http://www.hazarikapratidin.com RSS feed from hazarikapratidin.com en http://www.hazarikapratidin.com - জমি বিক্রি করে স্বামীর চিকিৎসা করাতে চাওয়ায় হত্যা! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102945 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611054392_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611054392_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জমি বিক্রি করে বাবার চিকিৎসা করাতে চাওয়ার অপরাধে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে মাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছেলে ও পুত্রবধুর বিরুদ্ধে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ী মর্গে প্রেরণ করেছে। নিহতের সরলা রানী বিশ্বাস (৫৫) উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল নতুনপাড়া গ্রামের সুকুমার বিশ্বাসের স্ত্রী। এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল নতুনপাড়া গ্রামের সুকুমার বিশ্বাসের দুই ছেলে। একজন পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে বসবাস করেন। একজন বাড়িতেই থাকেন। দীর্ঘদিন ধরে সুকুমার বিশ্বাস জটিল রোগে ভুগছিলেন। ছেলেরা তার চিকিৎসা না করায় স্ত্রী সরলা রানী বিশ্বাস বাড়ির কয়েকটি গাছ বিক্রি করে স্বামীকে ভারতে নিয়ে যেতে পাসপোর্ট করে। জমি বিক্রি করতে চাইলে ছেলে বাবলু বিশ্বাস ও তার স্ত্রী সবিতা রানী বিশ্বাসের সাথে বিরোধের সৃষ্টি হয়। তাদের নামে জমি রেজিস্ট্রি করে দিতে চাপ সৃষ্টি করে। এনিয়ে গত মঙ্গলবার বাবলু ও তার স্ত্রী মিলে মাকে মারপিট করে। এ সময় আহত অবস্থায় তাকে ফরিদপুর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সোমবার সন্ধ্যায় সরলা রানী বিশ্বাসের মৃত্যু হয়। রাতেই থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।<br><br>বালিয়াকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিকুজ্জামান বলেন, এলাকার লোকজনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।<br><br></body></HTML> 2021-01-19 17:04:55 1970-01-01 00:00:00 রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে একমত চীন-বাংলাদেশ-মিয়ানমার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102944 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611054135_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611054135_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বর্বর নির্যাতনের মুখে প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত নেওয়ার বিষয়ে কিছুটা নমনীয় অবস্থান দেখিয়েছে মিয়ানমার। রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনার লক্ষ্যে মঙ্গলবার বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও চীনের মধ্যে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে ত্রিপক্ষীয় ভার্চুয়াল বৈঠকে এ নমনীয় অবস্থান দেখায় দেশটি। বৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। দ্রুত এই রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে একমত পোষণ করেছে চীন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। <br><br>মিয়ানমারে ২০১৭ সালের আগস্টে শুরু হওয়া সামরিক বাহিনীর নিরাপত্তা অভিযানে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নির্বিচারে দমন-পীড়ন চালানো হয়। ওই সময়ে লাখ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। জাতিসংঘ উদ্বাস্তু সংস্থা ইউএনএইচসিআরের সহযোগিতায় বাংলাদেশ সরকার ২০১৭ সালের অভিযানের পর যেসব রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে; তাদের নাম, পরিচয় ও রাখাইন রাজ্যের কোন এলাকা থেকে এসেছে তার বিস্তারিত বিবরণসহ বায়োমেট্রিক নিবন্ধন করা হয়েছে। <br><br>নিবন্ধনের তথ্য মোতাবেক, মিয়ানমারের অভিযানের পর আট লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এই তালিকা মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মিয়ানমার তালিকা থেকে ৪২ হাজার রোহিঙ্গা নাম যাচাই করেছে। তার মধ্যে প্রায় ৩০ শতাংশ নাম মিয়ানমার প্রত্যাখ্যান করেছে। ফলে প্রায় ২৮ হাজার রোহিঙ্গাকে মিয়ানমার ক্লিয়ার করেছে। কিন্তু তার মধ্যে কোনো রোহিঙ্গাকে এখনো ফেরত পাঠানো সম্ভব হয়নি।<br><br>মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে কি না- তা নিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে আস্থার অভাব দেখা দিয়েছে। এ কারণে দুই দফায় ফেরত পাঠানোর আয়োজন করা হলেও রোহিঙ্গাদের কেউ রাখাইন রাজ্যে ফিরে যেতে চাননি। তারপর কোভিড-১৯ মহামারি শুরু হলে প্রত্যাবাসন সংক্রান্ত যাবতীয় কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে যায়। তার ওপর মিয়ানমারে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সব মিলিয়ে করোনা ও নির্বাচনের অজুহাত দেখিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার গতি ধীর করছে।<br><br>এদিকে সেনা অভিযান ও উগ্র বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের তাড়া খেয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা আট লাখ ৩০ হাজার বলে নিবন্ধন করা সম্ভব হলেও আগে থেকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে বাস করছে। তারা বিভিন্ন সময়ে অর্থনৈতিক কারণে বাংলাদেশে এসেছিল।<br>তাদের নিবন্ধন করেনি বাংলাদেশ। তাদের সংখ্যা তিন থেকে চার লাখ হবে বলে অনুমান করা হয়। ফলে বাংলাদেশে বর্তমানে রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ১১ লাখের বেশি। তারা সবাই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে এ দেশে এসেছেন।</body></HTML> 2021-01-19 16:58:32 1970-01-01 00:00:00 ৪ আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণে ঢাকার যানজট কমবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102943 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053815_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053815_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">চারটি আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণ করলে ঢাকা থেকে বাসের চাপ কমে যাবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুর পৌনে ২টার দিকে বাস রুট রেশনালাইজেশনের ১৫তম সভা শেষে ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা জানান। তাপস বলেন, আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণে প্রাথমিকভাবে ১০টি স্থান নির্বাচন করা হয়েছিল। এগুলো সরেজমিনে আমরা পরিদর্শন করেছি। সরেজমিনে পরিদর্শনের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা নির্ধারণ করেছি। উত্তরের জেলার বাসগুলোর জন্য বিরুলিয়ায় একটি আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হবে। দ্বিতীয়ত হেমায়েতপুরে আরেকটি জায়গা নির্ধারণ করেছি বাস টার্মিনালের জন্য। ঢাকা দক্ষিণ সিটির জন্য কেরানীগঞ্জের বাঘাইর ও কাঁচপুরের উত্তরে আরও দু’টি টার্মিনাল নির্মাণ করা হবে।<br><br>তিনি বলেন, এ চারটি জায়গায় আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হলে ঢাকা শহর থেকে বাসের চাপ কমে যাবে। সায়েদাবাদ ও গাবতলী টার্মিনালকে আমরা সিটি টার্মিনাল হিসেবে ব্যবহার করতে পারবো। বাকি চারটি টার্মিনাল ঢাকামুখী যানবাহনগুলোর জন্য ব্যবহার করতে পারবো। প্রাথমিকভাবে আমাদের এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছি। আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত মন্ত্রী বরাবর সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেব। আশা করি অনতিবিলম্বে তারা কাজ শুরু করলে আমরা অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারবো। and nbsp;<br><br>ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ঘাটারচর টু মতিঝিল রুট মতিঝিল পর্যন্ত থাকলে তেমন ফলপ্রসূ নাও হতে পারে। তাই এ ঘাটারচর টু মতিঝিল রুট আরেকটু বাড়িয়ে কাঁচপুর সেতু পর্যন্ত করছি। সুতরাং আমাদের এ রুট আরেকটু বাড়াবো। এ রুটের সঙ্গে জড়িত আনুষঙ্গিক অবকাঠামোগত উন্নয়ন কার্যক্রমও বর্ধিত করবো। সেই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। তিনি বলেন, বাস রুটের রেশনালাইজেশনে সার্বিক বিষয়ে আমাদের একটি নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে। আশা করছি আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ঢাকার পরিবহন সমন্বয় কমিটি মালিকসহ অন্য অংশীজনদের নিয়ে নীতিমালার খসড়া প্রণয়ন করবেন। and nbsp;<br><br>এ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, বাস মালিকদের সঙ্গে কথা বলে আমরা ঢাকা টু মতিঝিল রুট আরেকটু বর্ধিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৪টি জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছিল, যার কিছু স্থানে বাস-বে হবে ও কিছু জায়গায় বাস স্টপেজ করা হবে। যেহেতু এখন রুট কাঁচপুর পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে তাই আরও কিছু স্থান বাড়বে।<br>তিনি বলেন, প্রতিমাসে আমরা সব প্রতিনিধিদের নিয়ে সভা করছি। দুই মেয়রের যে নির্বাচনী অঙ্গীকার ছিল যানজট নিরসনের, সেটি নিয়ে আমরা কাজ করছি। অদূর ভবিষ্যতে সুন্দর যানজটমুক্ত ঢাকা শহর গড়ার লক্ষ্যে দুই মেয়র একসঙ্গে কাজ করছি। and nbsp; <br></body></HTML> 2021-01-19 16:55:19 1970-01-01 00:00:00 ঋণ ও চাকরির নামে অর্ধকোটি টাকা নিয়ে উধাও http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102942 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053596_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053596_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">মানিকগঞ্জের ঘিওরে ভুয়া প্রতিষ্ঠান খুলে গ্রাহকদের ঋণ ও চাকরি দেয়ার নামে অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতাররা হলেন, প্রতিষ্ঠানের ক্যাশিয়ার সাভারের আশুলিয়া এলাকার বাসিন্দা সিরাজুল ইসলাম ওরফে পরশ শিকদার (৪১) এবং পরিচালক নেত্রকোনা জেলার আটপাড়া উপজেলার সোনাকানিয়া গ্রামের সম্রাট (৩৪)।<br><br>পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্র জানায়, উপজেলার বানিয়াজুরি এলাকায় সম্প্রতি ‘ব্যবসায়ী সঞ্চয় সমিতি বেক্সিমকো গ্রুপ’ নাম দিয়ে একটি অফিস খোলে ওই প্রতারক চক্র। এরপর শতাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে ঋণ দেয়ার নামে ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা করে সঞ্চয় গ্রহণ করে।<br>একইসঙ্গে এলাকার বেকার বেশ কিছু ছেলে-মেয়েকে ওই প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেয়ার নামে জামানত বাবদ টাকা আদায় করে। সব মিলেয়ে তারা প্রায় অর্ধকোটি টাকা সংগ্রহ করে অফিস গুটিয়ে রাতের আঁধারে পালিয়ে যায়। পরে ভুক্তভোগীরা এ ব্যাপারে ঘিওর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।<br><br>ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বিপ্লব বলেন, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর প্রতারক চক্রটিকে ধরতে তারা মাঠে নামেন। সোমবার রাতে সাভারের আশুলিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই দুইজনকে আটক কর হয়। তাদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারেওঅভিযান চলছে বলে জানান তিনি।</body></HTML> 2021-01-19 16:52:05 1970-01-01 00:00:00 ইউপি সদস্যকে খুনের দায়ে পাঁচজনের ফাঁসির আদেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102941 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053279_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053279_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">মানিকগঞ্জে সাবেক ইউপি সদস্য আশরাফ আলীকে হত্যার দায়ে করা মামলায় এক নারীসহ পাঁচজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।<br>মঙ্গলবার দুপুরে মানিকগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ শাহানা হক সিদ্দীকা আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. মঞ্জুর রহমান (২৭), মোয়াজ্জেম হোসেন (৩৫), বাবুল মিয়া (৩৪), আজিজুল হক (২২) ও ফেলি বেগম (২২)। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালে ১৮ জুন বিকালে ঘিওর উপজেলার ফুলহারা গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সাবেক ইউপি সদস্য আশরাফ আলীর ওপর হামলা করেন। ঘটনার পরের দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান আশরাফ আলী। ঘটনার পরের দিন নিহতের ভাই মুনসুর আলম বাদী হয়ে ২৫ জনকে আসামি করে ঘিওর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।<br><br>২০১৪ সালে ৩১ মে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপুলিশ পরিদর্শক হাসমত আলী ১৮জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ১৪জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে দোষ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ১৩ জনকে বেকসুর খালাস দেন। রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি ছিলেন এপিপি নিরঞ্জন বসাক। অন্যদিকে আসামিপক্ষের কৌঁসুলি ছিলেন মো. লুৎফর রহমান।</body></HTML> 2021-01-19 16:47:30 1970-01-01 00:00:00 ধর্ষিতার ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে রিট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102940 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053182_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053182_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ধর্ষণের শিকার জীবিত কিংবা মৃত নারী ও শিশুর ছবি এবং পরিচয় গণমাধ্যমে প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। একইসঙ্গে রিটে এ ধরনের ছবি প্রকাশে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) রিটটি দায়ের করেন জাস্টিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের পক্ষে ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এসএম মনিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চে রিট আবেদনটির ওপর শুনানি হতে পারে। রিটে আইন সচিব, তথ্য সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।<br><br>ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন বলেন, ধর্ষণের শিকার কোনো নারীর ছবি প্রকাশে আইনে বাধা থাকলেও হরহামেশাই বিভিন্ন গণমাধ্যমে ধর্ষণের শিকার নারী বা শিশুর ছবি প্রকাশ করা হচ্ছে। এতে তাদের পরিবারের সদস্যরা সামাজিকভাবে হেয় হচ্ছেন। বিশেষ করে সম্প্রতি ধর্ষণের শিকার হয়ে মারা যাওয়া ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের এক শিক্ষার্থীর ছবি দেশের অধিকাংশ গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছবি প্রকাশের ঘটনা আমাদের ব্যথিত করেছে। তাই সংক্ষুব্ধ হয়ে এ রিট করেছি।</body></HTML> 2021-01-19 16:46:03 1970-01-01 00:00:00 যাদের টিকা প্রয়োজন তারা আগে পাবেন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102939 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053127_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053127_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, ভিভিআইপিরা নয়, যাদের সবচেয়ে আগে টিকা প্রয়োজন তাদেরকেই আগে দেয়া হবে। আজ মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা চিন্তাভাবনা করছি যাদের সবচেয়ে আগে টিকা প্রয়োজন তাদের আগে দেব। যেমন ফ্রন্টলাইনার হিসেবে ডাক্তার, নার্স, পুলিশ ও সাংবাদিকদেরও করোনার টিকা দেয়া হবে। যেটা প্ল্যান করা আছে সেভাবেই হবে। ভিভিআইপিরা আগে টিকা পাবেন না।<br><br>তিনি বলেন, আশা করছি আমাদের শিডিউল অনুযায়ী আসবে। ভারত থেকে উপহার হিসেবে পাওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২০ লাখ ডোজ টিকা আগামীকাল অথবা পরশু আসছে। এটাই সর্বশেষ খবর। এই টিকা ভারত আমাদের কাছে পৌঁছে দেবে। আমি বিমানবন্দরে গিয়ে টিকা গ্রহণ করবো।<br>তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা প্রয়োগ করে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। প্রথমে ইউনিয়ন পর্যায়ে টিকা দেয়া হবে।</body></HTML> 2021-01-19 16:45:06 1970-01-01 00:00:00 জঙ্গিবাদের ঝুঁকির দিক থেকে ইউরোপ-আমেরিকা থেকেও নিরাপদ ঢাকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102938 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053049_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611053049_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">পুলিশের কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশে জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদার কোনো শাখা নেই। অস্তিত্বই নেই। দেশে বড় ধরনের কোনো জঙ্গি হামলার আশঙ্কাও নেই। জঙ্গিবাদের ঝুঁকির দিক থেকে ঢাকা ইউরোপ-আমেরিকার অনেক শহরের চেয়েও নিরাপদ ঢাকা। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে ‘সহিংসতা ও চরমপন্থা প্রতিরোধে ইসলামিক বিজ্ঞজনদের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) তিনি এসব কথা বলেন।<br><br>তিনি বলেন, হলি আর্টিজানের পর জঙ্গিরা আরও হামলার মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করেছিল। একটা মহল তাদের অনুপ্রেরণা দিয়েছে, অর্থ দিয়ে সহায়তা করেছে, কিন্তু সরকারের পদক্ষেপে তা কার্যকরভাবে প্রতিরোধ হয়েছে। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। বৈশ্বিক সূচকে জঙ্গিবাদের ঝুঁকির দিক থেকে ঢাকা এখন ইউরোপ-আমেরিকার অনেক শহরের চেয়ে নিরাপদ।<br><br>এ সময় তিনি আরও বলেন, হলি আর্টিজান দেশকে যে ইমেজ সংকটে ফেলেছিল, এমন যাতে আর না হয় সেজন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে আলেম-ওলামাদের। ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে তরুণদের বিপথগামী করা হচ্ছে, তা প্রতিরোধে সচেতনতা তৈরি করতে আলেমদেরই মুখ্য দায়িত্ব। মনিরুল ইসলাম বলেন, যে তরুণের মধ্যে ইসলামি স্পিরিট আছে, সে কখনও জঙ্গিবাদে জড়াতে পারে না। যারা জড়ায়, তাদের মধ্যে ধর্ম সম্পর্কে ভাসা ভাসা জ্ঞান। জঙ্গিবাদে যারা জড়ায় তারা সব মসজিদে যায় না, নির্দিষ্ট কিছু মসজিদে গিয়ে পড়ে। কারণ তারা বলে সরকারি অনুদানের মসজিদে নাকি নামাজ সহি হয় না।</body></HTML> 2021-01-19 16:38:04 1970-01-01 00:00:00 ট্রাকচাপায় আওয়ামী লীগনেতা নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102937 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024437_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024437_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">খুলনা মহানগরের ফুলবাড়ী গেট এলাকায় খুলনা-যশোর মহাসড়কে পাটবোঝাই ট্রাকের চাপায় থানা আওয়ামী লীগের নেতা বেগ আনিসুর রহমান (৫২) নিহত হয়েছেন। আজ সোমবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে জামিয়া কারিমিয়া মাদ্রাসাসংলগ্ন জাব্দিপুর বালুর মাঠ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।<br>নিহত বেগ আনিসুর রহমান খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। তিনি খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বেগ লিয়াকত আলীর ছোট ভাই।<br><br>পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বেজেরডাঙ্গা আয়ান জুট মিল থেকে পাট নিয়ে একটি ট্রাক রেলিগেটে বিশ্বাস জুট ট্রেডার্সে যাচ্ছিল। ট্রাকটি সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে ফুলবাড়ী গেট জামিয়া কারিমিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন জাব্দিপুর বালুরমাঠ এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা মাহেন্দ্রের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাহেন্দ্রের সামনে থাকা বেগ আনিসুর রহমান ছিটকে পড়ে ট্রাকের পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন। এ ঘটনার পরপরই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রবীর কুমার জানান, খবর পেয়ে খানজাহান আলী থানা পুলিশ ও দৌলতপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি দল and nbsp; লাশ উদ্ধার করে। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য তাঁর লাশ খুলনা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়।<br><br></body></HTML> 2021-01-19 08:46:48 1970-01-01 00:00:00 যাত্রীর দাবি ‘কিছু নেই’, এক্স-রেতে পেটে মিলল সোনা! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102936 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024321_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024321_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একজন যাত্রীর পেট থেকে ৮টি সোনার বার উদ্ধার করেছে ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিম। <br>রোববার (১৭ জানুয়ারি) দিনগত রাত ১১টার দিকে সোনাগুলো উদ্ধার করা হয়। কাস্টমস জানায়, প্রথমে ওই যাত্রীকে সন্দেহ করা হলেও তিনি সোনা থাকার কথা অস্বীকার করেন। তবে মেটাল ডিটেক্টরে তার শরীরে ‘ধাতব’ থাকার প্রমাণ মেলে। এরপর যাত্রীর পেটে এক্সরে করে তার পেটে ৮টি সোনার বার থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয় কাস্টমস। গোলাম মোহাম্মদ নামে সোনা বহন করা ওই যাত্রী রাত ১১টায় দুবাই থেকে এমিরেটস এয়ারওয়েজের ইকে-৫৮৪ ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।<br> and nbsp;<br>ইমিগ্রেশন শেষ করে লাগেজ নেওয়ার পর গ্রীন চ্যানেল পার হওয়ার সময় শুরু হয় সোনা থাকা- না থাকার বিষয়ে বিতর্ক। ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিমের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মো. নাঈম ইসলাম জানান, ওই যাত্রী প্লেনের ১৮-ই নম্বর সিটে ছিলেন। তার বিষয়ে কাস্টমসে আগে থেকেই তথ্য ছিল। সেই তথ্যের ভিত্তিতে যাত্রী ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করার পর তাকে আটকে ফেলে কাস্টমসের সদস্যরা। প্রথমেই তাকে জিজ্ঞেস করা হয়, তার কাছে কোনো সোনা বা সোনারবার আছে কিনা? তবে তিনি অস্বীকার করে বলেন, ‘কিছুই নেই।’<br><br>নাঈম বলেন, পরে যাত্রীকে আর্চওয়ে গেটে নেওয়া হলে ধাতব জাতীয় পদার্থ থাকার অ্যালার্ম বেজে ওঠে। পরবর্তীতে যাত্রীকে বিমানবন্দরে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে তল্লাশি করে সবশেষ তার পেটের এক্স-রে করা হয় । এক্স-রে রিপোর্টে and nbsp; আসামির রেক্টামে সোনার বার থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর ওই যাত্রী স্বেচ্ছায় টয়লেটে গিয়ে তার রেক্টাম থেকে ৮টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও তার ব্যাগ থেকে আরও ২টি বার উদ্ধার করা হয়।<br><br>উদ্ধারকৃত সোনার মোট ওজন ১ কেজি ১৬০ গ্রাম। and nbsp; পাশাপাশি তার কাছ থেকে আরও ৬টি সোনার চুড়ি, ১ জোড়া সোনার কানের দুল (২ গ্রাম), ৫টি নতুন মোবাইল হ্যান্ডসেট উদ্ধার করা হয়। কাস্টমস জানায়, আটককৃত সোনা ও পণ্যের আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা।<br>তার বিরুদ্ধে ১৯৬৯ সালের দ্য কাস্টমস অ্যাক্টে বিমানবন্দর থানায় মামলা করে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।</body></HTML> 2021-01-19 08:42:52 1970-01-01 00:00:00 নিক্সন চৌধুরীকে কড়া জবাব দিলেন কাদের মির্জা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102935 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024103_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611024103_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন চৌধুরীর বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছেন নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। তিনি বলেছেন, ‘নিক্সন চৌধুরী বলেন, আমি পাগল। আমি না কি তার কথা বলে ভাইরাল হওয়ার চেষ্টা করছি। আমিতো আমার কর্মকাণ্ড দিয়ে ইতোমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছি। শেখ পরিবারের লোক এমপি নিক্সন চৌধুরীর মুখে এসব কথা মানায় না। নিক্সন চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন। এরা কী করে যুবলীগের প্রেসেডিয়াম মেম্বার হয়?’<br><br>সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বিকেলে মহিলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এসব প্রশ্ন তোলেন কাদের মির্জা।<br>তিনি বলেন, সে কোন ধরনের লোক। আসলে তার মুখ থেকে এ ধরনের কথাগুলো মানায় না। তিনি শেখ ফজলুল হক মনির ভাগিনা এবং নুরে আলম চৌধুরী শিমুলের ছোট ভাই। স্বতন্ত্র এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। আমি পাগল এ কথাটা বলেছিল ফারুক খান ভোটের আগে। আমি পাগল না কি পৌরসভা নির্বাচনের পর তা প্রমাণিত হয়েছে।<br><br>এর আগে রোববার (১৭ জানুয়ারি) ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় একটি অনুষ্ঠানে এমপি মজিবুর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন আবদুল কাদের মির্জাকে ‘পাগল’ আখ্যায়িত করে পাবনায় পাঠানোর কথা বলেন। বক্তব্যে তিনি দাবি করেন, কাদের মির্জাকে তিনি চিনতেনও না। একদিন মোবাইল বের করে তিনি দেখতে পারেন কাদের মির্জা তাকে গালাগালি করছেন। এ সময় তিনি কাদের মির্জাকে পাবনায় রেখে আসার জন্য সরকারকে অনুরোধ করেন।<br><br>নিক্সন বলেন, পাগলারেও আমি চিনি না, জীবনে দেহি নাই, জীবনে যাই নাই নোয়াখালী। আরে মিয়া নেতা হইতে চান? পরিচিতি চান? পাগলামি কইরা নেতা হওয়া যায় না। আপনাকে প্রমাণ করতে হবে পাগলা, আমি আপনারে কিছু কইছি কিনা? সরকারের উচিত এই সব পাগল যথা শিগগিরই পাবনায় পাঠানো। না হলে গণধোলাই এমন খাবে যে চেহারা চেনা যাবে না</body></HTML> 2021-01-19 08:41:09 1970-01-01 00:00:00 কাল আসছে ২০ লাখ টিকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102934 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023899_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023899_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাণিজ্যিকভাবে আসার আগেই ভারত থেকে দেশে আসছে অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকা উৎপাদিত ২০ লাখ ডোজ করোনার টিকা। উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে দেয়া ভারতের এই টিকার চালানটি আগামী বুধবার (২০ জানুয়ারি) দেশে পৌঁছার কথা রয়েছে। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) রাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘ভারত সরকার উপহারস্বরূপ ২০ লাখ টিকা দিচ্ছে এবং সে চালান ২০ জানুয়ারি দেশে আসবে এই মর্মে সরকারের উচ্চ মহলের একটি চিঠি পেয়েছি।’<br><br>বাণিজ্যিকভাবে বেক্সিমকো ফার্মা এ টিকা আমদানি করছে। তাদের চালানটি ২৬ জানুয়ারি দেশে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সোমবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ২৬ জানুয়ারির মধ্যে সেরামের তৈরি অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম চালান আসবে। এ টিকা ১৮ বছরের নিচের কাউকে দেয়া হবে না। ইতোমধ্যেই কারা টিকা পাবেন তার তালিকা তৈরি হয়েছে। বিশেষভাবে তৈরি সফটওয়্যারে নাম লিপিবদ্ধ করে টিকা পেতে হবে।</body></HTML> 2021-01-19 08:36:12 1970-01-01 00:00:00 বরখাস্ত এসআই বান্ধবীসহ ফের আটক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102933 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023626_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023626_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সিলেট নগরীর সুবিদবাজার থেকে ইয়াবাসহ পুলিশের সাময়িক বরখাস্তকৃত উপ-পরিদর্শক (এসআই) রোকন উদ্দিন ভূঁইয়াকে (৪০) and nbsp; আটক করেছে পুলিশ। এ সময় রোকনের বান্ধবীসহ আরও তিনজনকে আটক করা হয়েছে। and nbsp; সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বিকেলে সোয়া ৪টার দিকে নগরীর সুবিদবাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করে সিলেট মহানগর পুলিশ।<br><br>বাকি আটককৃতরা হলেন, রোকনের বান্ধবী রীমা বেগম (৪১), ফাহিম শাহরিয়ার (৪১) ও জসিম উদ্দিন (২৪)। রোকন উদ্দিন আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে (এপিবিএন) কাজ করতেন। তাদের কাছ থেকে ১৮২ পিস ইয়াবা ও নগদ ৮২ হাজার ৩০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। সিলেট কতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) বরাত দিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বি এম আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, রোকনসহ আটককৃত সকলের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মঙ্গলবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।<br><br>পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আটক এসআই মো. রোকন উদ্দিন ভূঁইয়া সাময়িক বরখাস্ত হয়ে বর্তমানে সিলেটের আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের লালাবাজার ব্যারাকে কর্মরত রয়েছেন। এর আগে ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারি নগরীর দাড়িয়াপাড়া থেকে জোরপূর্বক ইয়াবা সেবনের মাধ্যমে পতিতাবৃত্তি করানোর অভিযোগে ইয়াবা ও নিজের বান্ধীসহ রোকনকে আটক করেছিল র্যা ব-৯। এরপরে তিনি এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় জামিন লাভ করেন।</body></HTML> 2021-01-19 08:33:19 1970-01-01 00:00:00 দশ দিনে জিরানি খাল থেকে ২০ হাজার টন বর্জ্য উত্তোলন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102932 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023519_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023519_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আগামী বর্ষা মৌসুমে ঢাকাবাসীকে জলাবদ্ধতার কবল থেকে মুক্তি দেওয়ার লক্ষ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ক্র্যাস প্রোগ্রামের আওতায় পরিচালিত তিনটি খাল ও দুটি বক্স কালভার্ট হতে বর্জ্য অপসারণ ও চ্যানেল পরিষ্কার কার্যক্রম পুরোদমে এগিয়ে চলছে। কার্যক্রমের অংশ হিসেবে গত ১০ দিনে জিরানি খাল থেকে বিগত দশ দিনে ২০ হাজার টন বর্জ্য ও মাটি উত্তোলন করা হয়েছে।<br><br>এদিকে গত ৭ কর্মদিবসে সেগুনবাগিচা ও পান্থপথ বক্স কালভার্ট হতে ৬৪৯.৯৫ টন বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। গত ১০ তারিখে সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ৯ ট্রিপে ৬৫.৫১ টন, ১১ তারিখে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ১৩ ট্রিপে ১১৬.৬৯ টন, ১২ তারিখে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ১৪ ট্রিপে ১০৭.৭৫ টন, ১৩ তারিখে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ১৪ ট্রিপে ১২০.১৩ টন, ১৫ তারিখে পান্থপথ বক্স কালভার্ট হতে ৩ ট্রিপে ২২.২৩ টন।<br><br>১৬ তারিখে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ১৩ ট্রিপে ৯৮.০৯ টন, ১৭ তারিখে (গতরাতে) ১৩ ট্রিপে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে ১৩ ট্রিপে ১১৯.৫৫ টন বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। গত ১৪ তারিখে সাকরাইন উৎসবের জন্য বক্স কালভার্ট দুটো হতে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম বন্ধ ছিল এবং গত ১৫ তারিখে সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতে বর্জ্য অপসারণ বন্ধ ছিল।<br><br>এছাড়াও আজ সোমবার নগরীর মান্ডা খালের সীমানার মধ্যে থাকা এবং টিটি পাড়ায় ওয়াসা পাম্প হাউজের সীমানা ঘেঁষে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। ডিএসসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মুনিরুজ্জামান টিটি পাড়ায় ওয়াসা পাম্প হাউজের সীমানা ঘেঁষে গড়ে ওঠা পাঁচটি অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করেন। একইসাথে ডিএসসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ ও তানজিলা কবির ত্রপার নেতৃত্বে মান্ডা খালের সীমানার মধ্যে থাকা চারটি ব্রিজ ও ২০টি ভবনের বর্ধিতাংশ উচ্ছেদ করেন।<br><br>চলমান বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম প্রসঙ্গে ডিএসসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মোঃ বদরুল আমিন বলেন, জিরানী, মান্ডা ও শ্যামপুর খাল হতে আমাদের বর্জ্য উত্তোলন ও চ্যানেল পরিষ্কার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। একই সাথে পান্থপথ ও সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট হতেও আমাদের বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম চলমান আছে। ইতোমধ্যে আমরা পান্থপথ বক্স কালভার্টের ২৯টি পিটের মধ্যে ২৮টি পিটের মুখ হতে বর্জ্য অপসারণ করেছি এবং সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্টের ১৩টি পিট হতে বর্জ্য অপসারণ করতে সক্ষম হয়েছি।<br><br>কিন্তু দুই পিট এর মধ্যবর্তী অংশে আমরা ড্রেজারসহ নানা রকম যন্ত্র ব্যবহার করলেও কাজটি এখনো বেশ জটিল পর্যায়ে রয়ে গিয়েছে। তাই, মেয়র মহোদয়ের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী দুই পিটের মধ্যবর্তী অংশ হতে বর্জ্য অপসারণ করতে আমরা দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা নিয়ে কাজটি করে চলেছি।</body></HTML> 2021-01-19 08:31:14 1970-01-01 00:00:00 খাস কামরায় নারী সাক্ষীর সঙ্গে অশোভন আচরণ: বিচারককে প্রত্যাহার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102931 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023373_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1611023373_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">এক নারী সাক্ষীর সঙ্গে খাস কামরায় অশোভন আচরণ করায় ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এক বিচারককে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ঢাকা সিএমএম কোর্টের ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়াকে সোমবার (১৮ জানুয়ারি) তার বর্তমান কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহার করে আইন ও বিচার বিভাগে সংযুক্ত করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের বিচার শাখা-১ এর উপসচিব (প্রশাসন-১) শেখ গোলাম মাহবুব স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।<br>এই আদেশের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সাথে পরামর্শক্রমে ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেসির মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়া-কে বর্তমান কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহারপূর্বক আইন ও বিচার বিভাগে সংযুক্ত করা হলো।’<br><br>আদেশ অনুযায়ী, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, মহানগর দায়রা জজ, ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রীর একান্ত সচিব, আইন ও বিচার বিভাগের বিচার শাখা-৫ (বাজেট) এর সিনিয়র সচিব, আইন ও বিচার বিভাগের সচিবের একান্ত সচিব, মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা ও প্রত্যাহারকৃত বিচারক কনক বড়ুয়াসহ সরকারের অন্যান্য দপ্তরকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।</body></HTML> 2021-01-19 08:28:57 1970-01-01 00:00:00 পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মেনে নিয়ে ভ্যাকসিন নিতে হবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102930 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982858_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982858_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>করোনার ভ্যাকসিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে জনসাধারণকে সবধরনের চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘করোনার ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া যেটা আছে, সেটি গুরুতর নয়। এস্ট্রাজেনিকার ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম। এ জন্য আমি মনে করি, জনগণকে প্রস্তুত থাকতে হবে। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মেনে নিয়ে ভ্যাকসিন নিতে হবে।’ সোমবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনও ওষুধের কিংবা ভ্যাকসিনের সাইড ইফেক্ট থাকতে পারে। আমরা একটি ওষুধ গ্রহণ করলেও সেটার গায়ে লেখা থাকে, কী কী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে। আবার নাও হতে পারে। বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে। এস্ট্রাজেনিকার ভ্যাকসিনেও হয়েছে। আমরা ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে জনসাধারণকে সবধরনের চিকিৎসা সহায়তা দেবো।’ তিনি বলেন, ‘এ যাবৎ আমরা বাংলাদেশে যেসব ভ্যাকসিন দিয়ে থাকি সেখানেও কিন্তু সাইড ইফেক্ট আছে। কাজেই আমি মনে করি, এটাতে বড় কোনও সমস্যা হবে না।’ এ সময় জাহিদ মালিক এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমরা ৪ ডলার করে সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে টিকা কিনছি। আর পরিবহনসহ সংরক্ষণে যে এক ডলার খরচ, সেটাও দেওয়া হচ্ছে। আমাদের চুক্তি আছে যে, ভারত সরকার কম দামে কিনলে আমাদের কম দামে দেবে। বেশি দাম হলে আমরা সেই দামে নেবো না, আমরা কম দামেই নেবো। আমাদের কাছে যদি ২৫-২৬ জানুয়ারি ভ্যাকসিন চলে আসে, তারপরও আমাদের প্রিপারেশনের জন্য টাইম দরকার। আশা করি, সপ্তাহখানেকের মধ্যে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করতে পারবো।’<br>অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘গ্লোব বায়োটেককে আমরা সাধুবাদ জানাই। তারা একটি ভ্যাকসিন ডেভেলপ করেছে। একটি ভ্যাকসিন প্রস্তুত করতে যেসব প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়, তাদের সেগুলো অনুসরণ করে আসতে হবে। আমরা দেখবো, আমাদের দেশীয় প্রোডাক্ট যদি মানসম্পন্ন হয়, আমরা সবসময় সেটি গ্রহণ করে থাকি। আমাদের কাছে যখন যেটা সাহায্য চাইবে আমরা দেবো।’ and nbsp; ভ্যাকসিনের মূল্য নির্ধারণ প্রসঙ্গে জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা বেসরকারি পর্যায়ে ভ্যাকসিন আনার অনুমতি দেবো। একটি ভ্যাকসিনের দাম যেটা হবে, সেটি নির্ধারণ করার জন্য সরকারি প্রক্রিয়া আছে। সেই প্রক্রিয়া অনুযায়ী আমরা দামও নির্ধারণ করে দেবো। ভ্যাকসিনের যে নীতিমালা সেটিও করা হয়েছে , নীতিমালা ফাইনাল করে দেওয়া হবে। সেই নীতিমালা অনুযায়ী ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।<br> and nbsp;সব ভ্যাকসিনের দাম এক হবে না। and nbsp; দেশ ভিন্নতায় ভ্যাকসিনের দাম ভিন্ন ভিন্ন হবে। কাজেই সেদিক লক্ষ্য রেখে এই দাম নির্ধারণ করে দেবো। যেভাবে আমরা টেস্টের মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছি, সেভাবে ভ্যাকসিনের দামও নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।’<br>অনুষ্ঠানে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে সভাপতি মুরসালিন নোমানী এবং সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে সংগঠনের সদস্যদের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রাপ্তির আহ্বান জানান। এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘প্রত্যেক সাংবাদিক করোনার টিকা পাবেন।’ <br><br><br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:14:00 1970-01-01 00:00:00 সরকার শিগগিরই জনগণকে টিকা দিতে পারবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102929 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982830_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982830_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>সরকার শিগগিরই জনগণকে করোনার টিকা প্রদানে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সংসদে দেওয়া ভাষণে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবিলায় দ্রুত ভ্যাকসিন কেনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ৩ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন সরাসরি কেনার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় জরুরিভিত্তিতে ভ্যাকসিন কেনা বাবদ ৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে প্রদান করা হয়। আশা করছি, সরকার খুব শিগগিরই দেশের জনগণকে কোভিড-১৯-এর টিকা প্রদান করতে পারবে।’<br>এদিকে রাষ্ট্রপতি তার ভাষণে সুশাসন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে রাজনৈতিক দলসহ সব শ্রেণী ও পেশার মানুষকে ঐকমত্য গড়ে তুলে সম্মিলিত উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান।<br>রাষ্ট্রপতি সোমবার সংসদের অধিবেশন শুরুর পর ভাষণ দেন। প্রতিবারের মতো এবারও তিনি মন্ত্রিসভার ঠিক করে দেওয়া ভাষণের সংক্ষিপ্তসার পড়েন। এর আগে বিকাল সাড়ে ৪টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন। প্রতিবার বছরের শুরুতে অধিবেশনের প্রথম দিন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। তবে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এবার তা করা হয়নি।<br>কোনও সংসদের প্রথম এবং নতুন বছরের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণ দেওয়ার বিধান রয়েছে। পরে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর একটি ধন্যবাদ প্রস্তাব আনা হয়। পুরো অধিবেশনজুড়ে ওই প্রস্তাবের ওপর আলোচনা করেন সংসদ সদস্যরা। আলোচনা শেষে রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ জানিয়ে সংসদে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়।<br>সোমবার স্পিকার রাষ্ট্রপতির আগমনের ঘোষণা দিলে সশস্ত্র বাহিনীর একটি বাদক দল বিউগলে ‘ফ্যানফেয়ার’ বাজিয়ে রাষ্ট্রপতিকে সম্ভাষণ জানায়। সংসদ কক্ষে রাষ্ট্রপতি ঢোকার পর নিয়ম অনুযায়ী জাতীয় সংগীত বাজানো হয়। and nbsp; এর আগে বিকাল ৪টার দিকে সংসদ ভবনে ঢোকেন রাষ্ট্রপতি।<br>স্পিকারের অনুরোধের পর রাষ্ট্রপতি তার লিখিত ভাষণের সংক্ষিপ্তসার পড়া শুরু করেন। এসময় তার মূল বক্তব্য পঠিত বলে গণ্য করার জন্য স্পিকার শিরীন শারমিনকে অনুরোধ জানান আবদুল হামিদ। স্পিকারের আসনের বাম পাশে রাখা ‘রোস্ট্রামে’ দাঁড়িয়ে ভাষণ দেন তিনি।<br>১৪৭ পৃষ্ঠার ভাষণের সংক্ষিপ্তসারে রাষ্ট্রপতি অর্থনীতি, বাণিজ্য-বিনিয়োগ, খাদ্য-কৃষি, পরিবেশ-জলবায়ু, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন খাতে সরকারের কার্যক্রম ও সাফল্য তুলে ধরেন। এছাড়া দেশে আইনের শাসন সুসংহত ও সমুন্নত রাখা এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে সরকারের কার্যক্রমের প্রশংসা করেন রাষ্ট্রপতি।<br>স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে সরকারে ভূমিকার প্রশংসা করে ভাষণে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘সরকার সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে সব ক্ষেত্রেই অভূতপূর্ব অগ্রগতি অর্জন করেছে। সম্প্রতি সরকারের সবচেয়ে বড় অর্জন হলো সাফল্যের সাসঙ্গে কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণ। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় জরুরিভিত্তিতে ২ হাজার and nbsp; চিকিৎসক ও ৫ হাজার ৫৪ জন নার্সকে নিয়োগ দান করা হয়েছে। কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোতে ১০ হাজার ৫২৫টি সাধারণ বেড, ৬৬৬টি আইসিইউ এবং ৭৩টি ডায়ালাইসিস বেড, ৫৫৪টি ভেন্টিলেটর, ১৩ হাজার ৫১৬টি অক্সিজেন সিলিন্ডার, ৬৭৮ হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা এবং ৬৩৯টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।’<br>দল-মতের পার্থক্য ভুলে দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে আরও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, ‘‘দেশ ও জাতির অগ্রযাত্রাকে বেগবান করতে শত প্রতিকূলতার মধ্যেও সুশাসন সুসংহতকরণ, গণতন্ত্র চর্চা ও উন্নয়ন কর্মসূচিতে সর্বস্তরের জনগণের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে সরকারের নিরবচ্ছিন্ন প্রয়াস অব্যাহত রয়েছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তুলতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রেখে দেশ থেকে দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলের লক্ষ্যে আমাদের আরও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। আসুন, দল-মত-পথের পার্থক্য ভুলে ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে আমরা লাখো শহীদের রক্তের ঋণ পরিশোধ করি।’’<br>জাতীয় সংসদ দেশের জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার কেন্দ্রবিন্দু উল্লেখ করে ভাষণে আবদুল হামিদ বলেন, ‘গণতন্ত্রায়ন, সুশাসন ও নিরবচ্ছিন্ন আর্থসামাজিক উন্নয়নে সকল রাজনৈতিক দল, শ্রেণি ও পেশা নির্বিশেষে ঐকমত্য গড়ে তোলার সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য আমি উদাত্ত আহ্বান জানাই। স্বচ্ছতা, জবাবদিহি, পরমতসহিষ্ণুতা, মানবাধিকার ও আইনের শাসন সুসংহতকরণ এবং জাতির অগ্রযাত্রায় সরকারি দলের পাশাপাশি বিরোধী দলকেও গঠনমূলক ভূমিকা পালন করতে হবে। আমি সরকারি দল ও বিরোধী দল নির্বিশেষে মহান জাতীয় সংসদে যথাযথ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানাই।’<br>আর্থিক খাত ব্যবস্থাপনায় সরকারের কার্যক্রম তুলে ধরে রাষ্ট্রপ্রধান হামিদ বলেন, ‘সরকার সামষ্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনার দক্ষতা ও উৎকর্ষসাধন এবং প্রাজ্ঞ রাজস্বনীতি ও সহায়ক মুদ্রানীতি অনুসরণের মাধ্যমে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। গত এক দশকে গড়ে ৬ দশমিক ৬ শতাংশ ও পর পর তিন বছর ৭ শতাংশের ওপর প্রবৃদ্ধি অর্জনের পর বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৮ দশমিক এক-পাঁচ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির এ ধারাবাহিক অর্জন বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। নভেল করোনাভাইরাস মহামারিতে and nbsp; ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি কিছুটা হ্রাস পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক দুই-চার শতাংশে। তবে একইসময়ে মাথাপিছু জাতীয় আয় ৮ দশমিক এক-দুই শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৬৪ মার্কিন ডলারে। জিডিপি প্রবৃদ্ধি ধরে রাখার পাশাপাশি মূল্যস্ফীতি সহনীয় পর্যায়ে রাখা সম্ভব হয়েছে। আইএমএফ-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালে সবচেয়ে বেশি জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করা শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে।’<br>রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘‘আমরা আজ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর দ্বারপ্রান্তে। শান্তি, গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির যে পথে আমরা হাঁটছি, সে পথেই আমাদেরকে আরও এগিয়ে যেতে হবে। এ বছর মধ্য-আয়ের দেশ হিসেবে আমরা ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’ পালন করবো। তবে, আমাদের লক্ষ্য ২০৪১ সালে বিশ্বসভায় একটি উন্নত-সমৃদ্ধ দেশের মর্যাদায় অভিষিক্ত হওয়া। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, and nbsp; প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জনগণের সর্বাত্মক অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমরা একটি কল্যাণমূলক, উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে and nbsp; সক্ষম হবো।’’<br>বাংলাদেশ দানাদার খাদ্যশস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা ধরে রেখেছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘কৃষি উন্নয়নের সফলতা বাংলাদেশকে বিশ্ব পরিমণ্ডলে মর্যাদার নতুন আসনে প্রতিষ্ঠিত করেছে। পানিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, সৌরশক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি করে পরিবেশবকান্ধব কৃষি ব্যবস্থা গড়ে তোলা হচ্ছে। কৃষি উন্নয়নে সরকারের সব সুযোগ সুবিধা যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারলে দেশের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা অর্জন করে বিদেশে কৃষ্টিপণ্য রফতানি করে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়নের নতুন দিগন্ত উন্মোচনে সক্ষম হবে।’<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:13:00 1970-01-01 00:00:00 বাহরাইন প্রবাসীদের ফেরত পাঠাতে সরকার সচেষ্ট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102928 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982790_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982790_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>বাহরাইন থেকে ফেরত আসা প্রবাসী বাংলাদেশিদের সে দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সরকার অত্যন্ত সচেষ্ট। দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশন বাহরাইন সরকারের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। রোববার (১৭ জানুয়ারি) রাত পৌনে ১০টার দিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, বাহরাইন প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে যারা করোনা পরিস্থিতির পূর্বে স্বদেশে ফেরত এসেছিলেন এবং ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে তাদের ইতোপূর্বে মানামায় অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে বলা হয়েছিল। ৯৬৭ জন প্রবাসী বাংলাদেশি অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করেছেন। তাদের বিষয়টি বিবেচনার জন্য বাহরাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করা হয়েছে এবং তাদের তালিকা ইতোমধ্যে বাহরাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে। এখনও যারা রেজিস্ট্রেশন করেননি তাদের রেজিস্ট্রেশন করার সুযোগ আছে।<br>করোনা পরিস্থিতিতে গত এপ্রিল থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৯ মাস সাধারণ ক্ষমার আওতায় বাহরাইনে অবস্থিত ৩০ হাজার অনিয়মিত বাংলাদেশির ভিসা নিয়মিত করা হয়েছে। এখনও ২৫ হাজার বাংলাদেশি অনিয়মিত রয়েছে বলে জানা গেছে। অনিয়মিত বা ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ বাংলাদেশিদের নিয়মিতকরণের বিষয়টি বিবেচনার জন্য বাহরাইন সরকারকে অনুরোধ করা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, করোনা পরিস্থিতিতে বাহরাইন সরকার কাউকে জোর করে দেশে পাঠায়নি। অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি করোনা পরিস্থিতিতে বা তার আগে স্বেচ্ছায় দেশে ফেরত আসেন। বাহরাইন সরকার কেবল জেলে অবস্থানরত বা ডির্পোটেশন ক্যাম্পের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাধারণ ক্ষমার আওতায় দেশে ফেরত পাঠান। ২০১৮ সাল থেকে বাহরাইনে বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা বন্ধ রয়েছে। ভিসা পুনরায় চালুর বিষয়ে সরকার জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে সে দেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ফেরত নেওয়ার বিষয়টি বাহরাইন সরকারের একান্ত এখতিয়ারভুক্ত। <br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:13:00 1970-01-01 00:00:00 করোনায় আক্রান্ত হলেন হাসানুল হক ইনু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102927 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982762_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982762_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে তিনি চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার কোনো জটিলতা নেই। জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহিল কাইয়ূম সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন।<br>তিনি বলেন, ‘হাসানুল হক ইনুর গানম্যান কোভিড পজিটিভ হলে তিনি গত মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) সকালে জাতীয় সংসদের কোভিড বুথে পরীক্ষা করান। দুপুরে টেস্টের ফলাফল পজিটিভ আসে। তিনি ডাক্তারের পরামর্শে নিশ্চিত হবার জন্য একইদিন একটি বেসরকারি হাসপাতালে কোভিডের দ্বিতীয় টেস্ট করান। দ্বিতীয় টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ আসে। চিকিৎসকরা তাকে বাসায় আইসোলেশনে থেকে ৭২ ঘণ্টা পর আবার পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন।’<br>আব্দুল্লাহিল কাইয়ূম বলেন, ‘তিনি (ইনু) ডাক্তারের পরামর্শে বাসায় আইসোলেশনে থেকে গত শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হসপিটালে ভর্তি হন। পরদিন শনিবার (১৬ জানুয়ারি) তৃতীয়বার কোভিড টেস্ট হয়। ওইদিন রাতে তার তৃতীয় টেস্টের ফলাফল পজিটিভ আসে।’<br>হাসানুল হক ইনু এখন বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ডা. মহিউদ্দিন আহমেদের অধীনে চিকিৎসাধীন আছেন জানিয়ে জাসদ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সিটিস্ক্যানসহ কোভিড সম্পর্কিত রিপোর্টে হাসানুল হক ইনুর কোনো অস্বাভাবিকতা ও জটিলতা পাওয়া যায়নি।’<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:12:00 1970-01-01 00:00:00 হাতিয়ায় নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল : গ্রেফতার ৫ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102926 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982738_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982738_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>নোয়াখালীর হাতিয়ায় গৃহবধূর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অপবাদ দিয়ে পল্লী চিকিৎসককে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- উপজেলার চানন্দি ইউনিয়নের মোল্লা গ্রামের জিহাদ (৩০), ফারুক (৩০), নবীর উদ্দিন ওরফে হোন্ডা নবীর (৩২), আলমগীর হোসেন (৪০) ও আবু তাহের (২৭)। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘গত ১ জানুয়ারি ওই এলাকার কিছু বখাটে অনৈতিক কাজের অপবাদ দিয়ে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক ও এক গৃহবধূকে মারধর করে। তাদের একটি গাছের সঙ্গে বেঁধেও মারধর করা হয়। একপর্যায়ে পল্লী চিকিৎসককে নির্যাতনের ঘটনাটি তারা মোবাইলে ধারণ করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘পরে নির্যাতনের শিকার ওই পল্লী চিকিৎসক বাদী হয়ে হাতিয়া থানায় ১১ জনকে আসামি করে মামলা করেন। পুলিশ রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে।’<br>এদিকে ঘটনার ১৬ দিন পর নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে রোববার সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন। তিনি ভুক্তভোগীসহ সবার সঙ্গে কথা বলে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওই নারীকে বিবস্ত্র করা হয়নি। ঘটনাস্থল মামলায় যেখানে দেখানো হয়েছে সেটিও সঠিক নয়। এছাড়া সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া ভিডিওটি ঘটনাস্থলে নির্যাতনের শিকার একজন পুরুষের। মূলত জমি-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এ ঘটনা।’<br>পুলিশ সুপার বলেন, ‘আদালতের নির্দেশনায় তদন্ত শেষে আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে। অন্য আসামিদের ধরার চেষ্টা চলছে।’<br>সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, একজন পুরুষকে টেনেহিঁচড়ে একটি কক্ষের ভেতর ঢুকানো হচ্ছে। কক্ষের ভেতর থেকে এক নারীর কান্নাকাটি ও চিৎকার শোনা যাচ্ছে। এছাড়া একজন নারী ও এক পুরুষকে সুপারি গাছে বেঁধে রাখার একটি ছবিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।<br>এ ঘটনার পর চানন্দি ইউনিয়নের ৩২ বছর বয়সী এক নারী গত ৫ জানুয়ারি জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এ একটি মামলা দায়ের করেন। সেখানে তিনি অভিযোগ করেন, গত ১ জানুয়ারি রাতে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে তার ওপর নির্যাতন চালায়।<br><br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:12:00 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে চার দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102925 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982712_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982712_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">ফেনী প্রতিনিধি ॥<br>চার দফা দাবিতে ফেনী সরকারি ও বেসরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শিক্ষার্থীরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মহিপালে সড়ক অবরোধ করে। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মহাসড়কের ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভারের ঢাকামুখী অংশে প্রায় আধঘন্টা অবরোধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা।<br>এ সময় যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) মাইনুল ইসলাম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আতোয়ার রহমান সেখানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করলে তারা অবরোধ থেকে সরে আসে।<br>শিক্ষার্থীরা অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহার ও বেসরকারি পলিটেকনিকের সেমিস্টার ফি মওকুফ করাসহ সকল প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আসন বরাদ্দ করার দাবি জানান তারা। কারিগরি ছাত্র অধিকার আন্দোলন ফেনী শাখার সমন্বয়ক শহীদুল ইসলাম সাকের, অয়ন সাহা ও মো. ফয়সাল জানান তাদের দাবি যৌক্তিক। আর এ যৌক্তিক দাবির জন্যই তারা মাঠে আন্দোলনে নেমেছেন।<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:11:00 1970-01-01 00:00:00 কাউন্সিলর প্রার্থীর হামলায় আ.লীগ নেতার মৃত্যু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102924 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982662_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982662_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥ <br>বরিশালে মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থীর হামলায় আফসার হোসেন সিকদার (৫১) নামে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক নেতার মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।<br>সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত আফসার হোসেন সিকদার মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বদরপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল হক জমাদ্দারের সমর্থক ছিলেন। আফসার হোসেন পেশায় মোটরসাইকেল মেকানিক ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। এদিকে, তার মৃত্যুর খবরে দুপুরে মেহেন্দিগঞ্জ পৌর শহরে বিক্ষোভ করেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। আইনশৃঙ্খলা শান্তিপূর্ণ রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আফসার হোসেনর ছেলে রাসেল সিকদার জানান, তার বাবা আফসার হোসেন কয়েকমাস আগে থেকে মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী কাওছার হোসেন নিপ্পন তালুকদারের পক্ষে কাজ করছিলেন। পরবর্তীতে নিপ্পন তালুকদারের বিভিন্ন অপকর্মের কথা জানতে পেরে নুরুল হক জমাদ্দারের পক্ষে প্রচারণার কাজে নামেন তিনি। এ জন্য গত শনিবার প্রার্থী নিপ্পনের কর্মীরা আফসার হোসেনকে হুমকি দেন। তিনি আরও জানান, রোববার দুপুর দেড়টার দিকে মেহেন্দিগঞ্জ পৌর শহরের পাতারহাট রসিক চন্দ্র (আরসি) কলেজের সামনে তার বাবার ওপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। ইট দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা হয়। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে অবস্থার অবনতি হলে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সেখানে তার মৃত্যু হয়। কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল হক জমাদ্দার বলেন, তিনি টানা ২৭ বছর ধরে ৮নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। এবার তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নিপ্পন তালুকদার। তার অভিযোগ, নিপ্পন তালুকদার মাদকাসক্ত। তার বিরুদ্ধে এলাকায় নানা অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। রোববার দুপুরে নিপ্পন তালুকদার ও তার কয়েক সহযোগী আরসি কলেজের সামনে এসে পার্শ্ববর্তী সেলুনে এক যুবককে মারধর করছিলেন। এ সময় আফসার হোসেন মোটরসাইকেলে সেখানে আসেন। তিনি দাঁড়ানো মাত্র নিপ্পন তালুকদারের সহযোগী রাকিব তালুকদার লাঠি দিয়ে আফসার হোসেনের মাথায় আঘাত করেন। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন।<br>মেহেন্দিগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মমিন উদ্দিন জানান, আফসার হোসেন সিকদারের মৃত্যুর খবর পেয়ে তিনিসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আইন-শৃঙ্খলা শান্তিপূর্ণ রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ।<br>মমিন উদ্দিন বলেন, ঘটনা সম্পর্কে জানতে স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। যতদূর জানা গেছে, রোববার দুপুরে আফসার হোসেন সিকদারের প্রতিবেশী মো. ফয়েজ নামে এক যুবককে গালাগালি করেন ৮নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নিপ্পন তালুকদার। এ ঘটনা ফয়েজ মোবাইল ফোনে আফসার হোসেন সিকদারকে জানান। দুপুর দেড়টার দিকে মেহেন্দিগঞ্জ পৌর শহরের পাতারহাট আরসি কলেজের সামনে নিপ্পন তালুকদারের সঙ্গে আফসার হোসেনের দেখা হয়।<br>তিনি আরও বলেন, আফসার হাসেন তার প্রতিবেশী ফয়েজকে গালাগালি করার কারণ জানতে চান নিপ্পন তালুকদারের কাছে। এ সময় নিপ্পন তালুকদারের সঙ্গে তার কয়েকজন কর্মী-সমর্থক ছিলেন। পরে আফসার হোসেনের সঙ্গে নিপ্পনের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে আফসার হোসেন একটি ইট নিয়ে নিপ্পন তালুকদারের দিকে তেড়ে যান। নিপ্পন তালুকদার পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় একটি ইজিবাইকের সঙ্গে ধাক্কা লেগে গুরুতর আহত হন আফসার হোসেন। সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়।<br>পরিদর্শক (তদন্ত) মমিন উদ্দিন বলেন, এছাড়া অন্যকোনো ঘটনা ছিল কিনা তা গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে সোমবার দুপুর ৩টা পর্যন্ত আফসার হোসেনর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ দেয়া হয়নি।<br>উল্লেখ্য, আগামী ৩০ জানুয়ারি মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।<br><br><br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:11:00 1970-01-01 00:00:00 কানাডায় কাজের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102923 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982631_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982631_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন কিংবা লেখাপড়া করতে যে কয়টি দেশের তালিকা পছন্দে রাখেন এরমধ্যে আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও কানাড্। আর এই করোনা মহামারির মধ্যেই কানাডায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীসহ অন্য দেশের শিক্ষার্থীরা কাজের অনুমতি পাচ্ছেন। শিক্ষার্থীদের নতুন করে কাজের অনুমতি দিতে যাচ্ছে কানাডা। শিক্ষার্থীরা আগামী ২৭ জানুয়ারি থেকে কাজের অনুমতির জন্য আবেদন করতে পারবেন। এ আবেদন চলবে আগামী ২৭ জুলাই পর্যন্ত। কানাডায় কাজের অনুমতির (ওয়ার্ক পারমিট) যে কর্মসূচি চালু আছে তার আওতায় বিদেশি পোস্টগ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীরা শিক্ষা শেষে তিন বছর পর্যন্ত কাজ করতে পারেন। এই কর্মসূচিটিকে স্থায়ীভাবে নাগরিকত্ব পাওয়ার পথ হিসেবেই দেখা হয়।<br>কানাডায় পড়তে আসা বিদেশি শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিক স্বল্পতা পূরণ করতে চায় দেশটির সরকার। এজন্য বিদেশি শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা করেছে।বিদেশি শিক্ষার্থীদের স্থায়ীভাবে কানাডায় রেখে দিতে চায় দেশটির সরকার। দেশটির অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রী মার্কো মেনডিসিনো বলেছেন, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের কারণে অনেক শিক্ষার্থী সমস্যা পড়েছেন। লেখাপড়া শেষ হলেও কাজ করতে পারছেন না। পোস্টগ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীর কাজের মেয়াদ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। কারও কারও শেষ হওয়ার পথে রয়েছে। এসব শিক্ষার্থী ও সাবেক শিক্ষার্থী নতুন করে কাজের জন্য আবেদন করতে পারবেন। নতুন করে চাকরি খুঁজে পেতে আরও ১৮ মাস তারা কানাডায় থাকার অনুমতি পাবেন। তথ্যসূত্র: সিআইসি নিউজ, কানাডা বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রতি অভিবাসনবিষয়ক মন্ত্রী আরও বলেন, কানাডায় লেখাপড়া করতে আসা শিক্ষার্থীদের অবদান এদেশে রয়েছে। তারা এদেশে লেখাপড়া করুক তা নয়, আমরা চাই বিদেশি শিক্ষার্থীরা কানাডায় থেকেও যাক। কানাডায় বছরে বিদেশী শিক্ষার্থীরা অর্থনীতিতে ২১ বিলিয়ন ডলারের অবদান রাখেন। ২০১৯ সালে কানাডায় পড়াশোনা শেষ করে কাজে যুক্ত হয়ে ৫৮ হাজার বিদেশি শিক্ষার্থী স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য আবেদন করেছিলেন। এর মধ্যে অনেকে কাজ পেয়েছেন। আর যারা পাননি বা শেষ হয়ে গেছে, তাদের জন্যই এই নতুন কাজের অনুমতি দিতে যাচ্ছে কানাডা সরকার।<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:10:00 1970-01-01 00:00:00 পিয়নের ৫০০ কোটি টাকা: অনুসন্ধানে দুদক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102922 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982603_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982603_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>মো. আলী প্রকাশ নামে কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সাবেক পিয়নের পাঁচ শতকোটি টাকার সম্পদের অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। দুদকের একটি সূত্রে জানা যায়, মো. আলী প্রকাশ কক্সবাজারের পিএমখালীর দরিদ্র নৌকার মাঝি ইলিয়াস প্রকাশ ওরফে কালু মাঝির ছেলে। বাবা নৌকার মাঝি হলেও আলী প্রকাশ মানুষরে বাসায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। জানা যায়, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আলীর বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতেন আলী প্রকাশ। ২০১০ সাল পর্যন্ত সেখানেই গৃহকর্মীর কাজ করেছেন তিনি। ১৯৯৪ সালে ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলীর বাসায় কাজ শরু করেন। দীর্ঘদিনের বিশ্বস্থতার কারণে বাড়ির কেয়ারটেকার পাশাপাশি কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি অফিসে পিয়নের কাজও দিয়েছেলেন তাকে। সেই পিয়ন মো. আলী প্রকাশ ১০ বছরের ব্যবধানে এখন প্রায় ৫০০ কোটি টাকার মালিক। দুদকের কাছে তার বিষয়ে করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, কক্সবাজার শহরের প্রাণকেন্দ্রে আলী প্রকাশ ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি করেছেন বিলাসবহুল দুটি বাড়ি। এছাড়া চট্টগ্রাম শহরে তার বেশ কিছু ফ্ল্যাট ও একটি বিলাসবহুল বাড়ি রয়েছে। কক্সবাজার বিমানবন্দর সড়কের পাশেও রয়েছে চারতলা বিলাসবহুল বাড়ি। এছাড়া শত বিঘাজমির পাশাপাশি রয়েছে নামে -বেনামে অঢেল সম্পদ।<br>দুদকের উর্দ্ধতন এক কর্মকর্তা ঢাকাটাইমসকে বলেন, পিয়ন মো.আলীর একটি অভিযোগ কমিশনে এসেছে অনেক আগেই। যাচাই-বাছাই করার পর এই বিষয়ে ইতোমধ্যে তদন্তে নেমেছে দুদক। তদন্ত সম্পন্ন হলে এসব বিষয় নিয়ে কমিশন থেকে হয়তো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:10:00 1970-01-01 00:00:00 আরও ৯১ হাজার টন চাল আমদানির অনুমতি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102921 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982570_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982570_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>সরকার আরও ৬৩টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে ৯১ হাজার টন সেদ্ধ চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছে। চূড়ান্ত অনুমতির জন্য এসব প্রতিষ্ঠানের আবেদনপত্র বাণিজ্য সচিবের কাছে পাঠিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। গত ১৬ জানুয়ারি এই চিঠিগুলো বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। এ নিয়ে কয়েক দফায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ১০ লাখ টনের মতো চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। চাল আমদানির শর্তে বলা হয়েছে, বরাদ্দপত্র ইস্যুর সাত দিনের মধ্যে ঋণপত্র (এলসি) খুলতে হবে। এ সংক্রান্ত তথ্য খাদ্য মন্ত্রণালয়কে তাৎক্ষণিকভাবে ই-মেইলের মাধ্যমে জানাতে হবে। ব্যবসায়ীদের মধ্যে যারা এক থেকে পাঁচ হাজার টন বরাদ্দ পেয়েছেন, তাদের এলসি খোলার ১০ দিনের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং ২০ দিনের মধ্যে বাকি চাল বাজারজাত করতে হবে। এছাড়া যেসব প্রতিষ্ঠান ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টন চাল আমদানির বরাদ্দ পেয়েছে তাদের এলসি খোলার ১৫ দিনের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং ৩০ দিনের মধ্যে বাকি ৫০ শতাংশ চাল এনে বাজারজাত করতে হবে বলে শর্ত দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।<br>উল্লেখ্য, লাগামহীন চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে চাল আমদানির শুল্ক কমিয়ে নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় চাল আমদানির উদ্যোগ নেয় সরকার।<br><br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:09:00 1970-01-01 00:00:00 বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর উন্নয়নে আসছে ৪৩৪৭ কোটি টাকার প্রকল্প http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102920 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982543_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982543_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">চট্টগ্রামের মিরসরাই ও সীতাকুণ্ড উপজেলা এবং ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার প্রায় ৩০ হাজার একর জমিতে দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর’ স্থাপনের কাজ চলছে। এ শিল্পনগরের জোন-২ এ (৯৩৯ একর) ও জোন-২বিসহ (৪৭৪ একর) পারিপার্শ্বিক জোনের বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নে ৪ হাজার ৩৪৭ কোটি ২১ লাখ ২ হাজার টাকা খরচে একটি প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) অনুমোদন পেতে যাচ্ছে। তার মধ্যে সরকার দেবে ৩৭৯ কোটি ৭৪ লাখ ২০ হাজার আর বিশ্বব্যাংক ঋণ হিসেবে দেবে ৩ হাজার ৯৬৭ কোটি টাকা।<br>মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন হওয়ার কথা ছিল। তবে বিশেষ কারণে একনেক সভা স্থগিত হওয়ায় পরবর্তী সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন পেতে পারে।<br>‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর উন্নয়ন’ শিরোনামের এ প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের উদ্যোগে বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)।<br>বেজা বলছে, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শিল্পায়ন করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে বেজা দেশব্যাপী প্রায় ১০ মিলিয়ন কর্মসংস্থানের সুযোগসহ ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বেজার গভর্নিং বোর্ডের প্রথম সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত মোতাবেক চট্টগ্রামের মিরসরাই ও সীতাকুণ্ড উপজেলা এবং ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় প্রায় ৩০ হাজার একর জমিতে দেশের সর্ববৃহৎ এই অর্থনৈতিক অঞ্চলটি স্থাপনের কাজ চলমান।<br>বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর তিনটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের আওতায় প্রায় ৩০টি জোনে বিভক্ত। বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ‘প্রাইভেট সেক্টর ডেভেলপমেন্ট সাপোর্ট প্রজেক্ট’ শীর্ষক ঋণচুক্তির অধীনে বাস্তবায়নাধীন ‘বাংলাদেশ ইকোনমিক জোন ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট ফেজ-১’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের জোন-১ (মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল) এর আওতাভুক্ত ৫৪৮ একর ভূমি উন্নয়নসহ পারিপার্শ্বিক অন্যান্য জোনের অবকাঠামো উন্নয়ন এবং ইউটিলিটি সেবা সৃষ্টির মাধ্যমে ইতোমধ্যে শিল্প ইউনিট স্থাপনের উপযোগী করা হয়েছে।<br>বর্তমানে বিশ্বব্যাংকের প্রকল্প ঋণের সহায়তায় প্রস্তাবিত প্রকল্পটির আওতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের মূলত জোন-২এ (৯৩৯ একর) ও জোন-২বিসহ (৪৭৪ একর) পারিপার্শ্বিক অন্যান্য জোনে বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়ন; যেমন- ৩০ কিলোমিটার চার লেন সড়ক, পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ ও গ্যাস নেটওয়ার্ক, নিরাপত্তা বেষ্টনী প্রশাসনিক ভবন, সিইটিপি, ডিস্যালাইনেশন প্ল্যান্ট, স্টিম নেটওয়ার্ক, বায়োগ্যাস প্ল্যান্ট, সোলার প্যানেল ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে ওই জোনকে পরিবেশ সহনীয় ‘গ্রিন ইকোনমিক জোন’ হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এসব কার্যক্রমের মধ্যে ছয়টি কাজ পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) পদ্ধতিতে বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে সমীক্ষা/স্টাডি ও পরামর্শক সেবা গ্রহণের প্রস্তাব করা হয়েছে।<br>বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীকে ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:09:00 1970-01-01 00:00:00 ইশরাককে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102919 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982505_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982505_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকার প্রয়াত মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনের খালাসের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেওয?া হয?েছে। আজ সোমবার (১৮ জানুয়ারি) বিচারপতি মো. সেলিমের একক বেঞ্চে এ আদেশ দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান।<br>তিনি জানান, দুদকের আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন হাইকোর্ট। আর ইশরাক হোসেনকে যে আদালত খালাস দিয?েছেন সে আদালতে আত্মসমপর্ণ করতে নির্দেশ দিয?েছেন। আত্মসমপর্ণের পর ইশরাককে জামিন দিতে সংশ্লিষ্ট আদালতকে নির্দেশ দিয?েছেন হাইকোর্ট। সম্পদের বিবরণী দাখিল করতে নোটিশ দেওয়ার পরও তা দাখিল না করায় ২০১০ সালের আগস্টে ঢাকার সাবেক মেয়র ও প্রয়াত বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাকের বিরুদ্ধে রাজধানীর রমনা থানায় নন সাবমিশন মামলা করেন সংস্থাটির তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. শামসুল আলম।<br>মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর ইশরাক ও তাদের ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিদের স্বনামে, বেনামে বা তাদের পক্ষে অন্য নামে বা তাদের পক্ষে অন্য নামে অর্জিত যাবতীয় স্থাবর, অস্থাবর সম্পদ, সম্পত্তির দায়-দেনা, আয়ের উৎস ও তা অর্জনের বিস্তারিত বিবরণ জমা দিতে বলেন। নির্দিষ্ট তারিখে সম্পদের হিসাব জমা না দেওয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশন আইনের ২৬ (২) (ক) ধারা মতে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন বলে মামলার অভিযোগে বলা হয়। ২০১৮ সালের ২৫ নভেম্বর এ মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক। গত বছরের ১৪ জানুয়ারি একই আদালত অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর নির্দেশ দেন। এরপর বিচার শেষে গত বছরের ২৩ নভেম্বর এ মামলায় ঢাকার চতুর্থ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ নাজমুল আলম ইশরাককে খালাস দেন। এর বিরুদ্ধে দুদক হাইকোর্টে আপিল করে।<br><br><br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:08:00 1970-01-01 00:00:00 ৬ আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৭ জেএসএস সন্ত্রাসী আটক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102918 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982471_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982471_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাঙমাটির বিলাইছড়িতে অস্ত্র-গোলাবারুদসহ সাত সন্ত্রাসীকে আটক করেছে যৌথবাহিনী। রবিবার সন্ধ্যায় ফারুয়া ইউনিয়নের নতুনপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। অভিযানে তাদের কাছ থেকে ৬টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৮টি কার্তুজ, বিস্ফোরক দ্রব্য, ২টি চাকু, ২টি ছবি, ৩টি সিল ও একটি চেক বই উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হলেন, চাইলগ্য ত্রিপুরা (৬০), বলিয়াম ত্রিপুরা (৪৮), বিরমনি ত্রিপুরা (৪৫), বিষ্ণমনি ত্রিপুরা (৪৪), লক্ষণ ত্রিপুরা (৩০), জীবন ত্রিপুরা (২৬), বীর বাহাদুর ত্রিপুরা (২৬)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ছুফি উল্লাহ। তিনি বলেন, ফারুয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা স্থানীয়দের মারধর করে চাঁদাবাজি করছে এমন সংবাদে সাঁড়াশি অভিযান চালায় যৌথ বাহিনী। টানা দুইদিনের অভিযানে লাইসেন্সবিহীন অস্ত্র-গুলিসহ সাত সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে বিলাইছড়ি থানায় বিস্ফোরণ ও অস্ত্র মামলা করা হয়েছে।<br>নিরাপত্তা বাহিনীর দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, আটককৃতরা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএসের সক্রিয় সদস্য।<br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:08:00 1970-01-01 00:00:00 মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102917 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982438_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/18/1610982438_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" align="left" border="0px">স্টাফ রিপোর্টার ॥<br>বাসা থেকে মোটরসাইকেল করে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে বাসের চাপায় প্রাণ হারিয়েছেন আকাশ ইকবাল (৩৩) ও তার স্ত্রী মায়া হাজারিকা মিতু (২৫)। and nbsp; সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে প্রতিদিনের মত বাসা থেকে একইসঙ্গে বের হন আকাশ ইকবাল ও তার স্ত্রী। নিজের মোটরসাইকেল করে স্ত্রীকে তার কর্মস্থলে নামিয়ে দিয়ে আকাশ যাবেন তার নিজ কর্মস্থলে। কিন্তু পথেই ঘাতক বাসের চাপায় ঝড়ে গেলো দু’টি তাজা প্রাণ। ফরিদপুর সদর উপজেলার ধুলদি গ্রামের জাফর শেখের ছেলে আকাশ। একই এলাকাতে বাড়ি স্ত্রী মায়ারও। স্ত্রী মায়া ও চার বছরের একমাত্র মেয়ে আরফা আনজুমকে নিয়ে দক্ষিণখান মোল্লারটেক তেতুলতলা উদয়ন স্কুলের পাশে একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন তারা।<br>নিহত আকাশের ফুপাতো ভাই মো. মিজানুর রহমান মিন্টু জানান, ৬-৭ বছর আগে বিয়ে হয় তাদের। আকাশ উত্তরায় একটি ডেভেলপার কোম্পানিতে চাকরি করতেন। আর তার স্ত্রী মায়া বিমানবন্দরে একটি রেস্টুরেন্টে চাকরি করতেন। তাদের ৪ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। প্রতিদিন আকাশ তার মোটরসাইকেল করে মায়াকে নিয়ে বাসা থেকে বের হতেন। বিমানবন্দরে মায়াকে নামিয়ে দিয়ে তিনি উত্তরায় তার অফিসে যেতেন। আজও তারা একইসঙ্গে বের হয়েছিলো। কিন্তু আজমেরি পরিবহনের বাসের চাপায় তাদের সব স্বপ্ন নিভে গেলো।<br>তিনি বলেন, আকাশের বাবা-মা গ্রামে থাকেন। তার বাবা স্ট্রোকের রোগী। and nbsp; পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন আকাশ। তবে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে জানান, তাদের সন্তানকে আজই প্রথম স্কুলে ভর্তি করা হয়। নিহত আকাশের শাশুড?ি আনজুমকে নিয়ে স্কুলে গিয?েছিলেন। and nbsp;<br>সোমবার সকাল ৭টার দিকে বিমানবন্দর পদ্মা ওয়েল পাম্প গেটের সামনে আজমেরি পরিবহনের একটি বাস আকাশ ইকবালের মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে আকাশ ইকবাল ও তার স্ত্রী মায়া হাজারিকা মিতু ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে বিমানবন্দর থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ঘটনার পরপরই ঘাতক বাসটিকে জব্দ করেছে পুলিশ। তবে এর চালক পালিয়ে গেছেন। বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিএম ফরমান আলী জানান, প্রথমে যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে স্বামী-স্ত্রী উভয?ে ছিটকে রাস্তায? পড?ে যান। পরে বাসটি তাদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তারা। and nbsp; এ ঘটনায় বাসটি জব্দ করা হলেও চালক পালিয?ে গেছেন। চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মরদেহ ময?নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয?েছে। <br><br><br> </body></HTML> 2021-01-19 21:07:00 1970-01-01 00:00:00 বাইডেনের শপথকে ঘিরে নিরাপত্তাকর্মীরাও তল্লাশির আওতায়! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102916 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610982058_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610982058_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br> and nbsp;অবস্থাটা এমন দাঁড়িয়েছে, মার্কিনিরা এখন তাদের নিরাপত্তাকর্মীদেরও বিশ্বাস করতে পারছে না। নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানে ভেতর থেকেই হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)। এ কারণে অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা দিতে আসা ন্যাশনাল গার্ডের ২৫ হাজার সদস্যের বিষয়েই তদন্ত করছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।<br><br>ন্যাশনাল গার্ড ব্যুরোর প্রধান জেনারেল ড্যানিয়েল হোকানসন রোববার সিবিএস নিউজকে বলেন, সিক্রেট সার্ভিসের সঙ্গে সমন্বিতভাবে অনুষ্ঠানে আসন্ন সব কর্মকর্তার বিষয়ে তদন্ত করছে এফবিআই। যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি থেকে আল জাজিরার সংবাদদাতা শিহাব রাত্তানসি জানিয়েছেন, আগামী বুধবার বাইডেনের অভিষেক সামনে রেখে নিজস্ব পরীক্ষা পদ্ধতিতে ভরসা করতে পারছে না ন্যাশনাল গার্ড বাহিনী। তাদের কোনো সদস্য কোনোভাবে চরমপন্থীদের সঙ্গে জড়িত কি না তা নিশ্চিত করতে অন্য সংস্থাগুলোর সাহায্য নেয়া হচ্ছে।<br><br>রাত্তানসি বলেন, ন্যাশনাল গার্ডের নেতৃত্ব থেকে আমাদের বারবার বলা হয়েছে, বাহিনীর সদস্যদের অতীত সংক্রান্ত যেকোনো ধরনের সম্ভাব্য বিপদ, চরমপন্থার সঙ্গে যোগসূত্রের বিষয়ে নিয়মিত পরীক্ষা করা হচ্ছে। সবশেষ এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এফবিআই। আল জাজিরার এ সংবাদদাতা বলেন, এফবিআই তাদের নিজস্ব ডাটাবেজ ব্যবহার করে ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের তদন্ত করছে। তাদের নামে কোনো লাল পতাকা রয়েছে কি না তা পরীক্ষা করা হচ্ছে।<br><br>বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) খবর অনুসারে, ক্যাপিটলের দাঙ্গায় মার্কিন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অন্তত ২১ জন বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তা সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন বা আশপাশে ছিলেন। এছাড়া নর্থ ক্যারোলাইনা থেকে একদল বিক্ষোভকারীকে নেতৃত্ব দিয়ে ওয়াশিংটনে নেয়া ক্যাপ্টেন এমিলি রেইনির বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে মার্কিন সেনাবাহিনী। ওই কর্মকর্তা অবশ্য ইতোমধ্যে পদত্যাগ করেছেন।<br><br>গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলায় এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্তত পাঁচজন প্রাণ হারান। এ ধরনের ঘটনা আরও ঘটতে পারে আশঙ্কায় রাজধানীসহ যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই বিশেষ সতর্কতা জারি করেছে এফবিআই। বাইডেনের অভিষেক উপলক্ষে ক্যাপিটল ভবনের চারপাশে সামরিক ‘গ্রিন জোন’ ঘোষণা করা হয়েছে। ট্রাম্পের অভিষেকের চেয়ে বাইডেনের অনুষ্ঠানে আড়াইগুণ বেশি নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করা হচ্ছে। অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব সিক্রেট সার্ভিসের হাতে থাকলেও তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন এফবিআই থেকে শুরু করে ন্যাশনাল গার্ড, ওয়াশিংটন মেট্রোপলিটন পুলিশ, ক্যাপিটল পুলিশ, পার্ক পুলিশের কর্মকর্তারাও।</body></HTML> 2021-01-18 20:58:46 1970-01-01 00:00:00 ভারতে টিকা নেয়ার পর একজনের মৃত্যু, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ৪৪৭ জনে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102915 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981863_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"> and nbsp;<img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981863_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>ভারতে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেয়ার মাত্র দু’দিনের মধ্যেই শারীরিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে প্রায় সাড়ে চারশ জনের মধ্যে। মারা গেছেন একজন। যদিও ওই ব্যক্তির মৃত্যুর সঙ্গে ভ্যাকসিনের কোনো যোগসূত্র নেই বলে দাবি করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। গত শনিবার থেকে ভারতে শুরু হয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম ভ্যাকসিন প্রদান কর্মসূচি। দেশটিতে তিন হাজারের মতো কেন্দ্রে একসঙ্গে করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।<br><br>প্রথম দফায় ভারতের চিকিৎসক, নার্স, অ্যাম্বুলেন্সচালক, স্বাস্থ্যকর্মী ও পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা করোনার ভ্যাকসিন পাবেন। এরপর দেয়া হবে পুলিশ, সামরিক বাহিনীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের করোনাযোদ্ধাদের। প্রাথমিকভাবে প্রায় তিন কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেয়ার লক্ষ্য নিয়েছে দেশটি।<br>ভ্যাকসিন দেয়ার শুরুর মাত্র দু’দিনের মধ্যেই ৪৪৭ জনের শরীরে নানা ধরনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে বলে প্রাথমিক তথ্যে জানানো হয়েছে। এসব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে জ্বর, মাথাব্যথা এবং বমিভাব।<br><br><span style="font-weight: bold;">ভ্যাকসিন নেয়া একজনের মৃত্যু</span><br><br>করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেয়ার মাত্র একদিন পরই মারা গেছেন উত্তর প্রদেশের একটি সরকারি হাসপাতালের কর্মী। তার বয়স হয়েছিল ৪৬ বছর। লার প্রধান মেডিকেল কর্মকর্তা বলেন, ভ্যাকসিন নেয়ার সঙ্গ ওই ব্যক্তির মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক নেই। প্রাদেশিক সরকারের তথ্যমতে, হৃদপিণ্ড এবং ফুসফুসের অসুখে ওই হাসপাতালকর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে ময়নাতদন্তে উঠে এসেছে। এছাড়া ভ্যাকসিন নেয়ার পর কলকাতায় অজ্ঞান হয়ে পড়েন ৩৫ বছর বয়সী এক নার্স। তার শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেন, ওই নার্স কেন অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন, সেটা খতিয়ে দেখতে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।<br><br>ভ্যাকসিন নেয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়ায় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়েছে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেসের এক নিরাপত্তাকর্মীকে। মাত্র ২২ বছর বয়সী ওই কর্মী প্রথম দিনই ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। এর পরপরই তার শরীরে অ্যালার্জির সমস্যা শুরু হয়। অবশ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়া এসব ব্যক্তির মধ্যে কারা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রোজেনেকার ‘কোভিশিল্ড’ আর কারা ভারত বায়োটেকের উদ্ভাবিত ‘কোভ্যাক্সিন’ নিয়েছিলেন, সেই তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।<br><br>সূত্র: বিবিসি বাংলা </body></HTML> 2021-01-18 20:56:04 1970-01-01 00:00:00 জো বাইডেন কি পারবেন ট্রাম্প যুগের অন্ধকার কাটিয়ে উঠতে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102914 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981602_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981602_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ছোটবেলায় ছবি দেখেছিলাম একটি ভয়ানক দানবের, নাম কিংকং, নিউইয়র্ক শহরের আকাশচুম্বী ভবনগুলোর একছাদ থেকে আরেক ছাদে লাফিয়ে বেড়াচ্ছে সব কিছু ভাঙচুর করছে। তার বাহুর মধ্যে এক তরুণী, তাকে ছোট্ট পুতুলের মতো দেখাচ্ছে। প্রাণভয়ে সেই পুতুল কাঁদছে। তাকে রক্ষা করার কেউ নেই। ছোটবেলায় ছবি দেখেছিলাম একটি ভয়ানক দানবের, নাম কিংকং, নিউইয়র্ক শহরের আকাশচুম্বী ভবনগুলোর একছাদ থেকে আরেক ছাদে লাফিয়ে বেড়াচ্ছে সব কিছু ভাঙচুর করছে। তার বাহুর মধ্যে এক তরুণী, তাকে ছোট্ট পুতুলের মতো দেখাচ্ছে। প্রাণভয়ে সেই পুতুল কাঁদছে। তাকে রক্ষা করার কেউ নেই।<br><br>বন্দুক, রাইফেল, কামান কোনো কিছুই দানবকে কিছু করতে পারছে না। শেষ পর্যন্ত লোহার জাল আনা হলো, বহু কষ্টে সেই জালে তাকে বন্দি করে ছাদ থেকে নামিয়ে আনা হলো। জালবন্দি থাকাকালে কিংকংয়ের সে কী গর্জন! মনে হয় এই বুঝি জাল ছিঁড়ে মাটিতে নেমে এসে ধ্বংসযজ্ঞ শুরু করবে।<br>বহুকাল পর বুড়ো বয়সে সেই একই কিংকং দানবের ছবি দেখলাম আমেরিকা নামক দেশটিতেই। প্রেসিডেন্ট থাকাকালে হুঙ্কার দানরত ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছবি দেখেছি। সে এক ভয়াবহ ছবি। পিকাসো এই ভয়ংকর মুখ পেলে নিঃসন্দেহে ছবি আঁকতেন। এখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর জালবন্দি ট্রাম্পের ছবি দেখছি।<br><br>মনে হয় জাল থেকে কিংকং হয়ে তিনি এখনই বেরিয়ে আসবেন। তার বাহুর তলে থাকবে সেই পুতুলের মতো তরুণী-আর্তস্বরে কাঁদছে। মনে হয় গোটা আমেরিকা সেই তরুণীর রূপ ধরে কাঁদছে। নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, নিজেই একজন অসুখী মানুষ। পারবেন কি এই আমেরিকার দুঃখ দূর করতে? জো বাইডেনকে দেখলে তার আগের এক ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টারের কথা মনে পড়ে। তিনি অসুখী মানুষ ছিলেন না। তার চীনা বাদামের ব্যবসা আর সুন্দরী স্ত্রী নিয়ে সুখী মানুষ ছিলেন। তিনি আমেরিকাকে মানবতাবাদী করবেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। পারেননি।<br><br>আমেরিকার এস্টাবলিশমেন্ট মানবতাবাদী নয়। তিনি দেশটাকে মানবতাবাদী করবেন কী করে? তিনি তার এস্টাবলিশমেন্টের একটা বড় আশা পূর্ণ করেছেন। তিনি ইসরাইলের পরমশত্রু মিসরকে ইহুদি রাষ্ট্রের পরম মিত্র বানিয়েছেন। আরব-ঐক্যে ফাটল ধরিয়েছেন। প্যালিস্টিনিদের স্বাধীন রাষ্ট্রের আশা-আকাঙ্ক্ষা গুঁড়িয়ে দিয়ে গেছেন। জিমি কার্টার যুদ্ধবাদী প্রেসিডেন্ট ছিলেন না। জো বাইডেনও নন। আমেরিকার এস্টাবলিশমেন্ট ও অস্ত্র ব্যবসায়ী কার্টেলগুলোকে খুশি করতে না পারায় জিমি কার্টার মাত্র এক টার্ম প্রেসিডেন্ট পদে থেকে হোয়াইট হাউজ থেকে বিদায় নিয়ে তার চীনা বাদামের ব্যবসায় ফিরে গিয়েছিলেন। জো বাইডেনের ভাগ্যে কী আছে তা বলা মুশকিল। তাকে একহাতে কোভিড-১৯-এর দানবের বিরুদ্ধে, অন্য হাতে ভয়াবহ ট্রাম্পইজমের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। যুদ্ধে তিনি কতটা জয়ী হবেন সে সম্পর্কে মার্কিন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা ততটা আশাবাদী নন।<br><br>জো বাইডেন অসুখী, তবে উচ্চাভিলাষী মানুষ। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হবেন এটা তার আজীবনের আকাঙ্ক্ষা। ভাগ্য তাকে বারবার আঘাত করেছে। তার সুখ ও সাফল্যের পথে কাঁটা বিছিয়ে গেছে। ১৯৭২ সালে বাইডেন যখন মাত্র ২৯ বছরের যুবক, সিনেটে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তখন তার স্ত্রী নেইলা এবং মেয়ে নাওমী সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। তারপর ছেলে বুয়ো মারা যান ক্যান্সারে। তারপর ঘটে আরেকটি বড় দুর্ঘটনা। কেউজ কোডের কাছে নালটাকেটে আটলান্টিকের পাড়ঘেঁষে ছিল তাদের পারিবারিক রিট্রিট। এই রিট্রিটে জো বাইডেনের গোটা পরিবার থ্যাঙ্কস গিভিং ডেতে জড়ো হতেন। গোটা পরিবার একসঙ্গে ছবি তোলেন।<br><br>সেই পারিবারিক ঐতিহ্যের মতো ঘরটি অকস্মাৎ বাইডেনের চোখের সামনে সমুদ্র গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। একটার পর একটা পারিবারিক ট্র্যাজেডিতে বাইডেন ভেঙে পড়েন। তিনি এক সময় আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন। জো বাইডেনের রাজনৈতিক জীবনও সরলরেখায় চলেনি। মাত্র ২৯ বছর বয়সে তিনি সিনেটর হয়েছেন বটে, কিন্তু একবার প্রেসিডেন্ট পদে ডেমোক্র্যাট দলের নমিনেশন চেয়ে পাননি। নমিনেশন পেয়েছিলেন বারাক ওবামা, ওবামা তাকে তার ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে গ্রহণ করেন।<br><br>এবার তিনি প্রেসিডেন্ট পদে দলের নমিনেশন পান এবং নির্বাচনে জয়ীও হন, কিন্তু তাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়েছে সভ্যতা-ভব্যতাবর্জিত এক সিটিং প্রেসিডেন্টের সঙ্গে। যিনি শুধু কথায় নন, কাজেও হিংস্র। তার রাজনীতি বর্ণবাদী ও ফ্যাসিবাদী। তার সমর্থকরা কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে হামলা চালাতে দ্বিধা করেনি। ট্রাম্প অভিশংসনেরও পরোয়া করেন না। এখনো পরাজয় মানেননি। তবে ২০ জানুয়ারি তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে। এই সময় দেশে দাঙ্গা-হাঙ্গামা হতে পারে এই আশঙ্কায় সামরিক বাহিনী সারা দেশে ব্যাপক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানও হবে অত্যন্ত কঠোর সতর্কতায়। সভা-শোভাযাত্রা আনন্দানুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।<br><br>সবাই এখন স্বীকার করছেন, ট্রাম্পের চার বছরের শাসনকাল ছিল আমেরিকার জন্য এক অন্ধকার যুগ। আমেরিকার গণতন্ত্রের ভাবমূর্তি তিনি সম্পূর্ণ নষ্ট করেছেন। আমেরিকার গণতন্ত্রের ইনস্টিটিউটগুলোকে সম্পূর্ণ ভাঙতে চেয়েছিলেন। গত শতকের ইউরোপীয় ফ্যাসিবাদের কায়দায় আমেরিকায় ফ্যাসিবাদ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেছেন। তার এই চেষ্টা যে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে, তা এখনো কেউ বলতে পারে না। তার ইচ্ছাকৃত অবহেলায় আমেরিকায় করোনা মহামারিতে লাখ লাখ নরনারীর মৃত্যু হয়েছে। আমেরিকা আধুনিক বিজ্ঞানে ওষুধ শিল্পে সবচেয়ে উন্নত দেশ হওয়া সত্ত্বেও ট্রাম্পের ঔদাসীন্য ও অবহেলায় করোনা প্রতিরোধক কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় সারা আমেরিকা এখন এক মৃত্যু উপত্যকা।<br><br>প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হয়েই বাইডেন তাই বলেছেন, হোয়াইট হাউজে প্রবেশ করেই তার প্রথম দায়িত্ব হবে মহামারি ঠেকানো এবং দ্বিতীয় চেষ্টা হবে ট্রাম্প আমেরিকার জন্য যে অন্ধকার যুগ সৃষ্টি করে গেছেন, তা থেকে আমেরিকাকে মুক্ত করা। করোনা ঠেকানোর জন্য বাইডেন কোটি কোটি টাকার এক পরিকল্পনা ইতোমধ্যেই গ্রহণ করেছেন।<br>অন্ধকার ট্রাম্প যুগ থেকে তিনি কীভাবে দ্রুত আমেরিকাকে উদ্ধার করবেন, তার পরিকল্পনাও তিনি আঁটছেন। কিন্তু ভয়ংকর ফ্যাসিবাদের কবল থেকে আমেরিকাকে তিনি পূর্ব গৌরবে কতদিনে ফিরিয়ে নিতে পারবেন অথবা আদৌ পারবেন কিনা সে সম্পর্কে অনেকেই নিশ্চিত নন।<br><br>একবার কোনো দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ফাটল ধরলে এবং কোনো ধরনের ফ্যাসিবাদ সেই ফাটলে ঢুকে পড়লে তাকে দূর করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। আমরা বাংলাদেশের দিকে চেয়ে দেখতে পারি। ১৯৭৫ সালের আগে বাংলাদেশে যেটুকু গণতন্ত্র ও কথা বলার স্বাধীনতা ছিল তা আজ নেই বললেই চলে। সমাজ ধর্মীয় কুসংস্কার দ্বারা আচ্ছন্ন। দুর্নীতি প্রতিপদে। ধর্মের স্থান দখল করেছে ধর্মীয় রাজনীতি অথবা ধর্মের ব্যবসা। নারীদের নিরাপত্তা নেই, বুদ্ধিজীবীরা বিব্রত অথবা বিভ্রান্ত। এই বাংলা এককালে এমন ছিল না। ২১ বছরের সামরিক ও স্বৈরাচারী শাসনে বাংলাদেশকেও এক অন্ধকার যুগ অতিক্রম করতে হয়েছে।<br><br>শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন করে এই অন্ধকার যুগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অবতীর্ন হয়েছে। কিন্তু এই লড়াইয়ে এখনো জয়ী হতে পারেনি। দেশটির বৈষয়িক উন্নতি উল্লেখযোগ্য। কিন্তু সামাজিক অবক্ষয় ভয়াবহ। স্বৈরাচারী শাসকরা এই অবস্থা তৈরি করে গেছেন। আওয়ামী লীগ সরকার এই অবক্ষয় ঠেকাতে পারছে না। বরং অবক্ষয় ঠেকাতে গিয়ে নিজেরাও অবক্ষয়ের শিকার হচ্ছেন।<br>দুর্বল গণতন্ত্র দ্বারা ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করা যায় না। তার উদাহরণ গত শতকের ইতালি, জার্মানি, স্পেন, পর্তুগাল। শেখ হাসিনা যতদিন দুর্বল গণতান্ত্রিক পন্থায় দেশে প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠীগুলোকে দমন করার চেষ্টা করেছেন, ততদিন পারেননি। অতঃপর কর্তৃত্ববাদী গণতন্ত্রকে অনুসরণের পর তিনি বহু লড়াইয়ে জয়ী হয়েছেন। বাংলাদেশি ট্রাম্পদের ক্ষমতাসীন হতে দেননি।<br><br>আমেরিকায় জো বাইডেনকেও তার দেশে উদীয়মান ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর থেকে কঠোরতম ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। নইলে তিনি আমেরিকাকে ট্রাম্প যুগের অন্ধকার থেকে উদ্ধার করতে পারবেন না। দেশটিতে বর্ণবাদ ও ফ্যাসিবাদ মাথাচাড়া দিতে পারলে বর্তমান নির্বাচনে পরাজয়ের ক্ষতি পুষিয়ে আগামী নির্বাচনে তারা হোয়াইট হাউজ দখলের চেষ্টা করবে। হয়তো পারবেও। যদি জো বাইডেন নিজেকে সাবেক প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টের মতো একজন শক্ত প্রেসিডেন্ট প্রমাণ করতে না পারেন, জাতির সামনে নিউ ডিলের মতো কোনো প্রণোদনামূলক জাতিগঠন পরিকল্পনা তুলে ধরতে না পারেন, তাহলে তিনি সফল হবেন না।<br><br>জো বাইডেন নম্র স্বভাবের ভদ্রলোক। কিন্তু তার সাংগঠনিক শক্তি প্রচুর। ব্যক্তিগত জীবনের বহু ট্র্যাজেডি কাটিয়ে উঠে তিনি অন্ধকারে বিপন্ন আমেরিকার হাল ধরেছেন। তিনি কতটা সফল হবেন তার আভাস আগামী কিছুদিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে। কেউ চায় না তিনি জিমি কার্টারের মতো একজন অসফল প্রেসিডেন্ট হয়ে হোয়াইট হাউজ থেকে বিদায় নেন।<br></body></HTML> 2021-01-18 20:51:21 1970-01-01 00:00:00 ওদের স্বপ্নগুলো পূরণের পথে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102913 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981466_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981466_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥ <br>‘ঐ নতুনের কেতন ওড়ে কাল-বৈশাখীর ঝড়। তোরা সব জয়ধ্বনি কর!’ বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতার মতোই বাংলাদেশ জাতীয় দলে উড়ছে নতুনের কেতন। ২০২৩ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ভাবতে শুরু করেছে এখন থেকেই। তারই ধারায় এক ঝাঁক তরুণের উপর আস্থা রাখতে যাচ্ছে বিসিবি। যার প্রথম ধাপে জাতীয় দলে ডাকা হয়েছে দুই পেসার শরিফুল ইসলাম, হাসান মাহমুদ আর অফ-স্পিন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য ঘোষিত ১৮ সদস্যের দলে জায়গা পেয়েছেন এই তিন জন। অথচ এই জায়গায় আসতে কত শ্রম দিতে হয়েছে, বুনতে হয়েছে কত স্বপ্ন। সেই শ্রমের মূল্য পেতে যাচ্ছেন তারা, পূরণ হতে যাচ্ছে স্বপ্ন। জাতীয় দলে ডাক পাবার পর শরিফুলের যেমনটা মনে হয়েছে, ‘খবরটা শোনার পরে। অনেক খুশি লাগছিল যে আমি প্রথমবারের মতো জাতীয় দলের স্কোয়াডে আছি। ইনশাআল্লাহ ভালো কিছু করার চেষ্টা করবো।’ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য শরিফুল বাংলাদেশকে বিশ্বকাপ এনে দিতেও রেখেছিলেন বড় ভূমিকা। সেই অভিজ্ঞতাগুলো কাজে লাগিয়ে এনে দিতে চান আরেকটা বিশ্বকাপ। ‘বিশ্বচ্যাম্পিয়ন (অ-১৯) হওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের মূল একটা শক্তি ছিল যে সবাই আমরা একত্র ছিলাম, দেশের জন্য লড়ছি। সেটা, আমরা সবাই যদি ফাইট করতে পারি দেশের জন্য তো ইনশাআল্লাহ আমরা আবার একদিন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হব জাতীয় দলের হয়ে। and nbsp; ’ওয়ানডের আগে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে হাসান মাহমুদের। গতবছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চমক জাগানিয়া কিছু দেখাতে না পারলেও ঘরের মাঠে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ও বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে চেনান নিজের জাত।<br>হাসান জানালেন, ‘যেদিন থেকে খেলা শুরু করেছিলাম, সেদিন থেকেই জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন ছিল। এখন সুযোগ পেয়েছি, আমি আমার সর্বোচ্চটা দেয়ার চেষ্টা করব।’<br>চাঁদপুর থেকে উঠে আসা এই তরুণ পেসার জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে ভুলে যাননি তাকে গড়ে তোলার কারিগরদের। ধন্যবাদ জানিয়েছেন সেসব কোচদের।<br>‘জেলা কোচ আছেন, মনির হোসেন। এরপরে ডিভিশন কোচ, ন্যাশনাল ক্রিকেটে এখানে আসছি এখানের কোচ বলেন, সবাই হেল্পফুল। অনেক দিন ধরেই পেস বোলিং কোচ জ্যাকি স্যারের তত্ত্বাবধানে বোলিং প্র্যাকটিস হয়েছে। সবমিলে সবাই হেল্প করেছে, জুয়েল স্যারও ছিল। সবাই যেন আমার জন্য দোয়া করে। থ্যাংক ইউ।’<br>হাসান মাহমুদের মতো মেহেদী হাসানও জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে। যে কারণে মেহেদী হাসান আশাবাদী টি-টোয়েন্টির সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে ওয়ানডেতে ভালো খেলা।<br>‘অনেক পরিশ্রম করে আসছি বাংলাদেশ দলে খেলার জন্য। প্রথমে তো আমার টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছে, এখন ওয়ানডেতে সুযোগ এসেছে। যদি বেস্ট ইলেভেনে সুযোগ হয়, নিজের সেরাটা দেয়ার অবশ্যই চেষ্টা থাকবে।’ খুলনার মেহেদী হাসান টি-টোয়েন্টির পর ওয়ানডেতে অভিষেকের অপেক্ষায়। স্বপ্ন টেস্টেও খেলার। ‘যদি একাদশে সুযোগ হয়, অবশ্যই নিজের সেরাটা দেয়ার চেষ্টা থাকবে। যেহেতু আমি বোলিং করতে পারি, ব্যাটিং করতে পারি, যে জায়গায় যেখানে সুযোগ আসে চেষ্টা করব কাজে লাগানোর। যেহেতু আমি অলরাউন্ডার, চেষ্টা থাকবে তিন ফরম্যাটে ভালো করা।’</body></HTML> 2021-01-18 20:50:54 1970-01-01 00:00:00 তামিমের হাত ধরে সিরিজ জয়ের প্রত্যাশা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102912 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981428_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981428_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<div>মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার যুগের সমাপ্তি। শুরু হচ্ছে তামিম ইকবাল অধ্যায়ের। বাম-হাতি এই ব্যাটসম্যানের নেতৃত্বে করোনা পরর্বতী ক্রিকেটে ফিরতে চলেছে বাংলাদেশ। </div>আগামী ২০, ২২ ও ২৫ জানুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাঠে নামবে টাইগাররা।<br>তার আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের প্রত্যাশা তামিমের হাত ধরে সিরিজে জয় পাবে বাংলাদেশ দল। সোমবার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের সম্প্রচার স্বত্ব পাওয়া প্রতিষ্ঠান বেনটেক আয়োজন করেছিল এক সংবাদ সম্মেলনের। অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘তামিম অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। আগেও মাঠে দলকে নেতৃত্বে দিয়েছেন। তার নেতৃত্বে দল সিরিজ জিতবে এটাই প্রত্যাশা।’<br>স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী লাল-সবুজদের জার্সিতে ‘বাংলাদেশ’ লেখা না থাকায় শুরু হয়েছিল বিতর্ক। তবে শেষ পর্যন্ত জার্সির ডিজাইনে পরির্বতন আনা হয়।<br>বিসিবির এই কর্তা বলেন, ‘জার্সির ডিজাইনে হয়তো ভুল হয়েছিল। তবে তা সংশোধন করে দেয়া হয়েছে। আইসিসির প্রটোকল দেয়া আছে। প্রটোকল মেনেই ডিজাইন করা হয়েছে।’ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্টের সম্প্রচার করতে ১৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকায় স্বত্ব কিনে নেয় বেন টেক। and nbsp; প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক আমজাদ হোসেন আরজু জানান, ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজের সবগুলো ম্যাচ সম্প্রচার করা হবে ২৬টি ক্যামেরা দিয়ে। and nbsp; আমরা চেস্টা করছি সেরা প্রযুক্তি ব্যবহার করতে। এরই মধ্যে টি-স্পোর্টস ও নাগরিক টিভিকে সম্প্রচারের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। আইসিসির ফিউচার ট্যুর প্ল্যান (এফটিপি) না ঘোষণা করা পর্যন্ত বিসিবি সম্প্রচারের মূল চুক্তি করছে না। আগামীতে আমরা ক্রিকেট তথা বিসিবির সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী।<br><br></body></HTML> 2021-01-18 20:50:14 1970-01-01 00:00:00 জয় দিয়ে বছর শুরু করল ইংল্যান্ড http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102911 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981395_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981395_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>দুই ম্যাচের সিরিজের প্রথম টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে পাত্তাই দিল না সফররত ইংল্যান্ড। মাত্র ৭৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। ফলে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকল জো রুটের দল। সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্টে আগামী ২২ জানুয়ারি ফের একবার মাঠে নামবে দুদল। গল টেস্টে দুদলের প্রথম ইনিংস শেষে শ্রীলঙ্কার পরাজয় আন্দাজ করা যাচ্ছিল। ঘটলও তাই। তবে দ্বিতীয় নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে লাহিরু থিরিমান্নে এবং অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ম্যাচ শেষদিন পর্যন্ত নিয়ে গেছে লঙ্কানরা। সবকটি উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় ইনিংশে দিনেশ চান্দিমালরা সংগ্রহ করে ৩৬৯ রান। ফলে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের প্রয়োজন পড়ে মাত্র ৭৪ রান।জবাবে জয়ের উদ্দেশে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। তবে চতুর্থ দিন বিকেল বেলায় রোমাঞ্চকর ঘটনার জন্ম দেয় স্বাগতিকরা। মাত্র ১৪ রানের মাথায় ইংল্যান্ডের টপ তিন ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে পাঠান শ্রীলঙ্কান বোলাররা। এরপর ৩ উইকেটের বিনিময়ে সফরকারীরা ৩৮ রান করলে দিন শেষ হয়।<br>প্রথম টেস্টের শেষদিনে জয়ের জন্য মাত্র ৩৬ রান দরকার ছিল রুটদের। অনায়াসেই তা তুলে ফেলেন আগেরদিনের দুই অপরাজিত ইংলিশ ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো এবং ড্যান লোরেন্স।<br> and nbsp;বেয়ারস্টো ৩৫ রানে এবং লোরেন্স ২১ রানে অপরাজিত থাকেন। ম্যাচের একমাত্র ডাবল সেঞ্চুরিয়ান ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন।</body></HTML> 2021-01-18 20:49:42 1970-01-01 00:00:00 আমি নাকি বিয়ের কারণে চোটে পড়ছি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102910 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981355_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981355_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>খেলতে নামলে সমালোচনায় পড়তেই হবে, মেনে নিচ্ছেন পাকিস্তানের গতিতারকা হাসান আলি। কিন্তু এই সমালোচনাটাকে ক্রিকেটের মধ্যে না রেখে ব্যক্তিগত আক্রমণ বানানোর ব্যাপারটাকে সহজভাবে নিতে পারছেন না তিনি। সমালোচকদের রীতিমত ধুয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানি এই পেসার। হাসান আলির উদযাপনটা একটু অন্য ধরনের। উইকেট পাওয়ার পর দুই হাত আড়াআড়ি করে এনে অনেক জোরে ওপরের দিকে তুলেন এই পেসার। যার জন্য একবার কাঁধের চোটে পড়েছিলেন। স্বভাবতই হাসান আলির ফর্ম পড়ে যাওয়ায় সমালোচকরা ওই বাড়তি উদযাপনের বিষয়টিকে সামনে টেনে আনেন বারবার। এমনকি তার বিয়ে নিয়েও অনেক রকম কথাবার্তা আছে। ভারতীয় এক মেয়েকে বিয়ে করেছেন হাসান আলি। আর বিয়ের পরপরই তার ফর্মে ঘাটতি দেখা যায়। কিছু কিছু সমালোচকের মতে, বিয়ের কারণেই খেলার থেকে মনোযোগ সরে গেছে হাসানের, তাই আগের মতো পারফর্ম করতে পারছেন না। এসব সমালোচনা আর নিতে পারছেন না হাসান আলি। পরিষ্কারভাবেই বললেন, ক্রিকেটীয় পারফরম্যান্সের কারণে সমালোচনা যত ইচ্ছে করুন, কিন্তু ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে কিছু বলা ঠিক নয়। সম্প্রতি কায়েদ-ই-আজম ট্রফিতে ৪৩ উইকেট নিয়ে ও ফাইনালে সেঞ্চুরিসহ টুর্নামেন্টে ২৭৩ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে আবার ডাক পেয়েছেন হাসান। আর জায়গা ফিরে পেয়েই মুখ খুলেছেন। পাকিস্তানের একটি ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ২৬ বছর বয়সী পেসার বলেন, ‘দুই ধরনের মানুষ আছে। এক শ্রেণির মানুষ আপনার জীবনে কঠিন সময়ে পাশে থেকে সমর্থন দেবে। আরেকশ্রেণির মানুষ স্রেফ সমালোচনা করা দরকার বলেই করবে। যদি মানুষ আমার ক্রিকেট পারফরম্যান্স নিয়ে সমালোচনা করে, স্বাগত জানাই। এটা নিয়ে আমার কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু আমি বুঝি না, কেন মানুষজন আমার ব্যক্তিগত জীবনকে সমালোচনার লক্ষ্য বানায়।’<br>উদযাপন নিয়ে সমালোচনাকারীদের তিনি বলেন, ‘দেশের হয়ে রক্ত, ঘাম ও চোখের জল দেওয়ার পরও যখন লোকে পেশাদারিত্ব নিয়ে উদ্ভট ও অন্যায্য প্রশ্ন তোলে ও বিদ্রুপ করে, তখন সত্যিই খারাপ লাগে। আমি এমন অনেককে দেখেছি, তারা বলছেন যে উদযাপনের কারণে আমি চোট বাধাচ্ছি। হাস্যকর সব কথাবার্তা। আমার উদযাপনে তো মেডিকেল টিম কোনো সমস্যা দেখছে না। তাই লোকে পছন্দ করুক আর না করুক, আমি এই উদযাপন চালিয়ে যাব।’<br>বিয়ের পর ফর্ম পড়ে গেছে, এমন অভিযোগ নিয়ে হাসান আলির জবাব, ‘লোকে বলছিল, আমি নাকি বিয়ের কারণে চোটে পড়ছি, ক্রিকেটে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছি। ওই লোকগুলোর কোনো ধারণাও নেই, ক্রিকেটারদের কতটা কঠিন সময়ের মধ্যে যেতে হয় এবং ক্যারিয়ারে কতটা ওঠা-নামা থাকে।’<br>হাসান আলি জানালেন, মূলত একটা সময় পাকিস্তান দলে তিন ফরমেটে সব ম্যাচই খেলতে হচ্ছিল তার। আর টানা খেলার কারণেই শরীর ধকল নিতে পারেনি। চোটের পেছনে টানা ম্যাচ খেলাকেই আসল কারণ মনে করেন এই পেসার।<br><br><br></body></HTML> 2021-01-18 20:48:53 1970-01-01 00:00:00 গরম পানিতে ঝলসে যাওয়া শিশুর আহাজারিও মন গলাতে পারেনি তাদের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102909 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981180_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981180_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>গরম পানিতে ঝলসে যাওয়া শিশুর আহাজারিও মন গলাতে পারেনি। স্থানীয় সংসদ সদস্য সেতু পার হবেন বলে দেড়ঘন্টা ধরে আটকে রাখা হয় হাসপাতালমুখী দগ্ধ হওয়া শিশুটির গাড়ি।<br>সংসদ সদস্যর জন্য সেতু যানজটমুক্ত রাখতে দেড় ঘন্টা আগে থেকেই সেতুতে অন্য সব যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় ইজারাদারের কর্মিরা। কিন্তু এই সময়ে সেতুর মুখে আটকে দেওয়া হয় বাসায় গরম পানি পরে সারা শরীর পুড়ে যাওয়া পাঁচ বছর বয়সী শিশুকে বহনকারী সিএনজিচালিত অটোরিক্সা। যন্ত্রণাকাতর অগ্নিদগ্ধ শিশুর আহাজারি, স্বজনদের আকুতি- কিছুতেই মন গলছিলনা পাষন্ড মানুষদের। আগে সাংসদ পার হবেন তারপর গাড়ি চলবে। এভাবেই দেড়ঘন্টা ধরে আটকে রাখা হয় হাসপাতালমুখী অগ্নিদগ্ধ শিশুটির গাড়ি। অমানবিক এই ঘটনাটি ঘটে রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের বোয়ালখালী সেতুতে। জানা যায়, বোয়ালখালী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড পূর্ব গোমদন্ডী মীরপাড়ার এনামুল হকের ৫ বছর বয়সী শিশু কন্যা তানজিনা হক অসাবধানতায় গরম পানির পাতিলে পড়ে যায়। and nbsp; এতে এই শিশুর শরীরের বেশিরভাগ অংশ পুড়ে যায়। শিশুটিকে প্রথমে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা শিশুটিকে বাঁচাতে হলে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। দগ্ধ শিশুর পিতা এনামুল হক জানান, চিকিৎসকদের পরামর্শে তার কন্যাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিক্যালে নিতে একটি সিএনজি অটোরিক্সা নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। কিন্তু কালুরঘাট সেতুর প্রান্তে এলে তাদের সিএনজি অটোরিক্সাসহ সব ধরনের যানবাহন পারাপার বন্ধ করে দেয় সেতুর দায়িত্বপ্রাপ্ত ইজারাদারের কর্মিরা। এই সময় তারা জানান, চট্টগ্রাম থেকে সেতু পার হয়ে বোয়ালখালী যাবেন স্থানীয় সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহাম্মেদ। তাই সেতুতে অন্য সব যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ সময় অটোরিক্সায় দগ্ধ শিশুটি যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিল। সেতু পার হয়ে হাসপাতালে যেতে দিতে অনুনয় বিনয় করছিলো তার স্বজনরা। কিন্তু কিছুতেই মন গলেনি পাষ- ব্যাক্তিদের। মৃত্যু পথযাত্রী শিশুটিকে এ অবস্থায় সেতুর প্রান্তে প্রায় দেড় ঘন্টা ধরে আটকে রাখা হয়। সাংসদ ও তার গাড়ি বহর সেতু পার হওয়ার পর শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়। এ ব্যাপারে সাংসদ মোছলেম উদ্দিন জানান, তিনি এ ঘটনাটি অবগত নন। তার জন্য কেউ সেতু বন্ধ রেখে অগ্নিদগ্ধ শিশুকে হাসপাতালে নিয়ে দিবে না, এটা মানা যায় না। যা ঘটেছে তা অন্যায়। এ ব্যাপারে তিনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।<br>সেতুর দায়িত্ব প্রাপ্ত ব্যবস্থাপক নুর উদ্দীন জানান, সেতু ক্লিয়ার রাখতে পুলিশের নির্দেশনা পেয়েই তারা সেতু বন্ধ রেখেছিলেন। তবে সেতু বন্ধ রাখার কোন নির্দেশ দেওয়ার কথা অস্বীকার করেন বোয়ালখালী থানার ওসি আবদুল করিম।<br>তিনি জানান, যে ঘটনাটি ঘটেছে তা দুঃখজনক। and nbsp; পুলিশ এব্যাপারে কোন নির্দেশ দেয়নি। and nbsp; সেতুর টোল আদায়কারীরা স্বপ্রণোদিত হয়েই অগ্নিদগ্ধ শিশুকে পার হতে দেয়নি। and nbsp; এ ব্যাপারে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার।<br>এদিকে অগ্নিদগ্ধ শিশুটিকে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। and nbsp; শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে অভিভাবকরা জানিয়েছেন। <br></body></HTML> 2021-01-18 20:46:00 1970-01-01 00:00:00 পুলিশ সোর্স হত্যা মামলায় গ্রেফতার ৩ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102908 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981144_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981144_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>খুলনা মহানগরে গোয়েন্দা পুলিশের সোর্স হত্যা মামলায় সন্দেহভাজন তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র?্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৬)।<br>রোববার (১৭ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে র?্যাব-৬ এর (স্পেশাল কোম্পানি) খুলনা মহানগরের লবণচরা থানার আশিবিঘা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। র?্যাব-৬ এর সেকেন্ড ইন কমান্ড মেজর মো. আনিসুর রহমান এ তথ্য জানান। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- লবণচরার দক্ষিণ মোল্লাপাড়ার বাঙালী গলির বদি মোল্লার ছেলে বাপ্পী মোল্লা (২৩), মোল্লাপাড়া মসজিদ গলির আজারুল ইসলাম আজুর ছেলে তরিকুল ইসলাম তারেক (২২) ও খুলনা সদরের মহিষবাড়ী ছোট খালপাড় এলাকার আশিকুর রহমান নিরুর ছেলে নাইমুর রহমান আকাশ (১৯)।<br>আনিসুর রহমান জানান, গোয়েন্দা পুলিশের সোর্স শফিকুল ইসলাম হত্যার পর থেকেই বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত র?্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাতে সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করা হয়। হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত প্রধান আসামি দুলাল তালুকদারের সঙ্গে পরস্পর যোগসাজশে হত্যাকা-টি ঘটিয়েছেন বলে তারা স্বীকার করেছেন। হত্যা মামলায় জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেফতারে র?্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তাদের খুলনা মেট্রোপলিটন (কেএমপি) পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় হস্তান্তর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। উল্লেখ্য, মঙলবার (১২ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কেএমপি, খুলনার লবণচরা থানার বান্দাবাজার এলাকায় মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তিনজন সোর্সসহ মাদক চক্রকে আটক করতে যায়। সেখানে আগে থেকে থাকা চক্রের সদস্যরা অভিযান দলের ওপর হামলা চালায়। এতে গোয়েন্দা পুলিশের একজন সহকারী উপ-পরিদর্শকসহ (এএসআই) অপর দুজন সোর্স গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিকভাবে আহত সদস্যদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক সোর্স শফিকুল ইসলামকে (৩৫) মৃত ঘোষণা করেন। এ ব্যাপারে কেএমপির লবণচরা থানায় একটি হত্যা মামলাসহ দুটি পৃথক মামলা করা হয়।</body></HTML> 2021-01-18 20:45:04 1970-01-01 00:00:00 মন্ত্রী ও পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে চাঁদা তুলতেন তিনি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102907 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981074_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610981074_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>মন্ত্রী, এমপি, এসপি এবং কাউন্সিলরদের কণ্ঠ নকল করে চাঁদা তুলে দীর্ঘদিন ধরেই প্রতারণা করে আসছিলেন তিনি। অবশেষে রবিবার সন্ধ্যায় একটি বিকাশের দোকান থেকে প্রতারণার ৩৭ হাজার টাকা তোলার সময় তাকে হাতেনাতে আটক করে মিরপুর মডেল থানা পুলিশ। আটক ব্যক্তির নাম সোহেল মাহমুদ। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার পিপুলবাড়ি গ্রামে।<br>নামী-দামি ব্যক্তির পরিচয় দিয়ে গরিবদের কম্বল, করোনার টিকা কিনে দেয়াসহ নানা মিথ্যা কথা বলে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অর্থ আদায় করতেন তিনি। রাজধানীর পীরেরবাগে বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িকেই ঠিকানা বানিয়েছেন সোহেল মাহমুদ। মিরপুরের উপ-পুলিশ কমিশনার পরিচয় দিয়ে ১৪ জানুয়ারি এক ফার্নিচার ব্যবসায়ীর কাছে টাকা দাবি করলে সন্দেহ হয় ব্যবসায়ীর। পরে তিনি ঘটনাটি পুলিশকে জানান। ভুক্তভোগী মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, ‘ফোন পাওয়ার পরই তার ভয়েস নিয়ে আমার সন্দেহ হয়। তারপর আমি পুলিশকে বিষয়টি জানাই।’<br>মিরপুরের উপ-পুলিশ কমিশনার এ এস এম মাহতাব উদ্দিন বলেন, ‘ঘটনাটি শোনার পর আমরা একটা টিম গঠন করি। তারপর তাকে পাঠানো টাকা সে পেয়েছে কিনা জানতে চাইলে সে বিকাশের দোকানে গেলে সেখান থেকেই তাকে আটক করা হয়।’ <br>প্রতারণার অভিযোগে রাজধানীর দারুসালাম এবং রামপুরা থানায় তার নামে তিনটি মামলাও রয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।</body></HTML> 2021-01-18 20:43:43 1970-01-01 00:00:00 হেরে যাওয়ার পর কান ধরে পুকুরে ডুব দিয়ে আর ভোট না করার প্রতিজ্ঞা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102906 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980996_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980996_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভা নির্বাচনে পরাজিত হয়ে পুকুরে কান ধরে ডুব দিয়ে নির্বাচন না করার প্রতিজ্ঞা করেছেন কাউন্সিলর প্রার্থী মকলেছুর রহমান।<br>রোববার (১৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তিনি ওয়ার্ডের লোকজনকে ডেকে পুকুরে নেমে কান ধরে ডুব দিয়ে ভবিষ্যতে আর নির্বাচনে না করার প্রতিজ্ঞা করেন।<br>মকলেছুর রহমান জানান, দ্বিতীয় ধাপে পৌরসভা নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডের লোকজন তাকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য বলেন। যারা নির্বাচনে দাঁড়াতে উৎসাহ দিয়েছিলেন তারাই তাকে ভোট দেননি। এ কারণে তিনি আর কোনদিন নির্বাচনে অংশ নেবেন না বলে জানান। উল্লেখ্য, শনিবার (১৬ জানুয়ারি) গাংনী পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে মেয়র পদে পাঁচ ও কাউন্সিলর পদে ৪০ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তবে নির্বাচনে মোকলেছুর পান মাত্র ১২৫ ভোট।<br><br><br></body></HTML> 2021-01-18 20:42:51 1970-01-01 00:00:00 নির্বাচনী ফায়দার জন্যই বালাকোটে হামলা চালিয়েছিল মোদি সরকার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102905 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980902_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980902_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>নির্বাচনী ফায়দার জন্যই ভারতের বিজেপি সরকার বালাকোটে বিমান চালিয়েছিল বলে দাবি করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। প্রতিবেশী দেশটির এধরনের ‘বেপরোয়া সামরিক এজেন্ডা’ বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সোমবার একাধিক টুইটে ইমরান খান দাবি করেছেন, নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে ভারতের ‘বর্ণবাদী’ সরকার নির্বাচনী ফায়দায় বালাকোট হামলাকে ইস্যু হিসেবে ব্যবহার করেছে।<br>২০১৯ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের বালাকোট সীমান্ত পার হয়ে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ চালায় ভারত। এর সপ্তাহ দুয়েক আগে পুলওয়ামায় কাশ্মীরি বিদ্রোহীদের হামলায় ৪০ ভারতীয় সেনা নিহত হন। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এ হামলায় সহযোগিতা করার অভিযোগ তুলে প্রতিশোধ হিসেবে বালাকোটে হামলা চালায় ভারত। যদিও, ইসলামাবাদ বরাবরই ভারতের এধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। সোমবারের টুইটে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ভারতের ডানপন্থী ইন্ডিয়ান টিভির উপস্থাপক অর্ণব গোস্বামী এবং রেটিংস বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিলের (বার্ক) প্রধান পার্থ দাশগুপ্তের ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ আলাপের বিষয়টিও উল্লেখ করেছেন। ভারতে টেলিভিশন রেটিংস দুর্নীতির বিষয়ে চলমান তদন্তে প্রমাণ হিসেবে কয়েকশ’ পাতার ওই আলাপের নথিপত্র জমা দিয়েছিল মুম্বাই পুলিশ। আলাপে স্পষ্ট বোঝা যায়, বালাকোটে হামলার আগেই এ বিষয়ে জানতেন অর্ণব গোস্বামী ও পার্থ দাশগুপ্ত। <br>‘নোংরা যোগসূত্র’: ভারতীয় সংবাদপত্রে প্রকাশিত ওই হোয়াটসঅ্যাপ আলাপে দেখা যায়, বালাকোটে হামলার তিনদিন আগে, অর্থাৎ ২৩ ফেব্রুয়ারি বিষয়টি নিয়ে কথা বলছেন ভারতের গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট দুই ব্যক্তি। মেসেজে দেখা যায় পার্থ দাশগুপ্ত বলছেন, ‘বড় কিছু হতে চলেছে। ভালো। এই মৌসুমে এটা বড় মানুষটির পক্ষে ভালো। তিনি জরিপে এগিয়ে যাবেন।’<br>এরপরই বার্ক প্রধান সরাসরি জিজ্ঞেস করেন, ‘স্ট্রাইক? নাকি আরও বড়?’<br>জবাবে অর্ণব গোস্বামী বলেন, ‘সাধারণ স্ট্রাইকের চেয়ে বড়। আর একইসঙ্গে কাশ্মীরেও বড় কিছু।’<br>তিনি বলেন, ‘সরকার পাকিস্তানে এমনভাবে আঘাত করতে আত্মবিশ্বাসী যে, জনগণ তাতে গর্ববোধ করবে। ঠিক শব্দটাই ব্যবহৃত হয়েছে।’<br>পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী এই আলাপকে ভারতের সরকার ও গণমাধ্যমের মধ্যে ‘নোংরা যোগসূত্রের উন্মোচন’ বলে মন্তব্য করেছেন। ২০১৯ সালের নির্বাচনী প্রচারণায় বিজেপির বড় হাতিয়ার ছিল বালাকোটের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। সেই বছর ২০১৪ সালের নির্বাচনের চেয়ে আরও বড় ব্যবধানে জয় পায় নরেন্দ্র মোদির দলটি। তবে বিজেপির মুখপাত্র সৈয়দ জাফর পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বরং পাকিস্তানকে ‘সন্ত্রাসের কারখানা’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন তিনি। আল জাজিরাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ বিজেপি নেতা বলেছেন, ২০১৯ সালের নির্বাচনে জিততে বালাকোটে বিমান হামলাকে কখনোই ইস্যু হিসেবে ব্যবহার করেনি তাদের দল। সূত্র: আল জাজিরা</body></HTML> 2021-01-18 20:41:22 1970-01-01 00:00:00 ভারতের অরুণাচল সীমান্তে নতুন গ্রাম তৈরি করেছে চীন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102904 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980859_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980859_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>অরুণাচল প্রদেশের ভারতীয় সীমান্তের মধ্যে চীন নতুন একটি গ্রাম তৈরি করেছে। ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভি স্যাটেলাইট চিত্র থেকে পাওয়া এক্সক্লুসিভ ছবির বরাতে এক খবরে এই তথ্য জানিয়েছে। খবরে বলা হয়েছে, নতুন ওই গ্রামে ১০১টি বাড়ি রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা ২০২০ সালের ১ নভেম্বরে তোলা ওই ছবি বিশ্লেষণ করে দেখেছেন, ৪.৫ কিলোমিটার ভারত সীমান্ত এলাকার মধ্যে নির্মিত ওই গ্রাম ভারতের জন্য ব্যাপক উদ্বেগের কারণ হবে।এনডিটিভির and nbsp; খবরে নতুন গ্রাম তৈরির বিষয়ে বলা হয়েছে, চীন সুবানসিরি জেলায় তসরি চু নদীর তীরে ওই গ্রাম তৈরি করেছে। চীন-ভারত এলাকাটি নিয়ে দীর্ঘ ধরে এবং সশস্ত্র সংঘর্ষেও জড়িয়েছে।<br>গত বছরের জুনে এই এলাকা থেকে হাজার কিলোমিটার দূরে লাদাখের পশ্চিম হিমালয় এলাকায় ভারত চীন মারাত্মক সংঘর্ষে জড়ায়। এতে ভারতের ২০ জন সেনা নিহত হয়। অপরপক্ষে চীনের কতজন সৈন্য নিহত সেটা তারা জনসমক্ষে বলেনি। এই ঘটনার পর পরমাণু অস্ত্রধারী উভয় দেশই সেখানে হাজার হাজার সৈন্য মোতায়েন করে।<br>অরুণাচলকে ঘিরে চীনের তৎপরতা অবশ্য নতুন নয়। বারবার অরুণাচলকে নিজেদের বলে দাবি করেছে তারা। সেখানে ইতিমধ্যেই রাস্তাসহ যাবতীয় পরিকাঠামো তৈরি করে ফেলেছে। অরুণাচলে নতুন গ্রাম তৈরির বিষয়ে এনডিটিভির পক্ষ থেকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। গণমাধ্যমটি মন্ত্রণালয়ের কাছে স্যাটেলাইটের ওই ছবিও পাঠায়। জবাবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘আমরা চীন ভারতের সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলোতে নির্মাণকাজ শুরু করার বিষয়ে সাম্প্রতিক রিপোর্ট দেখেছি। চীন বিগত বেশ কয়েক বছরে এ জাতীয় অবকাঠামো নির্মাণ কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।’<br>ভারত সরকারও ওই এলাকায় সীমান্ত অবকাঠামো নির্মাণ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ উল্লেখ করে পররাষ্ট্র মণ্ত্রণালয় আরও বলে, ‘আমাদের সরকারও সীমান্তের স্থানীয় জনগণের জন্য প্রয়োজনীয় সংযোগ সরবরাহকারী রাস্তা, সেতু ইত্যাদি নির্মাণসহ সীমান্তের অবকাঠামো তৈরি করেছে।’<br>বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গ্রাম তৈরি করে আসলে ভারতকে চাপে রাখতে চাইছে চীন। কয়েক মাস আগেই ভারতীয় কয়েকজন যুবককে নিজেদের দেশে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছিল চীনা সেনারা। পরে অবশ্য তাদের ফিরিয়েও দেয়া হয়। সম্প্রতি ভারত সীমান্তসংলগ্ন নেপাল ও ভুটানের বিস্তীর্ণ এলাকাও দখল করে নিয়েছে চীন। সেখানে বেশ কয়েকটি ভবন তৈরি করেছে চীনা সেনারা। <br>এমনকি ভারত-চীন সীমান্তের বেশ কিছু জায়গায় চীন ক্ষেপণাস্ত্রও মোতায়েন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।</body></HTML> 2021-01-18 20:40:39 1970-01-01 00:00:00 ভারতে করোনা টিকা নিয়ে হাসপাতালকর্মীর মৃত্যু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102903 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980819_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980819_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥<br>করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেওয়ার ২৪ ঘণ্টা পর মারা গেছেন ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুরাদাবাদে সরকারি হাসপাতালের এক কর্মচারী । গতকাল and nbsp; রোববার and nbsp; স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির নাম মহিপাল সিং (৪৬)।<br>এনডিটিভির খবরে বলা হয়, and nbsp; তার মৃত্যু টিকা নেওয়ার সঙ্গে সম্পর্কিত নয় বলে দাবি করেছেন জেলা চিফ মেডিকেল অফিসার। গত শনিবার দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে ভারতে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। প্রথম দিন দেশটিতে প্রায় ২ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়। পরদিন টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে একজনের মৃত্যুর খবর এলো। এর আগে ভারতে বায়োটেকের করোনা টিকা কোভ্যাক্সিন নেওয়ার (ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল) ১০ দিনের মাথায় অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় দীপক মরাবি নামে ভোপালের ৪২ বছর ব</body></HTML> 2021-01-18 20:40:00 1970-01-01 00:00:00 গুয়েতেমালা সীমান্তে যুক্তরাষ্ট্র অভিমুখী অভিবাসীদের স্রোত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102902 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980534_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980534_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>গুয়েতেমালা সীমান্তে যুক্তরাষ্ট্র অভিমুখী হন্ডুরাসের হাজার হাজার অভিবাসী অবৈধভাবে প্রবেশের চেষ্টা করছেন। তারা পায়ে হেঁটে মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমানোর আশায় নিজ দেশ ছেড়েছেন। তবে গুয়েতেমালা সরকার অবৈধভাবে অভিবাসীদের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করেছেন। দেশটি সীমান্তে অবৈধ প্রবেশ ঠেকাতে বিপুল সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করেছে। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার (১৭ জানুয়ারি) অন্তত সাত হাজার অভিবাসী গুয়েতেমালার ভাদো হোন্ডো গ্রামের সীমান্তে পৌঁছে। তারা সীমান্ত অতিক্রম করার চেষ্টা করলে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় অনেক অভিবাসী নিরাপত্তা বলয় টপকে সীমান্ত অতিক্রম করে ঢুকে পড়েছে। এর আগে শনিবার অন্তত দুই হাজার অভিবাসী নিরাপত্তা বলয় টপকে গুয়েতেমালায় ঢুকে পড়ে। গুয়েতেমালার অভিবাসন সংস্থা জানিয়েছে, প্রথম সারিতে থাকা একটি ছোট দল নিরাপত্তা বাহিনীর বাঁধা পেরিয়ে ভেতরে ঢুকে পড়েছে। পরে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের অবস্থান শক্ত করলে বাঁধার মুখে পড়ে অভিবাসীরা। যারা ভেতরে ঢুকে পড়েছে তাদের অবস্থান শনাক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। সংস্থার মুখপাত্র আলেজান্দ্রা মিনা বলেন, অভিবাসীদের অধিকাংশেই সহিংসতা, করোনাভাইরাস মহামারি ও ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত। তারা অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে পড়ে ভালো জীবনযাপনের আশায় দলবেঁধে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আশায় দেশ ছেড়েছেন। তারা প্রত্যাশা করছেন— যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাদের আশ্রয় দেবেন। গুয়াতেমালার সরকার বলছে— গত শুক্রবার থেকে প্রায় ৯ হাজার অভিবাসী ও আশ্রয়প্রার্থী তাদের দেশে ঢুকে পড়েছে। এর মধ্যে শুক্রবার ৭ হাজার মানুষ পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে ঢুকে পড়ে। শনিবার আরও প্রায় দুই হাজার অভিবাসী ঢুকে পড়ে। তাদের অধিকাংশই করোনা নেগেটিভ পরীক্ষার সনদ নেই। কিন্তু গুয়াতেমালায় ঢুকতে এ সনদ জরুরি। গুয়াতেমালার প্রেসিডেন্ট আলেজান্দ্রো গিয়ামাতেই হন্ডুরাস কর্তৃপক্ষকে অবৈধ প্রবেশ নিয়ন্ত্রণের আহ্বান জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর সীমান্ত দিয়ে আসা অভিবাসীদের এই ঢল বন্ধ করতে গুয়াতেমালা, মেক্সিকো ও হন্ডুরাস এরই মধ্যে চুক্তিও করেছে। তবে কোনো চুক্তিই অভিবাসীদের ঠেকাতে কাজে আসছে না। এদিকে বুধবার শপথ নিতে যাওয়া জো বাইডেন সরকার অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে স্বাগত জানাবেন এমন আশায় নিজ দেশ ছেড়ে না আসার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির শুল্ক এবং সীমান্ত সুরক্ষা সংস্থার কমিশনার মার্ক মরগ্যান। তিনি বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সরকার পরিবর্তন হলেও আইনের শাসন ও জনস্বাস্থ্যের বিষয়টি প্রভাবিত হবে না। করোনা মহামারিকালে স্বাস্থ্যঝুঁকি নিতে আমরা প্রস্তুত নয়। আপনারা সময় ও অর্থ নষ্ট করে নিজ দেশ ছেড়ে বের হবেন না।</body></HTML> 2021-01-18 20:34:55 1970-01-01 00:00:00 বিয়ে না করেই প্রেমিকের সঙ্গে বসবাস করছেন ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102901 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980480_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980480_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>ব্রিটিশ ধনকুবের জেমিমা খান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী তিনি। হঠাৎ পাকিস্তানের ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইমরানের স্ত্রীকে নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। কারণ ৪৬ বছর বয়সী এই সুন্দরী নাকি নতুন ইনিংস শুরু করেছেন। বিয়ে নয়। জেমিমা and nbsp; খান ব্রিটিশ এক অভিনেতার সঙ্গে জমিয়ে প্রেম করছেন। তারা দুজনে বিয়ে না করেই একসঙ্গে বসবাস করছেন!<br>তার এই অভিনেতা প্রেমিক হলেন পিটার মর্গান। এই প্রেম নিয়ে বিস্মিত ‘দ্য ক্রাউন’- হিট সিরিজের লেখিকা ও অভিনেত্রী জিলিয়ান এন্ডারসন।<br>জানা গেছে, কিছু দিন আগেই পিটার মর্গানের সঙ্গে and nbsp; তার ছাড়াছাড়ি হয়েছে। এর মধ্যেই জেমিমা খানের সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করছেন মর্গান।<br>উল্লেখ্য, এক্স-ফাইল সিরিজে অভিনয় বিশ্ব খ্যাতি লাভ করেছিলেন জিলিয়ান এন্ডারসন (৫২)। and nbsp; পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বিবাহিত জীবনে এ দুই সন্তানের মা হন তিনি। ইমরান খানের সঙ্গে সংসার করার ৯ বছর পর ১৯৯৫ সালে তাদের বিচ্ছেদ হয়।</body></HTML> 2021-01-18 20:34:21 1970-01-01 00:00:00 মধ্যপ্রাচ্যের আকাশে মার্কিন বোমারু বিমান, উত্তেজনা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102900 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980440_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610980440_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>ক্ষমতার একদম শেষপ্রান্তে এসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রকে আবারও বড় কোনো সহিংসতায় জড়িয়ে ফেলতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশেষ করে, ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার মাত্র চারদিন আগে মার্কিনিরা মধ্যপ্রাচ্যের আকাশে পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম বি-৫২ বোম্বার বিমান ওড়ানোয় সেই আশঙ্কা আবারও বেড়েছে। অবশ্য এ অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কার্যক্রম পরিচালনাকারী কেন্দ্রীয় কমান্ড (সেন্টকম) দাবি করেছে, এটি তাদের প্রতিরক্ষা পরিকল্পনার একটি অংশ মাত্র। এ নিয়ে গত কয়েক মাসের মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যে পঞ্চমবারের মতো বি-৫২ বোম্বার ওড়ালো মার্কিন বাহিনী। বোয়িংয়ের তৈরি বিশাল বিমানটি প্রায় ৩২ হাজার কেজি গোলাবারুদ বহনে সক্ষম। সেন্ট্রাল কমান্ডের কমান্ডার জেনারেল ফ্র্যাঙ্ক ম্যাকেনজি বলেছেন, এ ধরনের মিশনগুলোর মাধ্যমে আঞ্চলিক সুরক্ষায় মার্কিন বাহিনী কতটা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, সেটাই দেখানো হচ্ছে। তিনি বলেছেন, কৌশলগত সম্পদের সাময়িক মোতায়েন এই অঞ্চলে আমাদের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আঞ্চলিক অংশীদারদের সঙ্গে প্রশিক্ষণের সুযোগ তৎপরতা বৃদ্ধি করে এবং মিত্র ও সম্ভাব্য প্রতিপক্ষগুলোর কাছে একটি পরিষ্কার বার্তা পৌঁছে দেয়। যুক্তরাষ্ট্র মুখে তেহরানকে উসকানি দেয়ার বিপক্ষে দাবি করলেও গত কয়েক সপ্তাহে ইরানের বিরুদ্ধে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন বোম্বার বিমান ওড়ানোর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। এক টুইটে তিনি বলেছেন, এটি তেহরানকে উসকানি দেয়ার একটি প্রচেষ্টা মাত্র। এভাবে সামরিক বাহিনীর পেছনে শত কোটি ডলার ব্যয় না করে সেই অর্থ মার্কিনিদের স্বাস্থ্যসেবায় ব্যয়ের পরামর্শ দিয়েছেন জাভেদ জারিফ। প্রতিপক্ষকে হুঁশিয়ারি দিয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আমরা গত ২০০ বছরের মধ্যে কোনো যুদ্ধ শুরু না করলেও আক্রমণকারীদের পিষে ফেলতে লজ্জাবোধ করব না। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যে গত দুই সপ্তাহে চারবার বড় আকারের সামরিক মহড়া দিয়েছে ইরান। গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার ওমান উপসাগরে সামরিক মহড়া চালিয়েছে দেশটির নৌবাহিনী। <br>আর ইরানি সেনাবাহিনী ড্রোন মহড়া চালিয়েছে গত ৫ ও ৬ জানুয়ারি। সূত্র: আল জাজিরা</body></HTML> 2021-01-18 20:33:29 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে চার দফা দাবিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102899 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968752_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968752_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥ </span><br>চার দফা দাবিতে ফেনী সরকারি ও বেসরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শিক্ষার্থীরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মহিপালে সড়ক অবরোধ করে। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মহাসড়কের ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভারের ঢাকামুখী অংশে প্রায় আধঘন্টা অবরোধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। <br>এ সময় যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) মাইনুল ইসলাম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আতোয়ার রহমান সেখানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করলে তারা অবরোধ থেকে সরে আসে। <br><br>শিক্ষার্থীরা অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহার ও বেসরকারি পলিটেকনিকের সেমিস্টার ফি মওকুফ করাসহ সকল প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আসন বরাদ্দ করার দাবি জানান তারা। কারিগরি ছাত্র অধিকার আন্দোলন ফেনী শাখার সমন্বয়ক শহীদুল ইসলাম সাকের, অয়ন সাহা ও মো. ফয়সাল জানান তাদের দাবি যৌক্তিক। আর এ যৌক্তিক দাবির জন্যই তারা মাঠে আন্দোলনে নেমেছেন।<br><br></body></HTML> 2021-01-18 17:18:44 1970-01-01 00:00:00 মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102898 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968521_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968521_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left"> and nbsp;বাসা থেকে মোটরসাইকেল করে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে বাসের চাপায় প্রাণ হারিয়েছেন আকাশ ইকবাল (৩৩) ও তার স্ত্রী মায়া হাজারিকা মিতু (২৫)। and nbsp; সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে প্রতিদিনের মত বাসা থেকে একইসঙ্গে বের হন আকাশ ইকবাল ও তার স্ত্রী। নিজের মোটরসাইকেল করে স্ত্রীকে তার কর্মস্থলে নামিয়ে দিয়ে আকাশ যাবেন তার নিজ কর্মস্থলে। কিন্তু পথেই ঘাতক বাসের চাপায় ঝড়ে গেলো দু’টি তাজা প্রাণ। ফরিদপুর সদর উপজেলার ধুলদি গ্রামের জাফর শেখের ছেলে আকাশ। একই এলাকাতে বাড়ি স্ত্রী মায়ারও। স্ত্রী মায়া ও চার বছরের একমাত্র মেয়ে আরফা আনজুমকে নিয়ে দক্ষিণখান মোল্লারটেক তেতুলতলা উদয়ন স্কুলের পাশে একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন তারা।<br><br>নিহত আকাশের ফুপাতো ভাই মো. মিজানুর রহমান মিন্টু জানান, ৬-৭ বছর আগে বিয়ে হয় তাদের। আকাশ উত্তরায় একটি ডেভেলপার কোম্পানিতে চাকরি করতেন। আর তার স্ত্রী মায়া বিমানবন্দরে একটি রেস্টুরেন্টে চাকরি করতেন। তাদের ৪ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। প্রতিদিন আকাশ তার মোটরসাইকেল করে মায়াকে নিয়ে বাসা থেকে বের হতেন। বিমানবন্দরে মায়াকে নামিয়ে দিয়ে তিনি উত্তরায় তার অফিসে যেতেন। আজও তারা একইসঙ্গে বের হয়েছিলো। কিন্তু আজমেরি পরিবহনের বাসের চাপায় তাদের সব স্বপ্ন নিভে গেলো।<br><br>তিনি বলেন, আকাশের বাবা-মা গ্রামে থাকেন। তার বাবা স্ট্রোকের রোগী। and nbsp; পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন আকাশ। তবে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে জানান, তাদের সন্তানকে আজই প্রথম স্কুলে ভর্তি করা হয়। নিহত আকাশের শাশুড়ি আনজুমকে নিয়ে স্কুলে গিয়েছিলেন। and nbsp;<br>সোমবার সকাল ৭টার দিকে বিমানবন্দর পদ্মা ওয়েল পাম্প গেটের সামনে আজমেরি পরিবহনের একটি বাস আকাশ ইকবালের মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে আকাশ ইকবাল ও তার স্ত্রী মায়া হাজারিকা মিতু ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে বিমানবন্দর থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ঘটনার পরপরই ঘাতক বাসটিকে জব্দ করেছে পুলিশ। তবে এর চালক পালিয়ে গেছেন।<br><br>বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিএম ফরমান আলী জানান, প্রথমে যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে স্বামী-স্ত্রী উভয়ে ছিটকে রাস্তায় পড়ে যান। পরে বাসটি তাদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তারা। and nbsp; এ ঘটনায় বাসটি জব্দ করা হলেও চালক পালিয়ে গেছেন। চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। <br></body></HTML> 2021-01-18 17:14:51 1970-01-01 00:00:00 পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মেনে নিয়ে ভ্যাকসিন নিতে হবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102897 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968200_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610968200_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনার ভ্যাকসিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে জনসাধারণকে সবধরনের চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘করোনার ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া যেটা আছে, সেটি গুরুতর নয়। এস্ট্রাজেনিকার ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম। এ জন্য আমি মনে করি, জনগণকে প্রস্তুত থাকতে হবে। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মেনে নিয়ে ভ্যাকসিন নিতে হবে।’ সোমবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।<br><br>স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনও ওষুধের কিংবা ভ্যাকসিনের সাইড ইফেক্ট থাকতে পারে। আমরা একটি ওষুধ গ্রহণ করলেও সেটার গায়ে লেখা থাকে, কী কী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে। আবার নাও হতে পারে। বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে। এস্ট্রাজেনিকার ভ্যাকসিনেও হয়েছে। আমরা ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে জনসাধারণকে সবধরনের চিকিৎসা সহায়তা দেবো।’ তিনি বলেন, ‘এ যাবৎ আমরা বাংলাদেশে যেসব ভ্যাকসিন দিয়ে থাকি সেখানেও কিন্তু সাইড ইফেক্ট আছে। কাজেই আমি মনে করি, এটাতে বড় কোনও সমস্যা হবে না।’<br><br>এ সময় জাহিদ মালিক এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমরা ৪ ডলার করে সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে টিকা কিনছি। আর পরিবহনসহ সংরক্ষণে যে এক ডলার খরচ, সেটাও দেওয়া হচ্ছে। আমাদের চুক্তি আছে যে, ভারত সরকার কম দামে কিনলে আমাদের কম দামে দেবে। বেশি দাম হলে আমরা সেই দামে নেবো না, আমরা কম দামেই নেবো। আমাদের কাছে যদি ২৫-২৬ জানুয়ারি ভ্যাকসিন চলে আসে, তারপরও আমাদের প্রিপারেশনের জন্য টাইম দরকার। আশা করি, সপ্তাহখানেকের মধ্যে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করতে পারবো।’<br><br>অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘গ্লোব বায়োটেককে আমরা সাধুবাদ জানাই। তারা একটি ভ্যাকসিন ডেভেলপ করেছে। একটি ভ্যাকসিন প্রস্তুত করতে যেসব প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়, তাদের সেগুলো অনুসরণ করে আসতে হবে। আমরা দেখবো, আমাদের দেশীয় প্রোডাক্ট যদি মানসম্পন্ন হয়, আমরা সবসময় সেটি গ্রহণ করে থাকি। আমাদের কাছে যখন যেটা সাহায্য চাইবে আমরা দেবো।’ and nbsp; ভ্যাকসিনের মূল্য নির্ধারণ প্রসঙ্গে জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা বেসরকারি পর্যায়ে ভ্যাকসিন আনার অনুমতি দেবো। একটি ভ্যাকসিনের দাম যেটা হবে, সেটি নির্ধারণ করার জন্য সরকারি প্রক্রিয়া আছে। সেই প্রক্রিয়া অনুযায়ী আমরা দামও নির্ধারণ করে দেবো। ভ্যাকসিনের যে নীতিমালা সেটিও করা হয়েছে , নীতিমালা ফাইনাল করে দেওয়া হবে। সেই নীতিমালা অনুযায়ী ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। সব ভ্যাকসিনের দাম এক হবে না। and nbsp; দেশ ভিন্নতায় ভ্যাকসিনের দাম ভিন্ন ভিন্ন হবে। কাজেই সেদিক লক্ষ্য রেখে এই দাম নির্ধারণ করে দেবো। যেভাবে আমরা টেস্টের মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছি, সেভাবে ভ্যাকসিনের দামও নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।’<br><br>অনুষ্ঠানে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে সভাপতি মুরসালিন নোমানী এবং সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে সংগঠনের সদস্যদের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রাপ্তির আহ্বান জানান। এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘প্রত্যেক সাংবাদিক করোনার টিকা পাবেন।’ </body></HTML> 2021-01-18 17:08:22 2021-01-18 17:10:30 যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ট্রাম্প সমর্থকদের অস্ত্রের মহড়া http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=102896 http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610967981_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/01/17/1610967981_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>মাত্র দুই দিন পরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিজের মেয়াদ শেষ করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন জো বাইডেন। এদিন ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকরা সশস্ত্র বিক্ষোভ করতে পারে বলে আগেই সতর্ক অবস্থান নিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। তবে প্রেসিডেন্টের শপথের দুই দিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে অস্ত্রের মহড়া দিয়েছে ট্রাম্প সমর্থকরা। রবিবার দেশজুড়ে প্রতিবাদ মিছিল করেছেন ট্রাম্পের সমর্থকরা। বেশ কিছু রাজ্যে তারা প্রতিবাদ দেখিয়েছেন। তবে পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার তারা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করেছেন। কোথাও কোনো অশান্তির ঘটনা ঘটেনি। তবে কোনো কোনো অঞ্চলে প্রতিবাদীদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। কয়েকটি জঙ্গি সংগঠনের সমর্থকদেরও রাস্তায় দেখা গিয়েছে বলে গোয়েন্দারা জানিয়েছেন। খবর রয়টার্সের।<br><br>মার্কিন ন্যাশনাল সিকিওরিটি গার্ড আগে থেকেই ৫০টি রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। গত সপ্তাহে এফবিআই যে রিপোর্ট দিয়েছিল প্রশাসনকে, তাতে স্পষ্ট বলা হয়েছিল, জো বাইডেনের শপথ গ্রহণের আগে দেশজুড়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পরিকল্পনা করছেন ট্রাম্প সমর্থকরা। শুধু তাই নয়, ক্যাপিটলের মতো ফের বড়সড় কাণ্ড ঘটাতে পারেন তারা। উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি মার্কিন পার্লামেন্ট ভবন ক্যাপিটলে হামলা চালিয়েছিল ট্রাম্প সমর্থকরা। চারজনের মৃত্যুও হয়েছিল। ওই দিনের ঘটনা মার্কিন ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক অধ্যায় হয়ে থাকবে। তারপরেই দেশ জুড়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৫ হাজার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যের রাজধানীতে এবং ওয়াশিংটনে তারা পাহারার দায়িত্ব নিয়েছেন। বেশ কিছু এলাকায় তারা ফ্ল্যাগ মার্চ করেছেন।<br><br>ট্রাম্প সমর্থকদের এখনো দাবি, নির্বাচনে ট্রাম্প বিজয়ী হয়েছেন। কারচুপি করে তাকে হারানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে গোটা দেশের একাধিক আদালতে মামলা হয়েছিল। কিন্তু কোথাও কোনো তথ্যপ্রমাণ দিতে পারেননি ট্রাম্প সমর্থকরা। তা সত্ত্বেও তারা প্রতিবাদ বজায় রেখেছেন।<br>রবিবার ওহাইয়ো, সাউথ ক্যারোলিনা, টেক্সাস এবং মিশিগানে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। কয়েকটি জায়গায় বিক্ষোভকারীদের হাতে অস্ত্র ছিল। গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, চরমপন্থি গোষ্ঠী বুগালুর সদস্যদের কোনো কোনো মিছিলে দেখতে পাওয়া গিয়েছে। তাদের হাতে অটোমেটিক রাইফেল ছিল। এই গোষ্ঠী যুক্তরাষ্ট্রের আরও একটি গৃহযুদ্ধ ঘটিয়ে সরকারকে ক্ষমতাচ্যূত করতে চায়।<br><br>রবিবার থেকেই বিভিন্ন রাজ্যে ন্যাশনাল গার্ড ধরপাকড়ও শুরু করেছে। বেশ কিছু চরমপন্থি গোষ্ঠীর সদস্যদের বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। বাইরে বেরলেই তাদের গ্রেফতার করা হবে। বেশ কয়েকটি রাজ্যে চরমপন্থি গোষ্ঠীগুলি বিক্ষোভ কর্মসূচি বাতিল করেছে বলেও গোয়েন্দারা জানিয়েছেন।<br>অন্য দিকে ওয়াশিংটনকে কার্যত দুর্গে পরিণত করা হয়েছে। বাইডেনের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যাতে কোনোরকম বিশৃঙ্খলা না হয়, তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। লোহার বাউন্ডারি দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে শপথস্থলের আশপাশ।</body></HTML> 2021-01-18 17:05:51 1970-01-01 00:00:00