বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, 2০২1
করোনায় মারা যাওয়া হাজার হাজার দেহ ছিড়ে খাচ্ছে চিল, শকুন
হাজারিকা অণলাইন ডেস্ক
Published : Saturday, 15 May, 2021 at 7:43 PM

করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া হাজার হাজার দেহ ছিড়ে খাচ্ছে চিল, শকুনের দল। গত কয়েকদিনে ভারতের উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ ও বিহারে গঙ্গা নদীতে ভাসতে দেখা গেছে অসংখ্য মরদেহ। এমন ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে কোভিডে নিহতদের মরদেহ নদীতে ভাসিয়ে দিতে দেখা যাচ্ছে।
জানা গেছে, উত্তরপ্রদেশের ২৭ জেলায় গঙ্গার তীরে কবর দেওয়া হয়েছে অসংখ্য মরদেহ। গঙ্গার ১১৪০ কিলোমিটার যাত্রাপথে নদীর তীরে ২ হাজারের বেশি মরদেহ কবর দেওয়া হয়েছে। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা কানপুর, কনৌজ, উন্নাও, গাজিপুর ও বালিয়ার জেলায়। কনৌজের মহাদেবী গঙ্গাঘাটের কাছে ৩৫০ এর বেশি মরদেহ কবর দেওয়া হয়েছে।

ঘাটে কর্মরত রাজনারায়ণ পাণ্ডে নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘বার বার মরদেহগুলো মাটিচাপা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু গঙ্গার জল বাড়লে মাটি সরে যাচ্ছে। ফলে অনেক সময় মরদেহ নদীতে ভেসে যাচ্ছে।’ কানপুরের শেরেশ্বর ঘাটের কাছের চিত্র একই। যে দিকে চোখ যায় সে দিকেই মরদেহ। ৪০০-র বেশি মরদেহ কবর দেওয়া হয়েছে সেখানে। মাটি সরে গিয়ে মরদেহ বেরিয়ে পড়ছে। তার উপর চিল, শকুন গিয়ে বসছে। এর থেকে সংক্রমণ ও দূষণ ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন পরিবেশবিদরা। উন্নাওয়ের দুটি ঘাটের কাছে ৯০০-র বেশি মরদেহ কবর দেওয়া হয়েছে। কুকুর ও শেয়ালে অনেক মৃতদেহ টেনে বের করে নিয়ে আসছে। উত্তরপ্রদেশ জুড়ে ভয়াবহ আতঙ্কের পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

পরিবেশবিদরা বলছেন, করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলে সেই মরদেহের শেষকৃত্যের একটা বিশেষ পদ্ধতি থাকে। এভাবে কবর দিলে সেটা শুধু পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারকই নয়, সেখান থেকে সংক্রমণও দ্রুত ছড়াতে পারে। তা ছাড়া এই মরদেহ গঙ্গায় ভেসে গেলে জলও দূষিত হবে। সূত্র: দৈনিক ভাস্কর ও আনন্দবাজার পত্রিকা


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি