http://www.hazarikapratidin.com RSS feed from hazarikapratidin.com en http://www.hazarikapratidin.com - ২১ কোটি টিকা আসবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108617 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140440_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140440_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বর্তমানে সরকারের হাতে এক কোটির ওপরে করোনার টিকা রয়েছে। আগামী মাসের মধ্যেই আরও দুই কোটি টিকা আসবে। এভাবে চীন থেকে তিন কোটি, রাশিয়া থেকে সাত কোটি, জনসন অ্যান্ড জনসনের সাত কোটি, অ্যাস্ট্রাজেনেকার তিন কোটিসহ আগামী বছরের শুরুর মধ্যেই সরকারের হাতে প্রায় ২১ কোটি টিকা চলে আসবে। এর মাধ্যমে দেশের অন্তত ৮০ ভাগ মানুষকে টিকা দিতে সক্ষম হবে সরকার। <br>আজ শনিবার বিকেলে বাংলাদেশ বেসরকারি মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ‘কোভিডের তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলায় কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি প্রতিরোধ, অক্সিজেন সংকট, হাসপাতালের সুযোগ-সুবিধা ও শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সভায় এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। জাহিদ মালেক বলেন, দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্বিঘ্ন রাখতে এবং অধিকাংশ নাগরিককে টিকার আওতায় আনতে এখন থেকে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বের নাগরিককে টিকা দেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই সরকারের আইসিটি বিভাগের আওতাধীন জাতীয় সুরক্ষা অ্যাপে ১৮ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকেরা যেন নিবন্ধন করতে পারেন, সে ব্যাপারে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামীতে ভারত থেকে প্রতি সপ্তাহে প্রায় ২০০ টন তরল অক্সিজেন আমদানি করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর সঙ্গে ৪৩টি অক্সিজেন জেনারেটর অর্ডার করা হয়েছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে চার হাজার চিকিৎসক, চার হাজার নার্সসহ বিপুলসংখ্যক টেকনোলজিস্ট নিয়োগের কাজও এগিয়ে চলেছে।<br>জাহিদ মালেক বলেন, ‘প্রতিটি দেশেই নিজ দেশের স্বাস্থ্য খাত নিয়ে উৎসাহ দিচ্ছে, প্রশংসা করছে। শুধু আমাদের দেশেই এই মহামারির সময়েও দেশের স্বাস্থ্য খাত নিয়ে সমালোচনা করে চিকিৎসক, নার্সদের মনোবল ভেঙে দিচ্ছে বিশেষ কিছু মহল। দেশের স্বাস্থ্য খাত নিয়ে গোটা বিশ্ব যখন প্রশংসা করছে তখন দেশের কিছু মহল স্বাস্থ্য খাত নিয়ে তীব্র ভাষায় সমালোচনা করে যাচ্ছে, যা মোটেও কাম্য ছিল না।’<br>খাদ্যে ভেজাল কেমিক্যাল মিশানো, নদী দখল, মানব পাচারের মতো বিষয়গুলো রেখে দেশের অতিমারি চলাকালীন অবস্থায় স্বাস্থ্য খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে যেভাবে ঢালাওভাবে সমালোচনা করা হচ্ছে সেটিকে দুঃখজনক আখ্যা দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।<br>অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বেসরকারি মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের কাছে কোভিডের তৃতীয় ধাপ মোকাবিলায় আরও শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধির অনুরোধ জানালে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে সভাপতি মুবিন খান স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে অন্তত দুই হাজার নতুন কোভিড ডেডিকেটেড শয্যা বৃদ্ধি করার আশ্বাস দেন।<br>বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এ বি এম খুরশিদ আলম, জাপান ইষ্ট ওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, গ্রীণ লাইফ মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাঈনুল আহসান, পপুলার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান, ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্ত্তী প্রমুখ।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-25 21:27:00 1970-01-01 00:00:00 ভারতে ২০২০ সালে চিকিৎসা নিতে যাওয়া বিদেশিদের ৫৪ শতাংশই বাংলাদেশি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108616 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140413_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140413_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক:<br>ভারতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া বিদেশিদের মধ্যে বাংলাদেশিদের হার ক্রমেই বাড়ছে। একযুগ আগেও ভারতে মেডিকেল ট্যুরিস্টদের মধ্যে বাংলাদেশিদের হার ছিল ২৩ শতাংশের মতো, সেখানে গত বছর এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৪ শতাংশের বেশি। ভারতের কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রণালয় প্রকাশিত সবশেষ পরিসংখ্যানে এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।<br>পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০২০ সালে ভারতে চিকিৎসার উদ্দেশ্যে যাওয়া বিদেশিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি লোক গেছে বাংলাদেশ থেকে। গত বছর ভারতের মেডিকেল ট্যুরিস্টদের মধ্যে বাংলাদেশি ছিল ৫৪ দশমিক ৩ শতাংশ। দ্বিতীয় ইরাকিরা, তাদের হার ৯ শতাংশ। এরপর আফগানিস্তান থেকে ৬ শতাংশ, মালদ্বীপ থেকে ৪ দশমিক ৫ এবং আফ্রিকার কয়েকটি দেশ থেকে গেছেন ৪ শতাংশ লোক।<br>বাংলাদেশিরা চিকিৎসা সেবার জন্য ভারতের প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার ক্ষেত্রে সেখানকার উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা ছাড়াও একই ধরনের খাবার, ভাষা, সাশ্রয়ী মূল্যে চিকিৎসা এবং সাংস্কৃতিক স্বাচ্ছন্দ্য অন্যতম প্রভাবক হিসেবে কাজ করে।<br>ভারতের ন্যাশনাল মেডিকেল অ্যান্ড ওয়েলনেস ট্যুরিজম প্রমোশন বোর্ডের সদস্য প্রখ্যাত চিকিৎসক দেবী শেঠি জানান, তাদের বিদেশি রোগীদের মধ্যে বেশিরভাগই যান জটিল হার্ট সার্জারি এবং ক্যান্সারের চিকিৎসা করাতে। করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর থেকে বিদেশি রোগীর সংখ্যা একেবারেই কমে গেছে। এটি আবার আগের অবস্থায় ফিরতে কয়েক মাস লাগতে পারে।<br>ডা. দেবী শেঠির মতে, বাংলাদেশিরা চিকিৎসা সেবার জন্য ভারতের প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার ক্ষেত্রে সেখানকার উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা ছাড়াও একই ধরনের খাবার, ভাষা, সাশ্রয়ী মূল্যে চিকিৎসা এবং সাংস্কৃতিক স্বাচ্ছন্দ্য অন্যতম প্রভাবক হিসেবে কাজ করে।<br>ভারতীয় পর্যটন মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, ২০০৯ সালে দেশটিতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া বিদেশিদের মধ্যে বাংলাদেশিদের হার ছিল ২৩ দশমিক ৬ শতাংশ। তখন ৫৭ দশমিক ৫ শতাংশ মেডিকেল ট্যুরিস্ট নিয়ে এ তালিকার শীর্ষে ছিল মালদ্বীপ। এরপর ক্রমাগত বাংলাদেশিদের হার বেড়েছে এবং কমেছে মালদ্বীপের।<br>করোনার ধাক্কা সামলে ভারতের মেডিক্যাল টুরিজ্যম আগের অবস্থায় ফিরতে তিন থেকে ছয় মাস লাগতে পারে। ফ্লাইট চালু হওয়া, দূতাবাসগুলোতে মেডিক্যাল ভিসা ইস্যু হওয়া, এসবে সময় লাগবে। বর্তমানে শুধু জরুরি ভিসা ইস্যু করা হচ্ছে। মেডিক্যাল টুরিজ্যম ফের শুরু হতে ওইসব দেশের পাশাপাশি ভারতের মহামারি পরিস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ।<br>২০১৯ সালে ভারতে মেডিকেল ট্যুরিস্টদের মধ্যে বাংলাদেশিদের হার দাঁড়ায় ৫৭ দশমিক ৫ শতাংশ, বিপরীতে মালদ্বীপের হার নেমে আসে মাত্র ৭ দশমিক ৩ শতাংশে। ওই বছর আফগান মেডিকেল ট্যুরিস্টদের হার ছিল ১০ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১৬ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৪ দশমিক ৩ শতাংশে। ২০১৯ সালে তা কমে ৪ দশমিক ৭ শতাংশে পৌঁছায়। এরপর ২০২০ সালে আফগান মেডিকেল ট্যুরিস্টদের সংখ্যা আবারও বেড়েছে।<br>ভারতীয় স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ফোরটিস হেলথকেয়ারের ভাইস-প্রেসিডেন্ট ডা. মনীষ মাত্তো বলেন, দিল্লি এবং মুম্বাইয়ের বেশিরভাগ মেডিকেল ট্যুরিস্ট আসেন বাংলাদেশ এবং পশ্চিম এশিয়া থেকে। চেন্নাই পায় মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা এবং মরিশাস থেকে। ব্যাঙ্গালুরুর অধিকাংশ মেডিকেল ট্যুরিস্ট বাংলাদেশ, পশ্চিম এশিয়া এবং আফ্রিকান দেশগুলো থেকে আসে।<br>ডা. দেবী শেঠির মতে, করোনার ধাক্কা সামলে ভারতের মেডিকেল ট্যুরিজম আগের অবস্থায় ফিরতে তিন থেকে ছয় মাস লাগতে পারে। তিনি বলেন, ফ্লাইট চালু হওয়া, দূতাবাসগুলোতে মেডিকেল ভিসা ইস্যু হওয়া- এসবে সময় লাগবে। বর্তমানে শুধু জরুরি ভিসা ইস্যু করা হচ্ছে। মেডিকেল ট্যুরিজম ফের শুরু হতে ওইসব দেশের পাশাপাশি ভারতের মহামারি পরিস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-25 21:26:00 1970-01-01 00:00:00 দেশে এল অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ ডোজ টিকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108615 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140386_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140386_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>জাপান সরকারের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে দেয়া ২ লাখ ৪৫ হাজার ডোজ করোনার টিকা দেশে এসে পৌঁছেছে। আজ শনিবার (২৪ জুলাই) বেলা পৌনে ৩টায় টিকা নিয়ে ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছে। বিমানবন্দরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন টিকাগুলো গ্রহণ করেন। এ সময় ঢাকায় নিযুক্ত জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তারা এবং স্বাস্থ্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, ‘ইতিমধ্যে আস্ট্রাজেনেকার টিকা এসে পৌঁছেছে।’ এছাড়া আগামী শুক্রবার প্রায় ৫ লাখসহ মোট ৩০ লাখের বেশি অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জাপান সরকার দেবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে সর্বপ্রথম ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই টিকাদান গত ২৭ জানুয়ারি শুরু হয়। ইতিমধ্যে ৫৮ লাখের বেশি মানুষ প্রথম ডোজ এবং ৪৯ লাখের বেশি মানুষ দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে।<br>টিকার মজুত শেষ হয়ে আসায় প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন এমন কয়েক লাখ মানুষ দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় ছিলেন। জাপান সরকারের উপহার দেয়া এসব টিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তাদের দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের দায?িত্বশীল কর্মকর্তারা।<br><br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:26:14 1970-01-01 00:00:00 রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত হলেন ফকির আলমগীর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108614 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140364_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140364_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত হলেন কিংবদন্তি গণসংগীতশিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীর। রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন এ শিল্পী।<br>আজ শনিবার (২৪ জুলাই) বাদ জোহর দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে খিলগাঁও মাটির মসজিদে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফকির আলমগীরের ছেলে মাশুক আলমগীর রাজীব। এর আগে আজ শনিবার বেলা ১১টা ১৬ মিনিটে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ প্রাঙ্গণে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় এবং এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হয় বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক ফকির আলমগীরের মরদেহ।<br>দুপুর পৌনে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পৌঁছায় তার মরদেহ। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় শহীদ মিনারে ফকির আলমগীরের নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠিত হয়? ?‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়া হয়। বৃষ্টির কারণে দুপুর সোয়া ১২টায় নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি শুরু হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য সেখানে রাখা হয়।<br>করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ফকির আলমগীর শুক্রবার রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুকালে ফকির আলমগীরের বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।<br> and nbsp;<br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:25:50 1970-01-01 00:00:00 সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108613 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140273_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140273_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার ফলে সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।<br>তিনি বলেছেন, আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া উপনির্বাচনের সব কার্যক্রম বিধিনিষেধবহির্ভূত থাকবে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোটগ্রহণে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ও প্রশাসন কাজ করছে।<br>শনিবার (২৪ জুলাই) সকালে উপনির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিইসি এসব কথা বলেন।<br>সিইসি বলেন, নির্বাচনে ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু ভোটগ্রহণ নিশ্চিতে কঠোর অবস্থানে থাকবে প্রশাসন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সবাইকে মাস্ক পরে ও নিরাপদ দূরত্ব মেনে ভোটকেন্দ্রে আসার আহ্বান জানাচ্ছি।<br>আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলামসহ অন্য প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।<br>এসময় নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করতে সবকিছুই করছে ইসি, এ নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।’<br>উল্লেখ্য, গত ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ সামাদ চৌধুরী করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা যান। তিনি ৯ম ও ১০ম সংসদেও এ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন।<br>সিলেট-৩ আসনটি দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত। এতে ৩ লাখ ৩০ হাজার ভোটার রয়েছেন। আগামী ২৮ জুলাই সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএমে এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হবে।<br>নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হাবিবুর রহমান, জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, বাংলাদেশ কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক এমপি শফি আহমেদ চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।<br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:24:22 1970-01-01 00:00:00 ১৮ বছর হলেই যারা টিকা পাবেন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108612 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140251_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140251_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের পরিবারের যেসব সদস্যের বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি তারা সবাই টিকা পাবেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।<br>মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা নির্দেশনা দিয়েছি, যারা ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার আছে; ডাক্তার, নার্স, আর্মি, পুলিশ, নেভি, শিক্ষক-ছাত্র, তাদের আগে টিকা দেয়ার জন্য। তাদের পরিবারের যারা ১৮ বছর এবং তার ঊর্ধ্বে আছে, তাদেরকেও এর আওতায় নিয়ে আসব। এ সিদ্ধান্ত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন। তার কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছি আমরা। এখন থেকে এটা কার্যকর। সুরক্ষা অ্যাপসে আমরা এটি দিয়ে দিচ্ছি, সে অনুযায়ী কাজ হবে।’<br>শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেলে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ) আয়োজিত ‘কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি প্রতিরোধ, অক্সিজেন সংকট, হাসপাতালের সুযোগ-সুবিধা ও শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি’ শীর্ষক ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা জানান।<br>তিনি আরও বলেন, ‘আমরা জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ডে কমিটি করে দিয়েছি। আগেও কমিটি ছিল, এখন আরও জোরদার করা হয়েছে সেই কমিটি। সেই কমিটি প্রতিটি গ্রামে রোগী খুঁজবে এবং দেখবে সেই অর্ডার করেছি। প্রাথমিক স্টেজেই হাসপাতালে নেওয়া লাগলে নেওয়ার ব্যবস্থা করবে, সেই নির্দেশনা আমরা দিয়েছি। কারণ দেরি করে হাসপাতালে আসলে মারা যায়, কিছু করার থাকে না।’<br>‘তাদেরকে আরেকটি নির্দেশনা দিয়েছি যে, গ্রামের বয়স্ক লোকদের আগে টিকা দিতে হবে। তাদেরকে নিয়ে আসবা টেনে, যারা টিকা নিতে অনিহা প্রকাশ করে। তাদেরকে টিকা দেয়ার জন্য নিয়ে আসবা, নিয়ে এসে তাদেরকে টিকা দিবা। যারা কম বয়সী, তারা পরে নিলেও অসুবিধা নেই। কিন্তু বয়স্ক লোকরা মৃত্যুঝুঁকিতে আছে। তাদেরকে আগে দিতে হবে।’<br>স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা প্রতি সপ্তাহে ভারত তেকে ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন (এলএমও) আনার ব্যবস্থা করেছি। মাসে ৮০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন আসবে। আমাদের যা আছে তার সঙ্গে এগুলো যুক্ত হবে। সরকার প্রায় ৪৩টি অক্সিজেন জেনারেটর অর্ডার করেছে। আমেরিকা থেকে আমরা আড়াইশ ভেন্টিলেটর পাচ্ছি। আমেরিকায় বসবাসরত বাঙালিরা বিনামূল্য বাংলাদেশের মানুষকে উপহার হিসেবে দিচ্ছেন।’<br> and nbsp;<br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:23:59 1970-01-01 00:00:00 আওয়ামী লীগে পদ হারালেন হেলেনা জাহাঙ্গীর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108611 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140220_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140220_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের উপকমিটির সদস্যপদ হারিয়েছেন ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর।<br>নামের সঙ্গে ‘লীগ’ যুক্ত করে গড়ে ওঠা আওয়ামী লীগের অননুমোদিত একটি সংগঠনের সভাপতি পদে নাম আসার পর তার বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ নিয়েছে আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপকমিটি।<br>এই উপকমিটিতেই সদস্য ছিলেন দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর পরিচালক পদে থাকা হেলেনা জাহাঙ্গীর। জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি হিসেবেও পরিচয় দেন।<br>সম্প্রতি ফেইসবুকে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নাম আসে।<br>সেই কারণেই তাকে উপকমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি বলেন, “সে (হেলেনা) কোথা থেকে কী করে, তার কোনো ঠিক নেই। “যখন আমরা তাকে নিয়েছিলাম, তখন তো এটা জেনেই নিয়েছিলাম যে আমাদের পরিবারের একজন সদস্য। এখন যদি সে নিজে নিজেই নেতা হয়ে যায়, তাহলে আমরা কী করব?”<br>“বুঝে না বুঝে যা ইচ্ছে তাই করছেন। আর এগুলো আমাদের না জানিয়ে করেছেন। আমি ইতিমধ্যে আমাদের দপ্তরে জানিয়েছি, তাকে অব্যাহতির চিঠি দিয়ে দেওয়ার জন্য। আমাদের উপকমিটিতে যেহেতু সে নিয়মনীতি ভঙ্গ করেছে, তার সদস্যপদ আমরা বাতিল করে দিয়েছি,” বলেন চুমকি। উপকমিটিতে হেলেনার পদ পাওয়ার বিষয়ে চুমকি বলেন, “উনি তো কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য। আওয়ামী পরিবারের হিসেবেই আমি জানি। উনার জয়যাত্রা টেলিভিশন নামে একটা মিডিয়া আছে, যেটার সাথে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী মহোদয় আছেন। এই সুবাদেই উপকমিটিতে উনাকে আমরা রেখেছিলাম।”<br>‘চাকরি লীগ’ নামে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তারা দুই-তিন বছর ধরেই আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে অনুমোদন পাওয়ার চেষ্টা করছে। তবে আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, সংগঠনটির সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই।<br>এ বিষয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীর শনিবার বিকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমাকে উপকমিটি থেকে বাদ দেওয়ার কোনো চিঠি আমি পাইনি। দলীয়ভাবে কেউ কিছু বলেওনি। আর আমি তো কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা।”<br>চাকরিজীবী লীগে সম্পৃক্ততার বিষয়ে তিনি বলেন, “আমি চাকরিজীবী লীগের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলাম না। আমাকে এই কমিটিতে সভাপতি করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তাই অনেকেই ফেইসবুকে দিয়েছে। যেহেতু আমাকে সভাপতি বানানোর কথা ছিল, সেই হিসেবে কেউ হয়তবা দিয়েছেন।”<br>হেলেনা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এবং জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত এইচ এম এরশাদের পুরনো দুটি ছবিও সম্প্রতি ফেইসবুকে ছড়িয়েছে।<br>যার পরিপ্রেক্ষিতে এক ফেইসবুক পোস্টে জবাবও দিয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর।<br>তিনি লিখেছেন, “খালেদা জিয়া ও অন্যান্যদের সাথে যে ছবিগুলা ভাইরাল হচ্ছে সেটা বিয়েতে এসেছিল তখন তোলা ছবি এবং এই ছবি গুলা আমি নিজেই ফেইসবুকে দিয়েছিলাম।<br>“আমি একজন প্রকৃত ১০০% ব্যবসায়ী ও সরকারের একজন কমার্শিয়ালি ইমপোর্টেন্ট পার্সন ঈওচ...সেখান থেকে রাজনীতিতে এসেছি। বঙ্গবন্ধুর সৈনিক ছোটবেলা থেকেই। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই আমাদেরকে বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠানে যেতে হয় একটা ছবি মানুষের রাজনৈতিক পরিচয় বহন করে না।” <br><br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-25 21:23:00 1970-01-01 00:00:00 ডেঙ্গু: আক্রান্তে রেকর্ড, ঢাকার হাসপাতাগুলোতে বাড়ছে চাপ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108610 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140176_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140176_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>রাজধানীকে ক্রমাগত বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। গত একদিনে ঢাকায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ১০৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন বিভিন্ন হাসপাতালে। and nbsp;<br>স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমারজেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে। <br>হেলথ ইমারজেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের শনিবারের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, and nbsp; বর্তমানে সারা দেশে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪২২ জন রোগী। ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে বর্তমানে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৪১৯ জন। অন্যান্য বিভাগে বিভিন্ন হাসপাতালে বর্তমানে ৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত and nbsp; ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ১ হাজার ৫৭৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন বিভিন্ন হাসপাতালে। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন ১ হাজার ১৪৯ জন রোগী। <br>এ বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তিন জন; যাদের মধ্যে এক জন ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, আরেকজন একটি সংবাদমাধ্যমের কর্মী। শনিবারের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, ঢাকার সরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৫৯ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন and nbsp; পুরান ঢাকার এসএমসি ও মিটফোর্ড হাসপাতালে। এছাড়াও ঢাকা শিশু হাসপাতালে ২৩ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ জন, পিলখানার বিজিবি হাসপাতালে ১ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ১৬ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। <br>বেসরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৬১ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন এভারকেয়ার হাসপাতালে, কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ৪৪ জন, খিলগাঁওয়ের খিদমা হাসপাতালে ২৭ জন, স্কয়ার হাসপাতালে ২০ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। <br>গত বছর ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন, মারা গিয়েছিলেন ১৭৯ জন।<br>স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. রোবেদ আমিন জানিয়েছেন, বর্ষা মৌসুমে সারা দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ছে। ঢাকার পর পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন জেলায় ডেঙ্গুর উপদ্রবে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে, যাদের অনেকেই হাসপাতালের আইসিউতে চিকিৎসাধীন।<br>করোনাভাইরাসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা মেনে চলার পরামর্শ দেন রোবেদ আমিন। <br>এদিকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে কর্মসূচি জোরদার করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেলে জেল, জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। রাজধানীতে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেলে জেল, জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে।<br> and nbsp;<br><br><br></body></HTML> 2021-07-25 21:22:00 1970-01-01 00:00:00 বাংলাদেশে ফেসবুকের বিকল্প আসছে যোগাযোগ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108609 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140153_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140153_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>দেশকে আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে ফেসবুকের বিকল্প নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ‘যোগাযোগ’ আসছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, এই অ্যাপসের মাধ্যমে দেশের উদ্যোক্তারা তথ্য, উপাত্ত এবং যোগাযোগের ক্ষেত্রে নিজেদের মধ্যে একটি নিজস্ব অনলাইন মার্কেটপ্লেস ও গ্রুপ তৈরি করতে পারবে। তাছাড়া উদ্যোক্তাদের আর বিদেশ নির্ভর হতে হবে না।<br>শুক্রবার উইমেন ই-কমার্স (উই) আয়োজিত ‘এন্টারপ্রেনারশীপ মাস্টারক্লাস সিরিজ ২’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তবে এ তথ্য দেন প্রতিমন্ত্রী। পলক বলেন, ‘আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই জুম অনলাইনের বিকল্প ‘বৈঠক’অনলাইন প্লাটফর্ম এবং করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’অ্যাপস তৈরি করা হয়েছে। হোয়াটসঅ্যাপের অল্টারনেটিভ হিসেবে ‘আলাপন’নামেরও একটি প্লাটফর্ম তৈরি করা হচ্ছে।<br>তিনি আরো বলেন, আমাদের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে আইসিটি সেক্টরে ২০ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। এর মধ্যে সফলতার সঙ্গে ১৫ লাখের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হয়েছে। ই-কমার্স, হার্ডওয়ার, সফটওয়্যার ,বিপিও সেক্টর মিলে ২০২১ সালের মধ্যে ২০ লাখের বেশি কর্মসংস্থানের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হবে। এছাড়া ২০২৫ সালের মধ্যে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানি আয় করা সম্ভব হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।<br>সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে নারী উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক রেজাউল মাকসুদ জাহেদি, সিল্ক গ্লোবাল এর সিইও এবং উই এর বৈশ্বিক উপদেষ্টা সৌম্য বসু, উই এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি নাসিমা আক্তার নিশা, উই এর এডভাইজর কবির সাকিব।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:22:21 1970-01-01 00:00:00 সিএমপির চার থানার কর্মকর্তাদের শরীরে বসল ক্যামেরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108608 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140128_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140128_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: চট্টগ্রাম মহামনগর পুলিশ-সিএমপির চারটি থানার কর্মকর্তাদের গায়ে ‘বডি ওর্ন ক্যামেরা’ বসল। এর আগে ঢাকায় ট্রাফিক পুলিশ এই কার্যক্রম শুরু করলেও প্রথমবারের মতো থানা পর্যায়ে বডি ওর্ন ক্যামেরা কার্যক্রম চালু করল সিএমপি।<br>শনিবার পরীক্ষামূলকভাবে মাঠ পর্যায়ে এই কার্যক্রম শুরু করে ডবলমুরিং থানা। সিএমপির (পশ্চিম) উপ কমিশনার মো. আব্দুল ওয়ারীশ এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।<br>উপ কমিশনার আব্দুল ওয়ারীশ জানান, পাইলট প্রকল্পের আওতায় আপাতত সিএমপির চার বিভাগের চার থানা ডবলমুরিং, কোতোয়ালী, পাঁচলাইশ এবং পতেঙ্গায় এই কার্যক্রম শুরু হলো। প্রত্যেক থানাকে সাতটি করে ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে ১৬ থানায় এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।<br>ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘এসব ক্যামেরা ভ্রাম্যমাণ সিসিটিভির কাজ করবে। আমাদের চোখ এড়িয়ে গেলেও এই ক্যামেরা সবকিছু রেকর্ড করে রাখবে। এই উদ্যোগ আমাদের ডিজিটালাইজেশনের পথে আরেক ধাপ এগিয়ে নিবে।’ পুলিশের ভাষ্য মতে, বডি ওর্ন ক্যামেরা অডিও, ভিডিও এবং ছবি ক্যাপচার করা যায়। জিপিএস প্রযুক্তির মাধ্যমে যে কোনও স্থানে বসেই সবকিছু তদারকি করা যায়। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগে এই কার্যক্রম চালু হয়েছিল।<br>এগুলোর মাধ্যমে ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্যকারী যানবাহন ও চালক শনাক্ত, দুর্ঘটনা, কর্মরত ট্রাফিক পুলিশের কার্যক্রমে স্বচ্ছতা এবং ট্রাফিক পুলিশের সমন্বয় বাড়াতে সড়কে দায়িত্বরত পুলিশের অনিয়ম প্রতিরোধ ও তল্লাশি কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা হয়।<br><br> and nbsp;</body></HTML> 2021-07-24 21:21:53 1970-01-01 00:00:00 ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদাবাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108607 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140076_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140076_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>শান্তিপ্রিয় ব্যবসায়ীদের কাছে কেউ চাঁদাবাজি করতে আসলে তাদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। শনিবার চট্টগ্রাম নগরের ৩২ নম্বর আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডে কর্মহীন ৩৪০ ব্যক্তিকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার তুলে দিয়ে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। <br>ওই ওয়ার্ডের হাজারী গলি শিব বাড়ি প্রাঙ্গণে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, হাজারী গলির একটা ঐতিহ্য আছে। এখানে স্বর্ণালংকার তৈরির দক্ষ অনেক কারিগর আছেন, বিভিন্ন ধরনের স্বর্ণ ব্যবসায়ী আছেন। আপনারা শান্তিপ্রিয় মানুষ। খবর পেয়েছি আপনারা বিভিন্ন হয়রানির শিকার হচ্ছেন। যারা আপনাদের হয়রানি করছে তাদের বলে দিতে চাই, সাবধান হয়ে যান। যদি ব্যবসায়ীরা আর কোনো চাঁদাবাজি বা হয়রানির শিকার হন, তাহলে আমরা ব্যবস্থা নিতে জানি। হয়রানি ও জুলুমকারীদের বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। <br>৩২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক জহর লাল হাজারীর সভাপতিত্বে উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর and nbsp; রুমকি সেনগুপ্ত, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রতন আচার্য্য, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।<br><br> and nbsp;<br><br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:21:06 1970-01-01 00:00:00 ঈদে ৯০ লাখ ৯৩ হাজার পশু কোরবানি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108606 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140041_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140041_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>চলতি বছর পবিত্র ঈদুল আজহায় সারাদেশে ৯০ লাখ ৯৩ হাজার পশু কোরবানি করা হয়েছে। যার মধ্যে ৪০ লাখ ৫৩ হাজার ৬৭৯টি গরু-মহিষ, ৫০ লাখ ৩৮ হাজার ৮৪৮টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ৭১৫টি গবাদিপশু কোরবানি হয়েছে বলে জানিয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।<br>শনিবার (২৪ জুলাই) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ইফতেখার হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, ঢাকা বিভাগে নয় লাখ ৭৩ হাজার ৮৩৩টি গরু-মহিষ, ১২ লাখ ৬৫ হাজার ৫৬টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ৩৬৩টিসহ মোট ২২ লাখ ৩৯ হাজার ২৫২টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ১০ লাখ ৭১ হাজার ২৩১টি গরু-মহিষ, আট লাখ ২৮ হাজার ৮৬টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ২০১টিসহ মোট ১৮ লাখ ৯৯ হাজার ৫১৮টি, রাজশাহী বিভাগে ছয় লাখ ১৬ হাজার ৭৩৩টি গরু-মহিষ, ১২ লাখ ১৬ হাজার ২৮৩টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ১২৯টিসহ মোট ১৮ লাখ ৩৩ হাজার ১৪৫টি, খুলনা বিভাগে দুই লাখ ৩৯ হাজার ১৪৭টি গরু-মহিষ, ছয় লাখ ১৮ হাজার ৪৪৩টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ১১টিসহ মোট আট লাখ ৫৭ হাজার ৬০১টি গবাদিপশু কোরবানি করা হয়েছে।<br>তিনি আরও জানান, এছাড়া বরিশাল বিভাগে দুই লাখ ৬৬ হাজার ৬২১টি গরু-মহিষ, এক লাখ ৯৫ হাজার ৩৫৮টি ছাগল-ভেড়াসহ মোট চার লাখ ৬১ হাজার ৯৭৯টি, সিলেট বিভাগে দুই লাখ নয় হাজার ৫৬৯টি গরু-মহিষ, এক লাখ ৯৯ হাজার ৩৬৪টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য ৮টিসহ মোট চার লাখ আট হাজার ৯৪১টি, রংপুর বিভাগে চার লাখ ৯৬ হাজার ২২০টি গরু-মহিষ, পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার ৬৩৯টি ছাগল-ভেড়াসহ মোট ১০ লাখ ৪৪ হাজার ৮৫৯টি এবং ময়মনসিংহ বিভাগে এক লাখ ৮০ হাজার ৩২৫টি গরু-মহিষ, এক লাখ ৬৭ হাজার ৬১৯টি ছাগল-ভেড়া ও অন্যান্য তিনটিসহ মোট তিন লাখ ৪৭ হাজার ৯৪৭টি গবাদিপশু কোরবানি হয়েছে।<br>করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সরকার এ বছর অনলাইন প্ল্যাটফর্মে গবাদিপশু ক্রয়-বিক্রয় কার্যক্রম গ্রহণ করে। সরকারের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও আইসিটি বিভাগসহ অন্যান্য দফতর-সংস্থা, জেলা-উপজেলা প্রশাসন, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশসহ অন্যান্য বেসরকারি সংগঠন ডিজিটাল বাংলাদেশের সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে গবাদিপশুর ডিজিটাল হাট পরিচালনা করে। যার প্রেক্ষিতে এ বছর অনলাইনে মোট তিন লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৯টি গবাদিপশু বিক্রয় হয়েছে, যার আর্থিক মূল্য ২ হাজার ৭৩৫ কোটি ১১ লাখ ১৫ হাজার ৬৭৮ টাকা।<br>গত বছর অনলাইন প্ল্যাটফর্মে গবাদিপশু বিক্রি হয়েছিল ৮৬ হাজার ৮৭৪টি, যার আর্থিক মূল্য ছিল ৫৯৫ কোটি ৭৬ লাখ ৭৪ হাজার ৮২৯ টাকা। এ বছর গত বছরের তুলনায় প্রায় ৫ গুণ বেশি গবাদিপশু অনলাইন প্ল্যাটফর্মে বিক্রয় হয়েছে। আগামী বছর অনলাইন প্ল্যাটফর্মে গবাদিপশু ক্রয়-বিক্রয়ের পরিসর আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কাজ করবে।<br>করোনা মহামারির মধ্যেও গবাদিপশু উৎপাদন, কোরবানির পশু প্রস্তুতকরণ, অনলাইন প্ল্যাটফর্মে বিপণন কার্যক্রম পরিচালনা ও খামারিদের উদ্বুদ্ধকরণ, পশুর হাটে ভেটেরিনারি মেডিকেল সেবা প্রদানসহ সুষ্ঠুভাবে কোরবানির সার্বিক ব্যবস্থাপনার জন্য সংশ্লিষ্ট সকল প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ।<br>একই সঙ্গে স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, প্রাণিসম্পদ খাতের খামারি, উদ্যোক্তা, ডেইরি অ্যাসোসিয়েশনসহ কোরবানির সঙ্গে সম্পৃক্ত সকল সরকারি-বেসরকারি দফতর-সংস্থা ও সংগঠনকেও ধন্যবাদ জানান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ও সচিব।<br>প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের তথ্যমতে, চলতি বছরের তথ্য অনুযায়ী ৪৫ লাখ ৪৭ হাজার গরু-মহিষ, ৭৩ লাখ ৬৫ হাজার ছাগল-ভেড়া এবং অন্যান্য চার হাজার ৭৬৫ পশুসহ মোট এক কোটি ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৬৫টি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু ছিল।<br>২০২০ সালের এর সংখ্যা ছিল এক কোটি ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ৫০০টি। এর মধ্যে প্রায় ৯৪ লাখ ৫০ হাজার ২৬৩টি পশু কোরবানি করা হয়েছিল।<br> and nbsp; <br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:20:30 1970-01-01 00:00:00 পুলিশ কর্মকর্তাকে মারধর, দুই ভাই গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108605 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140011_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627140011_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>নীলফামারীর সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতাউর রহমানকে মারপিট ও পোশাক ছিঁড়ে দেয়ার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় আতিফ হোসেন (২৬) ও আতিক হোসেন (২৪) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা দু’জন সৈয়দপুর শহরের ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের ছেলে। পুলিশ জানিয়েছে, কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দর সড়কের সিএসডি মোড়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল আতিফ হোসেন। এ সময় তার ভাই আতিক হোসেন গাড়িতে বসা ছিলো। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর অভিযোগে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তার গাড়ির গতিরোধ করে।<br>বিধিনিষেধ অমান্য করার অভিযোগে ঘটনাস্থলেই তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রমিজ আলম তাকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জরিমানা পরিশোধ না করেই আতিফ হোসেন গাড়ি নিয়ে চলে যায়।<br>এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে প্রায় দুই কিলোমিটার পথ ধাওয়া করে তাকে আটক করে পুলিশ। এ সময় গাড়ি থেকে নেমে আতিফ হোসেন কর্তব্যরত পুলিশ পরিদর্শক আতাউর রহমানের উপর চড়াও হয়ে মারপিট করে এবং পোশাক ছিঁড়ে ফেলে।<br>সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসনাত খান বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত অমান্য, পুলিশের গায়ে হাত তোলা ও লকডাউন ভাঙার মতো একাধিক অপরাধ সংঘটিত করার কারণে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রমিজ আলম। আদালতের নির্দেশে শুক্রবার রাতেই উপপরিদর্শক রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।<br><br><br> and nbsp;<br><br></body></HTML> 2021-07-24 21:20:01 1970-01-01 00:00:00 টঙ্গীতে বিধিনিষেধে কারখানা খোলা রাখায় ৭০ হাজার টাকা জরিমানা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108604 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627139986_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/24/1627139986_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকারঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেও কারখানা খোলা রাখায় গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গীতে একটি প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদনকারী কারখানাকে জরিমানা করেছেন গাজীপুর জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।<br>শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে এ অভিযান পরিচালনা করেন গাজীপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না রহমান জ্যোতি।<br>গাজীপুর জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক তামান্না রহমান জ্যোতি বলেন, টঙ্গীর টিএন্ডটি বাজার এলাকায় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে এওয়ান পলিমার লিমিটেড নামের কারখানাটি পণ্য উৎপাদন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিল। বিষয়টি জানতে পেরে কারখানায় অভিযান চালানো হয়। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারখানাটিকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে কারখানার বন্ধ করে শ্রমিকদের বাড়ি চলে যেতে বলা হয়।<br>এসময় এ ওয়ান পলিমার লিমিটেডের মানবসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম জরিমানার টাকা পরিশোধ করেন।<br><br><br></body></HTML> 2021-07-25 21:19:00 1970-01-01 00:00:00 আওয়ামী লীগের উপকমিটি থেকে বহিষ্কার হচ্ছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108603 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627137633_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627137633_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আওয়ামী লীগের মহিলাবিয়ষক উপকমিটির সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার হচ্ছেন নানা আলোচিত-সমালোচিত হেলেনা জাহাঙ্গীর। আওয়ামী লীগের মহিলা বষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। and nbsp; তিনি বলেন, বির্তকিত কমর্কাণ্ডেরর কারণে মহিলাবিষয়ক উপকমিটি থেকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে বহিষ্কারের নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। দফতর সম্পাদককে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাগজ তৈরি করতে নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে। যে কোনো সময়েই বহিষ্কারের চিঠি যাবে।<br><br>জানা যায়, নানা বিষয়ে আলোচিত ও সমালোচিত ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর সম্প্রতি ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠন করেন। এতে নিজেকে সভাপতি এবং মাহবুব মনিরকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন। গত দুইদিন ধরে এই সংগঠনে জেলা-উপজেলা ও বিদেশ শাখায় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক মনোনয়ন দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্টার প্রকাশ করা হয়। এ ঘটনার পর ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি।<br><br>সংগঠনটির দাবি, গত দুই-তিন বছর ধরেই আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে অনুমোদন পাওয়ার চেষ্টা করছে তারা। যদিও আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, সংগঠনটির সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই। বিভিন্ন সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে হেলেনার তোলা ছবি পোস্ট করে তার উদ্দেশ্য নিয়েও ফেসবুকে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। <br></body></HTML> 2021-07-24 20:39:46 1970-01-01 00:00:00 অলিম্পিকের প্রথম স্বর্ণ জিতলেন চীনের ইয়াং কিয়ান http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108602 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133339_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133339_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥</span><br>শুক্রবার উদ্বোধনের পর আজ থেকে শুরু হয়ে গেল টোকিও অলিম্পিকের মেডেল রাউন্ড। যেখানে প্রথম স্বর্ণ নিয়ে গেলেন আসরের অন্যতম ফেবারিট দেশ চীনের ইয়াং কিয়ান।<br>শনিবার সকালে আসাকা শ্যুটিং রেঞ্জে নারীদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে স্বর্ণপদক জিতেছেন ইয়াং কিয়ান। ২৫১.৮ পয়েন্ট স্কোর করে আসরের প্রথম স্বর্ণটি জিতেছেন কিয়ান। যা কি না অলিম্পিক ইতিহাসে নারীদের দশ মিটার এয়ার রাইফেলে সর্বোচ্চ পয়েন্টের রেকর্ড।<br>এই ইভেন্টে দ্বিতীয় হয়ে রৌপ্যপদক জিতেছেন রাশিয়ার আনাস্তাসিয়া গালাশিনা। কিয়ানের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে গালাশিনার। তিনি পেয়েছেন ২৫১.১ পয়েন্ট।<br>২৩০.৬ পয়েন্ট নিয়ে ব্রোঞ্জপদক পেয়েছেন সুইজারল্যান্ডের নিনা ক্রিশ্চেন।</body></HTML> 2021-07-24 19:28:40 1970-01-01 00:00:00 ইসরায়েলি প্রতিপক্ষকে আলজেরিয়ান অ্যাথলেটের বয়কট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108601 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133299_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133299_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>অলিম্পিক থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন আলজেরিয়ান জুডুকা ফেথি নুরিন। জুডোর ৭৩ কেজি শ্রেণি ইভেন্টে তার সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ হতো ইসরায়েল। তার আগেই ক্রীড়া বিশ্বের সর্বোচ্চ আসর থেকে নিজের নাম মুছে ফেললেন ৩০ বছর বয়সী এই অ্যাথলেট।<br>সোমবার (২৬ জুলাই) অলিম্পিক যাত্রা শুরু হওয়ার কথা ছিল নুরিনের। যেখানে প্রতিপক্ষ হিসেবে অপেক্ষা করছিল সুদানের মোহামেদ আবদালরাসুল। ওই ম্যাচে জয় পেলেই পরের রাউন্ডে নুরিনকে খেলতে হতো ইসরায়েলের তোহার বাটবালের বিপক্ষে। যিনি দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছেন আগেই। বিশ্বের র‌্যাংকিংয়ে নয় নম্বরে থাকা নুরিন মনে করেছেন, ওই ম্যাচে না নামা উচিৎ। এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত জানিয়ে আলজেরিয়ান গণমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘অলিম্পিকে নিশ্চিত করতে বেশ কষ্ট হয়েছে, তবে ফিলিস্তিনের বিষয়টি সবকিছুর তুলনায় বিশেষ।’ জুডোর র‌্যাংকিয়ে ছয় নম্বরে থাকা তোহার বাটবালকে আগেও বয়কট করেছিলেন আলজেরিয়ান তারকা নুরিন। ২০১৯ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ বসেছিল টোকিওতেই। ওইবার বাটবালের বিপক্ষে নামতে অপরাগতা প্রকাশ করেছিলেন নুরিন। ফেথি নুরিনের এবারের সিদ্ধান্তে শাস্তি পেয়েছেন নুরিন ও তার কোচ বেন ইয়াকলিফ। ইসলায়েলের বিপক্ষে খেলতে না চাওয়ায় তাদের অলিম্পিক থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে এবং দেশে ফেরত পাঠানো হবে। আন্তর্জাতিক জুডো ফেডারেশনের (আইজেএফ) নির্বাহী কমিটি জানায়, নুরিন ও ইয়াকলিফকে সাময়িক নিষিদ্ধ করা হয়েছে।</body></HTML> 2021-07-24 19:28:07 1970-01-01 00:00:00 শ্রীলঙ্কাকে ২২৬ রানের টার্গেট দিল ভারত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108600 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133263_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133263_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে আগেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে সফররত ভারত। তৃতীয় ম্যাচে আজ টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২২৫ রান তুলে শিখর ধাওয়ানরা। ফলে জিততে হলে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে করতে হবে ২২৬ রান। কলম্বোতে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ব্যক্তিগত ১৩ রানে ফেরেন দলীয় অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। শুরুতে উইকেট পরলেও দ্বিতীয় উইকেটে পৃথ্বি শা এবং সাঞ্জু স্যামসন মিলে ইতিবাচক ব্যাটিং করতে থাকেন। ৪৯ রান করেন শা। আর স্যামসনের সংগ্রহ ৪৬ রান। এছাড়া সূর্যকুমার যাদব ব্যাট হাতে তুলেছেন ৪০ রান।<br>এমন সময় বৃষ্টি শুরু হলে ম্যাচের পরিধি কমিয়ে ৪৭ ওভারে করে আনা হয়। বৃষ্টি আগে ম্যাচটা ভারতের পক্ষে থাকলেও বৃষ্টির পরে ক্রিজে দাঁড়াতেই পারেননি সফররত ভারতের ব্যাটসম্যানরা। পরের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৯ রান ছিল হার্দিক পান্ডিয়ার। ফলে ভারতের ইনিংস থেমেছে ২২৫ রান।<br>শ্রীলঙ্কার পক্ষে সর্বোচ্চ তিনটি করে উইকেট নেন আকিলা ধনঞ্জয়া এবং প্রবীণ জয়াবিক্রমা। এছাড়া দুটি উইকেট নেন দুশমান্থ চামিরা।</body></HTML> 2021-07-24 19:27:28 1970-01-01 00:00:00 মীরাবাইয়ের হাত ধরে প্রথম পদক পেল ভারত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108599 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133231_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133231_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>চানু সাইখোম মীরাবাইয়ের হাত ধরে টোকিও অলিম্পিকে প্রথম পদক জিতল ভারত। তবে স্বর্ণ পদক নয়, ভারোত্তোলনে রুপার পদক এনে দিলেন মীরাবাই। ভারোত্তোলনে ৪৯ কেজি বিভাগে চীনের প্রতিনিধি হোউ ঝিহুইর কাছে হেরে স্বর্ণ হাতছাড়া করেন মীরাবাই।<br>আজ শনিবার দিনের শুরুতে টোকিও অলিম্পিকের প্রথম স্বর্ণ পদক জিতে চীন। সেটি ছিল মেয়েদের শুটিং রেঞ্জে। এবার ভারোত্তোলনেও প্রথম পদক জিতল চীন।<br>চীনের হোউ ঝিহুই তৃতীয় চেষ্টায় ৯৪ কেজি ওজন তোলেন। তাতেই ভারতের মীরাবাইকে হারিয়ে দেন চীনের তারকা। দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে অলিম্পিকে ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনার পদক জেতা হলো না মীরাবাইর। এর আগে ২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকে শুটিংয়ে প্রথমবার সোনার পদক জিতেছিলেন অভিনব বিন্দ্রা। দ্বিতীয় নারী ভারোত্তোলক হিসেবে অলিম্পিকে পদক জিতলেন তিনি। এর আগে ২০০০ সালের সিডনি অলিম্পিকে ৬৯ কেজি বিভাগে ব্রোঞ্জ জেতেন কারানাম মল্লেশ্বরী। চলমান টোকিও অলিম্পিকসের প্রথম স্বর্ণ জিতেছেন চীনের শুটার ইয়াং কিয়ান। অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে প্রথম স্বর্ণ নিজের করে নিয়েছেন চীনের এই প্রতিনিধি। আসাকা শুটিং রেঞ্জে মেয়েদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে ২৫১.৮ স্কোর গড়ে রাশিয়ার আনাস্তাসিয়া গালাশিনাকে টপকে প্রথম স্বর্ণ জিতেছেন কিয়ান।<br>মাত্র ০.৭ স্কোরের জন্য স্বর্ণ জেতা হয়নি রাশিয়ার প্রতিযোগি গালাশিনার। তিনি and nbsp; ২৫১.১ স্কোর গড়ে রুপা জিতেছেন। আর ব্রোঞ্জ জিতেছেন সুইজারল্যান্ডের নিনা ক্রিস্টেন। তিনি পেয়েছেন ২৩০.৬ পয়েন্ট।</body></HTML> 2021-07-24 19:26:54 1970-01-01 00:00:00 ফেনীর দাগনভূঞায় দুটি সিএনজি অটোরিকশায় আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108598 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133187_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133187_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left"> and nbsp;ফেনী প্রতিনিধি ॥</span><br>ফেনীর দাগনভূঞায় বসতঘরের দরজা বাইরের দিক আটকিয়ে উঠোনে রাখা দুটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (২৩ জুলাই) ভোর রাতে উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের সাফুয়া এতিমখানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।<br><div>পুলিশ, ভুক্তভোগী ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শুক্রবার ভোর রাতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা ওই বাড়ির স্বপনের ঘরের দরজা-জানালায় লাঠিসোটা দিয়ে আঘাত করতে থাকে। এ সময় ঘরে থাকা লোকজন বের হওয়ার চেষ্টা করলে তারা দেখতে পান দরজা বাইরের দিক দিয়ে আটকানো। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই দুর্বৃত্তরা উঠোনে রাখা দুটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় আগুন লাগিয়ে চলে যায়।</div><div><br></div><div>এ ঘটনায় সিএনজির মালিক জয়নাল আবেদিন ও আহসান উল্লাহ বাদী হয়ে দাগনভূঞা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়া বাড়ির মালিক স্বপনও তার উঠোনে রাখা গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। বাড়ির মালিক জিয়াউল হক স্বপন বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে জয়নাল ও আহসান তাদের সিএনজিগুলো আমাদের উঠোনে রাতে রাখেন। গতরাতে আমাদের ঘরের দরজায় বাইরে থেকে তালা আটকিয়ে সেগুলোতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে।’</div><div><br></div>নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে স্বপনের ছেলের সঙ্গে একই এলাকার ছেনু সুয়ানী বাড়ির নাছিরের মেয়ের প্রেম চলছিল। পরিবারের সম্মতি না পেয়ে ঈদের আগের দিন মঙ্গলবার তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নাছির তার মেয়েকে খুঁজে পেতে দাগনভূঞা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ এ বিষয়ে ছেলের বাবা স্বপন ও আশপাশের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই তরুণীকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।<br>এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্বপন অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার ছেলে ও নাছিরের মেয়ে পালিয়ে যাওয়ার পর বুধবার ঈদের দিন নাছির আমার বাড়িতে এসে আমাকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছে। মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে নাছির এবং তার ছেলেরা এ অগ্নিসংযোগ করেছে। বিষয়টি আমি থানায় অবহিত করেছি।’<br>এ বিষয়ে দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ উদ্দিন বলেন, ‘রাজাপুরের সাফুয়ায় সিএনজিতে আগুন লাগানোর ঘটনায় মামলা রেকর্ড হয়েছে। পুলিশ আসামি শনাক্ত করে আদালতে সোপর্দ করতে প্রয়োজনীয় চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।</body></HTML> 2021-07-24 19:25:51 1970-01-01 00:00:00 পরকীয়ার জেরে ব্যবসায়ীকে হত্যা, দম্পতি গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108597 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133034_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627133034_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে পরকীয়ার জেরে বেলায়েত হোসেন রিপন (৪২) নামের এক ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় এক নারীসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে পরকীয়ার জেরে এ হত্যাকা-ের ঘটনা ঘটেছে বলে জানান পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ।<br>শুক্রবার (২৩ জুলাই) দুপুরে উপজেলার গঙ্গারামপুর গ্রামের একটি বিল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধারের পর রাতেই সন্দেহভাজন মো. ফজলুর রহমান (৪৫) ও তার স্ত্রী মোসাম্মদ আমেনা বেগম (৩০) আটক করে পুলিশ। পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, হত্যা রহস্য উদঘাটনে পুলিশ প্রাথমিকভাবে সন্দেহভাজন মো. ফজলুর রহমান ও তার স্ত্রী আমেনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। এক পর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে আসামী ফজলুর রহমানের স্ত্রীর সঙ্গে নিহত বেলায়েত হোসেনের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। যে বিষয়ে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার সালিশ-বৈঠকও হয়েছে। ঘটনার দিন ২২ জুলাই (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা সাতটায় বেলায়েত হোসেন মোবাইলে আমেনা বেগমকে কল করে তার স্বামী ফজলুর রহমান বাড়িতে আছে কিনা জানতে চান। আমেনা বেগম জানান তার স্বামী বাড়িতে নেই। সাড়ে সাতটার সময় আবারও কল করে একই কথা জানতে চাইলে আমেনা একই উত্তর দেন।<br>পরে সে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য আমেনা বেগমের বাড়িতে যায় বেলায়েত। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই আমেনার স্বামী ফজলুর রহমান বাড়িতে চলে আসেন। এক পর্যায়ে বেলায়েতকে দেখে ফেলেন ফজলুর রহমান। বেলায়ের দৌড়ে পালানোর সময় লাইলনের একটি জালে আটকাপড়েন। এসময় ফজলুর রহমানের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত কলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। পরে স্বামী-স্ত্রী বেলায়েতের মরদেহ পাশের বিলে রেখে আসেন।</body></HTML> 2021-07-24 19:23:31 1970-01-01 00:00:00 ফেইক আইডি খুলে ব্ল্যাকমেইল পুলিশের খাঁচায় ক্লোন-মাস্টার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108596 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627132964_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627132964_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥ and nbsp; and nbsp; </span><br><div>ফেসবুকে বিভিন্ন জনের নামে ফেইক আইডি খুলে নানা কৌশলে তাদেরকে ব্ল্যাকমেইলের ফাঁদে ফেলাই ছিল তার নেশা ও পেশা। পড়াশুনায় এসএসসির গ-ি পেরোতে না পারলেও আইডি ক্লোন এবং ব্ল্যাকমেইলিং বিদ্যায় ছিলেন সিদ্ধহস্ত। টার্গেট ব্যক্তির নাম ও ছবি ব্যবহার করে একদম নিখুঁতভাবে তাদের ফেসবুক একাউন্টের অবিকল প্রতিরূপ বানিয়ে ফেলা তার কাছে ছিল ডালভাত। গর্বভরে নিজের পরিচয় দিতেন ক্লোন-মাস্টার হিসেবে। বলা হচ্ছে- বছর ঊনিশের বিপথগামী তরুণ চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলাধীন সরফভাটা এলাকার বাসিন্দা মো. শাহেদ ওরফে নাজমুল ফারুক ওরফে তাসিনের কথা। দীর্ঘদিন যাবৎ বিপুল পরিমাণ ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট খুলে প্রতারণা করার পর অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে এখন তিনি শ্রীঘরে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঈদুল আজহার দিন (২১ জুলাই) ভোরে চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার-এএসপি (রাঙ্গুনিয়া রাউজান সার্কেল) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম'র নেতৃত্বে রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশের একটি চৌকস দল অভিযান পরিচালনা করে সরফভাটা ভূমিরখীল এলাকাস্থ বসতবাড়ি থেকে শাহেদকে গ্রেফতার করে। <br></div><div><br></div>আটককৃত শাহেদ দুবাই প্রবাসী নাজের আহমদের একমাত্র সন্তান। গ্রেফতারের পর শাহেদের মুঠোফোন পরীক্ষা করে সেখানে তার পরিচিত অনেকেরই (বিশেষত নারী) 'ক্লোনড' ফেসবুক আইডি লগইন করা অবস্থায় পাওয়া যায়।<br><div>আরও দেখা যায় যে, বেশ কয়েকজন নারীর ক্লোন করা আইডি হতে শাহেদ নিয়মিত নোংরা, অশালীন, অরুচিকর ছবি পোস্ট করে তাদের সম্মানহানি ঘটিয়ে থাকেন। আবার এসব আইডি হতে অন্য অনেক নারীর সাথে অত্যন্ত অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে চ্যাট করা হয়। মেলে ব্ল্যাকমেইলিং এর প্রমাণও। এছাড়াও গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাহেদ পুলিশ কর্মকর্তাদের নিকট তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ স্বীকার করে নেয়ার পাশাপাশি আরও বিপুল পরিমাণ ক্লোন আইডি তৈরি করে প্রতারণা করার পর সেগুলো স্থায়ীভাবে মুছে ফেলার (পার্মানেন্ট ডিলিট) কথা জানায়। স্থানীয়ভাবে খোঁজ নিয়ে জানা যায় যে, সাইবার ব্ল্যাকমেইলিং-এর শিকার হওয়া এক ছাত্রী মাসখানেক আগে পুলিশ সদরদপ্তর পরিচালিত চড়ষরপব ঈুনবৎ ঝঁঢ়ঢ়ড়ৎঃ ভড়ৎ ডড়সবহ (চঈঝড) ফেসবুক পেজে এ বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অজানা ব্ল্যাকমেইলার ওই ছাত্রীর বন্ধুর ফেসবুক আইডি ক্লোন করে সেখানে নোংরা ক্যাপশন দিয়ে তাঁর ও তাঁর বন্ধুর ছবি পোস্ট করছেন। মেসেঞ্জারে যোগাযোগ করা হলে ক্লোনকারী ব্যক্তি এ-ও হুমকি দেন যে, তার চাহিদাকৃত টাকা পরিশোধ না করা হলে তিনি ওই ছাত্রী এবং তার বন্ধুর ছবিকে ন্যুড ছবি বানিয়ে ফেসবুকে ছেড়ে দিবেন। পরিস্থিতির আকস্মিকতা ও ঘটনার ভয়াবহতায় রীতিমতো মুষড়ে পড়েন ওই ছাত্রী। অনেকের কাছে সাহায্য চেয়েও কোনও লাভ হয়নি। এ সময় তিনি বহুবার আত্মহত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন মর্মেও জানা যায়।</div><div><br></div>পুলিশ সূত্র জানায়, পেজের দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ কর্মকর্তারা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজন ব্যক্তির আদ্যোপান্ত তথ্য সংগ্রহ করতে সমর্থ হন। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে চিহ্নিত হন সম্ভাব্য অপরাধী। সেই সূত্র ধরে পরবর্তীতে চট্টগ্রামের পুলিশ সুপারের নির্দেশে সহকারী পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন শামীম দুইদিনের চেষ্টায় সম্ভাব্য আসামির অবস্থান শনাক্ত ও ২১ জুলাই ভোর রাতে কৌশলে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। এর আগে গত ২০ জুলাই রাত পৌনে ১২টায় ওই ছাত্রীর ছেলে সহপাঠী বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর ২৫ (১) (ক), ২৬ এবং ২৯ ধারায় রাঙ্গুনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।এ প্রসঙ্গে সহকারী পুলিশ সুপার মো. and nbsp; আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, সাইবার অপরাধে যুক্ত থাকার অভিযোগে আসামি মো. শাহেদকে চিহ্নিত ও গ্রেফতার করা হয়েছে। এমন জঘন্য অপকর্মে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভবিষ্যতেও কঠোর অবস্থান বজায় রাখবে পুলিশ। সাইবার স্পেসকে নিরাপদ করতে পুলিশের এই দ্রুত ও কার্যকর পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন স্থানীয়রাও। </body></HTML> 2021-07-24 19:20:36 2021-07-24 19:23:12 শিশু গৃহকর্মী নির্যাতন: সেই মানবাধিকার নেত্রী গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108595 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627132810_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627132810_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>বান্দরবানে নয় বছরের শিশুকে জ্বলন্ত কয়েল দিয়ে নির্যাতনের অভিযোগে সেই মানবাধিকার নেত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।<br>বান্দরবান সদর থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর মো. সোহাগ রানা বলেন, আজ সকালে শিশু নির্যাতনের অভিযোগের মামলায় মানবাধিকার নেত্রী ও আইনজীবী সারাহ সুদীপা ইউনুছকে বান্দরবান পৌরসভার বনরুপা পাড়া এলাকার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার অপর আসামি সারাহ সুদীপার স্বামী ফয়সাল আহম্মেদ পলাতক রয়েছেন বলে জানান তিনি। শিশুটির অভিযোগ, 'সুদীপা ম্যাডাম আমাকে জ্বলন্ত মশার কয়েল দিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে ছ্যাঁকা দিয়েছে। ওনার স্বামীর খাবার তাড়াতাড়ি বানাইনি বলে ম্যাডাম বলেছে, আমাকে বাড়ির দোতলা থেকে ফেলে দিয়ে মেরে ফেলবে।' মামলার বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়েছিল, বান্দরবান পৌরসভার বনরুপা পাড়া এলাকার সারাহ সুদীপা ইউনুছ এবং তার স্বামী ফয়সাল আহম্মেদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গত ১৯ জুলাই সকালে তাদের বাসা থেকে নয় বছরের শিশুটি পালিয়ে যায়। সারাহ সুদীপা শিশুটিকে জ্বলন্ত কয়েল দিয়ে ছ্যাঁকা দেয়। রান্নাঘর ধোয়ামোছার কাজ কেন ধীরে করছে অভিযোগে শিশুটির পিঠে ঝাড়ু দিয়ে আঘাত করে জখম করেন। শিশুটি তাদের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করত। তবে, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের পরিবর্তে শিশু আইনের ২০১৩-এর ৭০/৮০ (১) ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ।<br>মামলার বাদী রওশন আরা বলেন, 'আমি গরিব মানুষ। পড়ালেখা জানি না, আমার and nbsp; কাছ থেকে পুলিশ স্বাক্ষর নিয়েছে। মামলার কাগজে কী লিখেছে আমি কিছুই জানি না।'<br>সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, যেহেতু জ্বলন্ত মশার কয়েল দিয়ে শিশুটিকে নির্যাতনের অভিযোগ মামলায় উল্লেখ আছে, সেহেতু মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে হওয়াটা যুক্তিযুক্ত ছিল। তবে তদন্তকারী কর্মকর্তার এখনও সুযোগ আছে তদন্ত শেষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযোগপত্র দাখিল করার।</body></HTML> 2021-07-24 19:19:08 1970-01-01 00:00:00 করোনা কেড়ে নিলো প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক ডিজি মাহামুদুর রহমানকে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108594 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122788_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122788_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সাবেক মহাপরিচালক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ড.মো মাহামুদুর রহমান নিরু আর নেই (ইন্না -লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আজ ভোর ৩ টা ৪০ মিনিটের দিকে ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি করোনাসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন। <br><div>মাহামুদুর রহমানের পিতা মজিবর রহমান তালুকদার ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এছাড়া মজিবর রহমান তালুকদার পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরগুনা-৩ আমতলীর আসনের দুইবারের সংসদ সদস্য ছিলেন। মাহামুদুর রহমান ভাইদের মধ্যে মেঝো ছিলেন। <br></div><div><br></div><div>১৯৮৫ সালের ব্যাচে প্রশাসন ক্যাডারে চাকরিতে প্রবেশ করেন। চাকরি জীবনে তিনি একজন সৎ ও দক্ষ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি আনু মাহমুদ নামে অর্থনীতির ওপর ব্ই ও কলাম লিখতেন। বঙ্গবন্ধু ও অর্থনীতির উপর তার লেখা বহু বই প্রকাশিত হয়েছে। মাহামুদুর রহমান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক পদে ছাড়াও সাবেক রাজনৈতিক উপদেস্টা ডা. এস এ মালেক ও সাবেক রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের একান্ত সচিব (পিএস) হিসেবেও কিছুকাল দায়িত্ব পালন করেন। তার স্ত্রী শিক্ষা ক্যডারের কর্মকর্তা ড. আনোয়ারা বেগম পিএসসির সদস্য ছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সরকারের সাবেক এ অতিরিক্ত সচিব স্ত্রী, এক কন্যা ও ২ ছেলেসহ বহু আত্নীয় স্বজন রেখে গেছেন। স্বজনরা তার মরদেহ পটুয়াখালী নিয়ে যাচ্ছেন। সেখানে জানাজা শেষে তাকে পটুয়াখালী কবর স্থানে দাফন করা হবে। </div></body></HTML> 2021-07-24 16:32:21 1970-01-01 00:00:00 ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১০৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108593 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122666_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122666_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে চলতি বছরের রেকর্ড সংখ্যক ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তারা সবাই ঢাকার বাসিন্দা। শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্যে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১০৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এর আগে একদিনে সর্বোচ্চ ৮৫ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছিল শুক্রবার (২৩ জুলাই)।<br>এ নিয়ে জুলাই মাসের ২৪ দিনেই ১ হাজার ২০২ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। তাদের ৯৯ শতাংশই ঢাকায়।<br><br>অধিদফতর জানিয়েছে, সারাদেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে এখন পর্যন্ত ৪২২ জন রোগী ভর্তি আছে। এর মধ্যে ঢাকাতেই আছে ৪১৯ জন, বাকি ৩ জন ঢাকার বাইরে অন্য বিভাগে। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৪ জুলাই পর্যন্ত ১ হাজার ৫৭৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন এবং হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ১ হাজার ১৪৯ জন। এ বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে ৩ জনের মৃত্যুর তথ্য পর্যালোচনার জন্য রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।</body></HTML> 2021-07-24 16:30:40 1970-01-01 00:00:00 রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108592 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122175_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><div><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122175_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের নয়াগাঁওয়ের তিন নম্বর ঘাট এলাকার একটি বাসা থেকে মা ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, দুটি মরদেহের গলায় রশির দাগ আছে। আজ শনিবার সকালে তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়। আজ শনিবার দুপুরে বিষয়টি জানিয়েছেন কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান। নিহতরা হলেন ফুলবাঁশি দাস (৩৪) এবং তাঁর ১১ বছরের মেয়ে সুমি দাস।<br></div><br>ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘এটা আত্মহত্যা নাকি হত্যা তা যাচাই করতে সন্দেহভাজন হিসেবে ফুলবাঁশির স্বামী মুকুন্দ চন্দ্র দাস (৩৬) ও তাঁর বড় মেয়ে ঝুমা রানী দাসকে (১৪) জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। এ ঘটনায় বিস্তারিত তদন্ত করা হচ্ছে। এটা হত্যাও হতে পারে। আত্মহত্যাও হতে পারে। তবে ঘটনাস্থলে একটি রশি পাওয়া গেছে। দুজনের মরদেহের গলায় দাগ পাওয়া গেছে।’<br><br>ওসি আরও জানান, and nbsp; মুকুন্দ চন্দ্র দাস ভ্যানগাড়িতে করে সবজি বিক্রি করেন। আবার দিনমজুরের কাজও করেন। মাঝে মাঝে তিনি ঠেলাগাড়িও চালান। বড় মেয়ে ঝুমা ভোর ৫টার দিকে ঘুম থেকে উঠে মা এবং বোনকে অচেতন অবস্থায় দেখে চিৎকার শুরু করে। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ঘরে এসে দেখেন মা-মেয়ে অচেতন অবস্থায় পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। সুরতহাল শেষে মরদেহ দুটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।<br><br>পুলিশ বলেছে, তাঁদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায়। ১০ বছর ধরে পরিবারটি কামরাঙ্গীরচরের নয়াগাঁও এলাকার একটি বাসায় ভাড়া থাকেন। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, পরিবারটিতে অর্থনৈতিক টানাপোড়েন ছিল। এ নিয়ে পারিবারিক কলহও ছিল।<br><br></body></HTML> 2021-07-24 16:22:29 1970-01-01 00:00:00 জাপান থেকে এল অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ লাখ ৪৫ হাজার টিকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108591 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122021_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627122021_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জাপান সরকারের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে দেয়া ২ লাখ ৪৫ হাজার ডোজ করোনার টিকা দেশে এসে পৌঁছেছে। আজ শনিবার (২৪ জুলাই) বেলা পৌনে ৩টায় টিকা নিয়ে ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছে। বিমানবন্দরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন টিকাগুলো গ্রহণ করেন। এ সময় ঢাকায় নিযুক্ত জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তারা এবং স্বাস্থ্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।<br><br>বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, ‘ইতিমধ্যে আস্ট্রাজেনেকার টিকা এসে পৌঁছেছে।’ এছাড়া আগামী শুক্রবার প্রায় ৫ লাখসহ মোট ৩০ লাখের বেশি অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জাপান সরকার দেবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান।<br><br>করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে সর্বপ্রথম ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই টিকাদান গত ২৭ জানুয়ারি শুরু হয়। ইতিমধ্যে ৫৮ লাখের বেশি মানুষ প্রথম ডোজ এবং ৪৯ লাখের বেশি মানুষ দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে।<br>টিকার মজুত শেষ হয়ে আসায় প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন এমন কয়েক লাখ মানুষ দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় ছিলেন। জাপান সরকারের উপহার দেয়া এসব টিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তাদের দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।</body></HTML> 2021-07-24 16:18:43 1970-01-01 00:00:00 বাংলাদেশে ফেসবুকের বিকল্প আসছে যোগাযোগ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108590 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121842_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121842_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দেশকে আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে ফেসবুকের বিকল্প নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ‘যোগাযোগ’ আসছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, এই অ্যাপসের মাধ্যমে দেশের উদ্যোক্তারা তথ্য, উপাত্ত এবং যোগাযোগের ক্ষেত্রে নিজেদের মধ্যে একটি নিজস্ব অনলাইন মার্কেটপ্লেস ও গ্রুপ তৈরি করতে পারবে। তাছাড়া উদ্যোক্তাদের আর বিদেশ নির্ভর হতে হবে না।<br><br>শুক্রবার উইমেন ই-কমার্স (উই) আয়োজিত ‘এন্টারপ্রেনারশীপ মাস্টারক্লাস সিরিজ ২’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তবে এ তথ্য দেন প্রতিমন্ত্রী। পলক বলেন, ‘আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই জুম অনলাইনের বিকল্প ‘বৈঠক’অনলাইন প্লাটফর্ম এবং করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’অ্যাপস তৈরি করা হয়েছে। হোয়াটসঅ্যাপের অল্টারনেটিভ হিসেবে ‘আলাপন’নামেরও একটি প্লাটফর্ম তৈরি করা হচ্ছে।<br><br>তিনি আরো বলেন, আমাদের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে আইসিটি সেক্টরে ২০ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। এর মধ্যে সফলতার সঙ্গে ১৫ লাখের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হয়েছে। ই-কমার্স, হার্ডওয়ার, সফটওয়্যার ,বিপিও সেক্টর মিলে ২০২১ সালের মধ্যে ২০ লাখের বেশি কর্মসংস্থানের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হবে। এছাড়া ২০২৫ সালের মধ্যে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানি আয় করা সম্ভব হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।<br><br>সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে নারী উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক রেজাউল মাকসুদ জাহেদি, সিল্ক গ্লোবাল এর সিইও এবং উই এর বৈশ্বিক উপদেষ্টা সৌম্য বসু, উই এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি নাসিমা আক্তার নিশা, উই এর এডভাইজর কবির সাকিব।</body></HTML> 2021-07-24 16:15:10 1970-01-01 00:00:00 পুলিশ কর্মকর্তাকে মারধর, দুই ভাই গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108589 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121627_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121627_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">নীলফামারীর সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতাউর রহমানকে মারপিট ও পোশাক ছিঁড়ে দেয়ার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় আতিফ হোসেন (২৬) ও আতিক হোসেন (২৪) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা দু’জন সৈয়দপুর শহরের ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের ছেলে। পুলিশ জানিয়েছে, কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দর সড়কের সিএসডি মোড়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল আতিফ হোসেন। এ সময় তার ভাই আতিক হোসেন গাড়িতে বসা ছিলো। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর অভিযোগে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তার গাড়ির গতিরোধ করে।<br><br>বিধিনিষেধ অমান্য করার অভিযোগে ঘটনাস্থলেই তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রমিজ আলম তাকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জরিমানা পরিশোধ না করেই আতিফ হোসেন গাড়ি নিয়ে চলে যায়।<br>এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে প্রায় দুই কিলোমিটার পথ ধাওয়া করে তাকে আটক করে পুলিশ। এ সময় গাড়ি থেকে নেমে আতিফ হোসেন কর্তব্যরত পুলিশ পরিদর্শক আতাউর রহমানের উপর চড়াও হয়ে মারপিট করে এবং পোশাক ছিঁড়ে ফেলে।<br><br>সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসনাত খান বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত অমান্য, পুলিশের গায়ে হাত তোলা ও লকডাউন ভাঙার মতো একাধিক অপরাধ সংঘটিত করার কারণে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রমিজ আলম। আদালতের নির্দেশে শুক্রবার রাতেই উপপরিদর্শক রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।</body></HTML> 2021-07-24 16:13:27 1970-01-01 00:00:00 চিরনিদ্রায় শায়িত ফকির আলমগীর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108588 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121532_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627121532_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বিনোদন ডেস্ক </span><br>রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত হলেন কিংবদন্তি গণসংগীতশিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীর। রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন এ শিল্পী। আজ শনিবার (২৪ জুলাই) বাদ জোহর দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে খিলগাঁও মাটির মসজিদে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফকির আলমগীরের ছেলে মাশুক আলমগীর রাজীব।<br><br>এর আগে আজ শনিবার বেলা ১১টা ১৬ মিনিটে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ প্রাঙ্গণে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় এবং এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হয় বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক ফকির আলমগীরের মরদেহ।<br><br>দুপুর পৌনে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পৌঁছায় তার মরদেহ। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় শহীদ মিনারে ফকির আলমগীরের নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠিত হয়৷ ‌‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়া হয়। বৃষ্টির কারণে দুপুর সোয়া ১২টায় নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি শুরু হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য সেখানে রাখা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ফকির আলমগীর শুক্রবার রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুকালে ফকির আলমগীরের বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।</body></HTML> 2021-07-24 16:11:00 1970-01-01 00:00:00 ভাই আমাকে ক্ষমা করেন, কোনো শয্যা নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108587 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627045322_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627045322_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আফরোজা জাহানের (৩২) করোনা শনাক্ত হয়েছে পাঁচ দিন আগে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হয়। অভিভাবকেরা তাঁকে বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। কোনো হাসপাতালে শয্যা খালি পাচ্ছেন না তাঁরা।<br>চট্টগ্রামের সরকারি–বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগী এখন দিন দিন বাড়ছে। কোনো হাসপাতালে শয্যা খালি পাওয়া যাচ্ছে না। সরকারিভাবে কিছু শয্যা ফাঁকা দেখানো হলেও ওই সব হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগী ব্যবস্থাপনার জন্য, সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম, হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা এবং নিবিড় পরিচর্যার কেন্দ্রের (আইসিইউ) মতো ব্যবস্থাগুলো নেই। ফলে হাসপাতালের শয্যার জন্য স্বজনেরা এই হাসপাতাল থেকে ওই হাসপাতালে ছুটছেন। আর বিফল হচ্ছেন। <br><br>নগরের ম্যাক্স হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য সব মিলে ৬০টি শয্যা রয়েছে। কিন্তু এর মধ্যে ৭০ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। একজন রোগী ভর্তির জন্য অনুরোধ করা হলে হাসপাতালটির মহাব্যবস্থাপক রঞ্জন দাশগুপ্ত বলেন, ‘ভাই, আমাকে ক্ষমা করেন। কোনো শয্যা নেই। কোনো কেবিনে দুজন করে একই পরিবারের রোগী রয়েছেন। আইসিইউ শয্যাও খালি নেই।’<br><br>সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে আজ বৃহস্পতিবার মোট ১ হাজার ২৬৪ করোনা রোগী ভর্তি রয়েছেন বলে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি আইসিইউতে ১০৯ জন ভর্তি রয়েছেন। আইসিইউতে ১০ এবং সাধারণ শয্যা ৩০ শতাংশ ফাঁকা দাবি করা হয় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের দৈনিক প্রতিবেদনে। কিন্তু প্রকৃত চিত্র উল্টো। সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হলি ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ৬০ রোগী ভর্তির সক্ষমতা থাকলেও সেখানে পর্যাপ্ত অক্সিজেনসহ সুযোগ–সুবিধা নেই।<br><br>চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের ১৫০ শয্যার সব কটিতে রোগীতে ভর্তি রয়েছেন। সেখানে জায়গা না হলেও অতিরিক্ত রোগী হলি ক্রিসেন্টে পাঠানো হচ্ছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটও প্রায় ভর্তি। জানতে চাইলে সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, সরকারি হাসপাতালে রোগী প্রয়োজনে মেঝেতে রাখা হবে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে আরও ১০০ বাড়িয়ে ৪০০ শয্যা করা হচ্ছে। জেনারেল হাসপাতাল এবং হলি ক্রিসেন্টেও রোগী আরও ভর্তি করানো হবে। এ পরিস্থিতি সামাল দিতে কঠোর বিধিনিষেধের বিকল্প নেই। মানুষকে ঘরে থাকতে হবে।<br><br>বেসরকারি হাসপাতালেও কোভিড ইউনিটে শয্যা খালি নেই। নগরের মা ও শিশু হাসপাতালে ২৭টি আইসিইউ এবং এইচডিইউসহ প্রায় ২০০ করোনা রোগী রাখা হচ্ছে। এরপরও চাপ সামলানো যাচ্ছে না। হালিশহরের সত্তরোর্ধ্ব সাইফুল ইসলামের অক্সিজেন স্যাচুরেশন বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কমে যাচ্ছিল। এই অবস্থায় বিভিন্ন হাসপাতালে চেষ্টা করেও শয্যা খালি পাওয়া যায়নি। পরে মা ও শিশু হাসপাতালে অতিরিক্ত একটি শয্যা দিয়ে তাঁর চিকিৎসা শুরু করা হয়। মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালের অধ্যাপক অলক নন্দী বলেন, ‘করোনা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। কোনো শয্যা ফাঁকা নেই। আইসিইউ, এইচডিইউ সবকিছু ভর্তি। রোগীর চাপ যেভাবে বেড়েছে, তাতে সামনের দিনগুলো কেমন হবে বুঝতে পারছি না।’<br><br>পার্কভিউ হাসপাতালে আইসিইউসহ ৯০ জনকে করোনা চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। হাসপাতালের মহাব্যবস্থাপক তালুকদার জিয়াউর রহমান বলেন, অনেক অনুরোধ আসছে। কিন্তু শয্যা খালি নেই। ৯ জনের ফোন নম্বর নিয়ে রেখেছি, খালি হলে আসতে বলব।<br>বেসরকারি আরেকটি হাসপাতাল ইমপেরিয়াল হাসপাতালে ৫০টি কেবিনের প্রতিটি ভর্তি রয়েছে। এ ছাড়া আইসিইউ ও এইচডিইউর ২৯টি শয্যার একটিও খালি নেই।<br><br>হাসপাতালটির কোভিড ব্যবস্থাপনা কমিটির সমন্বয়ক চিকিৎসক রেজাউল করিম বলেন, ‘কেবল অনুরোধ আসছে। কোনো রোগীকে নামিয়ে তো আরেকজনকে দেওয়ার সুযোগ নেই। পরিস্থিতি সামাল দেওয়া কঠিন।’</body></HTML> 2021-07-23 19:01:05 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে করোনায় মারা গেলেন আরও ৫ জন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108586 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627045108_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627045108_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥ </span><br>ফেনীতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের উপসর্গে আরও পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে চারজন পুরুষ ও একজন নারী রয়েছেন।<br>শুক্রবার (২৩ জুলাই) ফেনী জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আবুল খায়ের মিয়াজী এ তথ্য জানান। মৃতরা হলেন- ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর এলাকার বাসুদেব শীল (৪০), ছাগলনাইয়ার চাঁদগাজী এলাকার সফিকুর রহমান (৬০), দাগনভূঞার বেকের বাজার এলাকার আবুল হোসেন (৬২), সোনাগাজীর আমান উল্লাহ (৭২) ও চৌদ্দগ্রামের স্বপ্না আক্তার (৩৫)।<br><br>তিনি বলেন, ‘৩০ শয্যার কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে ১৩৬ জন ভর্তি রয়েছেন। এদের মধ্যে উপসর্গে ১১৪ জন ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২২ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ১২৩ জনকে অক্সিজেন সেবা ও ১৩ জনকে আইসিইউ সেবা দেয়া হচ্ছে।’ এদিকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের করোনা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৪১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ফেনী সদর উপজেলায় ৭৮ জন, দাগনভূঞায় ২৫ জন, ছাগলনাইয়ায় ২৯জন, পরশুরামে ২৪ জন ও ফুলগাজীতে আটজন রয়েছে।<br>জেলায় আক্রান্তদের মধ্যে এক হাজার ৮৮১ জন হোম আইসোলেশনে ও ৬০ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। </body></HTML> 2021-07-23 18:57:12 2021-07-23 18:58:43 ফেনীতে কোরবানির পশুর চামড়ার দামে এবারও ধস http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108585 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044936_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044936_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥</span><br><div>ফেনী পৌরসভার পশ্চিম উকিলপাড়ার বাসিন্দা মো. ফরহাদ কোরবানির গরুর চামড়া নিয়ে মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীর অপেক্ষায় সারা দিন বাড়িতেই ছিলেন। সন্ধ্যায় তিনি শহরের ট্রাংক রোডের অস্থায়ী চামড়ার বাজারে নিয়ে ১ লাখ ১২ হাজার টাকা দামের গরুর চামড়াটি ২০০ টাকায় বিক্রি করেছেন। পূর্ব বিজয়সিংহ গ্রামের হারিছ আহম্মদ তাঁর ৬৪ হাজার টাকার গরুর চামড়া ১০০ টাকায় বিক্রি করেন। পরশুরামের এম এ হাসান ৫৪ হাজার টাকার গরুর চামড়া বিক্রি করেন ১০০ টাকায়, দাগনভূঁঞার রামানন্দপুর গ্রামের শওকত হোসেন ১ লাখ ৩ হাজার টাকা দামের গরুর চামড়া বিক্রি করেন ১৫০ টাকায়। খুশীপুর গ্রামের মনির আহম্মদ বলেন, তাঁদের ১ লাখ ২১ হাজার টাকা দামের গরুর চামড়া ১৫০ টাকায় বিক্রি করেছেন।</div><div><br></div><div>ফেনী সদর উপজেলার দমদমা হাফেজিয়া মাদ্রাসার সভাপতি আলতাফ হোসেন বলেন, তাঁরা ১০০ চামড়া গড়ে ২০০ টাকা করে বিক্রি করেছেন। ফেনী শহরের শান্তি কোম্পানী রোডের ইসলামিয়া এতিমখানার সভাপতি কে বি এম জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এলাকাবাসীর দেওয়া ২৩২টি গরুর চামড়া গড়ে ২৫০ টাকা করে শহরের ট্রাংক রোডের অস্থায়ী বাজারে বিক্রি করেছেন। সোনাগাজীর বাদুরিয়া গ্রামের আবুল বাসার বলেন, ‘অন্যান্য বছর কোরবানির পশুর চামড়া কেনার জন্য গ্রামে একাধিক মৌসুমি ক্রেতা চামড়া কিনতে আসত। বাড়িতেই দরদাম করে তারা চামড়া কিনে নিয়ে যেত। এ বছর সারা দিনেও চামড়া কেনার জন্য কাউকে পাওয়া যায়নি। <br></div><div><br></div><div>তাই তাঁরা স্থানীয় মাদ্রাসায় দিয়ে দিয়েছেন।’ ফেনীর গ্রামে গ্রামে এ বছরও মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীদের তেমন দেখাই মেলেনি। ফলে ফেনীতে এ বছরও কোরবানির পশুর চামড়ার দামে ধস নেমেছে। এলাকাভেদে বিভিন্ন গ্রামে গরু ও মহিষের ছোট–বড় সব ধরনের চামড়া ১০০ থেকে ২০০ টাকা করে বিক্রি হয়েছে। এলাকায় কোনো মৌসুমি ব্যবসায়ীর দেখা না পেয়ে ৯৫ শতাংশ কোরবানি চামড়া স্থানীয় মাদ্রাসা ও এতিমখানায় দিয়ে দেওয়া হয়েছে। ছাগলের চামড়া বিক্রি করতে না পেরে বুধবার সন্ধ্যায় ফেনী সদর উপজেলার চাড়িপুর এলাকার মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী নুর উদ্দিন জানান, তিনি গড়ে ২৫০ টাকা ধরে প্রতিবেশীদের কাছ থেকে ৫টি চামড়া কিনে রিকশা ভাড়া দিয়ে ফেনী শহরের ট্রাংক রোডে নিয়ে লোকসানে ২২০ টাকা ধরে বিক্রি করতে হয়েছে। মাটিতে পুঁতে ফেলার ঘটনাও ঘটেছে।</div><div><br></div><div> ফেনীর সবচেয়ে বড় আড়তদারের ব্যবসাকেন্দ্র পাঁচগাছিয়া বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জানান, ঢাকায় ট্যানারিতে বা বড় আড়তে চামড়া বিক্রি করে বকেয়া টাকা ৫ বছরেও আদায় করা যায় না। জেলার পাঁচগাছিয়া বাজারে অবস্থিত সবচেয়ে বড় আড়তদার নিজাম উদ্দিন দাবি করেন, তিনি এ বছর গড়ে ২৫০-৩৫০ টাকায় চামড়া কিনেছেন। আড়তদার হেলাল উদ্দিন জানান, তিনি গড়ে ৩০০-৩৫০ টাকা দরে চামড়া কিনেছেন। তিনি বলেন, ঢাকায় ট্যানারির মালিকদের কাছে চামড়া বিক্রি করে বছরের পর বছর বকেয়া টাকার জন্য তাঁদের পিছে পিছে ঘুরতে হয়, সহজে টাকা পাওয়া যায় না। পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, জেলায় একমাত্র তাঁর ইউনিয়নের পাঁচগাছিয়া বাজারে একসময়ে চামড়ার ছোট বড় ৪০-৪৫ জন আড়তদার ছিলেন। গত কয়েক বছরে অনেকেই ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছেন। বর্তমানে ১৫-১৬ জন আড়তদার টিকে রয়েছেন। চলতি বছর ২০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩৫০ টাকায় তাঁরা চামড়া কিনছেন। বিভিন্ন উপজেলায়ও কিছু আড়তদার চামড়া কিনেছেন বলে তিনি শুনেছেন।</div></body></HTML> 2021-07-23 18:54:18 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে গরু ব্যবসায়ীকে হাত-মুখ বেঁধে সাড়ে ১৪ লাখ টাকা লুট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108584 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044660_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044660_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥<br><div>ফেনীর ফরহাদনগরে গরু ব্যবসায়ীকে হাত-মুখ বেঁধে সাড়ে ১৪ লাখ টাকা লুট করেছে দূর্বৃত্তরা। ঈদের দিন বুধবার মধ্যরাতে ফেনী সদর উপজেলার ফরহাদ নগর ইউনিয়নের দক্ষিণ কাটা মোবারক ঘোনা এলাকার খালেক মাঝির নতুন বাড়িতে দূর্বৃত্তরা হানা দিয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মুখ ও হাত-পা বেঁধে নগদ সাড়ে ১৪ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। গরু ব্যবসায়ী শাহজাহান জানান, খালেক মাঝির নতুন বাড়িতে সিদ কেটে (ঘরের উত্তর পাশে মাটি গর্ত করে) ঈদের দির রাতে ১০-১২ জন দূর্বৃত্তরা ঘরে প্রবেশ করে।</div><div><br></div><div> অস্ত্রের মুখে তারা ঘরের পুরুষ-মহিলা সবার হাত-মুখ ও চোখ বেঁধে ফেলে। এসময় হাত-পা ভেধে বেদড়ক মারধর করলে শাহজাহান মারাত্মক জখম হয়। তিনি আরও জানান, ৫২টি গরু মোটাতাজা করনের উদ্দেশ্যে ক্রয় করেন। এর মধ্যে তিনি ৫০টি গরু সাড়ে ১৪ লাখ টাতায় বিক্রি করেনয়। মানুষ থেকে ধার দেনা করে টাকা নিয়ে গরু ক্রয় করে তা বিক্রি করেছিলে। গরু বিক্রির টাকা হিসেব করতে রাত সাড়ে ১২টা বেজে যাওয়ায় তিনি ইচ্ছে থাকা সত্তেও গরু বিক্রীর টাকাগুলো পাশবর্তী ছোট ভাইয়ের বিল্ডিং করে টাকা রাখতে পারেনি।</div><div><br></div><div> এতগুলো টাকা লুট হওয়ায় এখন মানুষকে কিভাবে টাকা দিবেন এ চিন্তায় তিনি বার বার জ্ঞান হারিয়ে ফেলছেন। বিষয়টি তিনি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন টিপু কে অবহিত করেছেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন টিপু জানান, গরু ব্যবসায়ী শাহজাহান বিষয়টি তাকে জানিয়েছেন। তবে তারা কাউকে চিনতে পারেনি বলে জানান। তিনি স্থানীয়ভাবে দেখছেন ও পুলিশকে বিষয়টি জানানোর জন্য তাকে পরামর্শন দেন। </div> </body></HTML> 2021-07-23 18:47:33 1970-01-01 00:00:00 মাদক বহনের অভিযোগে এসআই বরখাস্ত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108583 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044218_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044218_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">মাদক বহনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ার অভিযোগে হবিগঞ্জে পুলিশের এক এসআইকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। and nbsp; বরখাস্ত হওয়া মুমিন সিরাজী শহরের কোর্ট স্টেশন পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। পুলিশ জানায়, এসআই মুমিন সিরাজী কয়েকদিন আগে ছুটিতে গিয়েছিলেন। ময়মনসিংহে তার মাদক বহনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। এ জন্য তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।<br><br>হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী গণমাধ্যমকে জানান, এসআই মুমিন সিরাজী ছুটি নিয়ে ময়মনসিংহে অবস্থান করছিলেন। সেখানে কয়েকদিন আগে ফেনসিডিল ও গাঁজাসহ আটক হয়েছিলেন। তাই মাদক পরিবহনের অপরাধে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।</body></HTML> 2021-07-23 18:42:40 1970-01-01 00:00:00 চামড়া ফেলে যাওয়ায় ভোগান্তিতে সিটি করপোরেশন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108582 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044097_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627044097_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">পুরান ঢাকার পোস্তা ও ঢাকেশ্বরী মন্দিরের আশেপাশের বেশ কিছু আড়তের মোকামের সামনের প্রধান সড়কে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকেও শত শত নষ্ট চামড়া পড়ে থাকতে দেখা যায়; পরে পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা এগুলো বর্জ্য হিসেবে নিয়ে যায়। ‘দাম না পেয়ে’ দিনভর সংগ্রহ করা কোরবানির পশুর এসব চামড়া ফেলে গেছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। তাদের অভিযোগ, আড়তদাররা তাদের কেনা দামও দিতে চাননি।<br><br>গভীর রাত পর্যন্ত তাদের বসিয়ে রেখে দরদাম চালিয়ে গেলেও শেষ সময়ে ‘পচে যাওয়ার’ অজুহাতে আড়ত বন্ধ করে চলে যান। উপায় না দেখে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া রাস্তার পাশে ফেলে রেখে যেতে বাধ্য হন। এতে তাদের অনেক লোকসান গুনতে হয়েছে বলে তারা উল্লেখ করেন।<br>একদম কম দাম কিংবা কৌশলে সময় নষ্ট করে দাম কম দেওয়ার প্রস্তাবের অভিযোগ মানতে চাইছেন না আড়তদাররা। মৌসুমী ব্যবসায়ীরা পচা চামড়া এনেছেন বলে দায় এড়াচ্ছেন তারা।<br><br>রাস্তার পাশাপাশি অনেক এলাকায় কোরবানির পশুর চামড়া নালা-নর্দমাতেও ফেলার কথা জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস। এসব চামড়া নিয়ে করপোরেশনের কর্মীরা বেকায়দায় পড়েছেন বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে 'কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারকি' বিষয়ক অনুষ্ঠানে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।<br><br>বৃহস্পতিবার সকালে এই দুই এলাকায় রাস্তার পাশে অনেক কাঁচাচামড়া পড়ে থাকতে দেখা যায়। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদেরও দু-একজায়গায় ফেলে দেওয়া এসব চামড়া ময়লার গাড়িতে তুলতে দেখা যায়। ওই এলাকায় খোঁজাখুজির পর চামড়া ফেলে দিয়েছেন এমন মৌসুমী ব্যবসায়ী বাদল নামের একজনকে পাওয়া গেল।<br><br>তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, “গতকাল (বুধবার) সারা দিন ৩০০ থেকে ৫০০ টাকায় গরুর চামড়া সংগ্রহ করে রাত আটটার দিকে আড়তে বিক্রি করতে নিয়ে আসি। কিন্তু আড়তদাররা গড়ে ৩০০ টাকা করে দাম দিতে চান। “এরপর দরকষাকষি করতে করতে সময় নষ্ট হয়, রাত গভীর হয়। পরে আড়তদাররা আমার সংগ্রহ করা চামড়া পচে যাওয়ার অযুহাত দেখিয়ে চামড়া না নিয়ে আড়ত বন্ধ করে চলে যায়।“<br><br>হতাশ এই ব্যবসায়ী বলেন, “তবুও সারারাত অপেক্ষায় ছিলাম যদি কোনো গতি করা যায়। শেষ পর্যন্ত ভোরে এসব চামড়া আমরা রাস্তায় ফেলে দেই।<br>“আমার মত আরও অনেকেই ছিলেন। তারাও শেষ পর্যন্ত বাড়িতে চলে গেছেন।” কয়েকজন এলাকাবাসী জানিয়েছেন, মৌসুমী ব্যবসায়ীদের অনেকেই তাদের সংগ্রহ করা চামড়া বিক্রি করতে পারেননি। বুধবার গভীর রাত পর্যন্তও যাদের চামড়া আড়তদাররা নেননি সেগুলো পচে যায়। পরে তারা এগুলো রাস্তায় রেখেই চলে যান।<br><br>পরে এসব চামড়া সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা এসে ময়লা হিসেবে নিয়ে গেছেন বলে তারা উল্লেখ করেন। তবে দাম না পেয়ে মৌসুমী ব্যবসায়ীদের রাস্তায় চামড়া ফেলে চলে যাওয়ার ঘটনা অস্বীকার করেন পোস্তার কাঁচাচামড়া ব্যবসায়ী ও বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব হাজি টিপু সুলতান।<br><br>তিনি বলেন, “আমরা যথারীতি সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে, অনেক ক্ষেত্রে সেই দামের চেয়েও বেশি দামে চামড়া কিনে নিয়েছি।<br> and nbsp;“সবচেয়ে ছোট গরুর চামড়া ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে বড় চামড়া ৯০০ টাকা পর্যন্ত কিনেছি।” “তবে আমরা তো পচা চামড়া কিনব না”, যোগ করেন তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরে 'কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারকিতে' নগর ভবনের শীতলক্ষ্যা হলে স্থাপিত নিয়ন্ত্রণ কক্ষে পশুর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের পর দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস জানান, মৌসুমী ব্যবসায়ীরা অনেক জায়গায় চামড়া ফেলে যাচ্ছেন।<br><br>তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “একটা বিষয় আমরা লক্ষ্য করছি, মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া সংগ্রহ করেছেন। সেই চামড়াগুলো হয়তো তারা বিক্রি করতে পারেননি। আজ সকাল থেকে আমরা লক্ষ্য করছি, বিভিন্ন জায়গায় আমাদের নর্দমার সামনে, নর্দমার মুখে তারা সেই চামড়াগুলো ফেলে গেছেন। এটা অত্যন্ত গর্হিত কাজ।” তিনি আরও বলেন, “আমি বারবার নিবেদন করেছি, কোনোভাবেই যেন আমাদের নালা-নর্দমাগুলো বন্ধ করা না হয়, এখানে বর্জ্য ফেলা না হয়। কারণ আমরা এখনো বর্ষাকালেই আছি। এই বর্জ্য দ্বারা কোনো নালা-নর্দমা যেন বন্ধ না হয়ে যায়।”</body></HTML> 2021-07-23 18:39:09 1970-01-01 00:00:00 পরিস্থিতি সামাল দিতে পারবো কিনা বুঝতে পারছি না http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108581 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627043756_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627043756_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাবে কিনা সে নিয়ে পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম। আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) দুপরে রাজধানীর মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। <br><br>তিনি বলেন, পরিস্থিতি সামাল দিতে পারবো কিনা তা এখনও বুঝতে পারছি না। অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে হবে। তবে সরকারের ব্যবস্থাপনা যথেষ্ট ভালো আছে, আর মানুষকেও আশ্বস্ত করতে হবে। আগের বিধিনিষেধ খুব একটা কাজে আসেনি জানিয়ে অধ্যাপক খুরশিদ আলম বলেন, আগের দুই সপ্তাহের বিধিনিষেধে তেমন প্রভাব দেখা যায়নি। তবে সীমান্তবর্তী জেলায় সংক্রমণ কমেছে এবং আরও কিছু দিন পরে বিধিনিষেধের প্রভাব বোঝা যাবে।<br><br>দেশে করোনার সংক্রমণের এ অবস্থায় অক্সিজেনের কী অবস্থা জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্বাভাবিক সময়ে অক্সিজেনের চাহিদা ৭০ থেকে ৯০ টনের মতো থাকে, কিন্তু এখন তা ২০০ টনে চলে গেছে। তবে এখনও দেশে অক্সিজেনের জোগান আছে এবং ভারত থেকেও আমদানি হচ্ছে।<br>এছাড়াও, ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে যথেষ্ট সক্ষমতা থাকার পরেও বাইরে থেকে রোগীরা ঢাকায় আসছেন বলে জানান তিনি।<br><br>এদিকে, করোনাভাইরাসের টিকা নিতে বয়সসীমা কমিয়ে ১৮ বছর করা যায় কিনা, সে বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে জানিয়ে অধ্যাপক খুরশিদ আলম বলেন, দেশে অন্যান্য টিকা যেভাবে দেওয়া হয়, সেভাবেই করোনার টিকা দেওয়া কিনা এবং আরও সহজ করা কীভাবে যায় তা নিয়ে ভাবছে সরকার। আর টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, মুগদা হাসপাতালে কয়েকজন বয়স্ক রোগীর সঙ্গে কথা বলেছেন, যাদের অবস্থা খারাপ। তারা কেউ টিকা নেননি, তাদের টিকা নেওয়া উচিত। টিকা নেওয়ার পরে আক্রান্ত হলেও উপসর্গ কম থাকে। ঝুঁকি কম থাকে। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা কমে যায়।<br><br><br></body></HTML> 2021-07-23 18:35:07 1970-01-01 00:00:00 করোনায় আরও ১৬৬ জনের মৃত্যু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108580 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627042458_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627042458_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দেশে করোনাভাইরাসে আরও ১৬৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। উল্লেখিত সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৩৬৪ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৬ জন।<br>শনিবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ হাজার ৪৯৩টি নমুনা পরীক্ষায় ৬ হাজার ৩৬৪ জন শনাক্ত হন, যাতে শনাক্তের হার ৩১.০৫ শতাংশ। এ নিয়ে মোট শনাক্ত ১১ লাখ ৪৬ হাজার ৫৬৪ জন। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৫.৫০ শতাংশ।<br><br>স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানায়, গত এক দিনে যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ৯৫ জন পুরুষ এবং ৭১ জন নারী। এ পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন ১২ হাজার ৯৭১ জন ও নারী ৫ হাজার ৮৮০ জন। নতুন মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে সর্বোচ্চ ৬০ জন, চট্টগ্রামে ৩৩, রাজশাহীতে ৭, খুলনা ৩৩, বরিশালে ১০, সিলেটে ৮, রংপুরে ১২ এবং ময়মনসিংহে ৩ জন মারা গেছেন।<br><br>বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৮৬ জনের বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৩২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ২৪ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের ৭ জন, ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী ২ জন। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যু ১৮ হাজার ৮৫১ জনের। বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৬ জন এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৬ জন।<br><br>দেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবর আসে। কয়েক মাস সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার ঊর্ধ্বগতিতে থাকার পর অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। চলতি বছরের শুরুতে করোনাভাইরাসের প্রকোপ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে ছিল। তখন শনাক্তের হারও ৫ শতাংশের নিচে নেমেছিল। তবে গত মার্চ মাস থেকে মৃত্যু ও শনাক্ত আবার বাড়তে থাকে। জুলাই মাসে দৈনিক শনাক্তের হার ২৫ শতাংশের উপরে আছে। মোট গড় হার ১৪ শতাংশের উপরে।<br><br>বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী, কোনো দেশে টানা দুই সপ্তাহের বেশি সময় পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে বলে ধরা যায়। সে হিসেবে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই বলা যায়। বিশেষজ্ঞরা এটাকে বাংলাদেশে করোনার ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ বলছেন। করোনা সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করায় ২৩ জুলাই থেকে আবার ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর লকডাউন চলবে।</body></HTML> 2021-07-23 18:13:09 1970-01-01 00:00:00 কঠোর বিধিনিষেধে যা করা যাবে, যা যাবে না http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108579 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627031140_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627031140_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">কুরবানি ঈদ উপলক্ষে মাঝখানে কিছুদিন শিথিলের পর শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে ফের শুরু হয়েছে ১৪ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ। যা চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। বিধিনিষেধ চলাকালে কী করা যাবে, কী করা যাবে না তা নিয়ে গত ১৩ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।<br><br>এতে বলা হয়েছে— আগামী ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত আবার কঠোর লকডাউন শুরু হবে।<br><br>এই সময়ে যেসব বিধিনিষেধ কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে—<br><br>-সব সরকারি-আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে।<br><br>-সড়ক, রেল ও নৌপথে গণপরিবহণ (অভ্যন্তরীণ বিমানসহ) সব প্রকার যানবাহন বন্ধ থাকবে। শপিংমল/মার্কেটসহ সব দোকানপাট বন্ধ থাকবে।<br><br>-সব পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্র বন্ধ থাকবে।<br><br>-সব প্রকার শিল্পকারখানা বন্ধ থাকবে।<br><br>-জনসমাবেশ হয় এ ধরনের সামাজিক [বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান (ওয়ালিমা), পিকনিক, জন্মদিন, পার্টি ইত্যাদি], রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে।<br><br>-বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট আদালতসমূহের বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি থাকবে।<br><br>-ব্যাংকিং/বীমা/আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক/আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।<br><br>-সরকারি কর্মচারীরা নিজ নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করবেন এবং দাপ্তরিক কাজসমূহ ভার্চুয়ালি সম্পন্ন করবেন।<br><br>-আইনশৃঙ্খলা ও জরুরি পরিষেবা, যেমন কৃষিপণ্য ও উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি) খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, রাজস্ব আদায় সম্পর্কিত কার্যাবলী, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তাব্যবস্থা, ডাকসেবা, ব্যাংক, ফার্মেসি ও ফার্মাসিউটিক্যালসসহ অন্যান্য জরুরি/অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদান সাপেক্ষে যাতায়াত করতে পারবে।<br><br>-বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলাপর্যায়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয় খোলা রাখার বিষয়ে অর্থ বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করবে।<br><br>-জরুরি পণ্য পরিবহণে নিয়োজিত ট্রাক/লরি/কাভার্ডভ্যান/নৌযান/পণ্যবাহী রেল/ফেরি— এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে। বন্দরসমূহ (বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল) এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।<br><br>-কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রবাদি সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিক্রয় করা যাবে।<br><br>-অতিজরুরি প্রয়োজন ব্যতীত (ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসাসেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ইত্যাদি) কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে যাওয়া যাবে না। অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।<br><br>-টিকা কার্ড প্রদর্শন সাপেক্ষে টিকাগ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে।<br><br>-খাবারের দোকান, হোটেল সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খাবার বিক্রয় (অনলাইন/টেক ওয়ে) করতে পারবে।<br><br>-আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু থাকবে এবং বিদেশগামী যাত্রীরা তাদের আন্তর্জাতিক ভ্রমণের টিকিট প্রদর্শন করে গাড়ি ব্যবহারপূর্বক যাতায়াত করতে পারবে।<br><br>-স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মসজিদে নামাজের বিষয়ে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনা প্রদান করবে।<br><br>-‘আর্মি ইন এইড টু সিভিল পাওয়ার’ বিধানের আওতায় মাঠপর্যায়ে কার্যকর টহল নিশ্চিত করার জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ প্রয়োজনীয়সংখ্যক সেনা মোতায়েন করবে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্থানীয় সেনা কমান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।<br><br>-ম্যাজিস্ট্রেট জেলাপর্যায়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে সমন্বয় সভা করে সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, র্যাব ও আনসার নিয়োগ এবং টহলের অধিক্ষেত্র, পদ্ধতি ও সময় নির্ধারণ করবেন। পাশাপাশি স্থানীয়ভাবে বিশেষ কোনো কার্যক্রমের প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেবেন।<br><br>-জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় মাঠপর্যায়ে প্রয়োজনীয়সংখ্যক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করবে।<br><br>-স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তার পক্ষে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বাহিনীকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়োজনীয় ক্ষমতা প্রদান করবেন।<br><br>এদিকে বিধিনিষেধ মানাতে আইশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে দায়িত্ব পালন করছেন। যানবাহন ও লোক চলাচল কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণের প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা। <br></body></HTML> 2021-07-23 15:04:24 1970-01-01 00:00:00 ঈদের ছুটি শেষে ঢাকা ফিরেই লকডাউনের বিড়ম্বনায় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108578 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030982_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030982_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলা থেকে বৃহস্পতিবার দুপুরে পরিবার নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন মোক্তার হোসেন। বিকালে মাদারীপুরের বাংলা বাজার ফেরিঘাটে এসে দীর্ঘ যানজটে পড়েন। তাদের বহনকারী বাস ফেরিতে উঠতে উঠতে মধ্য রাত হয়ে যায়।<br>ভোর রাতে ফেরি পার হয়ে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে এসে আবার যানজটে পড়েন। এরপর ঢাকার কেরাণীগঞ্জে ফিরতে ফিরতে সকাল ৬টা। বাস থেকে নামেন পোস্তগোলা ব্রিজ সংলগ্ন হাসনাবাদ। পায়ে হেঁটে ব্রিজ পার হয়ে জুরাইন এসে পড়েন বিপাকে। কেননা, আজ থেকে শুরু হওয়া লকডাউনের কারণে গণপরিবহন বন্ধ। রিকশার সংখ্যাও হাতেগোনা। অগত্যা স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে নিয়ে পায়ে হেঁটেই রওয়ানা করেন তার গন্তব্য মাতুয়াইলের দিকে।<br><br>মোক্তার হোসেনের মতো অনেকেই ভোর রাতে ঢাকায় এসে বিপাকে পড়েছেন। এদেরই একজন ইলিয়াস মিয়া। তিনি মাদারীপুরের রাজৈর থেকে গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেন। বাসে করে ফেরি পার হয়ে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া এসে সিএনজি অটোরিকশায় করে ঢাকার যাত্রাবাড়ি পর্যন্ত এসেছেন। পথে তাদের বেশ কয়েক জায়গায় পুলিশ চেকপোস্টের মুখোমুখি হতে হয়েছে। তিনি জানান, আজ থেকে ১৪ দিনের লকডাউন। কিন্তু ঢাকায় তাকে ফিরতেই হবে। তিনি কাজ করেন একটা পেট্রোল পাম্পে। পাম্প লকডাউনেও খোলা। তাই ঈদের পর দিনই তাকে তরিঘড়ি করে ঢাকায় ফিরতে হয়েছে।<br><br>ঈদের ছুটি শেষে ঢাকায় আসতে পোহাতে হয়েছে নানান ঝক্কি-ঝামেলা। দক্ষিণ পশ্চিমবঙ্গ থেকে যারা গতকালে রওয়ানা হয়েছিলেন তাদের ঢাকায় ফিরতে কারো কারো রাত হয়। কারো বা সকাল হয়ে যায়। ফলে ঢাকায় প্রবেশে বাধার মুখে পড়েন তারা। পুলিশ, সেনাবাহিনী, বিজিবির কাছে কৈফিয়ত দিয়েই শহরে ঢুকতে হয়েছে।<br><br>অকারণে, অবাধে ঢাকায় প্রবেশ ঠেকাতে ঢাকা জেলার হাসানাবাদ, পোস্তগোলা, জুরাইন, দোলাইরপার, যাত্রাবাড়ি, গুলিস্তান, রমনা, শাহবাগসহ পুরো রাজধানীর প্রবেশ পথগুলোতে শুক্রবার ভোর রাত থেকেই নিরাপত্তা বাহিনীর টহল ছিল চোখে পড়ার মতো। শুক্রবার সকাল থেকে বন্ধ গণপরিবহন, সিএনজিচালিত অটোরিকশাও। রিকশার সংখ্যাও ছিল হাতেগোনা। ফলে ঢাকার বাইরে থেকে যারা ঈদের ছুটি শেষে ফিরছেন তাদের বেশিরভাগই পায়ে হেঁটে কিংবা ভ্যানে চড়ে গন্তব্যে ছুটছেন।<br><br>ঈদের ছুটির কারণে শুক্রবার রাজধানীর বেশিরভাগ সড়কই ছিল ফাঁকা। ঢাকামুখী মানুষ ছাড়া রাস্তায় লোকচলাচল ছিল না বললেই চলে। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে নিরাপত্তা বাহিনীর কঠোর টহল চোখে পড়ে। রাস্তায় যারা বিভিন্ন গন্তব্যে যাচ্ছিলেন তাদের জেরার মুখে পড়তে হয়েছে। সদুত্তর মিললেই যেতে পেরেছেন।<br><br>যদিও গত কয়েক বছরের চেয়ে এবারের ঈদের পরের দৃশ্যটা কিছুটা ভিন্ন। সাধারণত ঈদের পর পরই ঢাকামুখী মানুষের ঢল নামে। কিন্তু এবার ১৪ দিনের লকডাউনের কারণে গ্রাম থেকে শহরে ফেরার মিছিল কিছুটা ছোট। যারা পরিবার পরিজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামে গিয়েছিলেন তাদের বেশির ভাগই সেখানেই রয়েছে গেছেন। কেবল জরুরি পরিষেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাই ঈদের পর দিন গতকাল ঢাকা ফিরেছেন।<br>তবে বাংলা বাজার শিমুলিয়া ও দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ রুটে ঢাকায় ফেরার যাত্রীর সংখ্যা ছিল অনেক বেশি। ফলে লঞ্চ ও ফেরিতে দীর্ঘ জটে পড়তে হয়েছে।<br><br>উল্লেখ্য, আট দিন শিথিল থাকার পর ২৩ জুলাই শুক্রবার থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে। ১৪দিনের এই লকডাউন চলবে ৪ আগস্ট পর্যন্ত। এর আগে ঈদুল আজহার সময় মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করেছিল সরকার।</body></HTML> 2021-07-23 15:02:30 1970-01-01 00:00:00 পিকআপের ধাক্কায় ইজিবাইকের ৬ যাত্রী নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108577 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030653_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030653_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাগেরহাটের ফকিরহাটে পিকআপের ধাক্কায় ইজিবাইকের ছয় যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল পৌনে ৮টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের বৈলতলী প্রাইমারি স্কুল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- ফকিরহাটের নলধা মৌভোগ এলাকার দিলীপ রাহার ছেলে উৎপল রাহা (৪৫), একই এলাকার জগদীশ দত্তের ছেলে নয়ন দত্ত (২৫) ও রামপাল উপজেলার শ্রীফলতলা ইউনিয়নের চাকসি গ্রামের আব্দুল হাই (৫৫)। বাকিদের পরিচয় তাৎক্ষণিক জানা যায়নি।<br><br><div>অন্যদিকে ইজিবাইকের একমাত্র আহত যাত্রী নুর মোহম্মদকে (৬০) উদ্ধার করে ফরিকহাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুল আনাম বলেন, ‘নোয়াপাড়া থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী ইজিবাইক বৈলতলী এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ধাক্কা দেয়। এ সময় ইজিবাইকের চালকসহ ছয়যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত একজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।’<br></div><br>উদ্ধার কাজে নিয়োজিত বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা মো. শাহজাহান সিরাজ বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই স্থানীয়রা একজনকে উদ্ধার হাসপাতালে পাঠায়। ঘটনাস্থল থেকে ছয়জনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ হস্তান্তর করা হয়েছে।’</body></HTML> 2021-07-23 14:56:12 1970-01-01 00:00:00 করোনা টিকা নেয়ার বয়সসীমা ১৮ হচ্ছে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108576 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030423_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030423_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দেশে করোনার টিকা নেয়ার নূন্যতম বয়স শিগগিরই ১৮ বছর করা হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাশার খুরশীদ আলম।<br>শুক্রবার (২৩ জুলাই) মুগদা জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকের করা প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।<br>আবুল বাশার খুরশীদ আলম বলেন, টিকা নেয়ার বয়সসীমা কমানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার সকালে আমাকে নির্দেশনা দিয়েছেন। সর্বনিম্ন বয়সসীমা ১৮ করার জন্য জানিয়েছেন। আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আলোচনা করে ঠিক করবো কীভাবে এটা করা যাবে। নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা বলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবো। তবে এটি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই হবে।<br><br>তিনি সংবাদমাধ্যমকে আরও বলেন, টিকাদান পদ্ধতি সহজ করার চিন্তা করছে সরকার। গ্রাম এলাকায় যারা নিবন্ধন করতে পারছেন না, তারা এনআইডি কার্ড দেখিয়ে বা টিকা কেন্দ্রে গিয়ে টিকা কার্ড সংগ্রহ করে টিকা নিতে পারবেন কি না, সে বিষয়ে ভাবছে সরকার।</body></HTML> 2021-07-23 14:52:05 1970-01-01 00:00:00 ৬৫ দিন পর সাগরে মাছ ধরা শুরু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108575 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030176_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030176_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরায় দীর্ঘ ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে শুক্রবার (২৩ জুলাই)। আজ মধ্যরাত থেকে ইলিশ শিকারে সমুদ্রে যাবে উপকূলীয় জেলেরা। তাই জেলে পল্লীগুলোতে কর্মতৎপরতা ফিরে আসতে শুরু করেছে। জাল ও নৌকা প্রস্তুতিতে ব্যস্ত সময় পার করছে জেলেরা। প্রতিটি নৌকায় চলছে ধোয়া-মোছা ও মেরামতের কাজ। উপকূলজুড়ে চলছে উৎসবের আমেজ। দীর্ঘ দিন মাছ ধরা বন্ধ থাকায় কষ্টে থাকা জেলেদের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। ব্যস্ততা দেখা গেছে বরফ কলগুলোতেও।<br><br>দক্ষিণাঞ্চলের বৃহৎ মৎস্যবন্দর আলীপুর-মহিপুরসহ কুয়াকাটা সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় দেখা গেছে এমন দৃশ্য। বঙ্গোপসাগরে থাকা মাছগুলোকে সঠিকভাবে বেড়ে উঠার সুযোগ সৃষ্টি করা এবং নির্বিঘ্নে মাছের প্রজনন নিশ্চিত করতে গত ২০ মে থেকে ৬৫ দিন বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করে মৎস্য বিভাগ। জেলেরা জানান, নিষেধাজ্ঞা শুরুর আগে জালে যে হারে ইলিশ ধরা পড়েছিল, এখন তার চেয়ে বেশি ইলিশ জালে আটকা পড়তে পারে। ইতোমধ্যে সাগরে প্রায় সব মা মাছই ডিম ছেড়ে দিয়েছে।<br><br>জেলেরা নৌকা ও জাল মেরামতসহ সব রকম প্রস্তুতি সেড়ে ফেলেছেন। অনেকে নৌকায় জাল তোলার কাজ করছেন। কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতসহ জেলে পল্লী ঘুরে দেখা গেছে, চাল, ডাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনার পাশাপাশি ওষুধ কিনতে ব্যস্ত জেলেরা। একেকটি ট্রিপের জন্য ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকার মালামাল কিনছেন বলে জানান তারা। পটুয়াখালী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদুল্লাহ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এ বছর জেলেদের জালে প্রচুর বড় ইলিশ মাছ ধরা পড়বে বলে আমরা আশাবাদি। জেলেদের নিরাপদে মৎস্য শিকার নিশ্চিত করতে যৌথবাহিনী জলদস্যু দমনে কাজ করছে।</body></HTML> 2021-07-23 14:49:04 1970-01-01 00:00:00 সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108574 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030087_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627030087_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচপের প্রভাবে সমুদ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে। আর এই লঘুচাপের ফলে গত কয়েক দিনের তুলনায় শুক্র ও শনিবার সারা দেশে বৃষ্টিও বেশি থাকবে। শুক্রবার (২৩ জুলাই) এক আবহাওয়ার সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে ও গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালা সৃষ্টি হচ্ছে। দেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।<br><br>চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে জানিয়ে সতর্কবার্তায় বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।<br>আবহাওয়াবিদ মনোয়ার হোসেন জানান, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি আর শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা নেই। লঘুচাপের প্রভাবে সমুদ্রবন্দরগুলোতে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এজন্য বন্দরগুলোতে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক দেয়া হয়েছে।</body></HTML> 2021-07-23 14:47:09 1970-01-01 00:00:00 পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা, মাস্টার বরখাস্ত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108573 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627029982_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1627029982_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটের পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে শাহ জালাল নামের রোরো ফেরির সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।<br>এ ঘটনায় ফেরির ইনচার্জ ইনল্যান্ড মাস্টার অফিসার আব্দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে এবং ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি)। শুক্রবার (২৩ জুলাই) এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে বিআইডব্লিউটিসি। তদন্ত কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে সংস্থাটির চেয়ারম্যানের বরাবর প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।<br><br>বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক (বাণিজ্যিক) এস এম আশিকুজ্জামানকে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। কমিটির বাকি তিন সদস্যের মধ্যে রয়েছেন এজিএম (ইঞ্জিনিয়ারিং) রুবেলুজ্জামান। জানা গেছে, বাংলাবাজার ঘাট থেকে যানবাহন ও যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসা রোরো ফেরি শাহ জালাল নৌপথের পদ্মা সেতুর সামনে আসলে স্রোতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ফেরির র‍্যামসহ সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এসময় ফেরিতে দাঁড়ানো ও বসা অবস্থায় থাকা যাত্রীরা ফেরির মধ্যেই পড়ে যায়। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়। ফেরিটি শিমুলিয়া ঘাটে আসার পরপরই ফেরি থেকে যানবাহন ও যাত্রী নামানোর পর ফেরিটি ডকে মেরামতের জন্য পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।</body></HTML> 2021-07-23 14:45:37 1970-01-01 00:00:00 স্বাস্থ্যবিধি না মানলে হাট বন্ধ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108572 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624503_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624503_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার কোরবানির পশুর হাটগুলোর কোথাও স্বাস্থ্যবিধি পরিপালনে অনিয়ম পাওয়া গেলে হাট বন্ধ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।<br>রোববার রাজধানীর ভাটারা এলাকায় হাট পরিদর্শনে এসে তিনি বলেন, ডিএনসিসির পশুর হাটে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কি না তা দেখতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে।<br>“নয়টি হাটের জন্য উত্তর সিটির তিনটি ভ্রাম্যমাণ আদালত রয়েছে। হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানা না হলে সেটি বন্ধ করে দেওয়া হবে। এবার আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে খুব কঠোর।”<br>ক্রেতাদের তিনি স্বাস্থ্যবিধির লঙ্ঘন দেখলে ‘সবার ঢাকা’ অ্যাপের মাধ্যমে অভিযোগ জানানোর অনুরোধ করেছেন মেয়র আতিক।<br>“এ বিষয়ে যে কেউ অভিযোগ জানালেই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” আগের দিন শনিবার কোরবানি ঈদ উপলক্ষে উত্তর সিটির পশুর হাটগুলোর ‘মনিটরিং টিমের’ সঙ্গে এক আলোচনা সভাতেও তিনি স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করে দেন। করোনাভাইরাস মহামারীতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যবস্থা করে পশুর হাট বসানোর জন্য গত ১৪ জুলাই বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। ভাটারার সাঈদ নগর, বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিং (আফতাবনগর) হাট পরিদর্শন করেন মেয়র। এ সময় ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজাসহ স্থানীয় কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-18 22:08:14 1970-01-01 00:00:00 সবাই যেন ভ্যাকসিন পায় সে পদক্ষেপ নিয়েছি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108571 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624483_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624483_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>দেশের প্রতিটি নাগরিক পর্যায়ক্রমে যেন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দিতে পারেন সে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, কোনো মানুষ যেন ভ্যাকসিন থেকে বাদ না থাকে, আমরা সেভাবে পদক্ষেপ নিয়েছি। আমরা চাচ্ছি যে আমাদের দেশের মানুষ যেন কোনো রকম ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।<br>রবিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগসমূহের ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর এবং এপিএ ও শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।<br>শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ভ্যাকসিন দিতে শুরু করেছি। ভ্যাকসিন আসছে। আমাদের দেশের সবাই যেন ভ্যাকসিনটা নিতে পারে, সে জন্য যত দরকার, আমরা তা কিনবো এবং আমরা সেই ভ্যাকসিনটা দেব।<br>অনুষ্ঠানে করোনা প্রতিরোধকল্পে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর গুরুত্বারোপ করে পবিত্র ঈদুল আজহায় ঘরমুখো মানুষকে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি নির্দেশ দেন তিনি।<br>শেখ হাসিনা বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে সকলে যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে। আমি জানি আমাদের মানুষগুলো একটু গ্রামের উদ্দেশে ছুটতে পছন্দ করে, মাস্ক পরতে চায় না। কিন্তু প্রশাসনের যারা যেখানে দায়িত্বরত আছেন তারা একটু চেষ্টা করবেন মানুষকে বোঝাতে এবং তারা যেন মাস্কটা অন্তত পরে আর যেন সাবধানে থাকে।’<br>সরকারপ্রধান বলেন, আমরা ভ্যাকসিন দেয়া শুরু করেছি। ভ্যাকসিন আসছে। আমাদের দেশের সকলেই যেন ভ্যাকসিন নিতে পারে তার জন্য যত ভ্যাকসিন দরকার আমরা কিনে আনবো এবং দেশের সবাইকে সেই ভ্যাকসিন দিবো। আমরা চাচ্ছি আমাদের দেশের মানুষ যেন কোন রকম ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।<br>সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, করোনার এই পরিস্থিতিতে সকলে যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেদিক দৃষ্টি দিতে হবে। নিজের সুরক্ষা নিজেকেই করতে হবে।<br>অনুষ্ঠানে সরকারের সকল মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সিনিয়র সচিবগণ ২০২১-২২ সালের এপিএ স্বাক্ষর করেন এবং প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক স্বাক্ষরকৃত ডকুমেন্ট গ্রহণ করেন। ৮ম বারের মত এদিন এপিএ স্বাক্ষরিত হলো।<br>মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এপিএ স্বাক্ষর অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এবং স্বাগত বক্তব্য দেন।<br>আ ক ম মোজাম্মেল প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা প্রাপ্ত ১০টি মন্ত্রণালয়/বিভাগকে এবং জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কারও প্রদান করেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।<br>২০২০-২১ অর্থবছরে ব্যক্তি পর্যায়ে শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এনএম জিয়াউল আলম শ্রেষ্ঠ বিভাগ হিসেবে এপিএ সম্মাননা পাওয়ায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। কর্মসম্পাদন চুক্তির সামগ্রিক বিষয়বলী নিয়ে অনুষ্ঠানে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।<br>প্রধানমন্ত্রী বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তির মাধ্যমে সরকারি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমসমূহের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন করে থাকে। এর ধারাবাহিকতায় ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা প্রাপ্ত ১০টি মন্ত্রণালয়/বিভাগকে আমি আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমি অভিনন্দন জানাই সার্বিক মূল্যায়নে প্রথম স্থান অর্জনকারী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগকে। আমি আশা করি, মন্ত্রণালয়/বিভাগসমূহ বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে ভবিষ্যতে অধিকতর কার্যকর ভূমিকা পালন করবে।<br>সরকারপ্রধান আরও বলেন, সোনার বাংলা বিনির্মাণে শুদ্ধাচার চর্চা ও দুর্নীতি প্রতিরোধের মাধ্যমে রাষ্ট্র ও সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আমাদের সরকার ২০১২ সালে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল প্রণয়ন করে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তত্ত্বাবধানে ২০১৫ সাল হতে শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম পরিকল্পনার বাস্তবায়ন অগ্রগতি মূল্যায়ন করা হচ্ছে। শুদ্ধাচার চর্চায় উৎসাহিত করার লক্ষ্যে রাষ্ট্রের বিভিন্ন পর্যায়ে শুদ্ধাচার চর্চাকারী কর্মচারীদের ২০১৭ সাল হতে শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে।<br>প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম পরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রথম স্থান অর্জন করায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে এবং ২০২০-২১ অর্থবছরে ব্যক্তি পর্যায়ে শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদারকেও আমার আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি।<br>শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সব সময় একটা লক্ষ্য ছিল সরকার জনগণের সেবা করবে। কাজেই যারা সেবা করবে তাদেরকে দক্ষ করে গড়ে তোলা, তাদের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা অর্থাৎ জনগণের সেবামূলক প্রশাসন গড়ে তোলা।<br>প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারে থেকে শুধু সরকারি সুযোগ সুবিধা ভোগ করবো তা নয়, এখানে আমাদের একটা দায়িত্ব রয়েছে। সেই দায়িত্ব হচ্ছে জনগণের প্রতি। জনগণের কল্যাণে, স্বার্থে এবং ভাগ্য পরিবর্তনে। সেই কথা চিন্তা করেই আমরা সকল কর্মকান্ড-বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ করি।<br>সরকারপ্রধান বলেন, যখন বাজেট দেই এবং প্রশাসনে নানা কর্মকান্ড আমরা পরিচালনা করি সেগুলো যেন গতিশীলতা পায়, সেগুলো যেন জনকল্যাণমুখী হয় এবং জনগণ যেন এর সুফল ভোগ করতে পারে-সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করি।<br>প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৪/১৫ সালে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আমরা বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিসহ যেই কাজগুলো করবো, সেটার একটা জবাবহিহিতা নিশ্চিত করা এবং কাজগুলোর যাতে সঠিকভাবে হচ্ছে সেটা নিশ্চিত করা। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা এই বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি করেছি। যেখানে সকল মন্ত্রণালয়ের সিনিয়ন সচিব এবং সচিবগণ এবং আমাদের মন্ত্রণালয়য়ের পক্ষে মন্ত্রি পরিষদ সচিব স্বাক্ষর করবেন। এর পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের নানা দপ্তর এবং বিভাগীয় প্রধানের সঙ্গেও সংশ্লিষ্ট সচিব এবং মন্ত্রিপরিষদ সচিব স্বাক্ষর করে কাজগুলো যথাযথভাবে হচ্ছে কি-না দেখবেন।<br>শেখ হাসিনা বলেন, প্রধানমন্ত্রিত্ব আমার জন্য কোন কিছু নয়, শুধু একটা সুযোগ মানুষের জন্য কাজ করার, তাঁদের ভাগ্যের পরিবর্তন করার এবং যে আদর্শ নিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে তা বাস্তবায়ন করাই আমার একমাত্র লক্ষ্য।<br>ধারাবাহিকভাবে সরকারে থাকায় দেশের উন্নতি এমনটাই হয় এমন অভিমত ব্যক্ত করে সরকারপ্রধান বলেন, তাঁর সরকার পরিচালনায় আজকে করোনা নামের এমন একটা বাধা এসেছে যেটি সমগ্র বিশ্বেই সংকটের সৃষ্টি করেছে। তবে, এই সংকটের সময় কীভাবে আমাদের চলতে হবে সব সময় সেই কর্মপন্থা সুনির্দিষ্ট করেছি। কারণ, করোনার ফলে সব থেকে বেশি আঘাত এসেছে আমাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে।<br>আমাদের দু:খ হলো বাংলাদেশকে আমরা যেভাবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলাম সেখানে করোনা নামক একটা অদৃশ্য শত্রুর বিরাট ধাক্কা লেগেছে, বলেন তিনি।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-18 22:07:52 1970-01-01 00:00:00 প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন শামসুল আলম http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108570 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624458_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624458_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>মন্ত্রিসভার নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের (জিইডি) সদ্য সাবেক সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম। রোববার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তাকে শপথ বাক্য পাঠ করান।<br>অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। এখন শামসুল আলমকে দফতর দিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জানা গেছে, তাকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে পরিকল্পনা মন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন এম এ মান্নান। মন্ত্রিসভায় এখন ২৫ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। শামসুল আলম যুক্ত হওয়ায় প্রতিমন্ত্রী হলেন ২০ জন।<br>ড. শামসুল আলম ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃষি অর্থনীতিতে এমএসসি, ১৯৮৩ সালে ব্যাংককের থাম্মাসাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ অর্থনীতি এবং ইংল্যান্ডের নিউ ক্যাসেল আপন টাইন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৯১ সালে অর্থনীতিতে পিএইচডি করেন।<br>কর্ম জীবনে তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জার্মানির হামবোল্ট বিশ্ববিদ্যালয়, বেলজিয়ামের ঘেন্ট বিশ্ববিদ্যালয় এবং নেদারল্যান্ডসের ভাগিনিঙ্গেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিকস স্কুলে শিক্ষকতায় যুক্ত ছিলেন।<br>ড. আলম জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থায় ২০০২ সালের মার্চ থেকে ২০০৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত পূর্ণকালীন চাকরিরত ছিলেন। ইউএনডিপি বাংলাদেশে ১৪ মাস সিনিয়র স্কেলে পূর্ণকালীন জাতীয় কনসালটেন্ট হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।<br>৩৫ বছরের অধ্যাপনার অভিজ্ঞতা শেষে শামসুল আলম ২০০৯ সালের ১ জুলাই পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য হিসেবে যোগদান করেন। পরে দফায় দফায় বাড়ে তার চুক্তির মেয়াদ। গত ৩০ জুন তার সর্বশেষ চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়।<br>এদিকে অর্থনীতিতে বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার শামসুল আলমকে ২০২০ সালে একুশে পদক প্রদান করে। এর আগে ২০১৮ সালে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ইকোনমিক মডিউলিং তাকে ‘ইকোনমিক অব ইনফ্লুয়েন্স অ্যাওয়ার্ড’ দেয়।<br>এছাড়া কৃষি অর্থনীতি বিষয়ে দক্ষতা ও অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশ কৃষি অর্থনীতিবিদ সমিতি ২০১৮ সালে শামসুল আলমকে স্বর্ণপদকে ভূষিত করে। তার গবেষণা, পাঠ্যপুস্তকসহ অর্থনীতি বিষয়ক প্রকাশিত গ্রন্থ সংখ্যা ১২টি।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-18 22:07:24 1970-01-01 00:00:00 কেন্দ্রে নয়, বাসায় টিকা নিতে চান খালেদা জিয়া http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108569 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624428_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624428_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণে মোবাইল ফোনে এসএমএস পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তবে টিকা কেন্দ্রে গিয়ে নয়, বাসায় টিকা নিতে চান সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।<br>গত ৯ জুলাই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘সুরক্ষা’ ওয়েবসাইটে টিকার জন্য নিবন্ধন ফরম পূরণ করেন খালেদা জিয়া। ৯ দিন পর টিকা নেওয়ার নির্ধারিত তারিখ উল্লেখ করে তাকে এসএমএস দেওয়া হয়।<br>বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।<br>তিনি বলেন, ম্যাডামের টিকা গ্রহণের এসএমএসের কথা তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক জাহিদ হোসেন আমাকে জানিয়েছেন।<br>তবে খালেদা জিয়া বাসায় নাকি টিকা কেন্দ্রে গিয়ে ভ্যাকসিন নেবেন- সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি শায়রুল কবির।<br>দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গুলশানের নিজ বাসভবন ফিরোজায় করোনা টিকা নিতে চান খালেদা জিয়া। সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। এ অবস্থায় তার বাসার বাইরে যাওয়া কোনোভাবেই নিরাপদ নয় বলে মনে করছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসকরা।<br>তারা চাচ্ছেন খালেদা জিয়াকে বাসায় রেখেই টিকা নেওয়ার ব্যবস্থা করতে। এ জন্য দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের সঙ্গে যোগাযোগও শুরু করেছেন বলেও সূত্রে জানা গেছে।<br>এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. জাহিদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ঈদের আগেই যে কোনো সময় টিকা নিতে পারেন ম্যাডাম। কবে তিনি টিকা নেবেন সেটি এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।<br><br></body></HTML> 2021-07-18 22:06:58 1970-01-01 00:00:00 লকডাউনেও সিলেট-৩ আসনে ভোট হবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=108568 http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624408_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/07/17/1626624408_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>লকডাউনের মধ্যে ২৮ জুলাই সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন নিয়ে কোনো বাধা নেই। ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ বা লকডাউন ঘোষণা করা হলেও এই নির্বাচনী এলাকা এসব বিধিনিষেধের বাইরে থাকবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। <br>রোববার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এক প্রজ্ঞাপনে এ কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, কভিডের কারণে আগামী ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ১৪ দিন কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এদিকে সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন ২৮ জুলাই। এ অবস্থায় বিধিনিষেধের বাইরে থাকবে নির্বাচনী এলাকা।<br>নির্বাচনী এলাকার নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কার্যক্রম এবং সংযুক্ত সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন অফিস বিধিনিষেধের বাইরে থাকবে বলেও জানানো হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-07-18 22:06:36 1970-01-01 00:00:00