</body></HTML> 2021-04-21 19:38:24 1970-01-01 00:00:00 মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যার পর মাটিচাপা ২৫ দিন পর লাশ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105905 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012258_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012258_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥<br>বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে কুমিল্লা থেকে বান্দরবানের লামা উপজেলায় এনে জিম্মি করে মুক্তিপণ না পেয়ে এক কিশোরকে হত্যার পর মাটি চাপা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। and nbsp; নিহত কিশোরের নাম হাফেজ মো. অলি উল্লাহ স্বাধীন। মঙ্গলবার রাত ২টায় আসামিদের দেওয়া তথ্যমতে অভিযান চালিয়ে খুনের ২৫ দিন পর মাটির নিচ থেকে নিহত হাফেজ স্বাধীনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে এ ঘটনায় পুলিশ মঙ্গলবার দুপুরে লামা উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বেতঝিরি থেকে হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত মূল দুই আসামি ফয়েজ আহমদ (৩৮) ও মো. আরিফুল ইসলামকে (১৭) আটক করে।<br>গত ২২ মার্চ নৃশংস এ ঘটনা ঘটে বান্দরবানের লামা উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের শিং ঝিরি এলাকায়। নৃশংসভাবে খুন হওয়া হাফেজ মো. অলি উল্লাহ স্বাধীন কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের বিষুপুর গ্রামের মো. মোবারক হোসেন ও লুৎফা বেগমের ছেলে। খুনের ঘটনায় আটক ২ আসামি হলো- কুমিল্লা জেলার বুড়িচং থানার খারাতাইয়া গ্রামের আব্দুল মালেক এর ছেলে মো. ফয়েজ আহমদ ও নিহতের আপন ফুফাতো ভাই কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের বিষুপুর গ্রামের মৃত মো. আব্দুল গণি খাঁর ছেলে মো. আরিফুল ইসলাম। নিহতের বড় ভাই রিয়াজ উদ্দিন সোহেল বলেন, গত ২২ মার্চ ছোট ভাই হাফেজ স্বাধীন তার ফুফাতো ভাই মো আরিফুল ইসলামের সঙ্গে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। and nbsp; কয়েক দিন ধরে ছোট ভাইয়ের কোনো খোঁজখবর না পেয়ে আমরা গত ২৪ মার্চ কুমিল্লার বুড়িচং থানায় হারানোর জিডি করে। জিডির সূত্র ধরে তার মোবাইল নাম্বার ট্রেকিং করে মঙ্গলবার লামা থানায় আসি। আমাদের দেওয়া তথ্যমতে অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে লামা থানা পুলিশ হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত ফয়েজ আহমদ ও আরিফুল ইসলামকে সন্দেহভাজন হিসাবে উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বেতঝিরি ফয়েজ আহমদের শ্বশুরবাড়ি থেকে আটক করে। ফয়েজ আহমদ বেতঝিরি এলাকার ইউনুচ মোল্লার মেয়ের জামাই। তাদের আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করলে চাঞ্চল্যকর তথ্য পায় পুলিশ। আসামিদের দেওয়া তথ্যমতে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টায় অভিযানে বের হয় লামা থানা। রাত ১টায় আসামি ও নিহতের ২ ভাইকে সঙ্গে নিয়ে খুনের ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। আসামিদের দেখানো স্থান রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের শিং ঝিরিস্থ পাহাড়ের ওপরে রাত ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত মাটি খুঁড়ে নিহত হাফেজ স্বাধীনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।<br>ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের ওসি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, আসামিদের দেওয়া তথ্যমতে ও তাদের দেখানো স্থানে মাটি খুঁড়ে আমরা নিহত হাফেজ স্বাধীনের মরদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হই। মরদেহটি যে হাফেজ মো. অলি উল্লাহ স্বাধীনের তা তার বড় ২ ভাই রিয়াজ উদ্দিন সোহেল ও মো. জিলানী বাবু নিশ্চিত করেছেন। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ নিহতের পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে। দীর্ঘদিন হওয়ায় মরদেহ অনেকাংশ পঁচে গলে গেছে?</body></HTML> 2021-04-21 19:37:13 1970-01-01 00:00:00 খেজুরের প্যাকেটে মিললো ইঁদুর! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105904 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012045_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619012045_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥ <br>এখন মাহে রমজান মাস চলছে। এ মাসে মুসলিমরা ইফতারসহ স্বাস্থ্যকর খাদ্য তালিকায় খেজুর রাখেন। এদিকে একটি কোল্ড স্টোরেজ (হিমাগার)-এ প্রায় ৭ থেকে ৮ টন খাবার অনুপযোগী পচা খেজুর জব্দ করা হয়েছে এবং খেজুরের প্যাকেটে ইঁদুরের বাচ্চাও পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুরের একটি কোল্ড স্টোরেজে (হিমাগার)।<br>বুধবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে স্টোরেজটিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালালে এসব পচা খেজুর জব্দ করে। নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ আশিক কবির এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন। ভালোভাবে খেজুর সংরক্ষণ না করায় অভিযানের সময় স্টোরেজের ম্যানেজার মো. আতাউল্লাহকে নিরাপদ খাদ্য আইনে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।<br>নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ আশিক কবির জানিয়েছেন, খাবারের মান বজায় রাখার জন্য জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদারের নির্দেশে একটি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় হিমাগারটিতে গেলে দেখা যায় সঠিক তাপমাত্রায় খেজুর সংরক্ষণ না করার জন্য খেজুর পচে গেছে। এছাড়াও কিছু প্যাকেটের খেজুর ইঁদুরে খেয়েছে। কয়েকটি প্যাকেটে ইঁদুরের বাচ্চাও পাওয়া গেছে। পরে অনুপযোগী খেজুরগুলো ধ্বংস করা হয়েছে।</body></HTML> 2021-04-21 19:33:39 1970-01-01 00:00:00 বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ মাদরাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105903 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619011695_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619011695_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥<br>সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলায় ধর্ষণ মামলায় এক মাদরাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (২১ এপ্রিল) সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত হাফেজ আব্দুল মজিদ (৪২) মজিদ শ্যামনগর উপজেলার শ্রীফলকাটি গ্রামের শওকত গাজীর ছেলে। তিনি কালিগঞ্জের পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিম খানার শিক্ষক। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষক আব্দুল মজিদ শ্যামনগর উপজেলার নুরনগর মহিলা মাদরাসার দশম শ্রেণির ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। পরে ১৭ এপ্রিল বিকেলে ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কালিগঞ্জের পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিম খানায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন আব্দুল মজিদ। পরদিন ১৮ এপ্রিল সকালে ওই ছাত্রীকে মাদরাসা থেকে মোটরসাইকেলযোগে কালিগঞ্জের গড়ের হাট এলাকায় নামিয়ে দিয়ে আসেন। আর তখন বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। and nbsp; পরবর্তী সময়ে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হুসেন বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষককে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।<br><br><br><br><br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 19:27:41 1970-01-01 00:00:00 জাতিসংঘের ৩ সংস্থার নির্বাহী বোর্ডে নির্বাচিত বাংলাদেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105902 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619001139_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619001139_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জাতিসংঘের মাদকদ্রব্য বিষয়ক কমিশন, ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেনের নির্বাহী বোর্ডে নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। বুধবার (২১ এপ্রিল) জাতিসংঘ স্থায়ী মিশন থেকে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আগামী তিন বছরের জন্য জাতিসংঘের মাদকদ্রব্য বিষয়ক কমিশনের (সিএনডি) সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের (ইকোসক) সহযোগী সংস্থা সিএনডির এই নতুন পরিষদ ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে দায়িত্বভার গ্রহণ করবে।<br><br>নিউইয়র্কস্থ জাতিসংঘ সদরদপ্তরে ইকোসকের ব্যবস্থাপনা সভায় সদস্য রাষ্ট্রসমূহের প্রত্যক্ষ ভোটে বুধবার এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। বাংলাদেশ ছাড়াও সৌদি আরব, দক্ষিণ কোরিয়া, এবং ইরান এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে সংস্থাটির কার্যকরী পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়।<br>নির্বাচনে জয়লাভের পর জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন, সিএনডির এই নির্বাচনটি ছিলো অত্যন্ত প্রতিযোগিতাপূর্ণ। বাংলাদেশ এতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছে (৪৩ ভোট)। এই বিজয় বহুপাক্ষিক ফোরামে বাংলাদেশের নেতৃত্বের ওপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আস্থারই বহিঃপ্রকাশ।<br><br>বিশ্বব্যাপী মাদক সমস্যার সব দিকের প্রতি বাংলাদেশ সবসময়ই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আসছে। বাংলাদেশ জাতীয় পর্যায়ে অবৈধ মাদক ব্যবসা বন্ধে অত্যন্ত শক্তিশালী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এবং এ বিষয়ে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।<br>রাষ্ট্রদূত ফাতিমা আরও বলেন, মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক সহযোগিতা জোরদার করার ক্ষেত্রে কমিশনের সদস্য হিসেবে আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা গ্রহণ করব। জাতিসংঘের মাদকদ্রব্য বিষয়ক কমিশন (সিএনডি) ৫৩ সদস্যের একটি সংস্থা। কমিশনটি বৈশ্বিক মাদকদ্রব্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ, সরবরাহ ও চাহিদা হ্রাস বিবেচনা এবং রেজুলেশন ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের মাধ্যমে এ বিষয়ক সমস্যার সমাধানে পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। এর সদরদপ্তর ভিয়েনায় অবস্থিত।<br><br>এছাড়া ইকোসক ব্যবস্থাপনা সভায় ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেনের নির্বাহী বোর্ডের নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হয়। উভয় বোর্ডে বাংলাদেশ সদস্য হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হয়েছে। নতুন এই বোর্ড দুটি জানুয়ারি ২০২২ থেকে কার্যক্রম শুরু করবে। বাংলাদেশ বর্তমানেও বোর্ড দুটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। নির্বাহী বোর্ডই জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ এই সংস্থা দুটির মূল পরিচালনা পর্যদ। <br></body></HTML> 2021-04-21 16:31:57 1970-01-01 00:00:00 এবারও জনপ্রতি সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105901 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619001031_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619001031_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রমজানে এ বছরও বাংলাদেশে ফিতরার হার জনপ্রতি সর্বনিম্ন ৭০ টাকা ও সর্বোচ্চ ২ হাজার ৩১০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত বছরও সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকাই ছিল তবে সর্বোচ্চ ছিল দুই হাজার ২০০ টাকা। বুধবার (২১ এপ্রিল) জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটির এক ভার্চুয়াল সভায় এই হার নির্ধারণ করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সভাপতি ও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। এতে ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সদস্য ও বিশিষ্ট আলেমরা উপস্থিত ছিলেন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।<br><br>সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে, ইসলামী শরিয়াহ মতে মুসলমানরা সামর্থ্য অনুযায়ী গম, আটা, খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের যেকোনো একটি পণ্যের নির্দিষ্ট পরিমাণ বা এর বাজারমূল্য ফিতরা হিসেবে গরিবদের মধ্যে বিতরণ করতে পারবেন। আটার ক্ষেত্রে এর পরিমাণ এক কেজি ৬৫০ গ্রাম (অর্ধ সা’)। খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রামের (এক সা’) মাধ্যমে সাদকাতুল ফিতর (ফিতরা) আদায় করতে হয়।<br><br>এসব পণ্যের বাজারমূল্য হিসাব করে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন ফিতরা নির্ধারণ করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উন্নতমানের আটা বা গমের ক্ষেত্রে ফিতরা এক কেজি ৬৫০ গ্রাম (অর্ধ সা’) বা এর বাজারমূল্য ৭০ টাকা। যবের ক্ষেত্রে (এক সা’) তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য ২৮০ টাকা ফিতরা দিতে হবে।<br><br>এছাড়া তিন কেজি ৩০০ গ্রাম কিসমিস বা এর বাজারমূল্য এক হাজার ৩২০ টাকা দিয়ে ফিতরা আদায় করা যাবে। খেজুরের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য এক হাজার ৬৫০ টাকা ও পনিরের ক্ষেত্রে তিন কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজারমূল্য দুই হাজার ৩১০ টাকা দিয়ে ফিতরা আদায় করতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, ফিতরার পণ্যের স্থানীয় খুচরা বাজারমূল্যের তারতম্য রয়েছে। সে অনুযায়ী স্থানীয় মূল্য পরিশোধ করলেও ফিতরা আদায় হবে।<br><br>সভায় ফিতরা সংক্রান্ত কমিটির উপস্থিত সদস্যরা উল্লেখ করেন, নেছাব পরিমাণ (সাড়ে ৭ তোলা স্বর্ণ বা সাড়ে ৫২ তোলা রুপার সমপরিমাণ) মালের মালিক হলে মুসলমান নারী-পুরুষের ওপর ঈদের দিন সকালে সাদকাতুল ফিতর আদায় করা ওয়াজিব হয়৤ ঈদের নামাজে যাওয়ার পূর্বে ফিতরা আদায় করতে হয়। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৩ বা ১৪ মে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।<br><br>সভায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের গভর্নর মাওলানা মুহাম্মদ কাফিলুদ্দীন সরকার ও হাফেজ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ রুহূল আমীন, মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান সাঈদ, মাওলানা মো. আব্দুর রাজ্জাক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক মো. আনিছুর রহমান সরকার, উপ-পরিচালক মাওলানা আবদুল জলীল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, মুহাদ্দিস মুফতি ওয়ালিয়ূর রহমান খান ও মুফাসসির মাওলানা মুহাম্মদ আবু সালেহ পাটোয়ারীসহ দেশের বিশিষ্ট আলেম ওলামারা উপস্থিত ছিলেন।</body></HTML> 2021-04-21 16:29:09 1970-01-01 00:00:00 সিরাজগঞ্জে কোকেনসহ পাঁচজন গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105900 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000778_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000778_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলা থেকে ৫৮০ গ্রাম কোকেনসহ চার মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১২। আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১২ এর সহকারী পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমান। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উল্লাপাড়া উপজেলার কৈবর্ত্তগাঁতী গ্রামের হাফিজুর রহমান (৩১), সুবৌদ্য মরিচ গ্রামের আব্দুল জুব্বার (২৪), শুকলাহাট এলাকার বাচ্চু কুমার হালদার আশীষ (৩৬) ও পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়া থানার ময়দানদিঘী এলাকার জাহিদ হাসান (৪০)।<br><br>সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উল্লাপাড়া পৌর এলাকার ঘোষগাঁতী পালপাড়া মহল্লায় মাদকবিরোধী চালিয়ে অভিযান চালায় র‍্যাব। এ সময় ৫৮০ গ্রাম কোকেনসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী হাফিজুর, জুব্বার, বাচ্চু ও জাহিদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের কাজে ব্যবহৃত দুটি মোবাইলও জব্দ করা হয়। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে উদ্ধারকৃত আলামতসহ আসামিদের উল্লাপাড়া মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। জব্দকৃত কোকেনের মূল্য প্রায় ৫৮ লাখ টাকা বলে জানিয়েছে র‍্যাব। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আটকরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী এবং তারা দীর্ঘদিন ধরে পরস্পর যোগসাজশে কোকেন পাচারকারী চক্রের সঙ্গে জড়িত।<br><br></body></HTML> 2021-04-21 16:25:44 1970-01-01 00:00:00 লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105899 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000696_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000696_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">নভেল করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বগতি রোধে সরকার ঘোষিত চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে সহায়তার জন্য সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জানা গেছে, জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে এ অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হবে। এরপর জেলা প্রশাসন এই অর্থ চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, দুস্থ, ভাসমান ও অসচ্ছল মানুষের মধ্যে বিতরণ করবে।<br><br>এ অর্থ বরাদ্দের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘করোনার ঊর্ধ্বগতি রোধে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে সরকার লকডাউন ঘোষণা করেছে। এ অবস্থায় অনেক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রী সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আজ বুধবার স্বাক্ষর করে এই অর্থ বরাদ্দের ছাড়পত্র দিয়েছেন। করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় দেশে প্রথম দফায় গত ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। পরে এটি ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়।<br><br>গত বছর দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিলে সারা দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। ওই সময় মোট ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা প্রণোদনা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। যা ছিল জিডিপির প্রায় ২ দশমিক ৫২ শতাংশ। পরবর্তি সময়ে দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় ফের লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। এই লকডাউনের কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে এবার নতুন করে সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেন প্রধানমন্ত্রী।<br><br></body></HTML> 2021-04-21 16:24:12 1970-01-01 00:00:00 বাংলাদেশ নিয়ে আবারও আল-জাজিরার অপপ্রচার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105898 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000565_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000565_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাংলাদেশবিরোধী চক্রান্ত থামছে না আল জাজিরার। এবার টার্গেট রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশ সরকারের গড়ে তোলা আধুনিক ও নিরাপদ আবাসস্থল নোয়াখালীর ভাসানচর। ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্প নিয়ে নানামুখী অপপ্রচার শুরু করেছে কাতারভিত্তিক এ সংবাদ মাধ্যম। ভাসানচর নিয়ে জাতিসংঘ প্রতিনিধি দলের সন্তুষ্টি প্রকাশের কয়েকদিনের মধ্যেই আল জাজিরার অপপ্রচারকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হিসেবেই দেখছেন রোহিঙ্গা গবেষকরা।<br><br>১৭০ বছরের ঘূর্ণিঝড়ের ইতিহাস এবং ক্ষয়-ক্ষতি পর্যালোচনা করেই গড়ে তোলা হয়েছে নোয়াখালীর ভাসানচরে আধুনিক আশ্রয়ণ প্রকল্প। যেখানে ব্যবহার করা হয়েছে উন্নত সব প্রযুক্তি। ইতোমধ্যে ৫ দফায় যাওয়া প্রায় ১৫ হাজার রোহিঙ্গা বসবাস করছেন। আর এ ভাসানচর নিয়েই অপপ্রচার চালাচ্ছে কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা। গত ৩ বছর ধরে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর সহযোগিতায় এ ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জন্য গড়ে তোলা হয় গুচ্ছ গ্রাম, ঘূর্ণিঝড় শেল্টার ও হাসপাতাল। ইতোমধ্যে সেখানে বাজার ব্যবস্থাও গড়ে উঠেছে।<br><br>চলতি বছরের ১৮ মার্চ বহুল আলোচিত ভাসানচর পরিদর্শন করে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল। রোহিঙ্গা বসতি স্থাপন নিয়ে ইতিবাচক প্রতিবেদনও দিতে যাচ্ছে তারা। তার আগে ভাসানচর পরিদর্শন করেছেন উন্নত দেশের কূটনীতিকরা। তারাও ভাসানচর নিয়ে ইতিবাচক। এতো কিছু ইতিবাচকের মাঝে নেতিবাচক সংবাদ পরিবেশন করছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা।<br><br>গত ৩ বছরে বাংলাদেশের ওপর দিয়ে অতিক্রম করে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় যেমন এখানে কোনো ক্ষতি করেনি, তেমনি এখন পর্যন্ত জোয়ারের পানি প্রবেশেরও কোনো নজির নেই। এমনকি বাংলাদেশের বিভিন্ন দ্বীপের পাশাপাশি উপকূলীয় এলাকাগুলোতে বসবাস রয়েছে দুই কোটির বেশি মানুষের। অথচ আল-জাজিরা তাদের প্রতিবেদনে ঘূর্ণিঝড় ও জোয়ারের পানির কথা বলে ভীতি সৃষ্টির পাঁয়তারা চালাচ্ছে।<br>রোহিঙ্গা বিষয়ক গবেষক প্রফেসর ড. জাকির হোসেন চৌধুরী বলেন, আল-জাজিরার বাংলাদেশ ডেস্কে যারা কাজ করে তারা পাকিস্তানি। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রতি শত্রুতা করেই তারা এ কাজটি করছে। বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল রাখার একটা পরোক্ষ চক্রান্ত আল-জাজিরা সবসময় করে আসছে।<br><br>দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশের স্পর্শকাতর নানা বিষয় নিয়ে চক্রান্ত করে যাচ্ছে আল জাজিরা। কিন্তু তারাকোনটাতেই সফল হতে পারেনি বলে মনে করেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর অব. এমদাদুল ইসলাম। তিনি বলেন, আসলে এগুলো আল-জাজিরা সম্পূর্ণ অপপ্রচার। কারণ সেখানে বলা হচ্ছে ভাসানচরে সাইক্লোন হয়, বন্যা হয়। কিন্তু এগুলোর কোনো প্রমাণ নেই। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অমানবিক নির্যাতনে প্রাণভয়ে পালিয়ে এসে কক্সবাজারে আশ্রয় নেয় ১১ লাখ রোহিঙ্গা। এর মধ্যে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের।</body></HTML> 2021-04-21 16:21:35 1970-01-01 00:00:00 আগামী বাজেটের মূল লক্ষ্য দরিদ্র মানুষ: অর্থমন্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105897 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000140_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000140_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আগামী অর্থবছরের বাজেট দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য নিবেদিত থাকবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বুধবার (২১ এপ্রিল) সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার কমিটির বৈঠক শেষে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন। দরিদ্রদের মূলস্রোতে আনতে বাজেটে বড় একটি বরাদ্দ দরকার, সেক্ষেত্রে নতুন করে সামাজিক সুরক্ষাখাতে বাড়তি কোনো বরাদ্দ রাখবেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের আগামী বাজেট নিবেদিত থাকবে এ দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য। এরাই অগ্রাধিকার পাবে। সুতরাং আমরা ’মানুষের জীবন-জীবিকার জন্য বাজেটে জায়গা করে দেবো।’<br><br>আরও এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, দেশে কত মানুষ নতুন করে দরিদ্র হয়েছেন সে বিষয়ে সরকার পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) তথ্য গ্রহণ করবে, কোন বেসরকারি সংস্থার তথ্য নয়। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়টি অনুমোদন হয়েছে, সর্বশেষ দুইটি মিটিংয়ে একই বিষয় উঠে বাতিল হয়েছিল, সে বিষয়ে জানতে চাইলে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আগে আমরা বাতিল করিনি। যে শর্তগুলো ছিল সেগুলো আমরা পূরণ করে নিয়ে এসেছি। এগুলো একই প্রকল্প। আগেরগুলোর সঙ্গে দেখলে বোঝা যাবে বিভিন্ন জিনিস এনে যুক্ত করতে হয়েছে। যেসব মহাসড়কে আমাদের পরিবহনের জন্য এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব এসেছিল সেগুলো একটার পর একটা অনুমোদন হচ্ছে। একই জিনিসগুলো আসছে।</body></HTML> 2021-04-21 16:15:12 1970-01-01 00:00:00 ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম আবারও ৪ দিনের রিমান্ডে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105896 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000053_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1619000053_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে রাজধানীতে বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের মিছিল থেকে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম মাদানীর ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ বুধবার (২১ এপ্রিল) ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ নোমান শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।</body></HTML> 2021-04-21 16:13:51 1970-01-01 00:00:00 বিয়ের ১০ দিন পর গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105895 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971779_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971779_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বিয়ের মাত্র ১০ দিনের মাথায় কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে রিমা (১৬) নামের এক কিশোরী বধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে শিলাইদহ ইউনিয়নের জোড়ারপুর গ্রামের পিয়াসের (১৮) ঘর থেকে তার নব বিবাহিতা স্ত্রী রিমার লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কয়া ইউনিয়নের বেড়কালুয়া গ্রামের রেজাউলের মেয়ে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী রিমার সাথে জোড়ারপুর গ্রামের খোকনের ছেলে দিন মজুর পিয়াসের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।<br><br>মঙ্গলবার দুপুরে স্বামীর ঘর থেকে পুলিশ রিমার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দাবি, পারিবারিক কলহের জের ধরে নববধূ রিমা আত্মহত্যা করেছে। তবে রিমার স্বজনরা অভিযোগ করেন, পরিকল্পিতভাবে রিমাকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।<br>নিহতের বাবা রেজাউল বলেন, মাত্র ১০ দিন আগেই পারিবারিকভাবে ওদের বিয়ে হয়। রিমার এর আগেও একটা বিয়ে হয়েছিল। পূর্বের বিয়ে নিয়ে পরিবারে অশান্তি ছিল। কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান বলেন, শ্বশুড় বাড়ি থেকে কিশোরী বধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে। <br></body></HTML> 2021-04-21 08:22:14 1970-01-01 00:00:00 মালয়েশিয়া থেকে নিজ দেশে ফিরছেন ৭২ হাজারেরও বেশি অভিবাসী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105894 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971586_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"> and nbsp;<img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971586_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সাধারণ ক্ষমার আওতায় ৭২ হাজারেরও বেশি অবৈধ অভিবাসী মালয়েশিয়া থেকে নিজ নিজ দেশে ফিরছেন। এমনটি জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজাহ জয়নুদিন। সরকারের সাধারণ ক্ষমা কর্মসূচিতে ১, ৪৫,০০০ এরও বেশি অনিবন্ধিত অভিবাসী অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে ৭২,৩২৪ জন তাদের নিজ নিজ দেশে ফিরে যেতে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং ৭২,৫০৬ জন and nbsp; বৈধ হওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছেন বলে সোমবার এক বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হামজাহ জয়নুদিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন ।<br><br>“সরকার অনাবন্ধিত অভিবাসী যারা তাদের নিজ দেশে ফিরে যেতে বা মালয়েশিয়ায় বৈধতা নিয়ে কাজ চালিয়ে যেতে চায় তাদের কাছ থেকে ৩৫.১ মিলিয়ন রিঙ্গিত সংগ্রহ করেছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ। "এটা নয় যে আমরা অভিবাসীদের তাড়া করতে চাই বা আমরা তাদের মালয়েশিয়ায় থাকতে দিই না, তবে আমরা চাই যে তারা এখানে বৈধ কাগজপত্র নিয়ে কাজ করবে, বলে বলছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হামজাহ জয়নুদিন।<br><br>এ ছাড়া চলমান কোভিড -১৯ টিকাদান কর্মসূচি সফল করতে অনিবন্ধিত অভিবাসীসহ সকল বিদেশিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন এবং তিনি আত্মবিশ্বাসী যে কর্মীরা পুনরুদ্ধার কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত উৎসাহজনক প্রতিক্রিয়া তুলে ধরে অভিবাসীরা এই ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধন করবেন। হামজাহ যোগ করেন, মালয়েশিয়ার ৭০% এরও বেশি জনগোষ্ঠীর বৈধ কাগজপত্র রয়েছে এমন বিদেশী যারা ভ্যাকসিন গ্রহণকারী হিসাবে নিবন্ধিত হয়েছে তা নিশ্চিত করার জন্য অভিবাসন বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 08:18:51 1970-01-01 00:00:00 বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষে চাদের প্রেসিডেন্ট ইদ্রিস নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105893 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971417_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971417_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br> and nbsp;বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সম্মুখসারির লড়াইয়ে আফ্রিকান দেশ চাদের পুনর্নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইদ্রিস দেবি মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় টিভিতে এক ঘোষণার দেশটির সেনাবাহিনী এ কথা জানায়। and nbsp; সেনাবাহিনী জানায়, চাদে অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরপরই সীমান্ত এলাকায় বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষে তিনি নিহত হন। ওই নির্বাচনে তিনি ৮০ শতাংশ ভোট পেয়ে ষষ্ঠবারের মতো প্রেসিডেন্ট পদে জয় পাচ্ছেন বলে ধারাণা করা হচ্ছে। <br><br>সরকার ও সংসদ ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। আগামী ১৮ মাস সামরিক পরিষদ দেশ পরিচালনা করবে। ১৯৯০ সালে এক সামরিক অভ্যাত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেন দেবি। গত সপ্তায় তিনি দেশটির উত্তরাঞ্চলে লিবিয়া সীমান্তে গিয়েছিলেন। নির্বাচনে জয়ী হয়ে বিজয় ভাষণের আগেই তিনি ওই অঞ্চল সফরে যান। সেখানে বিদ্রোহীদের দমনে লড়াই করছিল সেনাবাহিনী।</body></HTML> 2021-04-21 08:16:35 1970-01-01 00:00:00 দেশে করোনার যে ঔষধ হন্যে হয়ে খুঁজছেন অনেকেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105892 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971251_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971251_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনায় বিপর্যস্ত জনজীবন। প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। গত চারদিন দেশে টানা শতাধিক মৃত্যু। যদিও মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) কিছুটা কমেছে। কিন্তু এখনও মৃত্যু আর আতঙ্ক যেন পিছু ছাড়েনি। এরই মধ্যে দেশে আইসিইউয়ের ব্যাপক সংকট। করোনার এই ভয়াল থাবা থেকে বাঁচতে মানুষ সব ধরনের চেষ্টাই করে যাচ্ছেন। and nbsp; বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর, এপ্রিল মাসের শুরু থেকে টসিলিজুমাব ঔষধের প্রচুর চাহিদা তৈরি হয়েছে বাংলাদেশে।<br><br>সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, টসিলিজুমাব ঔষধটি কোভিড-১৯ আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের অনেকের ক্ষেত্রে জীবন রক্ষাকারী হিসেবে কাজ করছে। বিশেষ করে টসিলিজুমাব গ্রুপের ইনজেকশন ‘একটেমরা’ এখন দুষ্প্রাপ্য হয়ে উঠেছে।<br>এই ঔষধের উৎপাদক সুইজারল্যান্ড-ভিত্তিক বিশ্বখ্যাত রোশ কোম্পানি। বাংলাদেশে এই ঔষধ আমদানি করে রেডিয়েন্ট বিজনেস কনসোর্টিয়াম।<br><br>সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, বাংলাদেশে প্রতি তিন থেকে চারদিন পরপর সুইজারল্যান্ড থেকে এই ঔষধ আসে। প্রতিবার ২০০-২৫০ ভায়েল ঔষধ আসে। কিন্তু এই সময়ের মধ্যে তিনগুণ চাহিদা তৈরি হয়েছে বলে চিকিৎসক এবং হাসপাতাল সূত্রগুলো বলছে। কিন্তু বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত বিপুল সংখ্যক রোগীর সংকটাপন্ন অবস্থা তৈরি হবার কারণে বিপুল পরিমাণে ‘টসিলিজুমাব’ ঔষধের বিপুল চাহিদা তৈরি হয়েছে।<br>বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোভিড-১৯ নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটের কনসালট্যান্ট সাজ্জাদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার পরে অনেকের ফুসফুসের ভেতরে একটা বড় ধরণের ঝড় তৈরি হয়। সেটা ঠেকানোর জন্য এই ঔষধ প্রয়োগ করা হয়।<br><br>তিনি বলেন, ‘যাদের ফুসফুস ৬০ শতাংশের বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাদের ক্ষেত্রে পরিস্থিতি বিবেচনা করে এই ঔষধ প্রয়োগ করা হয়। এটা একটা সাপোর্টিভ ট্রিটমেন্ট। এটা দিলেই যে ভালো হয়ে যাবে তা নয়।’ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘আমাদের এখানে এবারে করোনা ভাইরাসের যে ভ্যারাইটি হয়েছে সেখানে আক্রান্তদের মধ্যে অনেকের ফুসফুস চার থেকে পাঁচদিনে মধ্যে দুর্বল হয়ে যাচ্ছে।’<br><br>তিনি বলেন, এই ঔষধের কিছু গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি হতে পারে। তবে সেটা সবার ক্ষেত্রে নয়। এটার পর্সেন্টেজ খুব কম। রোগীর অবস্থা পর্যালোচনা করে এই ঔষধ প্রয়োগ করতে হবে। রোশ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে জানানো হয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির সময় বিশ্বজুড়ে টসিলিজুমাব ঔষধটির চাহিদা বেড়েছে।<br><br>রোশ বাংলাদেশ জানিয়েছে, একটেমরা ঔষধটি কোভিড১৯ রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রথম ব্যবহার করা হয় চীনে ২০২০ সালের মার্চ মাসে। এরপর আরো কিছু দেশ একই রকম পদ্ধতি অনুসরণ করে। রোশ বাংলাদেশ বলছে, করোনা মহামারির কারণে বিশ্বজুড়ে একদিকে এই ঔষধের চাহিদা তৈরি হয়েছে অন্যদিকে উৎপাদন সীমাবদ্ধতার কারণে সরবরাহে সংকট তৈরি হয়েছে। কারণ বায়োটেক ঔষধের উৎপাদন, বিতরণ এবং রক্ষণাবেক্ষণ জটিল ও সময়সাপেক্ষ কাজ। সে জন্য এই ঔষধের সংকট তৈরি হয়েছে বলে জানায় রোশ বাংলাদেশ। তারপরেও এই সংকটের সময় ঔষধটির সর্বোচ্চ সরবরাহ নিশ্চিত করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানায় রোশ বাংলাদেশ।<br><br><span style="font-weight: bold; font-style: italic;">বিবিসি অবলম্বনে</span></body></HTML> 2021-04-21 08:13:04 1970-01-01 00:00:00 হেফাজতের ঢাকা মহানগরের আরেক সহসভাপতি গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105891 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971040_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618971040_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগরের সহসভাপতি ও খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মুফতি আহমদ আলী কাসেমীকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর বাড্ডা তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। and nbsp; হেফাজতের ঢাকা মহানগরীর প্রচার সম্পাদক আব্দুল মুবিন এ তথ্য জানিয়েছেন। এর আগে আজ হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ঢাকা মহানগরের সহসভাপতি ও খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর বাসাবোর বাসা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।<br><br>দুজনের গ্রেপ্তারের বিষয়টি তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম। তিনি বলেন, ‘আজ বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর বাসাবোর নিজ বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করেছে। একই সময় বাড্ডা থেকে মুফতি আহমদ আলী কাসেমীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে হেফাজতের তাণ্ডব ও ২০১৩ সালে শাপলা চত্বরের ঘটনার অভিযোগ রয়েছে। তাঁরা এখন ডিবি হেফাজতে রয়েছেন। আগামীকাল তাঁদের আদালতে পাঠানো হবে।’<br><br>গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর ঘিরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করেন হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। সেই বিক্ষোভ সহিংসতায় রূপ নেয়। ওই সংঘাতে প্রাণ হারান অন্তত ১৮ জন। সেসব ঘটনায় একাধিক মামলা হয়। মামলার আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।<br>গত ১৮ এপ্রিল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও খেলাফতে মজলিসের মহাসচিব মামুনুল হককে। ২০২০ সালের মোহাম্মদপুর থানার একটি ভাঙচুর ও নাশকতার মামলায় গতকাল সোমবার তাঁকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।<br><br></body></HTML> 2021-04-21 08:10:12 1970-01-01 00:00:00 ‘যে যেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন, সেখানেই চিকিৎসা নিন’ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105890 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618970840_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618970840_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রাজধানীর মহাখালীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মার্কেটে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল চালু করেছে গত সোমবার (১৯ এপ্রিল)। এরমধ্যেই বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে করোনা রোগীরা চিকিৎসা নেওয়ার জন্য ভিড় করছে ডিএনসিসির করোনা হাসপাতালে। এ অবস্থায় হাসপাতালটির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন বলেন, করোনা রোগীরা যারা যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন সেখানেই থাকুন।<br>মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন।<br><br>তিনি বলেন, যে যেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন, তিনি সেখানে থেকেই চিকিৎসা নিন। তারা যেন এখানে না আসেন। এলে নতুন যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের সংকট দেখা দেবে। আপনারা যেখানে চিকিৎসা নিচ্ছেন সেখানেই নিন। তবে নতুন আক্রান্তরা সেবা পাবেন।<br>তিনি বলেন, গতকাল সোমবার থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ১৯২ জন রোগী রিপোর্ট করেছেন। ৮৩ জন রোগীকে আমরা ভর্তি করেছি। ৩৪ জন রোগীকে আমরা আইসিইউতে নিয়েছি। তারমধ্যে ৪ জন মারা গেছেন। এই মুহূর্তে ভর্তি আছে ৭৮ জন। এখন পর্যন্ত ৮০টি আইসিইউ প্রস্তুত আছে।<br><br>সরেজমিনে দশ মিনিট অবস্থান নিয়ে দেখা গেছে, এই সময়ে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স এসে দীর্ঘ লাইন লেগে গেছে। এসব অ্যাম্বুলেন্সে আসা অধিকাংশ রোগীরই জটিল পরিস্থিতি। এ প্রসঙ্গে ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন বলেন, রোগীদের অধিকাংশই সিবিআর সাসপেক্টিভ প্রব্লেম নিয়ে আসছেন। তারা অল্প সময়েই বেশি অসুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। অবস্থা জটিল আকার ধারণ করছে।<br><br>হাসপাতালটির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন বলেন, শুরুতে ২৫০ শয্যা দিয়েই হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই আমরা এটাকে পাঁচ শতাধিক শয্যায় পরিণত করব এবং এই মাসের মধ্যেই আশা করা যায় এক হাজার শয্যাই আমরা চালু করে দেবো।</body></HTML> 2021-04-21 08:06:54 1970-01-01 00:00:00 মুম্বাইকে হারিয়ে দিলো দিল্লি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105889 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618970750_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618970750_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে জয় পেয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। রোহিত শর্মা নেতৃত্বাধীন দলটির দেয়া ১৩৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ছয় উইকেটে জয় তুলে মাঠ ছাড়ে ক্যাপিটালস। মঙ্গলবার টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেটে ১৩৭ রান সংগ্রহ করে মুম্বাই। জবাবে ৫ বল বাকি থাকতেই ৪ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ঋষভ পন্থের দল।<br><br>চেন্নাইয়ে এমএ চিদাম্বরাম স্টেডিয়ামে অধিনায়ক রহিত শর্মা ৩৬ বলে ৪৪ ও ইশান কিষাণের ২৮ বলে ২৬ রানের সুবাদে। স্বল্প সংগ্রহ করে মুম্বাই।<br>দিল্লির হয়ে অমিত মিশ্র ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে তুলে নেন চারটি উইকেট। হয়েছেন ম্যাচ সেরা। জবাবে ৫ বলে ৬ রান করেন পৃথ্বী শ। ৪২ বলে ৪৫ রান তুলেন শিখর ধাওয়ান। ২৯ বলে ৩৩ রান আসে স্টিভেন স্মিথের ব্যাট থেকে। অধিনায়ক ঋষভ পন্থ ৮ বলে সাত রান করে মাঠ ছাড়েন।<br>শেষ পর্যন্ত ৯ বলে ১৪ রান করে ক্রিজে ছিলেন শিমরন হেটমায়ার। তার সঙ্গে অপরাজিত ছিলেন ২৫ বলে ২২ রান করা ললিত জাদব।<br>মুম্বাইয়ের বোলারদের মধ্যে জসপ্রিত বুমরাহ, জয়ন্ত জাদব, কাইরন পোলার্ড ও রাহুল চাহার একটি করে উইকেট নেন।</body></HTML> 2021-04-21 08:05:14 1970-01-01 00:00:00 মোদিবিরোধী আন্দোলনে রাষ্ট্রক্ষমতা দখলচেষ্টা করেন মামুনুল http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105888 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930325_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930325_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরবিরোধী আন্দোলনের নামে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হক সরকার উৎখাত করে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করতে চেয়েছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।<br>মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) রিমান্ডে থাকা মামুনুল হক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. হারুন-অর-রশিদ। গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর ঘিরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করেন হেফাজত নেতাকর্মীরা। সেই বিক্ষোভ সহিংসতায় রূপ নেয়। ওই সংঘাতে প্রাণ হারান অন্তত ১৮ জন। সেসব ঘটনায় একাধিক মামলা হয়। মামলার আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। গত রোববার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে গ্রেফতার করা হয় মামুনুল হককে। ২০২০ সালের মোহাম্মদপুর থানার একটি ভাঙচুর ও নাশকতার মামলায় সোমবার (১৯ এপ্রিল) তাকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। ঐধৎঁহ.লঢ়মরিমান্ডে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের তথ্য তুলে ধরে হারুন-অর-রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, রিমান্ডে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হক। তিনি জানিয়েছেন, তিনি কওমি মাদরাসার কোমলমতি ছাত্রদের উসকানি দিয়ে মাঠে নামিয়েছিলেন। তার উদ্দেশ্য ছিল (ভারতের প্রধানমন্ত্রী) নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতার আন্দোলনকে কাজে লাগিয়ে সরকারকে উৎখাত করে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করা। ডিসি হারুন-অর-রশিদ বলেন, হেফাজতের নেতাকর্মীদের উসকানি দিতেন মামুনুল। তিনি বলতেন, শেখ হাসিনার সরকারের পতন হলে হেফাজতের সমর্থন ছাড়া কেউ ক্ষমতা দখল করতে পারবে না।<br>আরেকটি মামলার বিষয়ে পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, গত বছরের ৭ মার্চ মোহাম্মদপুরে (মামলার বাদীকে) মারধরের ঘটনার ভিডিও দেখানো হলে মামুনুল দুঃখ প্রকাশ করেন। এদিকে, নারায়ণগঞ্জে সহিংসতার ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলার প্রাথমিক তদন্তে ওই সহিংসতায় মামুনুল হকের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন সিআইডি প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-21 20:51:00 1970-01-01 00:00:00 করোনার টিকাকে সর্বজনীন পণ্য ঘোষণা করা উচিত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105887 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930303_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930303_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>করোনার টিকাকে সর্বজনীন পণ্য ঘোষণা করা উচিত বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া যেসব দেশ করোনাভাইরাসের টিকা তৈরি করে না, তাদেরকে সহায়তা দিতে উৎপাদক দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।<br>মঙ্গলবার সকালে বোয়াও ফোরাম ফর এশিয়ার (বিএএফ) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পূর্ব রেকর্ড করা ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।<br>করোনা মোকাবিলায় পারস্পরিক শক্তিশালী অংশীদারিত্ব প্রয়োজন এমনটা মন্তব্য করে দুর্যোগময় এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে বিশ্বসম্প্রদায়কে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান সরকারপ্রধান।<br>বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনকে সর্বজনীন পণ্য হিসেবে ঘোষণা করা উচিত। ভ্যাকসিন এবং অন্যান্য চিকিৎসা উপকরণের চাহিদা মেটাতে জাতিসংঘ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে কার্যকর করতে সব দেশের একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, জিএভিআই এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সংস্থাগুলোকে অবশ্যই সদস্য রাষ্ট্রগুলোর অধিকার, সাম্য এবং ন্যায় নিশ্চিত করতে হবে।<br>প্রধানমন্ত্রী বলেন, জীবন ও জীবিকার ভারসাম্যপূর্ণ ব্যবস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশ মহামারীর বিরূপ প্রভাব কাটানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে। সামাজিক নিরাপত্তা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ১৪ দশমিক ছয় বিলিয়ন ডলারের বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে, যা আমাদের জিডিপির চার দশমিক চার শতাংশ।<br>কেউ যাতে পেছনে না থাকে, এমনকি মহামারী সংকটেও যাতে কেউ পেছনে না থাকে, তা নিশ্চিত করতে বৈশ্বিক গভর্নেন্সের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠানের প্রাধান্যে বিশ্বাস করে।–মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।<br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-04-20 20:51:30 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে পুলিশ ও যুবকের হাতাহাতি ভাইরাল, ৩ পুলিশ ক্লোজড http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105886 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930281_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930281_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥<br>লকডাউন চলাকালীন ফেনীতে পুলিশ সদস্যদের সাথে শহিদুল ইসলাম নামে এক যুবকের হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে। রবিবার বিকেলে শহরের ট্রাংক রোডের মডেল হাই স্কুলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে সেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।<br>প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার বিকেলে শহিদুল ইসলামকে লকডাউন চলাকালীন রাস্তায় বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করলে পুলিশের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এসময় তিনি পুলিশকে প্রশ্ন করেন এটাকি পুলিশি রাষ্ট্র হয়ে গেছে নাকি? একপর্যায়ে পুলিশ তাকে মারতে গেলে তিনিও পুলিশকে মারধর করতে থাকেন।<br>ওই সময় কেউ একজন ঘটনাটির ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছেড়ে দিলে মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়। শহিদুল ইসলামের বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের ভূঞার হাট। ফেনীর পুলিশ সুপার নুরুনবী জানান, এই ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একজন উপ-পরিদর্শক, একজন সহকারী উপ-পরিদর্শক ও একজন কনস্টেবলকে ক্লোজড করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।<br>ভিডিওতে দেখা যায়, ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে রিকশায় বসে থাকা এক যাত্রীর সঙ্গে কথা বলছেন একাধিক পুলিশ সদস্য। এসময় ওই যাত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় এবং তাকে রিকশা থেকে নামতে বলেন পুলিশ সদস্যরা। এসময় তিনি দাবি করেন, তিনি মসজিদে কোরআন পড়তে যাচ্ছেন। একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি উচ্চস্বরে দায়িত্বরত পুলিশদের উদ্দেশ্যে বলে ওঠেন, ‘এই দেশে পুলিশের অনেক ক্ষমতা, না!<br>এসময় এক পুলিশ সদস্য তাকে জোর করে রিকশা থেকে নামাতে চাইলে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। একপর্যায়ে রিকশায় থাকা ওই যাত্রী আক্রমণাত্মক হয়ে উঠলে পুলিশ সদস্যরা তাকে আঘাত করেন। এসময় ওই ব্যক্তিও পুলিশদের পাল্টা আঘাত করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় একাধিক পুলিশ সদস্য তাকে ঝাপটে ধরে হ্যান্ডকাপ পরানোর চেষ্টা করেন। এসময় তিনি হ্যান্ডকাপ পরতে অস্বীকৃতি জানান এবং গালাগালিসহ এলোপাতাড়ি হাত-পা ছুড়তে থাকেন। একই সময় তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে চিৎকার করে ভিডিও করতে বলেন।<br>একপর্যায়ে চার-পাঁচজন পুলিশ সদস্য তাকে হ্যান্ডকাপ পরানোর জন্য জোরপূর্বক মাটিতে ফেলে চাপ প্রয়োগ করেন। এসময় উপস্থিত জনতার তোপের মুখে তারা আবার ওই ব্যক্তিকে ধরে উঠান এবং হ্যান্ডকাপ পরান। পরে তাকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-20 20:51:11 1970-01-01 00:00:00 আজ লঙ্কানদের বিপক্ষে মাঠে নামছে টাইগাররা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=105885 http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930259_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/04/20/1618930259_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া প্রতিবেদক,<br>টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটো ম্যাচ খেলতে এখন শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। দুদলই পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে রয়েছে। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত আজ। ক্যান্ডিতে ম্যাচটি বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হবে।<br>প্রথম পয়েন্ট অর্জনে উদ্দেশ্যের এবার শ্রীলঙ্কায় পাড়ি জমিয়েছে মুমিনুল হকের দল। কেননা এখন পর্যন্ত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে মোট ৫টি ম্যাচ খেলে প্রত্যেকটিতেই হেরেছে টাইগাররা। বাংলাদেশই একমাত্র দল যারা এখনো কোনো পয়েন্ট পায়নি। টেবিলে নয় নম্বরে রয়েছে রাসেল ডোমিঙ্গো শিষ্যরা।<br>আগের পাঁচ ম্যাচে যাই হোক না কেন, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জিততেই সফরে গিয়েছে বাংলাদেশ। তবে দুদলে মুখোমুখিতে এগিয়ে রয়েছে স্বাগতিকরা। জয়, সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ, সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ, সর্বোচ্চ উইকেট, সর্বোচ্চ জুটি- সব রেকর্ডই কথা বলছে লঙ্কানদের পক্ষে।<br>শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এখন পর্যন্ত মোট ২০টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ১৬টি ম্যাচেই জিতেছে লঙ্কানরা। আর ২০১৭ সালের নিজেদের শততম টেস্ট খেলতে নেমে শ্রীলঙ্কার মাটিতে ৪ উইকেটের জয় পেয়েছিল মুশফিকুর রহিমের দল। লঙ্কানদের বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশের জয় এই একটিই। অন্য তিনটি ম্যাচ ড্র হয়েছে।<br>বাংলাদেশের বিপক্ষে এক ইনিংসে শ্রীলঙ্কা সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৭৩০ রান। আর বাংলোদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৬৩৮ রান। ২০১৩ রানে দেশের মাটিতে এই রেকর্ডটি গড়েছিল। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ রানের মালিক মোহাম্মদ আশরাফুল। পাঁচটি সেঞ্চুরিতে ১০৯০ রান করতে সক্ষম হন তিনি। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কান কিংবদিন্ত ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকারা বাংলাদেশের বিপক্ষে সাতটি সেঞ্চুরিতে সংগ্রহ করেছেন দুদলে যেকোনো ব্যাটসম্যানের বেশি ১৮১৬ রান। বল হাতেও বড় ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে কালজয়ী স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন। মাত্র ২২ ইনিংসে সর্বোচ্চ ৮৯টি উইকেট লুফে নেন তিনি। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের হয়ে ১২ ইনিংসে সর্বোচ্চ ২৯টি উইকেটের নিতে সক্ষম হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।<br>তবে অতীত পরিসংখ্যান যাই নির্দেশ করুক, পাঁচদিনের ম্যাচে প্রতি সেশনে ব্যাটে-বলে যে দল বেশি ভালো করতে পারবে, জয় আসবে পক্ষেই। কে জিতবে আর কে হারবে নাকি আবার ড্র হবে- সেটা বোঝা যাবে পাঁচদিনের ম্যাচ শেষেই।<br><br><br></body></HTML> 2021-04-20 20:50:47 1970-01-01 00:00:00