মঙ্গলবার, ১৮ মে, 2০২1
ফেনীতে বাড়ছে মামলা জট, সশরীরে আদালত পরিচালনার দাবি আইনজীবীদের
Published : Monday, 3 May, 2021 at 9:12 PM

জেলা প্রতিনিধি
করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান সরকারি ‘বিধিনিষেধে’ সারাদেশের ন্যায় ফেনীর আদালতে বিচার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তবে ভার্চুয়াল আদালতের মাধ্যমে শুধুমাত্র জামিন শুনানি কার্যক্রম চলছে। এতে বেড়েই চলছে মামলা জট। তাই দ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্যবিধির বাধ্যবাধকতা আরোপ করে আদালতের কার্যক্রম স্বাভাবিক করার দাবি জানিয়েছেন আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীরা।
আদালতের সংশ্লিষ্ট কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে, সরকারি বিধিনিষেধে ১৩ এপ্রিল থেকে দেশজুড়ে ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। শুধুমাত্র কারাগারে থাকা আসামিদের জরুরি জামিন শুনানি ছাড়া বাকি সব কার্যক্রম স্থগিত করে নির্দেশনা জারি করা হয়। সেই থেকে ফেনীতে অদ্যাবধি ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
জেলা ও দায়রা জর্জ ড. বেগম জেবুননেছার ভার্চুয়াল আদালতে এ সময়ের মধ্যে ১২৫ জন আসামির জামিন শুনানি নিষ্পত্তি করা হয়। এদের মধ্যে ৫৩ জনের জামিন মঞ্জুর করে বাকি ৭২ আসামির আবেদন নামঞ্জুর করা হয়।
জেলা নারী নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ওসমান হায়দার ১৩ এপ্রিল থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত ৪০ জন আসামির জামিন শুনানি করে ১৪ জনের আবেদন মঞ্জুর ও ২৬ জনের নামঞ্জুর করেন।
একই ভাবে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের কয়েকটি আদালতে উল্লেখিত সময়ে ২১৬ জনের জামিন শুনানি করা হয়। এদের মধ্যে ৯৪ জনের জামিন মঞ্জুর করে বাকি ১২২ জনের আবেদন নামঞ্জুর করা হয়েছে।
তবে ভার্চুয়ালি জামিন শুনানি ছাড়া আদালতের বাকি সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এতে হতাশা প্রকাশ করেছেন বিচারপ্রার্থীরা।
মো. শাহ আলম নামের সোনাগাজী উপজেলার এক ব্যক্তি জানান, তিনি একটি হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী। লকডাউন শেষ হলেই তিনি প্রবাসে চলে যাবেন। হত্যা মামলাটিতে তার সাক্ষ্য না হলে বিচারপ্রার্থীরা ন্যায় বিচার বঞ্চিত হবেন। এপ্রিল মাসে সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ নির্ধারিত থাকায় সবাই আশা করেছিল তার সাক্ষ্যটা প্রবাসে যাওয়ার আগেই হয়ে যাবে। কিন্তু লকডাউনে ভার্চুয়াল আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণ বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় তিনি প্রবাসে চলে গেলে এ মামলার বিচারপ্রক্রিয়া আটকে যাবে।
সোমবার (৩ মে) দুপুরে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুর হোসেন জানান, লকডাউনের পর থেকে আদালতে শুধুমাত্র কারাগারে থাকা আসামিদের জামিন শুনানি চলছে। অন্যসব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এতে করে একদিকে বিচারপ্রার্থীদের বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রিতা তৈরি হচ্ছে অন্যদিকে মামলার জটও বাড়ছে। যদিও আদালতের সেবাগ্রহীতা থেকে শুরু করে সবার স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সীমিত পরিসরে ভার্চুয়াল চালু হয়েছে কিন্তু এর দীর্ঘসূত্রিতায় বিচারপ্রার্থী ও সংশ্লিষ্টদের নানাভাবে ভোগান্তিতে ফেলবে।
তাই যতদ্রুত সম্ভব ভার্চুয়াল আদালত বন্ধ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিয়মিত আদালত চালুর দাবী জানান আইনজীবী সমিতির এ নেতা।




সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি