http://www.hazarikapratidin.com RSS feed from hazarikapratidin.com en http://www.hazarikapratidin.com - প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন আজ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110621 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754297_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754297_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন আজ মঙ্গলবার। তিনি ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি তিনি। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী জন্মদিনে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। তার অনুপস্থিতিতেই দিনটিতে উৎসব মুখর পরিবেশে নানা কর্মসূচি পালন করবে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন। জন্মদিন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ এদিন সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এ ছাড়া একইদিনে কেন্দ্রীয়ভাবে বাদ জোহর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ দেশের সব মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া অন্যান্য ধর্মের উপাসনালয়গুলোতে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। শেখ হাসিনার শিক্ষাজীবন শুরু হয়েছিল টুঙ্গিপাড়ার এক পাঠশালায়। ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়ে পরিবারকে ঢাকায় নিয়ে আসেন। তখন পুরান ঢাকার রজনী বোস লেনে ভাড়া বাসায় ওঠেন তারা। বঙ্গবন্ধু যুক্তফ্রন্ট মন্ত্রিসভার সদস্য হলে সপরিবারে ৩, নম্বর মিন্টু রোডের বাসায় তারা বসবাস শুরু করেন। শেখ হাসিনাকে ঢাকা শহরে টিকাটুলির নারী শিক্ষা মন্দিরে ভর্তি করা হয়। এখন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি শেরেবাংলা গার্লস স্কুল এণ্ড কলেজ নামে খ্যাত। তিনি ১৯৬৫ সালে আজিমপুর বালিকা বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, ১৯৬৭ সালে ইন্টারমিডিয়েট গার্লস কলেজ (বর্তমান বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা মহাবিদ্যালয়) থেকে উচ্চমাধ্যমিকপরীক্ষায় পাস করেন। ওই বছরেই তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনার্সে ভর্তি হন এবং ১৯৭৩ সালে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। শেখ হাসিনা ইন্টারমিডিয়েট গার্লস কলেজে পড়ার সময় ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সদস্য এবং রোকেয়া হল শাখার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ছাত্রলীগের নেত্রী হিসেবে তিনি আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন এবং ৬-দফা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব গ্রহণের পর থেকে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে দলকে সুসংগঠিত করেন এবং ১৯৯৬ সালে প্রথম, ২০০৮ সালে দ্বিতীয় এবং ২০১৪ সালে তৃতীয় এবং ২০১৮ সালে চতুর্থবারের মতো নির্বাচনে জয়লাভ করে দলকে দেশের নেতৃত্বের আসনে বসাতে সক্ষম হন। তিনি রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও কূটনৈতিক দক্ষতা দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের জন্য কুড়িয়েছেন সুনাম। দেশের জন্য বয়ে এনেছেন গৌরব ও সাফল্য। রাষ্ট্র পরিচালনায় বিগত বছরের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও দেশের চলমান উন্নয়নের ধারার কথা তুলে ধরে রাজনৈতিক বিশ্লেকরা প্রধানমন্ত্রীকে বর্তমান বিশ্বের একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে অভিহিত করেছেন। তাদের মতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার দক্ষতা ও বিচক্ষণতা দিয়ে এখন বিশ্বমানের নেতার পর্যায়ে নিজের স্থান করে নিয়েছেন।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-28 20:51:00 1970-01-01 00:00:00 দেশে দুর্নীতি রয়েছে, অস্বীকার করার কিছু নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110620 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754272_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754272_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, দেশে দুর্নীতি রয়েছে, এটা অস্বীকার করার কিছু নেই। গতকাল সোমবার বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) ন্যাশনাল রেচিলিয়েন্ট প্রোগাম (এনপিআর) কর্মসূচির আওতায় তিন দিনের এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করা হয়। জলবায়ু সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ এবং এসডিজি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মন্ত্রী। দেশ থেকে দুর্নীতি তাড়াতে হবে হুঁশিয়ারি দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলনে, দুর্নীতি প্রতিরোধের চাপ অব্যাহত থাকবে। দেশে থেকে বিষঁফোড়া তাড়াতে হবে। কিন্তু কাউকে মারধর করে দূর্নীতি বন্ধ করা যাবে না। বিভিন্ন আইন কানুন দিয়ে প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। মন্ত্রী বলনে, মানের সঙ্গে আপোশ করা যাবে না। মানসম্মতভাবে কাজ না করলে প্রকল্প বাস্তবায়ন করে লাভ নেই। আমাদের কাজ প্রকল্প আটকানো নয়। কন্তিু প্রকল্প অবশ্যই মানসম্মত হতে হবে। প্রকল্প মানুষের স্বার্থে নিতে হবে। আমরা চাই দ্রুত কাজ হোক। তবে আইন কানুনের মধ্য থেকে কাজ করতে হবে। প্রশ্ন রেখে মন্ত্রী আরও বলেন, জরুরি অবস্থায় আমরা সবাই এক হয়ে কাজ করি। কিন্তু স্বাভাবিক সময়ে কেন সেটি করি না। একই হাত, একই মাথা, একই মানুষ। তাহলে স্বাভাবিক সময়ে কেন জরুরি অবস্থার মতো ভালো কাজ হবে না? পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরীরর সভাপতিত্বে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাস, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আতিকুল হক এবং ইউএন ওমেন বাংলাদেশের প্রতিনিধি গীতাঞ্জলি সিং, বিবিএসের মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ডিজাস্টার প্রকল্পের পরিচালক রফিকুল ইসলাম। <br>মূল প্রবন্ধে রফিকুল ইসলাম বলেন, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কাছে যেসব তথ্য আছে সেগুলো কাজে লাগতে হবে। এজন্য এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে দুটি প্রশ্নপত্র চূড়ান্ত করা হবে। যেমন কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিবেশের নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশ্নপত্র চূড়ান্ত করা হবে। আতিকুল হক বলেন, সঠিক তথ্য সংগ্রহ, সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে। আমরা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য রেসকিউ বোট তৈরি করেছি। নারায়নগঞ্জে ডকইয়ার্ডে তৈরি হচ্ছে। এই বোটে প্রতিবন্ধী, শিশু ও নারীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।<br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:50:58 1970-01-01 00:00:00 ‘প্রস্তুতি সম্পন্ন, এনআইডি-টিকাকার্ড নিয়ে কেন্দ্রে আসুন’ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110619 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754246_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754246_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>রাজধানীসহ সারাদেশে ৭৫ লাখ ডোজ টিকাদান কার্যক্রমের প্রস্তুতি শেষ। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা থেকে শুরু হবে প্রথম ডোজের টিকাদান কর্মসূচি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে এ কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে।<br>সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুক লাইভে এসে এ কথা জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। তিনি বলেন, নির্দিষ্ট সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে টিকাদানের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্নভাবে টিকাদান চলবে। লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়ার পরও টিকাদানের সঙ্গে জড়িতরা কেন্দ্রে আরও এক ঘণ্টা অবস্থান করবেন। পাশাপাশি সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) আওতাধীন পরিচালিত টিকাপ্রদান কার্যক্রম চলবে।<br>গণটিকাদান কর্মসূচিতে ২৫ বছর বা তার চেয়ে অধিক বয়স্ক যারা, আগে থেকে নিবন্ধন করেছেন তাদের ক্ষুদেবার্তার মাধ্যমে টিকা নিতে বলা হচ্ছে।<br>বয়স্ক নারী ও শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়া হবে। গণটিকাদানের এ কর্মসূচিতে এবার গর্ভবতী মা ও স্তনদানকারী মায়েদের টিকা দেওয়া হবে না। টিকা নিতে যারা আসবেন তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও টিকাকার্ড সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে।<br>স্বাস্থ্যের ডিজি বলেন, স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিসহ সবার সঙ্গে সমন্বয় করে এ গণটিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে। ইউনিয়ন-উপজেলা ও পৌরসভার প্রতিটি কেন্দ্রে ৫০০ ডোজ বা তার বেশি এবং সিটি করপোরেশন এলাকার প্রতিটি কেন্দ্রে এক হাজার বা তার চেয়ে বেশি সংখ্যক ডোজ টিকা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:50:35 1970-01-01 00:00:00 ভোক্তাপর্যায়ে চালের মূল্যে কৃষকের চেয়ে মধ্যস্বত্বভোগীর ভাগ বেশি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110618 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754224_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754224_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>দেশের ভোক্তা পর্যায়ে চালের মূল্যে কৃষকের চেয়ে মধ্যস্বত্বভোগীর ভাগ বেশি। দিন দিন আরো বঞ্চিত হয়েছে আসছে। বর্তমানে কৃষকের ভাগ্যে জুটছে ভোক্তামূল্যের মাত্র ৪১ শতাংশ। বাকি ৫৯ শতাংশই মধ্যস্বত্বভোগীদের কাছে যাচ্ছে। তার মধ্যে চালকল মালিকদের পকেটেই থাকছে বড় অংশ। অথচ দু’দশক আগেও চালের ভোক্তামূল্যের প্রায় ৬৫ শতাংশই কৃষক পেতো। বাংলাদেশ ধান গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (ব্রি) কয়েকজন বিজ্ঞানী চালের ভোক্তামূল্যে কৃষকের অংশ নিয়ে সম্প্রতি এক গবেষণা চালিয়েছে। ওই গবেষণায় ভোক্তামূল্যে চালের সরবরাহ চেইনের সঙ্গে যুক্ত প্রতিটি পক্ষের যৌক্তিক বণ্টন সম্পর্কে একটি ধারণা দেয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ভোক্তামূল্যের কমপক্ষে ৫৫ শতাংশ কৃষক বা উৎপাদনকারীর পাওয়া উচিত। বাকি অংশের মধ্যে ধানের ফড়িয়া ৭ শতাংশ, মিলার ২৫ ও চালের ফড়িয়া ১৩ শতাংশ পেতে পারে বলে অভিমত দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ধান গবেষণা প্রতিষ্ঠান (ব্রি) সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।<br>সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, নানা ধরনের মধ্যস্বত্বভোগীর উত্থানের কারণেই বঞ্চিত হচ্ছে কৃষক। গত দুই দশকে কৃষকের অবস্থান নাজুক হয়েছে আর চালকল মালিকদের অবস্থান আরো শক্তিশালী হয়েছে। ২০০০ সালেও ভোক্তামূল্যে চালকল মালিকের ভাগ ছিল ২০ শতাংশ। ২০১৯ সালের মধ্যেই তা ৩৫ শতাংশ ছাড়িয়েছে। ধান উৎপাদনের জন্য মৌসুমের শুরুতেই কৃখশকে বিভিন্ন ধরনের ঋণ ও বাকিতে উপকরণ সংগ্রহ করা হয়। কৃষকদের আর্থিক অসংগতি ও মজুদক্ষমতা না থাকায় বাধ্য হয়েই মৌসুমের শুরুতেই তারা স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছে ধান বিক্রি করে দেয়। মূলত দেনা পরিশোধের চাপ থাকায় মৌসুমের শুরুতেই কম দামে ধান বিক্রি করে দেয় কৃষক। আর চালকল মালিক ও ফড়িয়ারা তার সুযোগ নিচ্ছে। মিলারদের বড় সুবিধা হলো বাজার থেকে সবচেয়ে কম দামে ধান কেনার সক্ষমতা। পরবর্তী সময়ে ওই ধান প্রক্রিয়াজাত করে সরকারের কাছে বা বাজারে চালকল মালিকরা বিক্রি করছে। গত কয়েক দশকে দেশে হাইব্রিড ধান আবাদ ও উৎপাদন বেড়েছে। কিন্তু বাজারে ওই ধানের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ক্রেতা না থাকায় চালকল মালিকরা অনেক ক্ষেত্রেই তা কম দামে কিনতে পারে। পরবর্তী সময়ে ওই ধান প্রক্রিয়াজাত করে উচ্চমূল্যে সরকারের কাছে বিক্রির মাধ্যমে অপ্রত্যাশিত মুনাফা করছে চালকল মালিকরা। তাতে কৃষক যেমন বঞ্চিত হচ্ছে, তেমনি সাধারণ ভোক্তাদেরও ব্যয় বাড়ছে।<br>সূত্র জানায়, কৃষকের যৌক্তিক মূল্যপ্রাপ্তি নিশ্চিত করতে বাজার ব্যবস্থাপনা উন্নয়নের পাশাপাশি মৌসুমের শুরুতে ধানের দাম নির্ধারণ করা হলে ভালো হতো। আর মৌসুমের শুরুতেই কৃষকরা যাতে ধান মজুদ বা সংরক্ষণ করতে পারে সে ব্যবস্থাও নেয়া প্রয়োজন। একই সঙ্গে বাজার তদারকির দায়িত্বে থাকা বিপণন অধিদপ্তরকেও শক্তিশালী করা জরুরি। তাহলেই দাম নির্ধারণে একপক্ষীয় ভূমিকা কমে আসতে পারে। বর্তমান সরকারের নানা কার্যক্রম ইতিমধ্যে ডিজিটালাইজড হয়েছে। সরকারি সংগ্রহ প্রক্রিয়ায় ওই সুবিধা বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন। মূলত কৃষক ও ভোক্তা উভয়ের স্বার্থকেই গুরুত্ব দেয়া জরুরি। আর এ দুয়ের মধ্যে সমন্বয় করেই নীতি সিদ্ধান্ত নিতে হবে। পাশাপাশি মধ্যস্বত্বভোগীদের যৌক্তিক আচরণ নিশ্চিতে তদারকি আরো বাড়াতে হবে।<br>সূত্র আরো জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই সরকারের মজুদ সক্ষমতা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা চলছে। তাছাড়া কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান কেনার প্রচলন ঘটানোরও দাবি উঠেছে। চিকন ও মোটা দানার চালের জন্য সরকারের পৃথক ন্যূনতম সহায়তা মূল্য (এমএসপি) ঘোষণা করা প্রয়োজন। তাছাড়া খাদ্য অধিদপ্তরেরও অন্তত মোট উৎপাদনের প্রায় ১০ শতাংশ সংগ্রহ করার সক্ষমতা অর্জনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। কিন্তু অভিযোগ রয়েছে, চালকল মালিকরা তাদের মুনাফা দেখানোর সময় এক ধরনের চালাকির আশ্রয় নেয়। অনেক সময় উপজাত দ্রব্য ভালো দামে বিক্রি করলেও তার হিসাব না দেখিয়েই তারা দাবি করে, মুনাফা হচ্ছে না। আর ওই বক্তব্যের ভিত্তিতে তারা সরকারের কাছ থেকে বাড়তি সুবিধা আদায়েরও চেষ্টা করে। এমন অবস্থায় চালকল মালিক পর্যায়েও কার্যকর উৎপাদন খরচ ও মুনাফার যৌক্তিক হার নির্ধারণ করে দেয়া প্রয়োজন।<br>এদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, বিপণন ব্যবস্থায় কৃষক, ভোক্তা ও মধ্যস্বত্বভোগী সবার স্বার্থই রক্ষা করতে হবে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে চালের দাম নির্ধারণ ও বিপণন প্রক্রিয়ায় মধ্যস্বত্বভোগী, বিশেষ করে চালকল মালিকরা ভীষণ শক্তিশালী ও পারদর্শী। কারণ বাজার তৈরি ও নিয়ন্ত্রণে কৃষকের কোনো ধরনের সাংগঠনিক সক্ষমতা নেই। আবার সরকারের কর্তৃপক্ষ হিসেবে খাদ্য অধিদপ্তরের কাছে ওই দক্ষতা ও হাতিয়ার নেই। ফলে ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে উদ্যোগগুলো কার্যকর হচ্ছে না। সরকারের সংগ্রহ নিতান্তই কম। ফলে ওই সংগ্রহ বাজারে বড় ধরনের প্রভাব রাখতে পারছে না। সেজন্যই কৃষককে কীভাবে শক্তিশালী করা যায় সে বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সেক্ষেত্রে সাপ্লাই চেইনে আরো দক্ষতা বৃদ্ধি এবং কৃষকের মজুদক্ষমতা বাড়ানো ও তথ্য সরবরাহ করা প্রয়োজন। তাছাড়া সঠিক নীতির অভাবে সরকারের বিভিন্ন মাধ্যম চাল কেনার ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের দিয়ে প্রভাবিত ও নিয়ন্ত্রিত হতে দেখা যায়। বাজার থেকে ধান না কেনার কারণে চালকল মালিকদের কাছেই ধানের বাজারে একচ্ছত্র আধিপত্য তুলে দেয়া হয়। ফলে বাজার থেকে ধান সংগ্রহের কোনো বিকল্প নেই। ধানের এতো বড় বাজার এককভাবে চালকল মালিকদের কাছে রাখা মোটেও যৌক্তিক নয়। তাই কৃষকের যৌক্তিক দাম দেয়ার ক্ষেত্রে সরকারের সংগ্রহ কার্যক্রমে যেমন দক্ষতা আনা প্রয়োজন, তেমনি সামগ্রিক প্রক্রিয়ায় কৃষকের মর্যাদাকেও প্রাধান্য দেয়া জরুরি। পাশাপাশি ভোক্তাস্বার্থ যাতে রক্ষা পায় সেদিকেও নজর রাখতে হবে।<br>অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে ব্রি’র মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর জানান, বাজারে চাল সরবরাহে কোনো ধরনের সংকট তৈরি না হওয়া সত্ত্বেও দামের ক্ষেত্রে অস্থিতিশীলতা দেখা দেয়। মূলত বিভিন্ন মধ্যস্বত্বভোগীর অনিয়ন্ত্রিত উত্থানের কারণেই তা হচ্ছে। প্রথাগত চাহিদা ও জোগানের পরিবর্তে এখানে সরকারের বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের ভূমিকার প্রয়োজন রয়েছে। সেক্ষেত্রে কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান কেনার কোনো বিকল্প নেই। ধান কেনায় আর্দ্রতা নিয়ে সমস্যা আসতে পারে। ওই প্রতিবন্ধকতা মেটাতে হলে আর্দ্রতা অনুসারে দাম নির্ধারণ করে কৃষকের কাছ থেকেই কিনতে হবে। আর্দ্রতা কমাতে একটি প্রক্রিয়া তৈরি করা প্রয়োজন।<br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:50:08 1970-01-01 00:00:00 মৎস্যজীবীদের বৃহত্তর স্বার্থেই ইলিশ আহরণে নিষেধাজ্ঞা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110617 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754194_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754194_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে ও ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতে আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ আহরণ বন্ধ থাকবে। <br>বুধবার মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ইফতেখার হোসেন এ তথ্য জানান। and nbsp; তিনি জানান, চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে আগামী ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রে ইলিশসহ সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। and nbsp; এ সময় ইলিশকে স্বাচ্ছন্দ্যে ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতেই সরকার দেশের সব নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। and nbsp; and nbsp;<br>মৎস্য অধিদপ্তরের ইলিশ সপদ উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় সম্পদ টাস্কফোর্স কমিটির সভায় মত প্রকাশের সময় মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, ইলিশ মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ ও অভিযান পরিচালনা করা হয় মূলত মৎস্যজীবীদের স্বার্থেই। এটি জাতীয় স্বার্থ। যারা এটি ধ্বংস করতে চাইবে, তাদের বিষয়ে কোন প্রকার বিবেচনা বা অনুকম্পা দেখানোর সুযোগ নেই। এক্ষেত্রে যতোটা কঠিন হওয়া প্রয়োজন সরকার ততোটাই কঠিন হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী মহোদয়। তিনি অসাধু মৎস্য শিকারীদের হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেন, নির্ধারিত সময়ে ইলিশ আহরণ রোধ করতে কঠিন থেকে কঠিনতর পদক্ষেপ নিতে সরকার কোন প্রকার কুণ্ঠাবোধ করবে না। কাউকে এ বিষয়ে এক চুল পরিমাণ ছাড় দেওয়ার অবকাশ নেই। <br>তিনি বলেন, কোনভাবেই মৎস্য খাতকে ধ্বংস হতে দেওয়া যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা, নজরদারি ও পৃষ্ঠপোষকতায় মাছে-ভাতে বাঙালির বাংলাদেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সরকার ও কৃষি বিভাগ কাজ করছে। <br>ইলিশের সঠিক প্রজনন-কালঃ ২০১০ সাল থেকে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের একটি টিম চাঁদপুর ও বরিশাল অঞ্চলের ইলিশ মাছ নিয়ে গবেষণা করে আসছে। তারা এই মাছের প্রজনন ঋতু সঠিকভাবে নির্ধারণের চেষ্টা করছে। আর প্রজনন ঋতু নির্ধারণের ক্ষেত্রে স্ত্রী মাছের জিএসআই (এড়হধফড় ঝড়সধঃরপ ওহফবী) পরিমাপপদ্ধতি ব্যবহার করছে তারা। জিএসআই হলো মাছের ডিমের ওজন ও দেহের ওজনের অনুপাতের শতকরা হার। সাধারণত প্রজনন ঋতুতে ডিমের আকার বড় হতে থাকে বলে জিএসআই বাড়তে থাকে এবং ভরা প্রজনন মৌসুমে গিয়ে তা সর্বোচ্চ হয়। প্রজনন ঋতুতে পূর্ণিমা ও অমাবস্যার সময়ে বিগত পাঁচ বছরের জিএসআইর পরিমাপ থেকে দেখা গেছে যে বাংলাদেশে ইলিশ সাধারণত সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি থেকে শুরু করে অক্টোবরের শেষ পর্যন্ত প্রজনন করে। সেপ্টেম্বরের শেষ ভাগে জিএসআই ১০-১১ থেকে বাড়তে বাড়তে অক্টোবরের মাঝামাঝি কিংবা শেষের দিকে এসে সর্বোচ্চ ১৫-১৭ পর্যন্ত পৌঁছায় এবং নভেম্বরে এসে তা হঠাৎ করে কমে যায়। ১৫-১৭ জিএসআই ইলিশের ভরা প্রজনন মৌসুম নির্দেশ করে। <br>তাদের গবেষণায় দেখা গেছে, অন্য অনেক মাছ, কাঁকড়া কিংবা চিংড়ির মতো ইলিশ মাছও প্রজননের ক্ষেত্রে চন্দ্রনির্ভর আবর্তন অনুসরণ করে। অর্থাৎ এই মাছ ভরা পূর্ণিমা বা অমাবস্যায় প্রজনন করে। মাছের প্রজননের ক্ষেত্রে আরও একটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ, সেটি হলো তাপমাত্রা। প্রজননের জন্য চন্দ্রনির্ভর আবর্তনের ওপর নির্ভরশীল মাছ সারা বছরের মধ্যে তার পছন্দনীয় তাপমাত্রা যে মৌসুমে পাওয়া যায়, সেই মৌসুমের পূর্ণিমা কিংবা অমাবস্যায় প্রজনন করে। ইলিশের ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম নয়। <br>গবেষণা টিমের মতে, ইলিশ শুধু পূর্ণিমাতেই প্রজনন করবেÑএ ধারণা ভুল। চন্দ্রনির্ভর আবর্তন অনুসরণ করে এমন অন্যান্য মাছের ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের উদাহরণ দেখে জানা যায় যে পূর্ণিমা কিংবা অমাবস্যা যেকোনো সময়েই এসব মাছ প্রজনন করতে পারে। এ ক্ষেত্রে সাধারণত ওই নির্দিষ্ট পূর্ণিমা কিংবা অমাবস্যার দিনসহ আগে ও পরের কয়েক দিন ধরে মাছ সবচেয়ে বেশি প্রজনন করতে দেখা যায়। কিন্তু ইলিশ মাছের প্রজনন ঋতু নির্ধারণ এবং ভরা প্রজনন মৌসুমে মাছ ধরা বন্ধ রাখার ক্ষেত্রে এসব বিষয় বৈজ্ঞানিকভাবে গবেষণা করা হয়েছে বলে মনে হয় না। ২০১০ সালের অক্টোবরের ১৬ থেকে ২৪ তারিখ পর্যন্ত মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ইলিশ ধরা বন্ধ ছিল, আর পূর্ণিমা ছিল ২৩ অক্টোবর। পূর্ণিমার দুই দিন পর থেকে কি মাছের প্রজনন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল? পরবর্তী দুই বছর ইলিশ আহরণ নিষেধের সময় ১০ দিন করে এগিয়ে আনা হলো। ২০১১ সালের অক্টোবরের ৬ থেকে ১৬ এবং ২০১২ সালে সেপ্টেম্বরের ২৫ থেকে অক্টোবরের ৫ তারিখ পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু ২০১২ সালে পূর্ণিমা ছিল ৩০ সেপ্টেম্বর। <br>তারা আরও জানায়, ২০১০ সালে যে ইলিশ ২৩ অক্টোবর প্রজনন করেছিল, ২০১২ সালে এসে মাত্র তিন বছরের ব্যবধানে সেই ইলিশ প্রায় এক মাস আগে প্রজনন করবে তা অসম্ভব। ২০১৩ সালে এসে ১৩ থেকে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করা হলো এবং এ সময় পূর্ণিমা ছিল ১৯ অক্টোবর। ২০১৩ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত আবার আগের নিয়মে ১০ দিন করে এগিয়ে আনতে আনতে এ বছর ইলিশ ধরা নিষিদ্ধের সময় ছিল ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ অক্টোবর। তাহলে কি ধরে নেয়া যায় যে, ইলিশের ক্ষেত্রে প্রতি তিন বছর পরপর প্রজননের চন্দ্রনির্ভর আবর্তন পরিবর্তন হয়ে আবার আগের অবস্থায় ফিরে যায়। জৈবিকভাবে সেটি এত দ্রুত ঘটা কি সম্ভব? জলবায়ু পরিবর্তন, হাইড্রোলজিক সাইকেলের ব্যাপক পরিবর্তন প্রভৃতি কারণে ইলিশের প্রজনন ঋতু এক মাস এগিয়ে বা পিছিয়ে যেতে পারে, কিন্তু সেটি তিন বছরের মতো এত কম সময়ে সম্ভব নয়।<br>প্রজনন কালে ইলিশ আহরণ বন্ধের সুফলঃ বিগত কয়েক বছর ধরে সরকার প্রজনন কালে ইলিশ আহরণে নিষেধাজ্ঞা জারি করায় ইলিশের উৎপাদন বহুগুণে বেড়েছে বলে মনে করেন ইলিশ গবেষক নিয়ামুল নাসের। <br>এ আদেশ অমান্য করলে কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এ কারণে এখন আর আগের মতো বছরব্যাপী অবাধে ইলিশ আহরণের সুযোগ নেই। <br>ইলিশের উৎপাদন বাড়ার কারণ হিসেবে নিয়ামুল নাসের জানিয়েছেন, বাংলাদেশের নদীর পানির গুনাগণ ও প্রবাহ ইলিশের প্রজননের জন্য এখনও অনুকূলে আছে। এ কারণে ডিমওয়ালা মা ইলিশ সাগর থেকে স্রোতযুক্ত মিঠাপানির নদীতে এসে ডিম ছাড়ে। <br>তাঁর মতে, ইলিশ মাছ জুলাই মাসের দিকে সমুদ্র থেকে নদীতে আসতে শুরু করে। এ সময় তারা পদ্মার দিকেই আসে। কারণ পদ্মার পানির স্তর ও গভীরতা অন্য নদীর চাইতে তখন বেশি। এ কারণে এত বেশি মাছ পাওয়া যায়। <br>এছাড়া সামুদ্রিক নিম্নচাপ এবং সাইক্লোনের একটা প্রভাব থাকার কারণেও ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কেননা ওই সময়টায় জেলেরা ট্রলার নিয়ে মাছ ধরতে যেতে পারে না। এই সময়ে ইলিশ বড় হতে সময় পায়। and nbsp;<br>তবে নদীর প্রবাহ ও গভীরতা দিন দিন কমে আসার কারণে এই ইলিশের আহরণ টেকসই থাকবে কিনা সেটা নিয়েও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পলির কারণে নদীর তলদেশ প্রতিনিয়ত বদলাচ্ছে। এভাবে পলি জমতে জমতে যদি নদীর গভীরতা ও পানি প্রবাহ কমে যায় তাহলে ইলিশ আর নদীতে আসতে চাইবে না বলে আশঙ্কা ইলিশ গবেষকদের। <br>এছাড়া কীটনাশক ও শিল্প কারখানার কেমিকেল নদীতে ফেলার কারণে যে দূষণ হচ্ছে সেটাও মাছের অস্তিত্বকে হুমকির মুখে ফেলেছে বলে জানান নিয়ামুল নাসের। <br>ইলিশের উৎপাদন টেকসই রাখতে নদীর পাশাপাশি সমুদ্রেও নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ইলিশ আহরণে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন তিনি। <br>তাঁর মতে, সমুদ্রের কোন অংশে ইলিশ বিচরণ করে সেটা গবেষণার মাধ্যমে বের করে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। যে জাটকাগুলোকে আমরা নদী থেকে সমুদ্রে পাঠাচ্ছি, সেটা যেন সমুদ্রে টিকে থাকতে পারে এজন্য ইলিশের বিচরণক্ষেত্রে নো ট্রলার জোন করতে হবে। and nbsp;<br>উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে ইলিশ মাছকে বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল আন্তর্জাতিক মেধা-স্বত্ব কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের তথ্যানুযায়ী দেশের মোট মৎস্য উৎপাদনের প্রায় ১২ শতাংশ আসে ইলিশ থেকে। এ ছাড়া পৃথিবীর মোট ইলিশের প্রায় ৬০ ভাগ উৎপন্ন হয় বাংলাদেশে। <br>এই বিপুল চাহিদা মেটাতে প্রয়োজন ইলিশের উৎপাদন বাড়ানো। আর সেজন্য ইলিশের জন্ম, বৃদ্ধি, প্রজননসহ বিভিন্ন বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ করে আসছে বাংলাদেশ সরকার। সারাদেশে ২২ দিনের এই ইলিশ আহরণ নিষেধাজ্ঞা আগের মতই সুফল বয়ে নিয়ে আসবে বলে মনে করেন গবেষকরা। and nbsp;<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:49:38 1970-01-01 00:00:00 করোনায় আরও ২৫ জনের মৃত্যু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110616 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754155_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754155_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে (কোভিড ১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৭ হাজার ৪৩৯ জনে।<br>২৫ জনের মধ্যে পুরুষ ১৩ জন ও নারী ১২ জন। এদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ২০ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে পাঁচজনের মৃত্যু হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুহার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।<br>এই সময়ে নমুনা পরীক্ষায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও এক হাজার ২১২ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৫২ হাজার ৫৬৩ জন। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।<br>বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি-বেসরকারি ৮২১টি ল্যাবরেটরিতে ২৮ হাজার ৪৮৫টি নমুনা সংগ্রহ ও ২৭ হাজার ৭৮৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়ালো ৯৬ লাখ ৪৬ হাজার ৯৩৭টি।<br>নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৩৬ শতাংশ। গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত শনাক্তের মোট হার ১৬ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ।<br>গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক হাজার ২০২ জন। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ১২ হাজার ৬৮১ জন। সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৪৩ শতাংশ।<br>২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৫ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব একজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব তিনজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ছয়জন, ষাটোর্ধ্ব ছয়জন, সত্তরোর্ধ্ব চারজন ও ৮০ বছরের বেশি বয়সী চারজন রয়েছেন।<br>বিভাগওয়ারি হিসাবে দেখা গেছে, ঢাকা বিভাগে ৯ জন, চট্টগ্রামে আটজন, খুলনায় তিনজন, সিলেটে তিনজন ও রংপুর বিভাগে দুইজনের মৃত্যু হয়।<br>দেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:49:03 1970-01-01 00:00:00 ট্রাফিক পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে বাইক পোড়ালেন পাঠাও চালক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110615 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754133_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754133_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>রাজধানীর বাড্ডায় ট্রাফিক পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন রাইড শেয়ারিং প্লাটফর্ম ‘পাঠাও’র এক চালক। গতকাল সোমবার সকালে বাড্ডার লিংক রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওটিতে দেখা যায়, ওই মোটরসাইকেলের চালক মামলা সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন। পাশাপাশি তিনি নিজের মোটরসাইকেলে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এ সময় আশপাশে লোকজন আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও তিনি তাদের বাধা দেন। এ বিষয়ে বাড্ডা থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, আইন অমান্য করায় দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট ওই মোটরসাইকেলচালকের কাগজপত্র দেখতে চান। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে পুলিশ তাকে থামিয়ে আগুন নেভায়। তিনি আরও বলেন, তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। গুলশান ট্রাফিক বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মো. রবিউল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি যেখানে ঘটেছে সেখানে যেন সকালবেলা কোনো মোটরসাইকেল না দাঁড়ায়, এমন নির্দেশনা ছিল দায়িত্বরত ট্রাফিক সদস্যদের প্রতি। ঘটনাস্থলে রাইড শেয়ারিংয়ের (পাঠাও) একটি মোটরসাইকেল দাঁড়ালে ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা চালকের কাছে কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু ওই চালক কাগজপত্র না দেখিয়ে উল্টো রেগে গিয়ে নিজের বাইকে আগুন ধরিয়ে দেন। ঘটনার পর পুড়ে যাওয়া মোটরসাইকেল ও শওকত আলমকে বাড্ডা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে শওকত জানান, মামলার জের ধরে ট্রাফিক পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন তিনি। গত সপ্তাহে ট্রাফিক পুলিশ একটি মামলা দেওয়ার পর গতকাল সোমবার আবারও মামলা দিতে চাইলে ক্ষোভ থেকে এই কাজ করেছেন বলে জানান। শওকত আলম সোহেল বলেন, আমার নিজের ইচ্ছাতেই গাড়ি (মোটরসাইকেল) জ¦ালাইছি। এতে তো আমার-ই ক্ষতি হলো। রাগ করতে গিয়ে নিজের গাড়িই জ¦ালিয়ে দিলাম। পুলিশের কোনো দোষ নেই। তিনি বলেন, আমি কেরানীগঞ্জে ব্যবসা করতাম। দেড় মাস ধরে পাঠাও চালাই। গত সপ্তাহেও আমাকে একটা মামলা দেওয়া হয়েছিল। গতকাল সোমবার ট্রাফিক পুলিশ আবারও মামলা দিতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন এ ঘটনা ঘটিয়েছি তা জানতে চেয়েছে। এখন আমি এলাকায় চলে যাচ্ছি। আমি এই ঘটনায় অনুতপ্ত। এ বিষয়ে বাড্ডা থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, সকালে বাড্ডা এলাকায় একটি ঘটনা ঘটে। আমরা তার পোড়ানো গাড়ি ও তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসি। তার বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের কোনো ভুল ছিল কিনা, কী ঘটেছিল এসব বিষয় জনার জন্য ওনাকে এখানে আনা হয়েছে। এ ঘটনায় কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা তা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো। বাড্ডা থানার সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক) সুবীন রঞ্জন দাস বলেন, লোকটি খুবই হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় রয়েছেন বলে মনে হলো। তার এলাকায় ব্যবসা ছিল। করোনায় লস করে এখন বাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন। এসব কারণে হতাশা থেকে হয়তো এ কাজ করেছেন। ঘটনার আগে রাইড শেয়ারিংয়ের জন্য ওই এলাকায় অনেকে বাইক নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। কর্তব্যরত ট্রাফিক সদস্যরা সেখানে গেলে অনেকে সেখান থেকে সরে যান। তবে শওকত আলম সেখানে থেকে যান। এ সময় কাগজপত্র চেক করতে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে তার বাইকে আগুন ধরিয়ে দেন। স্থানীয় দোকানদার জাকির হোসেন বলেন, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মামলা দেওয়ার জন্য পুলিশ কাগজপত্র নিয়ে গেলে ওই লোক নিজের গাড়িতে (মোটরসাইকেলে) হঠাৎ করে আগুন ধরিয়ে দেন। লোকটি পুলিশের সঙ্গে কোনো আলোচনা না করেই আগুন ধরিয়ে দেন। এভাবে আগুন দেওযায় আমাদের দোকান-পাটেও আগুন লেগে যেতে পারতো। আগুন নেভাতে পানি দিতে গেলে আমাকেও গালিগালাজ করেন তিনি। এখানকার সাইনবোর্ডগুলোও আগুনের ধোঁয়ায় কালো হয়ে গেছে। দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের এক সদস্য বলেন, মামলা কিন্তু ওই লোককে দেওয়া হয়নি। পাশের একজনকে মামলা দেওয়ার সময় তিনি এই কাজ করেছেন। তিনি হঠাৎ করেই নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছেন।<br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:48:42 1970-01-01 00:00:00 অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধের নির্দেশ হাইকোর্টের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110614 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754062_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754062_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>মাইক্রোক্রেডিটের (ক্ষুদ্রঋণ) নামে সারাদেশে অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা পরিচালনাকারী (সমবায় সমিতি ও এনজিওর) প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রণয়ন করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে, তালিকা করতে গিয়ে যদি ওই সব প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোনো অনিয়ম ধরা পড়ে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে তাদের কার্যক্রমও বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সেইসঙ্গে অননুমোদিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ক্ষুদ্রঋণদানকারী প্রতিষ্ঠানের কার্যকক্রমের বিষয়ে তদন্ত করতে একটি বিশেষ কমিটি গঠনের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ ছাড়া ঋণদানকারী স্থানীয় সুদকারবারিদের তালিকা দিতে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালতের আদেশ প্রতিপালন করে আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে এসব বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে সংশ্লিষ্টদের বলেছেন আদালত। এছাড়াও রুল জারি করেছেন আদালত। রুলে লাইসেন্স এবং অনুমোদন ছাড়া ক্ষুদ্রঋণদানকারী বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ ও তদারকিতে বিবাদীদের নীরবতা কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। অর্থসচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানি ও আদেশের জন্য আগামী ৩০ নভেম্বর দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। মাইক্রোক্রেডিটের (ক্ষুদ্রঋণ) নামে সারা দেশে চড়া সুদে ঋণদাতা মহাজনদের চিহ্নিত করার নির্দেশনা চেয়ে করা রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গতকাল সোমবার বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি জাকির হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নূর উস সাদিক। সুদকারবারিদের তালিকা প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা রিটের শুনানিতে প্রতারিত মানুষের অবস্থা তুলে ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাৎ নিয়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের একই ভার্চুয়াল বেঞ্চে শুনানি হয়। পরে এ বিষয়ে আদেশের জন্য ২৭ সেপ্টেম্বর দিন ঠিক করেন আদালত। তারই ধারাবাহিকতায় এই আদেশ দেন আদালত। এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর ক্ষুদ্রঋণের নামে সুদের ব্যবস্থা বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট করা হয়। ‘চড়া সুদে ঋণের জালে কৃষকেরা’ শিরোনামে গত ২৮ আগস্ট প্রকাশিত প্রতিবেদনসহ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে জনস্বার্থে গত ৭ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন এ রিট করেন। রিট আবেদনে সারাদেশের সুদ ব্যবসায়ীদের তালিকা চাওয়া হয়। এ ছাড়া চড়া সুদে অনানুষ্ঠানিকভাবে মহাজনদের ঋণ দেওয়া রোধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা/ব্যর্থতা কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা এবং সারাদেশে চড়াসুদে ঋণ বিতরণ কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা আরোপের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, সে বিষয়েও রুল জারির নির্দেশনা চাওয়া হয় রিটে। রিটে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), ৬৪ জেলার ডিসি ও এসপিকে বিবাদী করা হয়। আদেশের বিষয়ে রিটকারী আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, অননুমোদিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ক্ষুদ্র ঋণদানকারী প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমের বিষয়ে তদন্ত করতে একটি বিশেষ কমিটি গঠনে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে তদন্তকালে কোনো অননুমোদিত বা লাইসেন্সবিহীন প্রতিষ্ঠান পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে সেগুলো বন্ধ করে আইনগত ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দিয়েছেন উচ্চ আদালত। এ ছাড়া ঋণদানকারী স্থানীয় সুদকারবারীদের তালিকা দিতে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।<br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:47:32 1970-01-01 00:00:00 ১৪ নভেম্বর এসএসসি, ২ ডিসেম্বর থেকে এইচএসসি পরীক্ষা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110613 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754041_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754041_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>চলতি বছরের এসএসসি এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার সময়সূচি চূড়ান্ত করে অনুমোদন দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। গতকাল সোমবার এই দুই পরীক্ষার সময়সূচির অনুমোদন দেওয়া হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত এসএসসি পরীক্ষার সূচিতে দেখা গেছে, আগামী ১৪ নভেম্বর পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) বিষয়ের পরীক্ষা দিয়ে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষা শুরু করা হবে। ১৪ নভেম্বর সকালে পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), ১৫ নভেম্বর সকালে বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা এবং বিকেলে হিসাব বিজ্ঞান, ১৬ নভেম্বর রসায়ন (তত্ত্বীয়), ১৮ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া (তত্ত্বীয়), ২১ নভেম্বর সকালে ভূগোল ও পরিবেশ এবং বিকেলে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং, ২২ নভেম্বর উচ্চতর গণিত (তত্ত্বীয়) ও জীব বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), ২৩ নভেম্বর সকালে পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং অর্থনীতি, বিকেলে ব্যবসায় উদ্যোগ বিষয়ের পরীক্ষা হবে। অন্যদিকে, এইচএসসি পরীক্ষায় তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা ২ ডিসেম্বর শুরু হয়ে শেষ হবে ৩০ ডিসেম্বর। সময়সূচি অনুযায়ী, সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা এবং দুপুর ২টা থেকে বিকেল সাড়ে তিনটা, দুই শিফটে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। উভয় পরীক্ষার ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নিতে হবে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। প্রথমে বহুনির্বাচনী ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। উভয় অংশের মাঝে কোনো বিরতি থাকবে না। প্রতিটি পরীক্ষার জন্য দেড় ঘণ্টা করে সময় দেওয়া হবে। এ বিষয়ে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, আমাদের প্রস্তাবনার ভিত্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এসএসসি ও এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার রুটিন অনুমোদন দিয়েছে। বিকেলে এটি নিয়ে বৈঠক আছে। তারপর আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হবে। সকল শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে দুই পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হবে।<br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:47:11 1970-01-01 00:00:00 আড়াই কোটি টাকা আত্মসাত করে আত্মগোপনে মেডিকেল টেকনোলজিস্ট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110612 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754020_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632754020_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>বিদেশগামীদের করোনার নমুনা পরীক্ষার প্রায় আড়াই কোটি টাকা আত্মসাত করে আত্মগোপন করেছেন খুলনা জেনারেল হাসপাতালের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) প্রকাশ কুমার দাশ। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ বিষয়টা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় খুলনা সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। সিভিল সার্জন জানান, খুলনা জেনারেল হাসপাতালে বিদেশগামীদের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। মেডিকেল টেকনোলজিস্ট প্রকাশ কুমার দাশ নমুনা পরীক্ষার ফি গ্রহণের দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু তিনি দীর্ঘদিন ধরে প্রতিদিন যতজন পরীক্ষা করাতেন তার চেয়ে কম সংখ্যক মানুষের নাম খাতায় লিপিবদ্ধ করতেন। বাকি টাকা আত্মসাত করতেন। প্রকাশ যে তালিকা দিতেন সে অনুযায়ী ক্যাশিয়ার টাকা বুঝে নিতেন।<br>তিনি জানান, এ বিষয়ে তাদের সন্দেহ হওয়ার পর গত বুধবার প্রকাশের কাছে হিসাব চাওয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার তার হিসাব দেওয়ার কথা ছিল। এদিন দুপুরে অফিসে বসে হিসাব করার একপর্যায়ে তিনি কাউকে কিছু না জানিয়ে অফিস থেকে চলে যান। এরপর থেকে তিনি আর অফিসে আসেন না, তার বাসায় লোক পাঠিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। সিভিল সার্জন জানান, আত্মসাত করা টাকার পরিমাণ প্রায় ২ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। সোমবার বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয়কে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।<br>সিভিল সার্জন বলেন,বিষয়টি নিয়ে আইনজীবীকে দিয়ে মামলার এজাহার লেখানো হচ্ছে। সন্ধ্যায় খুলনা সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি। <br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:46:45 1970-01-01 00:00:00 বাংলাদেশের রেলের উন্নয়নে ভারত পাশে থাকবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110611 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753993_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753993_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>বাংলাদেশে রেলের উন্নয়নে যা যা সাহায্যের প্রয়োজন আমরা তা করতে প্রস্তুত। পরামর্শ শুধু নয়, অবকাঠামোগত উন্নয়নেও ভারত পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। গতকাল সোমবার রাজধানীর রেল ভবনে সিরাজগঞ্জের শহীদ মনসুর আলী স্টেশন থেকে বগুড়া পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণে পরামর্শক নিয়োগের চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ৯৭ কোটি টাকার বিনিময়ে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান রাইটস ইন্ডিয়া লিমিটেড এবং আরভি ইন্ডিয়া যৌথভাবে এ প্রকল্পের পরামর্শকের কাজ করবে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, রেলওয়ে ভারত ও বাংলাদেশের কমন ডিএনএ। ঔপনিবেশিক সময়কাল থেকেই ভারত ও বাংলাদেশর মধ্যে রেল যোগাযোগ ছিল। যা আজও বিদ্যমান। বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, রেল সাধারণ মানুষের বাহন। এর ফলে স্বল্প খরচে যাতায়াত করা সম্ভব। ভৌগলিক কারণেই রেল বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। রেল যত বিস্তৃতি পাবে বাংলাদেশের অর্থনীতি ও সাধারণ মানুষের উন্নয়ন হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে রেলের উন্নয়নে যা যা সাহায্যের প্রয়োজন আমরা তা করতে প্রস্তুত। পরামর্শ শুধু নয় অবকাঠামোগত উন্নয়নেও আমার পাশে থাকবো। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন রেল সচিব সেলিম রেজা। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার এবং রাইটস ইন্ডিয়া লিমিটেডের পরিচালক অনিল ভিজ।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:46:10 1970-01-01 00:00:00 বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা: দুদকের আবেদন পর্যবেক্ষণসহ নিষ্পত্তি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110610 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753959_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753959_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>অপরাধে জড়িত সন্দেহভাজন কোনো ব্যক্তির বিদেশ যাওয়ার ওপর দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে কি-না এবং এজন্য নতুন করে সুনির্দিষ্ট বিধি বা আইন প্রণয়ন না করা পর্যন্ত ওই ব্যক্তির বিদেশ যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে দুদকের আবেদন পর্যবেক্ষণসহ নিষ্পত্তি করে রায় দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। তবে পর্যবেক্ষণে কী থাকছে তা জানার জন্য রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। রায় ঘোষণার নির্ধারিত দিনে গতকাল সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ রায় দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান, এ কে এম ফজলুল হক। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। পৃথক রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী প্রবীর নিয়োগী, সাবেক অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা, ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার আরশাদুর রউফ ও মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল। এর আগে সুনির্দিষ্ট বিধি বা আইন প্রণয়ন না করা পর্যন্ত দুর্নীতি মামলার আসামি বা সন্দেহভাজন কোনো ব্যক্তির বিদেশ যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার বিষয়ে দুদক নয়, সিদ্ধান্ত নেবেন বিশেষ জজ আদালত- হাইকোর্টের এমন অভিমত দিয়ে দেওয়া রায় ও আদেশের বিরুদ্ধে দুদক আপিল বিভাগে ৫টি আবেদন করেছিল। অপরাধে জড়িত সন্দেহভাজন কোনো ব্যক্তির বিদেশ যাওয়ার ওপর দুদক নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে কি-না এবং এজন্য নতুন করে আইনের প্রয়োজন আছে কি-না সে প্রশ্নে গত ১৩ সেপ্টেম্বর প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের একই বেঞ্চ শুনানি শেষে রায়ের জন্য ২৭ সেপ্টেম্বর দিন নির্ধারণ করেন। তারই ধারাবাহিতায় গতকাল সোমবার এই রায় এলো। নরসিংদীর ব্যবসায়ী আতাউর রহমান ওরফে সুইডেন আতাউর রহমান, জাহাজ ব্যবসায়ী গাজী বেলায়েত হোসেনসহ বেশ কয়েকজনকে বিদেশ যাওয়ার ক্ষেত্রে বিরত রাখতে ব্যবস্থা নিতে ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দেয় দুদক। শুধুই এই দুইজন নয়, এর আগেও ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদসহ অনেক ব্যক্তিকে বিদেশ যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে চিঠি দেয় দুদক। এই নিষেধাজ্ঞা চ্যালেঞ্জ করে ওই দুই ব্যবসায়ী, এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাফসির মোহাম্মদ আউয়াল হাইকোর্ট রিট আবেদন করেন। এর মধ্যে কয়েকটি মামলায় হাইকোর্ট রায় দিয়েছেন। আর কোনোটিতে দিয়েছেন আদেশ। এসব রায় ও আদেশের বিরুদ্ধে দুদক আপিল বিভাগে আবেদন করে। এসব আবেদনের ওপর আপিল বিভাগে শুনানি হয়। গত ৭ সেপ্টেম্বর অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন এবং দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান দুদকের পদক্ষেপের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে শুনানি করেন। তারা হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত বাতিলের পক্ষে মত দেন। অপরদিকে রিট আবেদনকারীপক্ষে অ্যাডভোকেট প্রবীর নিয়োগী ও ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল শুনানি করেন। দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ও বিদেশ যেতে অনুমতি সংক্রান্ত হাইকোর্টের পৃথক তিনটি রায় ও দুটি আদেশের বিরুদ্ধে দুদকের করা পৃথক পাঁচটি লিভ টু আপিলের শুনানি শেষ হয়েছে। আপিল বিভাগ ২৭ সেপ্টেম্বর রায়ের জন্য তারিখ রেখেছেন। এর আগে দেশত্যাগে বিরত রাখার বৈধতা নিয়ে নরসিংদীর মো. আতাউর রহমানের করা এক রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ১৬ মার্চ হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ রায় দেন। রায়ে বলা হয়, এ বিষয়ে যতক্ষণ পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট আইন বা বিধি প্রণয়ন না হচ্ছে অনুসন্ধান ও তদন্ত পর্যায়ে কাউকে বিদেশ যেতে বিরত রাখতে হলে সংশ্লিষ্ট আদালত থেকে অনুমতি নিতে হবে। অন্যদিকে পাসপোর্ট জব্দ ও দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে মো. আহসান হাবিব নামের এক ব্যক্তির করা রিটের ওপর চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে ১৪ মার্চ রায় দেন হাইকোর্টের অপর একটি দ্বৈত বেঞ্চ। এই রায় অনুসারে অপরাধের অনুসন্ধান বা তদন্তকালে জরুরি পরিস্থিতিতে কোনো ব্যক্তিকে দেশত্যাগে বিরত রাখা ও পাসপোর্ট জব্দ করা হলে কমিশন বা তদন্তকারী কর্মকর্তাকে পরে অনুমোদনের জন্য সিনিয়র স্পেশাল জজ বা স্পেশাল জজ আদালতে আবেদন করতে হবে।<br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:45:49 1970-01-01 00:00:00 করোনার টিকা নিতে আগ্রহী নয় ৩৯ শতাংশ মানুষ: গবেষণা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110609 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753939_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753939_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর এখনও প্রায় ৩৯ দশমিক ৫ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী নয়। বিজ্ঞানভিত্তিক জার্নাল ‘প্লস ওয়ান’-এ প্রকাশিত এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমন তথ্য। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানের ৪ হাজার ১৭৫ জনের মধ্যে এ গবেষণা চলান। ছয় মাস আগে গবেষণা কাজটি করা হলেও বর্তমানে এ পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে দাবি গবেষক দলের। গবেষণায় দেখা গেছে, ৬০ দশমিক ৫ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী হলেও এখনও ৩৯ দশমিক ৫ শতাংশ লোক নিতে চান না টিকা। এদের মধ্যে অনেকে মনে করেন, প্রাকৃতিকভাবেই তারা সুরক্ষিত। গবেষণায় আরও দেখা যায়, প্রায় ৯২ দশমিক ৬ শতাংশ মানুষই করোনার টিকা সম্পর্কে ধারণা রাখেন। বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে তারা এ ধারণা পেয়েছেন। টিকা সম্পর্কে জানলেও ৩৭ দশমিক ৪ শতাংশ মানুষ মনে করেন, টিকা নিলে করোনা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। ৪৬ শতাংশ মনে করেন, টিকায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। আবার ১৬ দশমিক ৬ শতাংশের দাবি, করোনা টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় মৃত্যুঝুঁকি রয়েছে। গবেষক দলের প্রধান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. অলক পাল বলেন, আমাদের গবেষণাটি করোনার টিকাদান কার্যক্রমের শুরুর দিকে করা। তখন মানুষের মধ্যে এ টিকা সম্পর্কে তেমন কোনও সচেতনতা ছিল না। যদিও বর্তমানে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়ছে। তবে এখনও নিম্ন আয়ের বিশাল একটি অংশ করোনার টিকার আওতায় আসেনি। গণটিকার মতো কার্যক্রম আরও বাড়ানো হলে এ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। গবেষণা দলের আরেক সদস্য চবি প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. দ্বৈপায়ন শিকদার বলেন, গবেষণা কাজটি বেশ কিছুদিন আগের। গবেষণার পুরো প্রক্রিয়া শেষ করে প্রচার হতে বেশ কিছুদিন সময় লেগে গেছে। বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে তারতম্য থাকতে পারে। তবে ফলাফল যা-ই হোক, গণটিকার মতো কার্যক্রম আরও প্রসারিত করা প্রয়োজন। চিকিৎসকদের মতে, করোনার টিকা গ্রহণ করার পর কারও হাতে ব্যথা ও ফুলে যাওয়া, মাথাব্যথা, জ¦র, অবসাদ দেখা দেয়। শরীরে অ্যান্টিজেন প্রবেশ করার পর এ ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়, যা স্বাভাবিক। এর কারণ, শরীরে বাইরে থেকে প্রবেশ করা কোনও কিছুর উপস্থিতি শনাক্ত হওয়া মাত্রই শ্বেতরক্তকণিকাগুলো ছড়িয়ে পড়ে। গবেষণা সহযোগী ছিলেন পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনার্দন মহান্ত ও সঞ্জীব ঘোষ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. সুজত পাল। এ ছাড়া যুক্ত ছিলেন আকিব জাবেদ, ফাহমিদা ইয়াসমিন, সুরঞ্জনা শিকদার, বিশ্বজিৎ চৌধুরী, তপন কুমার নাথ। <br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:45:26 1970-01-01 00:00:00 ইউপি নির্বাচনে জয়ী হতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ঢাকায় খুন, গ্রেপ্তার ১ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110608 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753916_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/27/1632753916_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>বাগেরহাটের মোংলার এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রতিপক্ষ মেম্বার প্রার্থীকে ফাঁসানোর জন্য এক অসহায় নারীকে ঢাকার সাভারে এনে বাসাভাড়া নিয়ে পরিকল্পনা করে হত্যা করা হয়। এ হত্যার সঙ্গে জড়িত একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই। গতকাল সোমবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে অবস্থিত পিবিআইয়ের প্রধান কার্যালয়ে এসব কথা বলেন পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার। তিনি বলেন, মোংলা থানার ৬ নম্বর চিলা ইউনিয়নের নির্বাচন হয় গত ২০ সেপ্টেম্বর। এই ইউপি নির্বাচনে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী ছিলেন হালিম হাওলাদার, বেলাল সরদার এবং এশারাত। এদের মধ্যে নির্বাচনের আগ পর্যন্ত মেম্বার ছিলেন হালিম হাওলাদার। বেলাল নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বলে হালিম ভাবছিলেন তিনি পরাজিত হবেন। তাই বেলালকে নির্বাচন থেকে সরানোর জন্য ষড়যন্ত্র করেন হালিম। এরপর তিনি পূর্বপরিচিত পিরোজপুরের জামাল হাওলাদারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। বেলালকে ফাঁসানোর জন্য একটি খুনের পরিকল্পনা করেন তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী, ৩০ হাজার টাকায় জামালের সঙ্গে হালিমের চুক্তি হয়। এরপর তাকে নগদ পাঁচ হাজার টাকা দেন। ডিআইজি বনজ কুমার বলেন, জামাল হাওলাদার ঢাকার সাভারের মশিউর রহমান মিলন নামে এক কবিরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তার কাছে খুন করার জন্য একজন ভিকটিম চান জামাল। এরপর মিলন পারুল বেগম নামে এক নারীর সঙ্গে জামালের পরিচয় করিয়ে দেন। পারুলকে বিয়ে করার কথা বলে সাভারের নামা বাজার এলাকায় গত ৭ সেপ্টেম্বর স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন জামাল। ওই রাতেই জামাল পারুলকে খুন করে পালিয়ে যান। পরদিন বাসা থেকে কেউ বের না হওয়াতে ওই বাসার কেয়ারটেকার জানালা খুলে দেখতে পান ওই নারী খুন হয়েছেন। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। বাসা থেকে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়। যার নাম বেলাল সরদার। গ্রামের বাড়ি মোংলার চিলা ইউনিয়নে। ওই ঘটনায় সাভার থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা হয়। পিবিআই মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায়। জাতীয় পরিচয়পত্রের সূত্র ধরে বেলালের সঙ্গে যোগাযোগ করে পিবিআই। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধারকৃত জাতীয় পরিচয়পত্র ধরে বেলালকে পিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করে। তার কাছে জানতে চায়, তার কোনও শত্রু আছে কি না। তার নির্বাচনের কারণে প্রতিদ্বন্দ্বি হালিম ও এশারাতের নাম বলেন বেলাল। এ ছাড়া আর কোনো শত্রু নেই। বনজ কুমার মজুমদার আরও বলেন, তদন্ত করতে গিয়ে একপর্যায়ে আমরা জানতে পারি, হালিমের ঢাকায় মশিউরের সঙ্গে ঘনঘন যোগাযোগ হয়। এরপর ওই ব্যক্তিকে শনাক্ত করে পিবিআই। তার নাম জামাল হাওলাদার। তার ছবি সাভারের ওই বাসার কেয়ারটেকারকে দেখালে সবাই জামালকে শনাক্ত করেন। তারা বলেন, পারুলকে নিয়ে জামালই বাসা ভাড়া নিয়েছিলেন। এরপর জামালকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মশিউর রহমান মিলনকেও গ্রেপ্তার করা হয়। তারা দুজনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। হালিম মেম্বারের পরিকল্পনাতেই এই হত্যাকাণ্ড হয়। মূলত প্রতিদ্বিন্দ্বি প্রার্থী বেলালকে ফাঁসানোর জন্যই এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয় বলে তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। তবে নির্বাচনের কারণে পিবিআই হালিমকে তাৎক্ষিণক গ্রেপ্তার করেনি। ২০ সেপ্টেম্বর নির্বাচন শেষ হওয়ার পর গত ২৬ সেপ্টেম্বর হালিমকে গ্রেপ্তার করে। নির্বাচনে বেলাল বা হালিমের কেউ জেতেননি। জয় পেয়েছেন তৃতীয় প্রার্থী এশারাত নামে এক ব্যক্তি। পিবিআই প্রধান বলেন, ওই নারীকে হত্যার পর জামাল ও হালিম বেশ কয়েক বার ফোনে কথা বলেছেন। প্রতিপক্ষ গ্রেপ্তার না হলে আরও খুন করার পরিকল্পনা করেছিলেন তারা। তাদের টার্গেট ছিল একজন হিন্দু ব্যক্তি। ভিকটিম পারুল বেগম সাভারে একা থাকতেন। শিশুদের পোশাক ফেরি করতেন। আর জামাল হাওলাদার ওরফে আসাদুজ্জামান কাঁচের ভাঙারি ব্যবসা করতেন।<br><br><br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:44:59 1970-01-01 00:00:00 ক্যান্সার মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110607 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752988_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752988_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে ক্যান্সারের ঘটনা ব্যাপকভাবে বাড়বে বলে আশঙ্কা রয়েছে। একদিকে তামাক এবং মদ্যপান, অন্যদিকে খাদ্যদ্রব্যে নানা রাসায়নিক, কীটনাশক ব্যবহার ও ভেজাল- এই দুই কারণে ক্যান্সার মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করলেন ভারতের প্রখ্যাত ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. বিশাল রাও। আর এজন্য বাংলাদেশে ক্যান্সারসহ অন্যান্য অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধের জন্য শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের বিকল্প নেই বলেই জানান তিনি। <br><br>সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে স্বাস্থ্য সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার সঙ্গে বৈঠকে এসব কথা বলেন ভারতের প্রখ্যাত ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. বিশাল রাও। ডা. রাওয়ের নেতৃত্বে হেলথকেয়ার গ্লোবাল এন্টারপ্রাইজ (এইচসিজি)-এর একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফরে এসেছে। ক্যান্সারের ঝুঁকিতে থাকা বিভিন্ন দেশে সচেতনতামূলক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে তারা বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মতবিনিময় করছে। বাংলাদেশে ক্যান্সারের চিকিৎসা ও প্রতিরোধের নানা দিক নিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গেও বৈঠক করেছে এইচসিজি প্রতিনিধিদল।<br><br>বৈঠকে বিশাল রাও বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে ক্যান্সারের ঘটনা ব্যাপকভাবে বাড়বে বলে আশঙ্কা রয়েছে। একদিকে তামাক এবং মদ্যপান, অন্যদিকে খাদ্যদ্রব্যে নানা রাসায়নিক, কীটনাশক ব্যবহার ও ভেজাল- এই দুই কারণে ক্যান্সার মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে। এই মহামারিকে ঠেকাতে এখন থেকেই সম্মিলিত উদ্যোগ ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। <br><br><span style="font-weight: bold;">আর এজন্য সবচেয়ে জরুরি হলো:</span><br>১. বিশ্বব্যাংকের সুপারিশ অনুসারে কর বাড়িয়ে তামাকজাত দ্রব্যের দাম বাড়ানো। যাতে এর ব্যবহার কমে এবং অতিরিক্ত রাজস্ব ক্যান্সার সনাক্তকরণ এবং চিকিৎসার মানবৃদ্ধির পিছনে ব্যয় করা যায়;<br><br>২. বিক্রয়স্থলে বিভিন্ন ধরনের তামাকজাত দ্রব্যের (যেমন- বিড়ি-সিগারেট, ধোঁয়াবিহীন তামাক) প্রদর্শন নিষিদ্ধ করা;<br><br>৩. পাবলিক প্লেস, হোটেলে ধূমপান নিষিদ্ধ করা এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১০০ গজের মধ্যে তামাকদ্রব্য বিক্রি ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করা; এবং<br><br>৪. ই-সিগারেট ও অনুরূপ ইলেকট্রনিক ডিভাইস বিক্রয় ও তৈরিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা।<br><br>বিদ্যমান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন করার মাধ্যমে এই বিধিনিষেধ জোড়ালোভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব বলে সভায় মত দেন বক্তারা।<br><br>বৈঠকে স্বাস্থ্য সচিব লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। তার এই ঘোষণাকে সর্বাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়নে কাজ করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনের কাজ শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।</body></HTML> 2021-09-27 20:28:49 1970-01-01 00:00:00 কর্মবিরতির ডাক দিলেন অ্যাপস রাইডাররা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110606 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752812_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752812_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ছয় দফা দাবিতে আগামীকাল মঙ্গলবার সারা দেশে কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে অ্যাপ-বেইজড ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ। আজ সোমবার দুপুরে ঢাকা রাইডশেয়ারিং ড্রাইভারস ইউনিয়নের (ডিআরডিইউ) সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ এ কর্মবিরতির ডাক দেন। ছয় দফার মধ্যে রয়েছে, অ্যাপস নির্ভর শ্রমিকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান, কর্ম ও সময়ের মূল্য দেওয়া, সব ধরনের রাইডে কমিশন ১০ শতাংশ নির্ধারণ, মিথ্যা অজুহাতে কর্মহীন করা থেকে বিরত রাখা, ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটে রাইড শেয়ারিংয়ের যানবাহন দাঁড়ানোর জায়গার ব্যবস্থা করা, সব ধরনের পুলিশি হয়রানি বন্ধ করা ও এনলিস্টকৃত রাইড শেয়ারকারী যানবাহনগুলোকে গণপরিবহনের আওতায় অ্যাডভান্সড ইনকাম ট্যাক্স (এআইটি) মুক্ত রাখা।<br><br>এদিকে ডিআরডিইউ’র সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, সম্মিলিত রাইডারস্ অব চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম রাইড শেয়ারিং ড্রাইভারস্ ইউনিয়ন, কোথায় যাবেন রাইড শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট এই কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। তিনি বলেন, ‘সব জায়গাতেই হয়রানির শিকার হচ্ছি আমরা। আমাদের কোথাও দাঁড়ানোর জায়গা নেই, দাঁড়াতে দেখলেই ট্রাফিক পুলিশ এমন জরিমানা করে, যা আমরা সাত দিনেও আয় করতে পারি না।’<br>বেলাল আহমেদ বলেন, ‘আমাদের গাড়ি, জ্বালানি ও শ্রমের বিনিময়ে যে টাকা পাই, তা থেকে আধুনিক কমিশন গ্রহণকারী কোম্পানিগুলো ২৫ শতাংশের বেশি কেড়ে নিচ্ছে। তার ওপর বিনা অজুহাতে অ্যাপ বন্ধ করে আমাদের করছে কর্মহীন। মাস শেষে ধার-দেনা করে করাতে হচ্ছে গাড়ির কাজ, আর বছর শেষে তুলতে হচ্ছে ঋণ। ফলে আমরা দিন দিন দেউলিয়া হচ্ছি।’<br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:26:14 1970-01-01 00:00:00 ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞাকালে ২০ কেজি করে চাল পাবেন জেলেরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110605 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752661_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752661_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">এ বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ১১ হাজার ১১৮ দশমিক ৮৮ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ২০২১-২২ অর্থবছরে সরকারের মানবিক খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ৩৭ জেলার ১৫১টি উপজেলায় মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৪টি জেলে পরিবারের জন্য এ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। গত বছরের চেয়ে ২৭ হাজার ৬০২টি বেশি জেলে পরিবারকে এবার এ বরাদ্দের আওতায় আনা হয়েছে। এর আওতায় প্রতিটি জেলে পরিবার ২০ কেজি করে চাল পাবে। ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শুরুর আগেই এ বছর ভিজিএফ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে এ-সংক্রান্ত মঞ্জুরি জ্ঞাপন করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। ভিজিএফের এই চাল আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে উত্তোলন ও সংশ্লিষ্টদের মাঝে বিতরণ সম্পন্ন করার জন্য জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা নিবন্ধিত ও প্রকৃত জেলেদের মধ্যে এ ভিজিএফ বিতরণ নিশ্চিত করার জন্য বরাদ্দপত্রে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, ইলিশ সম্পদ সংরক্ষণে ‘প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ অ্যাক্ট, ১৯৫০’-এর অধীন প্রণীত ‘প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ রুলস, ১৯৮৫’ অনুযায়ী এ বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহণ, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ করে গত ২৬ সেপ্টেম্বর প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।<br><br><br><br> </body></HTML> 2021-09-27 20:23:09 1970-01-01 00:00:00 মেসির জার্সিতে ফাতির গোল, বার্সেলোনার জয় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110604 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752394_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632752394_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>বার্সেলোনায় রেখে যাওয়া আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসির দশ নম্বর জার্সিগায়ে প্রথম দিন মাঠে নেমেই গোলের দেখা পেলেন উদীয়মান তারকা ফুটবলার আনসু ফাতি। সেই সুবাদে দুই ম্যাচ পর জয়ের দেখা পেল রোনাল্ড কোমানের শিষ্যরা। ন্যূ ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত ম্যাচে লেভেন্তেকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। স্প্যানিশ লা-লিগায় নিজেদের শেষ দুই ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাবটি। তাই ঘরের মাটিতে লেভেন্তের বিপক্ষে জেতার লক্ষ্যেই মাঠে নামে বার্সেলোনা। আর শুরুর পঞ্চম মিনিটেই মাথায় গোল পেয়ে বসে স্বাগতিকরা। স্পট কিক থেকে সফল গোলটি করেন মেম্পিস ডিপাই। প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে আক্রমণ ধরে রেখে প্রথমার্ধের ১৬তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বার্সেলোনা। এ সময় দলীয় ডিফেন্ডার সার্জিনহো ডেস্টের দেওয়া পাশে লেভেন্তের জালে বল পাঠান ডি ইয়ং। এরপর প্রথমার্ধে আর কেনো গোল না হলে ২-০ ব্যবধানে লিড নিয়ে বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় আরও গতি বাড়ায় কোমানের শিষ্যরা। অন্যদিকে বার্সার আক্রমণ ঠেকাতেই ব্যস্ত থাকে লেভেন্তে। তবে একের পর এক আক্রমণের পরও তৃতীয় গোলের দেখা পাচ্ছিল না বার্সা। এভাবে কেটে যায় ম্যাচের নির্ধারিত ৮০ মিনিট। পরের মিনিটেই বদলি খেয়োযাড় হিসেবে মাঠে নামেন আনসু ফাতি। মেসি পিএসজিতে যাওয়ার পর এই প্রথম দশ নম্বর জার্সি পড়ে বার্সার হয়ে কেউ খেলতে নামলেন। এরপর বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ পান ফাতি। কিন্তু কাজে লাগাতে পারছিলেন না। অবশেষে নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে দশ নম্বর জার্সিগায়ে গোলের দেখা পান এই উদীয়মান তারকা। and nbsp; আর ৩-০ গোল ব্যবধানে ম্যাচটি জিতে নেয় বার্সা। এ জয়ের ফলে ৬ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বরে উঠে এসেছে বার্সেলোনা। আর সাত ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৭তম স্থানে অবস্থান করছে লেভেন্তে। এদিকে সাত ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:09:09 1970-01-01 00:00:00 হার্শালের হ্যাটট্রিকে কোহলিদের নাটকীয় জয় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110603 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751725_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751725_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>রোববার রাতের ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর করা ১৬৫ রানের জবাবে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৫৬ রান করে ফেলেছিলো মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও কুইন্টন ডি ককের ব্যাটে এমন উড়ন্ত সূচনাই পেয়েছিলো আইপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।<br>কিন্তু এরপর আর মাত্র ৫৫ রান তুলতেই অলআউট হয়ে যায় তারা। দুই ওপেনারের পর আর কাউকেই দাঁড়াতে দেননি ব্যাঙ্গালুরুর বোলাররা। যার মূল কৃতিত্ব লেগস্পিনার ইয়ুজভেন্দ্র চাহাল ও হার্শাল প্যাটেলের। হ্যাটট্রিকসহ ৪ উইকেট নিয়েছেন হার্শাল, চাহালের শিকার ৩ উইকেট।<br>ব্যাঙ্গালুরুর তৃতীয় বোলার হিসেবে আইপিএলে হ্যাটট্রিক করেছেন হার্শাল। ইনিংসের ১৭তম ওভারে পরপর তিন বলে তিনি ফিরিয়েছেন হার্দিক পান্ডিয়া, কাইরন পোলার্ড ও রাহুল চাহারকে। তার আগে ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন প্রবীন কুমার (২০১০) ও স্যামুয়েল বদ্রি (২০১৭)।<br>ম্যাচ শেষে হার্শাল জানিয়েছেন, এটিই তার জীবনের প্রথম হ্যাটট্রিক। এর আগে কোনো পর্যায়ের ক্রিকেটেই জীবনে হ্যাটট্রিক করতে পারেননি তিনি, এমনকি স্কুল ক্রিকেটেও নয়। আইপিএলেও এর ছয়বার পরপর দুই বলে দুই উইকেট নিলেও হ্যাটট্রিক করা হয়নি।<br>ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে হার্শাল বলেছেন, ‘আমার জীবনে প্রথমবারের মতো হ্যাটট্রিক করলাম। স্কুলের ম্যাচেও কখনো হ্যাটট্রিক করতে পারিনি। আইপিএলে এর আগে ছয়বার সুযোগ তৈরি হয়েছিলো। এবারই প্রথম করতে পারলাম। এটার মর্ম বুঝতেও সময় লাগবে।’ হ্যাটট্রিকের তিন উইকেটের মধ্যে পোলার্ডকে আউট করে সবচেয়ে বেশি তৃপ্তি পেয়েছেন হার্শাল। কেননা পোলার্ডকে পুরোপুরি বোকা বানিয়ে বোল্ড করেছেন তিনি। পান্ডিয়াকে সাজঘরে পাঠানোর পর পোলার্ডের জন্য ওয়াইড ইয়র্কারের ফাঁদ সাজিয়েছিলেন হার্শাল।<br>কিন্তু সেই ডেলিভারিটি তিনি করেন লেগ স্ট্যাম্পে স্লোয়ার। আর তাতেই বোকা বনে যান পোলার্ড। আগেই অফস্ট্যাম্পের দিকে সরে যাওয়ায় সেই বল আর ফেরাতে পারেননি, খোয়ান নিজের লেগস্ট্যাম্প। পরের বলে চাহারকে স্লোয়ার ইয়র্কার দিয়ে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে হার্শাল নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন। হার্শাল বলেছেন, ‘কাইরন পোলার্ডের উইকেটটা আমার জন্য বাড়তি আনন্দের ছিলো। কারণ সেটা একটা ব্লাফ ছিলো। টিম মিটিংয়ে আমরা পরিকল্পনা করেছিলাম যে তাকে ব্যাট থেকে দূরে দূরে বোলিং করে সেটআপ করা যাবে। পরে ইয়র্কার দিয়ে আউট করা যাবে। আমি গতিময় ইয়র্কারের বদলে স্লোয়ার দিয়ে দেই।’ চলতি আসরে এরই মধ্যে ১০ ম্যাচে ২৩ উইকেট শিকার করে ফেলেছেন হার্শাল। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে এক আসরে এটিই সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের রেকর্ড। তার আগে ২০১৩ সালে বিনয় কুমার ও ২০১৫ সালে ইয়ুজভেন্দ্র চাহালও নিয়েছিলেন ২৩ উইকেট।</body></HTML> 2021-09-27 20:08:30 1970-01-01 00:00:00 মঈন আলীর প্রতিটি টেস্ট ম্যাচ ছিল মা-বাবার জন্য http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110602 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751682_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751682_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>ইংল্যান্ড দলের অন্যতম সদস্য মঈন আলী। তিন ফরম্যাটেই খেলে থাকেন নিয়মিত। তবে হুট করেই টেস্ট ফরম্যাট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই ইংলিশ অল-রাউন্ডার।<br>৩৪ বছর বয়সী মঈন আলী টেস্ট ক্যারিয়ারটা থামিয়ে দিতে চাইছেন মাত্র ৬৪ ম্যাচেই। বর্তমান কোভিড পরিস্থিতিতে টেস্ট ক্রিকেটের একটা সিরিজ খেলতে হলে লম্বা সময় ধরে থাকতে হচ্ছে জৈব সুরক্ষা বলয়ে। লম্বা সময় পরিবার থেকে দূরে থেকে খেলোয়াড়দের মানসিক অবস্থারও বিপর্যয় ঘটে। তাই সবকিছু বিবেচনা করে মঈন আলী সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় বলার। আসন্ন অ্যাশেজের দলে থাকার ব্যপারেও বেশ ভালো অবস্থানে ছিলেন মঈন আলী। সম্প্রতি ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শেষ টেস্ট খেলার কথা ছিল মঈনের। তবে কোভিডের কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়ায় আর খেলা হয়নি। অবসর নিয়ে মঈন আলী বলেছেন, “টেস্ট ক্রিকেট অসাধারণ, যখন আপনি ভাল দিন কাটাবেন তখন এটি অন্য যেকোনো ফরম্যাটের চেয়ে ভাল, এটি আরও বেশি ফলপ্রসূ এবং আপনি মনে করেন যে আপনি সত্যিই এটি অর্জন করেছেন। আমি শুধু আমার সতীর্থদের সাথে হাঁটতে মিস করবো, বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের সাথে খেলব স্নায়ু চাপ নিয়ে কিন্তু বোলিংয়ে আমি যে কাউকে আউট করতে পারব।” “আমি টেস্ট ক্রিকেট উপভোগ করেছি কিন্তু মাঝে মাঝে মনে হয় বেশি হয়ে যাচ্ছে এবং আমি মনে করি যথেষ্ট হয়েছে। আমি যেভাবে করেছি তাতে আমি খুশি এবং সন্তুষ্ট।” “আমাকে টেস্ট ক্রিকেটে সুযোগ করে দেয়ার জন্য কোচ পিটার মুরেস এবং ক্রিস সিলভারউড এবং পিটারকে ধন্যবাদ জানাই। কুক এবং রুটের নেতৃত্বে আমি খেলেছি। তাদের অধীনে আমি খেলা উপভোগ করেছি এবং আমি আশা করি আনি যেভাবে খেলেছি তাতে তারা খুশি।”<br>“আমার বাবা -মা সেরা, আমি অনুভব করি যে তাদের সমর্থন ছাড়া আমি এটা করতে পারতাম না। আমার প্রতিটি ম্যাচ তাদের জন্য খেলেছি এবং আমি জানি তারা সত্যিই আমার জন্য গর্বিত।”<br>“আমার ভাই এবং আমার বোন আমার খারাপ দিনে আমাকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। আমার স্ত্রী এবং বাচ্চাদের আত্মত্যাগের জন্য আমি সত্যিই কৃতজ্ঞ। তারা সবাই আমার এই পথচলায় অসাধারণ ভূমিকা পালন করেছে, আমি যা করেছি আমি তাদের জন্য করেছি।”<br>২০১৪ সালে টেস্ট অভিষেক হওয়া মঈন আলী ৬৪ টেস্ট ম্যাচে ২ হাজার ৯১৪ রান করেছেন, ছিল ৫টি শতক ও ১৪টি অর্ধশতক। বল হাতে ৫ বার নেন ৫ উইকেট। মোট ১৯৫টি টেস্ট উইকেট রয়েছে তার ঝুলিতে।</body></HTML> 2021-09-27 20:07:38 1970-01-01 00:00:00 পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে পরিবর্তন আসবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110601 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751638_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751638_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ক্রীড়া ডেস্ক ॥<br>আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পর থেকেই একের পর এক সমালোচনার শিকার হচ্ছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। যা শুধু সমর্থক পর্যায়েই আটকে নেই; সাবেক কোচ-খেলোয়াড়রাও প্রশ্ন তুলছেন পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দল নিয়ে।<br>তাতে এবার যোগ দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি। বিশ্বকাপ দলের কয়েকজন খেলোয়াড়কে নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে তার। তবে সেসব খেলোয়াড়ের নাম বলেননি আফ্রিদি। বিশ্বকাপের আগে দলে পরিবর্তন আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।<br>ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আফ্রিদি বলেছেন, ‘বিশ্বকাপ দল দেখে আমি অবাক। স্কোয়াডে ২-৩ জন খেলোয়াড়ের অন্তর্ভুক্তি একদমই বুঝতে পারছি না আমি। আমি এটাও বুঝতে পারছি না, কীভাবে কয়েকজন খেলোয়াড়কে বাইরে রাখা হলো।’<br>দলে পরিবর্তন আসার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি কিছু তথ্য পেয়েছি। আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য আরেকটি দল ঘোষণা করবে পিসিবি। যেখানে কিছু পরিবর্তন থাকবে।’<br>চলতি মাসের ১০ তারিখ ছিলো বিশ্বকাপের দল ঘোষণা শেষ দিন। তবে বিশেষ পরিস্থিতি বিবেচনায় ১০ অক্টোবর পর্যন্ত স্কোয়াডে পরিবর্তন আনতে পারবে যেকোনো দল। সেই সুযোগটি কাজে লাগিয়েই হয়তো নিজেদের স্কোয়াডে পরিবর্তন আনবে পাকিস্তান।<br><br><br></body></HTML> 2021-09-27 20:06:58 1970-01-01 00:00:00 অটোরিকশা চালক হত্যা মামলায় ২ জনের ফাঁসি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110600 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751584_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751584_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>পাবনায় অটোরিকশা চালক মানিক হোসেন (২০) হত্যা মামলায় ২ জনকে মৃত্যুদ- ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।<br>সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পাবনার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আছাদুজ্জামান এই রায় ঘোষণা করেন।<br>দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন-সদর উপজেলার নাজিরপুর গ্রামের সুলতান প্রামাণিকের ছেলে স্বপন হোসেন (২০) ও একই গ্রামের ইকরাম প্রামাণিকের ছেলে ইকবাল প্রামাণিক (২০)। নিহত অটোরিকশা চালক মানিক সদর উপজেলার চর বাঙ্গাবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে। মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে সরকার পক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ খান রতন বলেন, ২০১৭ সালে ২৬ ফেব্রুয়ারি মানিক তার অটোরিকশা নিয়ে কাজে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেননি। পরের দিন ২৭ ফেব্রুয়ারি রাখালগাছি গ্রামের একটি ধান ক্ষেতের মধ্যে তার মরদেহ পাওয়া যায়। and nbsp; ছিনতাইকারীরা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ফেলে রেখে তার অটোরিকশাটি নিয়ে যায়। নিহত মানিকের বাবা ওই দিন রাতে সদর থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশি তদন্তে জড়িত সন্দেহে ইকবাল ও স্বপনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা মানিককে হত্যার কথা স্বীকার করেন এবং আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। আদালতের বিচারক দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে অভিযুক্ত ২ আসামি স্বপন ও ইকবালকে মৃত্যুদ- দেন এবং আরো ১০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতের কাঠগড়ায় ২ আসামি উপস্থিত ছিলেন। <br></body></HTML> 2021-09-27 20:06:05 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে বিদেশী মদ-ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ মাদক বিক্রেতা আটক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110599 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751043_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632751043_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥</span><br>ফেনীতে বিভিন্ন ধরণের মাদকসহ এক মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে র‌্যাব। বিকেলে শহরের পশ্চিম বিজয়সিংহ দীঘি এলাকায় স্থানীয় জাহাঙ্গীর আলমের ভাড়াটিয়া টিনশেড ঘরে থেকে ২২ ক্যান বিয়ার, ৮ বোতল বিদেশী মদ, ৪ বোতল ফেন্সিডিল, এক কেজি গাঁজাসহ মাদক বিক্রেতা মো. নূর আলমকে (৪৭) আটক করেছে র‌্যাব। and nbsp; আটককৃত মো. নূর আলম পশ্চিম বিজয়সিংহ এলাকার সুলতান আহম্মেদের ছেলে। র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক, উপ-পরিচালক, স্কোয়াড্রন লীডার আব্দুল্লাহ আল জাবের ইমরান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সদস্যরা শনিবার বিকেলে শহরের পশ্চিম বিজয়সিংহ দীঘি এলাকায় স্থানীয় জাহাঙ্গীর আলমের ভাড়াটিয়া টিনশেড ঘরে অভিযান চালায়। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে মাদক বিক্রেতা মো. নূর আলমকে আটক করে। এসময় ঘর তল্লাশি করে ২২ ক্যান বিয়ার, ৮ বোতল বিদেশী মদ, ৪ বোতল ফেন্সিডিল, এক কেজি গাঁজা উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৫০ হাজার টাকা। and nbsp; আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে র‌্যাবকে জানায়, দীর্ঘদিন ধরে সে সুকৌশলে বাসার মালিকের চোখ ফাঁকি দিয়ে মাদকদ্রব্য (বিয়ার, মদ, ফেন্সিডিল, গাঁজা) ফেনী জেলার বিভিন্ন মাদক বিক্রেতা ও মাদক সেবনকারীদের কাছে বিক্রয় করে আসছিলো। র‌্যাব আরো জানায়, আটককৃত ব্যাক্তি ও উদ্ধারকৃত মাদক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ফেনী মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।</body></HTML> 2021-09-27 19:57:04 1970-01-01 00:00:00 জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110598 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750980_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750980_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥ </span><br>দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালি ইলিশ। এতে করে জেলেদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে। মৌসুমের শুরুতে ইলিশের দেখা না মিললেও এখন তারা ইলিশ নিয়ে ঘাটে ফিরছে।<br>মাছের ঘাটগুলোতে ফিরেছে কর্ম চাঞ্চল্যতা। এভাবে মাছ ধরা পড়লে বিগত দিনের ধার দেনা পরিশোধ করে লাভবান হতে পারবে বলে আশা করছে জেলে ও আড়তদাররা। তবে আগামী ৪ অক্টোবর থেকে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানের নিষেধাজ্ঞার কারণে হতাশ মৎস্যজীবীরা। সরেজমিনে ভোলার বিভিন্ন মাছঘাট ঘুরে জানা গেছে, দেশে ইলিশের চাহিদার প্রায় ৩৩ ভাগ উৎপাদন হয় নদী ও সাগর বেষ্টিত উপকূলীয় জেলা ভোলা থেকে। কিন্তু ইলিশের ভরা মৌসুম শুরুর পর থেকে গেলো দুই মাস ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে ইলিশের সংকট দেখা দেয়। এসময় চরম বিপাকে পড়েন ভোলার দেড় লক্ষাধিক জেলে। কিন্তু গত দুই সপ্তাহ ধরে মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদী ও বঙ্গোপসাগর মোহনায় জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। কিছুদিন আগেও যেসব মাছঘাট গুলোতে সুনসান নিরবতা ছিলো, এখন সেখানে ক্রেতা ও আড়ৎদারদের হাঁকডাকে মুখরিত হয়ে উঠেছে। বেড়ে গেছে জেলে আড়ৎদার মহাজনদের ব্যস্ততা। পাশাপাশি জেলে পল্লীতে দেখা দিয়েছে উৎসবের আমেজ। ভোলা সদর উপজেলার নাছির মাঝি এলাকার জেলে সুজন মাঝি ও এছাক মিয়া জানান, গত ১০/১২ দিন ধরে জালে কাঙ্ক্ষিত ইলিশের দেখা মিলেছে। এভাবে মাছ পেলে পেছনের ধার দেনা পরিশোধ করে লাভের মুখ দেখবে।<br>ইলিশা চডারমাথা মাছ ঘাটের মাছের পাইকারি আড়তদার ইসমাইল বেপারি জানান, তারা প্রচুর মাছ মোকামে পাঠাচ্ছে। সেখানে দামও ভালো পাচ্ছে। এভাবে মাছ ধরা পড়লে মহাজনের দাদনের টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হবে।<br>তবে ইলিশ ধরা পড়লেও স্বস্তি নেই জেলেদের। কারণ ভরা মৌসুমে বেশি মাছ ধরার আশায় ধার দেনা করে মাছ ধরতে নেমেছেন তারা। অথচ আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২২ দিনের জন্য মা ইলিশ রক্ষায় নদীতে সব ধরনের মাছধরার উপর নিষেধজ্ঞা দিয়েছে মৎস্য বিভাগ।<br>এতে জেলে এবং মাছ ব্যবসায়ীদের মধ্যে কিছুটা হতাশা নেমে এসেছে। তাই জেলে এবং মাছ ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা পরিবর্তনের দাবি জানান তারাা। সদর উপজেলার তুলাতলী মাছঘাটে জেলে সজল মাঝি ও হাফেজ পাটোয়ারী জানান, চলতি মৌসুমে গত ৬ মাস নদীতে ইলিশের দেখা মেলেনি। গত দুই সপ্তাহ ধরে জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়ছে।<br>এক মাস আগেও ভোলার নদ-নদী ছিল ইলিশ শূন্য। এখন জেলেদের জালে কাঙ্ক্ষিত ইলিশ ধরা পড়ছে। এতে করে জেলেদের মধ্যে আনন্দ দেখা গেলেও মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা নিয়ে তারা শঙ্কা প্রকাশ করেন। মাছ ধরায় অবরোধ পিছিয়ে না দিলে সমিতির কিস্তি শোধ করা কষ্টসাধ্য হবে বলেও জানান তারা। ভোলা সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকতা মো. জামাল হোসাইন জানান, দেরীতে হলেও জেলেদের জালে কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলছে। এতে করে তাদের ধার দেনা পরিশোধ করতে পারবে এবং ভোলা জেলায় ইলিশের যে লক্ষ্যমাত্র তা অর্জিত হবে।<br>তিনি আরও জানান, অক্টোবর মাস হচ্ছে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম। এই মাসে পূর্ণিমা অমাবস্যাকে কেন্দ্র করে মা ইলিশ সাগর থেকে নদীতে ডিম ছাড়তে আসে। তাই মা ইলিশ নদীতে ডিম ছাড়তে পারলে অভিযান শেষে জেলেদের জালে আবারও কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলেছে বলে জানান তিনি। জেলা মৎস্য অফিস কার্যালয় সূত্র জানায়, গেল অর্থবছরে ভোলায় ১ লাখ ৭৫ হাজার ৩৯০ মে.টন ইলিশ উৎপাদন হয়েছে। যা দেশের মোট ইলিশ উৎপাদনের মধ্যে ৩৩ ভাগ। চলতি অর্থবছর ইলিশ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ১ লাখ ৭৭ হাজার ৩৯০ মে.টন । মৌসুমের প্রথম ৩ মাসেই ধরা পড়েছে প্রায় ৫২ হাজার মে. টন ইলিশ।</body></HTML> 2021-09-27 19:55:57 1970-01-01 00:00:00 কুমিল্লার দাউদকান্দি খালের মুখে ময়লার ভাগাড় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110597 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750925_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750925_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>কুমিল্লার দাউদকান্দি সুন্দলপুর সেচ প্রকল্প খাল ও কালাডুমুর নদের মুখ যেন ময়লার ভাগাড়। সব ধরনের বর্জ্য ফেলা হচ্ছে এখানে। এতে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।<br>কালাডুমুর নদ দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর বাজার সংলগ্ন গোমতী নদী থেকে উৎপত্তি হয়ে গৌরীপুর, জিংলাতলি, ইলিয়টগঞ্জ উত্তর এবং দক্ষিণ ইউনিয়ন অতিক্রম করে ইলিয়টগঞ্জ বাজার হয়ে চান্দিনা উপজেলার পশ্চিমাংশ দিয়ে চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলায় পড়েছে। এই নদের পানি দিয়ে কুমিল্লার দাউদকান্দি, মুরাদনগর, চান্দিনা এবং চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার আনুমানিক ৫০ হাজার বিঘা জমির ধানচাষ করা হয়। সম্প্রতি সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, কালাডুমুর নদের উৎসস্থলের পাশে গৌরীপুর সুবল-আফতাব উচ্চ বিদ্যালের সামনে মাইথারকান্দি খালের মুখে গৌরীপুর বাজারের বর্জ্য, পলিথিন-প্লাস্টিকসহ সব ধরনের ময়লা ফেলা হচ্ছে। ফলে দূষণে কালাডুমুর নদ ময়লা-আবর্জনার ভাগাড়ে পরিণত হচ্ছে। ইলিয়টগঞ্জ বাজারের ময়লা আবর্জনাও সরাসরি কালাডুমুর নদে ফেলা হয়।<br>গৌরীপুর ইউনিয়নের পেন্নাই গ্রামের কৃষক রফিক বলেন, খালের মুখটি ময়লার স্তূপে বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে বর্ষার পানি আসে দেরিতে, যায়ও দেরিতে। এজন্য আমরা কোনো ফসল ফলাতে পারি না। বেশিরভাগ জমিই খিল (অনাবাদি) পড়ে থাকে।<br>গৌরীপুর সুবল-আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সেলিম মিয়া বলেন, খালের মুখে ময়লার স্তূপের দুর্গদ্ধে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রায় অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিদ্যালয়ের কোয়ার্টারেও শিক্ষকরা থাকতে পারছেন না। জানতে চাইলে দাউদকান্দি পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী (গৌরীপুর কার্যালয়) মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, খাল ভরাট এবং দখলের বিষয়টি তালিকা করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. কামরুল ইসলাম খান বলেন, ময়লা-আবর্জনা ফেলে নদ-নদীর ক্ষতি করা দুঃখজনক। শিগগিরই গৌরীপুর ও ইলিয়টগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী পরিচালনা কমিটির সঙ্গে বসে আলোচনা করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।</body></HTML> 2021-09-27 19:53:14 1970-01-01 00:00:00 আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ২ শিক্ষিকা গ্রেপ্তার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110596 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750752_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632750752_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">জেলা প্রতিনিধি ॥</span><br>পেশা বেসরকরি বিদ্যালয়ের শিক্ষকতা। কিন্তু এ পরিচয়ের আড়ালে মানুষকে ফাঁদে ফেলে ব্ল্যাকমেইল করতেন দুই নারী। অবশেষে এক ব্যক্তিকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে তাদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।<br>গ্রেপ্তারকৃত দুই নারী হলেন, আইরিন ইয়াসমিন লিজা (৩৪) ও শামীমা আক্তার (২৪)। আইরিনের গ্রামের বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার বালিচ গ্রামে। আর শামীমা ঢাকার সাভারের ডেন্ডাবর নতুনপাড়ার বাসিন্দা। দুজনেই ঢাকার সাভারের বেসরকারি স্কুলের শিক্ষক।<br>রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ঢাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে মজিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তিকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে।<br>পুলিশ জানায়, মজিবুর রহমান রাজশাহীতে প্লট কেনাবেচা এবং প্রাইভেটকার ভাড়া দেওয়ার ব্যবসা করতেন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি মহানগরীর উপশহরের দুই নম্বর সেক্টরের একটি ভাড়া বাসা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার ছেলে থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেন। সেই মামলার তদন্ত করতে গিয়ে দুই নারী শিক্ষকের সম্পৃক্ততার বিষয়টি বেরিয়ে আসে। এরপরই তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে মৃত মজিবুর রহমানের মোবাইল ফোনও উদ্ধার করা হয়েছে।<br>সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, শিক্ষকতা পেশার আড়ালে এ দুই নারী মানুষকে ফাঁদে ফেলে ব্ল্যাকমেইল করতেন। জিজ্ঞাসাবাদে আইরিন জানিয়েছেন মজিবুর রহমানের সঙ্গে তার অন্তরঙ্গ সম্পর্ক ছিলো। ৬ ফেব্রুয়ারি তারা দুজন স্বেচ্ছায় মজিবুরের বাড়ি আসেন। রাতে তারা মজিবুরের পাশের ঘরে শুয়েছিলেন। তখন মজিবুর রহমান ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে আইরিনকে তার ঘরে ডাকেন। আইরিন না গেলে ম্যাসেঞ্জারে তাদের বাগবিত-া হয়। এরপর মজিবুর জানান রাত ৩টার মধ্যে আইরিন না গেলে তিনি আত্মহত্যা করবেন। তখন আইরিন ম্যাসেঞ্জার এবং এসএমএসের মাধ্যমে মজিবুর রহমানকে মরতেই বলেন। অভিমানে মজিবুর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। পরে সকালে আইরিন ও শামীমা তার ঝুলন্ত লাশ দেখে বাড়ি থেকে মজিবুরের মোবাইল ফোন, বাড়ির চাবি, নগদ চার লাখ টাকা ও কিছু কাগজপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়। সংবাদ সম্মেলনে আরএমপি কমিশনার বলেন, এ দুই নারী ব্ল্যাকমেইল চক্রের সঙ্গে জড়িত বলে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়েছে। দুজনকে মজিবুরের আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। <br></body></HTML> 2021-09-27 19:49:07 1970-01-01 00:00:00 ডায়রিয়া রোগীর চাপ বাড়ছে মতলব হাসপাতালে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110595 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741600_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741600_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বছরের এই সময় আবহাওয়া জনিত কারণে ডায়রিয়াসহ নানা ধরনের পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ। এতে চিকিৎসা নিতে আইসিডিডিআরবি, চাঁদপুরের মতলব হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন বিভিন্ন বয়সীরা। ফলে এ হাসপাতালে বেড়েই চলেছে রোগীর চাপ।হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক<br><br><div>শুধু চাঁদপুর নয়, আশপাশের জেলা থেকেও রোগীরা ছুটে আসছেন বিশেষায়িত এই হাসপাতালটিতে। বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা পেয়ে খুশি রোগী ও তাদের স্বজনরা। and nbsp; একদিকে ঋতুর পরিবর্তন অন্যদিকে, আবহাওয়া জনিত কারণ। এতে নানা ধরনের পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন বিভিন্ন বয়সের মানুষ। তাই এই সময় শুধু ডায়রিয়ার রোগীই নয়, কলেরায় আক্রান্ত রোগীর চাপও বাড়ছে চাঁদপুরের মতলবে আইসিডিডিআরবি’র বিশেষায়িত এই হাসপাতালে। এমন পরিস্থিতিতে প্রতিদিন এই হাসপাতালে চাঁদপুরের আশপাশের জেলাগুলো থেকেও চিকিৎসা সেবা নিতে ছুটে আসছেন রোগীরা। </div><br>সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) আইসিডিডিআরবি’র এই হাসপাতালের ওয়ার্ডগুলো ঘুরে দেখা গেছে, রোগীর ভিড়। এতে ব্যস্ত সময় পার করছেন চিকিৎসকসহ নার্সরা। আর কাঙ্ক্ষিত সেবা এবং দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পেয়ে খুশি রোগী এবং তাদের স্বজনরা। and nbsp; এদের মধ্যে কুমিল্লার লাকসামের জ্যোৎস্না বেগম (৪২)। গতকাল রাত পৌনে দশটায় এই হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার দুপুর ১২ টার মধ্যে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেন তিনি। <br><br>এদিকে, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর রোগীদের চিকিৎসাসেবা প্রদান এবং ভর্তির ধরণ নিয়ে কথা বলেন সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা। বছরের অন্য সময় প্রতিদিন ৬০-৭০ রোগী ভর্তি হলেও এখন সেই সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেছে। and nbsp; সিনিয়র মেডিকেল অফিসার চন্দ্র শেখর দাস জানান, মুমূর্ষু প্রায় এই রোগীর রগে আট লিটার স্যালাইন এবং মুখে আরও চার লিটার স্যালাইন দেওয়া হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণ থেকে তাকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। <br><br>বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক আরও জানান, প্রতিদিন ভর্তি হওয়া মোট রোগীর মধ্যে ১০ শতাংশ হচ্ছে এমন মুমূর্ষু কলেরায় আক্রান্ত। and nbsp; অন্যদিকে, মৌসুমের এই সময় পেটের নানা ধরণের পীড়া থেকে রক্ষা পেতে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন হাসপাতালের প্রধান, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আল ফজল খান। and nbsp; তিনি জানান, বর্ষার আগে এবং পরে পানিবাহিত রোগে বেশির ভাগ মানুষ আক্রান্ত হন। তবে গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় আগেই হাসপাতালে ভর্তির জন্য বলেন তিনি। and nbsp; খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতিষ্ঠার পর থেকে গত ৬ দশক ধরে আইসিডিডিআরবি, মতলব হাসপাতাল কেন্দ্র ৮ লাখ রোগীকে চিকিৎসাসেবা প্রদান করেছে। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকার মহাখালী এবং মতলবের এই হাসপাতালে প্রতি বছর দুই লাখ রোগী বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা পেয়ে থাকেন।<br><br></body></HTML> 2021-09-27 17:19:18 1970-01-01 00:00:00 প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে কর্মসূচি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110594 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741455_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741455_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">দেশের দূরদর্শী ও বলিষ্ঠ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন ২৮ সেপ্টেম্বর। তিনি ১৯৪৭ সালের এদিনে গোপালগঞ্জের মধুমতি নদী বিধৌত টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি তিনি। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী জন্মদিনে অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তাঁর অনুপস্থিতিতেই দিনটি উৎসব মুখর পরিবেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালন করা হবে।<br><br>শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন দল আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন নানান কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। জন্মদিন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ এদিন সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এছাড়াও একইদিন কেন্দ্রীয়ভাবে বাদ জোহর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ দেশের সকল মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। একই সঙ্গে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ বিহার (মেরুল বাড্ডা), ২৮ সেপ্টেম্বর প্রথম প্রহরে (২৭ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত ১২.০১ মিনিটে) খ্রিস্টান এসোসিয়েশন বাংলাদেশ (সিএবি) মিরপুর ব্যাপ্টিস চার্চ (২৯ সেনপাড়া, পর্বতা, মিরপুর-১০) সকাল ৬টায় তেজগাঁও জকমালা রাণীর গীর্জা এবং বিকাল ৫টায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। and nbsp; এসব কর্মসূচিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন।</body></HTML> 2021-09-27 17:17:14 1970-01-01 00:00:00 মুক্তিপণ আদায়ে কিশোরের নখ উপড়ে দিলো যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতারা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110593 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741226_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold; font-style: italic;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632741226_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left"> and nbsp;ছবিতে মাঝে থাকা ফয়সালের নখ উপড়ে দিচ্ছেন যুবলীগ সদস্য রবিউল আওয়াল বাপ্পি (বামে) ও পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুল্লাহ হিল শুভ।(ডানে)। ছবি: ভিডিও থেকে নেওয়া</span><br>মুক্তিপণ আদায় করতে প্লায়ার্স দিয়ে ১৫ বছর বয়সী ফয়সাল হোসেন নামে এক দোকান কর্মচারীর আঙুলের নখ উপড়ে নিয়েছে নাটোর যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা। এ ঘটনায় গতকাল রোববার নাটোর সদর থানায় মামলা হলে দুইজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সেইসঙ্গে মুক্তিপণ হিসেবে দেওয়া আর-ওয়ান-ফাইভ মডেলের একটি মোটরসাইকেল পুলিশ জব্দ করেছে।<br><br>গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- নাটোর সদর উপজেলার নবীনগর গ্রামের ইসাহাক আলীর ছেলে একরাম হোসেন ওরফে সুমন (৩৫) এবং শহরের চকরামপুর আনিসুর রহমানের ছেলে মো. আবির (২৬)। ভুক্তভোগী মো. ফয়সালের হোসেনের দোকান মালিক আব্দুস সালাম বলেন, ‘ব্যবসায়িক লেনদেন বিষয়ে একরাম হোসেন সুমনের সঙ্গে আমার বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে গত শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শহরের স্টেশন বাজার এলাকা থেকে মো. আবির এবং সুমনের সহযোগিতায় রবিউল আওয়াল বাপ্পি, মোহাম্মদ মনি পেটে ধারালো চাকু ধরে প্রাণনাশের ভয় দেখিয়ে আমাকে ও আমার দোকানের কর্মচারী ফয়সালকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায় শহরের কানাইখালী এলাকায় যুবলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে। সেখানে নেওয়ার পর দোকান কর্মচারী ফয়সালকে চোর বলে দাবি করে আমার কাছে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তারা। চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে রবিউল আওয়াল বাপ্পি এবং তার সহযোগীরা লোহার প্লায়ার্স দিয়ে ফয়সালের বাম হাতের তর্জনী আঙ্গুলের নখ উপড়ে ফেলে।’<br><br>‘পরে পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রনি আহমেদ এবং তার ভাই যুবলীগ নেতা রবিউল আওয়াল বাপ্পি, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি শুভসহ বাকিরা আমার স্ত্রীর গহনা নিয়ে আসতে বলেন’ আরও যোগ করেন তিনি। আব্দুস সালাম জানান, তিনি তার ব্যবহৃত আর-ওয়ান-ফাইভ মডেলের মোটরসাইকেলটি আসামিদের দিলেও তারা আরও দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। একইসঙ্গে এ ঘটনা পুলিশকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেন।<br><br>পরে গতকাল রোববার সকালে নাটোর পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রনি আহমেদ, তার ভাই যুবলীগ সদস্য রবিউল আওয়াল বাপ্পি, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ হিল শুভসহ ৮ জনকে আসামি করে নাটোর সদর থানায় মামলা দায়ের করেন দোকান মালিক আব্দুস সালাম। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং ফয়সালকে ও মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে।<br>নাটোর জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লবের কাছে এ বিষয়ে জানাতে চাইলে তিনি রনি আহমেদ, রবিউল আওয়াল বাপ্পি ও আব্দুল্লাহ হিল শুভর দলীয় পদ নিশ্চিত করে বলেন, ‘এটি একটি নৃশংস ঘটনা। যারাই এর সঙ্গে জড়িত আছে তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে হবে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।’<br><br>এ বিষয়ে নাটোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ খবর পাওয়ামাত্রই ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামি একরাম হোসেন সুমনকে গ্রেপ্তার করে এবং ভুক্তভোগী ফয়সালকে ও আব্দুস সালামের মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। আহত ফয়সালকে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।’ নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, ‘ঘটনার পরপরই পুলিশ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে এবং ভুক্তভোগী ও মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করেছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।’</body></HTML> 2021-09-27 17:09:13 1970-01-01 00:00:00 বাসচাপায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110592 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740839_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740839_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে হবিগঞ্জের মাধবপুর এলাকায় দ্রুতগামী বাসের চাপায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। আজ দুপুর দেড়টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে একটি শিশু রয়েছে। শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম জানান, সোমবার দুপুরে আন্দিউড়া থেকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা মাধবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাচ্ছিল। ঢাকা থেকে সিলেটগামী একটি বাস মহাসড়কের আন্দিউড়া এলাকায় অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে শিশুসহ অটোরিকশার তিন যাত্রী মারা যায়। এ সময় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। আহতদের মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।<br><br>ওসি মাইনুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা গেছেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। আহত তিনজনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।</body></HTML> 2021-09-27 17:06:36 1970-01-01 00:00:00 ঢাবির ২ শিক্ষার্থীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110591 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740501_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740501_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ডিজিটাল পদ্ধতিতে জালিয়াতি ও ও অবৈধ পন্থা অবলম্বন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ায় দুই শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে তাদেরকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিলো। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) শৃঙ্খলা পরিষদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সভায় সভাপতিত্ব করেন।<br><br>তারা হলেন- অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের মো. রাকিব হাসান এবং একই বর্ষের ভূতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী ইশরাক হোসেন রাফি। এছাড়া পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে ৭২ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে।<br>এছাড়া সভায়, আইন-শৃঙ্খলা পরিপন্থি কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. আকতারুল করিম রুবেলকে সাময়িকভাবে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।</body></HTML> 2021-09-27 17:01:11 1970-01-01 00:00:00 দরজা ভেঙে নারী ব্যাংক কর্মকর্তার লাশ উদ্ধার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110590 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740304_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740304_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বরিশালে ঘরের দরজা ভেঙে সালেহা বেগম (৬৭) নামে এক নারী ব্যাংক কর্মকর্তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর পশ্চিম কাউনিয়া হাওলাদার সড়কে নিজ বাসভবন ‘শুভ্র নীড়’ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সালেহা নগরীর পশ্চিম কাউনিয়া হাওলাদার সড়কে মৃত আব্দুল মতিন হাওলাদারের স্ত্রী। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সালেহা বেগম সোনালী ব্যাংকে ২৫ বছর চাকরি করেন। পরে প্রতিবন্ধী ছেলেকে দেখাশোনা করার জন্য ২০০৫ সালে সেচ্ছায় অবসর গ্রহণ করেন। এরপর থেকে তিনি পশ্চিম কাউনিয়া হাওলাদার সড়কে কেনা জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে সেখানেই বসবাস করতেন। তার স্বামী ও প্রতিবন্ধী ছেলে মারা যাওয়ার পর দুই মেয়ে সূচী ও সুমাকে নিয়ে থাকতেন। বড় মেয়ে সুমার বিয়ে হলে ছোট মেয়ের সঙ্গে থাকতেন তিনি।<br><br>দুই দিন আগে অফিসের কাজে সূচী ঢাকায় যান। রবিবার বাসায় ফোন দিয়ে মাকে না পেয়ে পাশের বাসিন্দা রশিদের স্ত্রী হেলেনাকে ফোন করে খোঁজ নিতে বলেন। কিন্তু অনেক রাত হওয়ায় হেলেনা তখন খোঁজ না নিয়ে সকালে পাশের আরেক বাসিন্দা ব্যাংকার হাকিমকে সঙ্গে নিয়ে বাসায় যান। বাসার বাইরে গেট বন্ধ থাকায় কলিং বেল দিয়েও কোন সাড়া শব্দ না পাননি। পরে মই এনে দেয়াল টপকে বাড়ির মধ্যে ঢুকে জানালা দিয়ে তার লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। সঙ্গে সঙ্গে ৯৯৯ এ ফোন দিলে কাউনিয়া থানা পুলিশ এসে দরজা ভেঙে সালেহার লাশ উদ্ধার করেন।<br><br>খবর পেয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এনামুল হক এবং উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) জাকির হোসেন মজুমদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিমুল করিম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার হয়েছে। লাশের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এটা স্বাভাবিক মৃত্যু হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়েছে। ওসি আরও জানান, তার মেয়েরা আসার পর আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।</body></HTML> 2021-09-27 16:56:01 1970-01-01 00:00:00 ভোটে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নারীকে খুন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110589 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740092_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632740092_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">বাগেরহাট জেলার মোংলার এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সহজে জিততে প্রতিপক্ষকে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ছক কষা হয়। ছক অনুযায়ী ঢাকার সাভারের এক নারীর সঙ্গে প্রেমের অভিনয়। এরপর স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসাভাড়া নিয়ে হত্যা করা হয় ওই নারীকে।<br>তবে শেষ রক্ষা হয়নি। হত্যার সঙ্গে জড়িত ও পরিকল্পনাকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।সোমবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে অবস্থিত পিবিআইয়ের প্রধান কার্যালয়ে এ বিষয়ে জানান পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার।<br><br>তিনি বলেন, বাগেরহাট জেলার মোংলা থানার ৬ নম্বর চিলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয় গত ২০ সেপ্টেম্বর। এই নির্বাচনে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী ছিলেন হালিম হাওলাদার, বেলাল সরদার ও এশারাত। এদের মধ্যে নির্বাচনের আগ পর্যন্ত মেম্বার ছিলেন হালিম হাওলাদার। বেলাল নির্বাচনে অংশ নেয়ায় হালিম ভাবছিলেন তিনি পরাজিত হবেন। তাই বেলালকে নির্বাচন থেকে সরানোর জন্য ষড়যন্ত্র করেন হালিম। তিনি পূর্বপরিচিত পিরোজপুরের জামাল হাওলাদারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। বেলালকে ফাঁসানোর জন্য একটি খুনের পরিকল্পনা করেন তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ৩০ হাজার টাকায় জামালের সঙ্গে হালিমের চুক্তি হয়। এরপর তাকে নগদ পাঁচ হাজার টাকা দেন।<br><br>ডিআইজি বনজ কুমার বলেন, জামাল হাওলাদার ঢাকার সাভারের মশিউর রহমান মিলন নামে এক কবিরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তার কাছে খুন করার জন্য একজন ভিকটিম চান জামাল। এরপর মিলন পারুল বেগম নামে এক নারীর সঙ্গে জামালের পরিচয় করিয়ে দেন। পারুলকে বিয়ে করার কথা বলে সাভারের নামাবাজার এলাকায় গত ৭ সেপ্টেম্বর স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন জামাল। ওই রাতেই জামাল পারুলকে খুন করে পালিয়ে যান। পরদিন বাসা থেকে কেউ বের না হওয়ায় ওই বাড়ির কেয়ারটেকার জানালা খুলে দেখতে পান ওই নারী খুন হয়েছেন। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় বাসা থেকে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র উদ্ধার হয়। যার নাম বেলাল সরদার। গ্রামের বাড়ি মোংলার চিলা ইউনিয়নে। ওই ঘটনায় সাভার থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা হয়।<br><br>পিবিআই মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া জাতীয় পরিচয়পত্রের সূত্র ধরে বেলালকে পিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করে। তার কাছে জানতে চায়, তার কোনো শত্রু আছে কি না। তার নির্বাচনের কারণে প্রতিদ্বন্দ্বী হালিম ও এশারাতের নাম বলেন বেলাল। এছাড়া আর কোনো শত্রু নেই বলে জানান। বনজ কুমার মজুমদার আরও বলেন, তদন্ত করতে গিয়ে একপর্যায়ে আমরা জানতে পারি, হালিম ঢাকায় মশিউর নামে একজনের সঙ্গে ঘন ঘন যোগাযোগ করেন। এরপর ওই ব্যক্তির মাধ্যমে জামালকে শনাক্ত করে পিবিআই। সাভারের ওই বাসার কেয়ারটেকারকে ছবি দেখালে জামালকে শনাক্ত করেন। তারা বলেন, পারুলকে নিয়ে জামালই বাসা ভাড়া নিয়েছিলেন। এরপর জামালকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মশিউর রহমান মিলনকেও গ্রেপ্তার করা হয়।<br><br>তারা দুজনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। হালিম মেম্বারের পরিকল্পনাতেই এই হত্যাকাণ্ড হয়। মূলত প্রতিদ্বিন্দ্বী প্রার্থী বেলালকে ফাঁসানোর জন্যই এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয় বলে তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তবে নির্বাচনের কারণে পিবিআই হালিমকে তাৎক্ষিণক গ্রেপ্তার করেনি। ২০ সেপ্টেম্বর নির্বাচন শেষ হওয়ার পর গত ২৬ সেপ্টেম্বর হালিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। নির্বাচনে বেলাল বা হালিমের কেউ জেতেননি। জয় পেয়েছেন তৃতীয় প্রার্থী এশারাত নামে এক ব্যক্তি।<br><br>পিবিআই প্রধান বলেন, ওই নারীকে হত্যার পর জামাল ও হালিম বেশ কয়েকবার ফোনে কথা বলেছেন। প্রতিপক্ষ গ্রেপ্তার না হলে আরও খুন করার পরিকল্পনা করেছিলেন তারা। তাদের টার্গেট ছিল একজন হিন্দু ব্যক্তি। এদিকে ভিকটিম পারুল বেগম সাভারে একাই থাকতেন। শিশুদের পোশাক ফেরি করতেন তিনি। আর জামাল হাওলাদার ভাঙারি ব্যবসা করতেন। তাদেরকে রাজধানীর মিরপুর ও লালবাগ এলাকা থেকে আগেই গ্রেপ্তার করে পিবিআই। তারা আদালতে এই ঘটনায় স্বীকারক্তি দেন। তারা বর্তমানে কারাগারে। এছাড়া পিবিআইয়ের হাতে রবিবার নিজ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হন হালিম মেম্বার। তাকে আজ আদালতে তোলা হবে। <br></body></HTML> 2021-09-27 16:49:55 1970-01-01 00:00:00 পুলিশের মামলায় অতিষ্ঠ হয়ে বাইকে আগুন দিলেন পাঠাও চালক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110588 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632727191_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632727191_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোড এলাকায় এক পাঠাও চালক নিজের মোটরসাইকেলে নিজেই আগুন দিলেন। সকালের দিকে ব্যস্ততম রাস্তায় মোটরসাইকেলে আগুন দেখে চলাচলকারী লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সারে ৯টার দিকে বাড্ডা লিংক রোড এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে। পাঠাও চালক শওকত এখন পুলিশ হেফাজতে বাড্ডা থানায় রয়েছে।<br><br>বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, শওকত নিজেই পাঠাও চালক। সকালের লিংক রোড এলাকায় পুলিশ সার্জেন্ট মোটরসাইকেলের কাগজপত্র চেক করার সময়, সে নিজের মোটরসাইকেলে নিজেই আগুন ধরিয়ে দেয়। এর আগেও পল্টন এলাকায় তার মোটরসাইকেলের কাগজপত্র ঠিক না থাকায় নিয়ম অনুযায়ী সে মামলা খেয়েছিল। তবে কী কারণে সে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছে, বিস্তারিত জানার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে। পাঠাও চালক এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। <br></body></HTML> 2021-09-27 13:19:15 1970-01-01 00:00:00 চোর সন্দেহে নারীকে পিটিয়ে হত্যা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110587 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632727028_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632727028_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">টিকা নিতে আসা এক নারীকে চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পপি আক্তার (২৫) নামে আরেক নারীকে গুরুতর আহতাবস্থায় নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত নারীর নাম রুনা আক্তার (২৫) । নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রবিবার দুপুরে উপজেলার বাহ্রা ইউনিয়নের বলমন্ত চর সেতুর ঢালে হযরত আলীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে হযরত আলী ও তার স্ত্রী জহুরা বেগম পলাতক রয়েছেন। আহত পপি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ডহর মন্ডল গ্রামের মহরম আলীর মেয়ে ও নিজামুদ্দিনের স্ত্রী বলে জানা গেছে। নিহত রুনা একই উপজেলার বাসিন্দা। তার বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।<br><br>পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হযরত আলীর স্ত্রী জহুরা বেগম রবিবার সকালে করোনার টিকা দিতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লাইনে দাঁড়ান। ভিড়ের মধ্যে বেলা ১১টার দিকে জহুরা বেগম তার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন দেখতে না পেয়ে পাশে দাঁড়ানো দুই নারীকে সন্দেহ করেন। পরে তাদের আটক করে জহুরা বেগম তার স্বামী হযরত আলীকে খবর দেয়। তার স্বামী এসে ওই দুই নারীকে ধরে বাড়ি নিয়ে যায়। এসময় বাড়ির লোকজন জড়ো হয়ে তাদের পিটুনি দিলে ঘটনাস্থলেই একজনের নারী মৃত্যু হয়। অন্যজনের অবস্থা খারাপ হলে তাকে দ্রুত নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়।<br><br>সংবাদ পেয়ে নবাবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম পুলিশের অন্য সদস্যদের নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। নবাবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মৃত্যুঞ্জয় কির্তনীয়া জানান, সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলছে।</body></HTML> 2021-09-27 13:16:00 1970-01-01 00:00:00 গণভোটে সমকামী বিয়ের পক্ষে সুইজারল্যান্ডের জনগণের রায় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110586 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726526_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726526_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>দীর্ঘদিনের লড়াই শেষ। সুইজারল্যান্ডে সমকামী বিয়ের পক্ষে রায় দিলেন সাধারণ মানুষ। স্থানীয় সময় রোববার গণভোটের আয়োজন হয়েছিল। সেখানে ৬৪ শতাংশ মানুষ সমকামী বিয়ের পক্ষে রায় দিয়েছেন। মাত্র ৩৬ শতাংশ মানুষ বিরদ্ধে দাঁড়িয়েছেন। গণভোটের ফল ঘোষণার পরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন এলজিবিটিকিউ আন্দোলনের কর্মীরা। দ্রুত সমকামী বিয়ের বিলটি এবার আইনের পরিণত হবে বলে আশা করছেন তারা। খবর ডয়চে ভেলের। কিছুদিন আগে সুইজারল্যান্ডের পার্লামেন্টে সমকামী বিয়ের বিলটি পেশ হয়। সেখানে বিলের পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিল সরকারপক্ষ। কিন্তু বিরোধীরা গণভোটের দাবি তোলে। সুজারল্যান্ডের নিয়ম অনুযায়ী, কোনো বিষয়ে যদি ৫০ হাজার মানুষের সই সংগ্রহ করা যায়, তাহলে বিল পাশ হলেও ওই বিষয়ের উপর গণভোটের আয়োজন করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে ঠিক সে ঘটনাই ঘটেছিল।<br><br>সুইজারল্যান্ডের অতি দক্ষিণপন্থি দলের আহ্বানে পঞ্চাশ হাজার মানুষের সই জমা পড়ে পার্লামেন্টে। তারপরই রোববার গণভোটের আয়োজন করা হয়। সেখানে সমকামী বিয়ের পক্ষে রায় দেন সাধারণ মানুষ। দীর্ঘদিন ধরেই সুইজারল্যান্ড সমকামী অধিকারের পক্ষে দাঁড়িয়েছে। ১৯৪২ সালে অ্যালপাইন রাষ্ট্রটিতে সমকামী সম্পর্ককে বৈধতা দেওয়া হয়। অর্থাৎ, সমকামী হলে তাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করবে না। যদিও বাস্তবে পুলিশ সমকামীদের একটি তালিকা বানিয়ে রাখত। ১৯৯০ সালে সেই তালিকা তৈরি বন্ধ করা হয়।<br><br>সমকামীদের একসঙ্গে থাকার আইনি সুযোগও দেওয়া হয়। কিন্তু সেই সুযোগ বিয়ের মতো ছিল না। বিয়ে করলে স্বামী-স্ত্রী যে সুযোগ সুবিধা ভোগ করে, সমকামী যুগল এতদিন তা থেকে বঞ্চিত ছিল। গত ডিসেম্বরে সুইস পার্লামেন্ট যে বিল আনে, তাতে সমকামী যুগলকেও বিয়ের অধিকার দেওয়া হবে বলে ঠিক হয়। কিন্তু বাদ সাধে অতি দক্ষিণপন্থি দল। এবার আর সমকামী যুগলের বিয়ের অধিকার পেতে অসুবিধা থাকল না।<br>আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। এবার থেকে সমকামী যুগলও শিশু দত্তক নিতে পারবে। কিছুদিনের মধ্যেই সুইস পার্লামেন্টে বিলটি আইন হিসেবে গ্রহণ করা হবে বলে মনে করছেন এলজিবিটিকিউ কর্মীরা।</body></HTML> 2021-09-27 13:07:53 1970-01-01 00:00:00 হেরে গেল মারকেলের দল, জার্মানির নির্বাচনে জয়ী মধ্য-বামপন্থি এসপিডি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110585 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726395_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><span style="font-weight: bold;"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726395_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥</span><br>চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেলের ক্ষমতাসীন রক্ষণশীল ব্লক সিডিইউ/সিএসইউ’কে সামান্য ব্যবধানে পরাজিত করে পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছে ওলাফ স্কলজের নেতৃত্বে থাকা জার্মানির মধ্য-বামপন্থি সোশ্যাল ডেমোক্রেটস (এসপিডি)। প্রাথমিক ফলাফলে দেখা গেছে সিপিডি পেয়েছে মোট ভোটের শতকরা ২৫.৭ ভাগ। ক্ষমতাসীন সিডিইউ/সিএসইউ ব্লক পেয়েছে শতকরা ২৪.১ ভাগ ভোট। অন্যদিকে রাজনৈতিক দল দ্য গ্রিনস তাদের ইতিহাসে সবচেয়ে ভাল ফল করেছে। তারা প্রথমবার শতকরা ১৪.৮ ভাগ ভোট পেয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে আরো বলা হয়েছে, নির্বাচনের ফল যা, তাতে জার্মানিতে একটি নতুন জোট সরকার আসবে তা নিশ্চিত। এর আগেই এসপিডি নেতা ওলাফ স্কলজ বলেছেন, দেশ শাসনের জন্য পরিষ্কার ম্যান্ডেট আছে তার দলের।<br><br>যখন তার দল সবাইকে ছাড়িয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছিল তখন তিনি এ মন্তব্য করেন। তবে বুথফেরত জরিপ একটি ভয়াবহ প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস দিয়েছিল। শুরু থেকেই এই নির্বাচনকে দেখা হয়েছে অনিশ্চিত হিসেবে। কারণ, কোনো দলই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে এমন পূর্বাভাস কোথাও থেকে পাওয়া যাচ্ছিল না। নির্বাচনের ফলও তাই বলছে। ফলে যে রাজকাহন এখানে শুরু হয়েছে, তাও যেন শেষ হওয়ার নয়। একটি বিষয় পরিষ্কার। তা হলো নতুন একটি জোট সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত বিদায় নিচ্ছেন না চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল। আগামী বড়দিন পর্যন্ত এ জন্য হয়তো অপেক্ষা করে থাকতে হতে পারে। যিনি নতুন চ্যান্সেলর নির্বাচিত হবেন তার কাঁধে থাকবে আগামী চার বছরে ইউরোপের শীর্ষ অর্থনীতিকে নেতৃত্ব দেয়া, ভোটারদের এজেন্ডার মধ্যে শীর্ষে থাকা জলবায়ু পরিবর্তন ইত্যাদি। গভীর আবেগ দিয়ে ওলাফ স্কলজকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তার সমর্থকরা। সবাইকে ছেড়ে শীর্ষে থাকার পর তিনি দর্শকদের উদ্দেশ্যে টেলিভিশন বক্তব্যে বলেছেন, ভোটাররা তাকে একটি সুস্থ, জার্মানির জন্য অভিজাত একটি সরকার গঠনের দায়িত্ব দিয়েছেন।</body></HTML> 2021-09-27 13:01:39 1970-01-01 00:00:00 এসএসসি পরীক্ষা শুরু ১৪ নভেম্বর, এইচএসসি ২ ডিসেম্বর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110584 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726049_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632726049_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) এবং উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষার সময়সূচি চূড়ান্ত করে তা প্রকাশ করেছে সরকার। সূচি অনুযায়ী আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে এসএসসি এবং ২ ডিসেম্বর থেকে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে।<br>মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত অনুমোদনের পর সোমবার ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে পরীক্ষার সূচি প্রকাশ করা হয়। কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে সূচির বিশেষ নির্দেশনায় বলা হয়েছে।<br><span style="font-weight: bold;"><br>এসএসসির রুটিন</span><br><br>পরীক্ষা সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা এবং দুপুর ২টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। ১৪ নভেম্বর সকালে পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), ১৫ নভেম্বর সকালে বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা এবং বিকেলে হিসাব বিজ্ঞান, ১৬ নভেম্বর রসায়ন (তত্ত্বীয়), ১৮ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া (তত্ত্বীয়), ২১ নভেম্বর সকালে ভূগোল ও পরিবেশ এবং বিকালে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং ২২ নভেম্বর উচ্চতর গণিত (তত্ত্বীয়) জীব বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), ২৩ নভেম্বর সকালে পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং অর্থনীতি, বিকালে ব্যবসায় উদ্যোগ বিষয়ের পরীক্ষা হবে।<br><br>এছাড়া ব্যবহারিক পরীক্ষার বিষয়ে বলা হয়েছে, স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান নিজ নিজ পরীক্ষার্থীর ব্যবহারিক খাতার নম্বর দিয়ে ২৮ নভেম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রকে সরবরাহ করবে। এইচএসসি পরীক্ষায় তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা ২ ডিসেম্বর শুরু হয়ে ৩০ ডিসেম্বর শেষ হবে। আর ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান নিজ নিজ পরীক্ষার্থীর ব্যবহারিক খাতার নম্বর দিয়ে ৩ জানুয়ারির মধ্যে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রকে সরবরাহ করবে।<br><br>গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা শনাক্ত হয়। ভাইরাসটির বিস্তার রোধে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। দফায় দফায় বন্ধ বাড়িয়ে ৩১ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে। চলতি বছরের শুরুর দিকে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলে কয়েকবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হয়নি।<br><br>প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি মাসে মাধ্যমিক (এসএসসি) ও এপ্রিলে উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষা শুরু হলেও এ বছর করোনার কারণে এ দুটি গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষা এখনও নেয়া সম্ভব হয়নি। গত বছর এসএসসি পরীক্ষা নেয়া গেলেও এইচএসসিতে শিক্ষার্থীদের অটোপাস দেয় সরকার।<br>সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে এসএসসি পরীক্ষা ও ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়টি জানিয়েছিলেন।<br>গত ২৩ সেপ্টেম্বর মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের দাখিল পরীক্ষা রুটিন প্রকাশ করে। এসএসসির মতো এ পরীক্ষাও ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে, চলবে ২১ নভেম্বর পর্যন্ত।</body></HTML> 2021-09-27 12:59:19 1970-01-01 00:00:00 তালাকের জেরে একমাত্র ছেলেকে জবাই করে মা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110583 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632725891_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632725891_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">লক্ষ্মীপুরে তালাক দেওয়ার জেরে একমাত্র শিশুসন্তানকে গলা কেটে হত্যা করেছেন সাবিনা ইয়াসমিন নামের এক নারী। ছেলেকে হত্যার পর তিনি নিজেও গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত ২টার দিকে সাবিনাকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য শিশুটির মরদেহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত শিশুর নাম আয়ান রহমান (৪)। এর আগে রোববার রাত ১২টার দিকে সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের লাহারকান্দি গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।<br><br>পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, সাবিনা সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের তেওয়ারীগঞ্জ গ্রামের সৌদি প্রবাসী আজগর রহমানের স্ত্রী। শিশু আয়ানসহ যৌথ পরিবার নিয়ে তিনি লাহারকান্দি গ্রামে হাফিজ খাঁর বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকছিলেন। সম্প্রতি তাদের সংসারে আর্থিক সংকট দেখা দেয়। এতে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের অবনতি হয়। সবশেষ রোববার সন্ধ্যায় মোবাইলে সাবিনা ও তার স্বামীর ঝগড়া হয়। পরে প্রতিদিনের মতো আয়ানকে নিয়ে তিনি নিজ কক্ষে গিয়ে দরজা বন্ধ করে দেন। কিছুক্ষণ পর ওই কক্ষ থেকে গোঙানির শব্দ ভেসে আসে।<br><br>পরে আশপাশের লোকজন দরজা ভেঙে দেখেন সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন সাবিনা। শরীরে রক্ত মাখা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় খাটের ওপর আয়ানের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। পাশেই ছিল রক্তমাখা ধারালো বঁটি।<br>সাবিনার শ্বশুর হুমায়ুন কবির ও দেবর আবির বলেন, সাবিনার স্বামী আজগর সৌদিতে রয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে তাদের বাগবিতণ্ডা হয়। ঝগড়ার কারণে সাবিনা অনেক বেশি রাগান্বিত ছিলেন। তারা তাকে সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করেন। পরে প্রতিদিনের মতো নিজ কক্ষে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আয়ানকে হত্যা করে নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করে।<br><br>স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য (মেম্বার) মহব্বত আলী বলেন, সাবিনাসহ তার পরিবারের সদস্যের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। বাগবিতণ্ডার জেরে আজগর তাকে (সাবিনা) তালাক দিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। বিষয়টি সহ্য করতে না পেরে ছেলেকে হত্যার পর তিনি নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দিন বলেন, হত্যার ঘটনায় গৃহবধূকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।</body></HTML> 2021-09-27 12:55:58 1970-01-01 00:00:00 অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধের নির্দেশ হাইকোর্টের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110582 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632725634_th.jpeg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632725634_th.jpeg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">সারাদেশে অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের তালিকা করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে তালিকা করতে গিয়ে যদি কোনো অনিয়ম ধরা পড়ে তাহলে তাদের কার্যক্রম বন্ধেরও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি জাকির হোসেনের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। সুদ কারবারিদের তালিকা প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা রিটের শুনানিতে প্রতারিত মানুষের অবস্থা তুলে ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাৎ নিয়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের একই ভার্চুয়াল বেঞ্চে শুনানি হয়। পরে এ বিষয়ে আদেশের জন্য ২৭ সেপ্টেম্বর দিন ঠিক করেন আদালত।<br><br>এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর ক্ষুদ্রঋণের নামে সুদের ব্যবস্থা বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট করা হয়। বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে জনস্বার্থে গত ৭ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন এ রিট করেন।</body></HTML> 2021-09-27 12:51:50 1970-01-01 00:00:00 প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে দেওয়া হবে ৮০ লাখ টিকা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110581 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668910_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668910_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে সারাদেশে আগামী মঙ্গলবার বিশেষ কার্যক্রমের মাধ্যমে ৮০ লাখ মানুষকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।<br>রবিবার বিকালে দেশের করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।<br>তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. এবিএম খুরশিদ আলম জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে সারাদেশে ৭৫ লাখ করোনার টিকা দেওয়া হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন ২৮ সেপ্টেম্বর বিশেষ টিকাদান ক্যাম্পেইন শুরু হচ্ছে। সকাল ৯টা থেকে এই কার্যক্রম শুরু হবে। এই ক্যাম্পেইন দেশের চার হাজার ৬০০ ইউনিয়নে হবে। একদিনে প্রায় ৮০ হাজার মানুষ এই টিকা ক্যাম্পেইনে কাজ করবেন। একইসঙ্গে ৮০ লাখ মানুষ টিকা পাবেন। মন্ত্রী বলেন, যারা গ্রামে থাকে, দরিদ্র জনগোষ্ঠী, বয়স্ক তারা এই কার্যক্রমে টিকা নিতে পারবে। যারা নিবন্ধন করে খুদে বার্তা পাননি, তারা এই কার্যক্রমে অগ্রাধিকার পাবেন। এই কার্যক্রমে শুধু প্রথম ডোজের টিকার দেওয়া হবে। কার্যক্রমে অধিকাংশ টিকা দেওয়া হবে সিনোফার্মের। <br>জাহিদ মালেক বলেন, এখন পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ কোটি ডোজ টিকা হাতে পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দেওয়া হয়েছে চার কোটি ডোজ। হাতে রয়েছে দেড় কোটি ডোজ টিকা। গর্ভবতী নারী ও দুগ্ধ দানকারী মায়েরা এই কার্যক্রমে টিকা পাবেন না। ইউনিয়ন, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা এলাকায় ছয় হাজারের বেশি কেন্দ্রে টিকা দেওয়া হবে। টিকা নিবন্ধন কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এলেও টিকা নেওয়া যাবে।<br>এক প্রশ্নের জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, টিকা পেতে যে কেন্দ্রে নিবন্ধন করেছেন, সে কেন্দ্রেই টিকা নিতে হবে। ২৮ সেপ্টেম্বরের আগেই টিকার জন্য মোবাইলে বার্তা চলে যাবে। এর আগে গণটিকায় ৪৫ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছিল, এবার আরও বড় পরিসরে টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।<br>স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এই ক্যাম্পেইন দেশের চার হাজার ৬০০ ইউনিয়নে হবে। একদিনে প্রায় ৮০ হাজার মানুষ এই টিকা ক্যাম্পেইনে কাজ করবেন। একইসঙ্গে ৮০ লাখ মানুষ টিকা পাবেন।<br>এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেছেন, গণহারে শুরু হতে যাওয়া এই টিকা কর্মসূচিকে আমরা গণটিকা বলছি না। তবে ব্যাপক আকারে আমরা এই টিকা দেব। টিকা ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে এক কোটিসহ প্রতি মাসে নিয়মিত প্রায় দুই কোটি টিকা দেওয়া হবে।<br><br></body></HTML> 2021-09-27 21:08:00 1970-01-01 00:00:00 সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110580 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668882_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668882_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার: <br>দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় সাবেক গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান খান ও তার স্ত্রী হাসিনা সুলতানার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। অভিযোগ গঠনের ফলে মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।<br>রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আলী হোসেন তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এসময় তারা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন। আদালত একই সঙ্গে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ১৮ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।<br>মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট আব্দুল মান্নান খানের বিরুদ্ধে ৭৫ লাখ চার হাজার টাকার আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করে দুদক। এছাড়া তার স্ত্রী হাসিনা সুলতানার বিরুদ্ধে এক কোটি ৮৬ লাখ ৫৩ হাজার টাকা সম্পদের তথ্য গোপন ও তিন কোটি ৪৫ লাখ ৫৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে একই বছরের ২১ অক্টোবর মামলা করে সংস্থাটি।<br>তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ১১ আগস্ট তাদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক।<br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:07:50 1970-01-01 00:00:00 ফেনীতে চেয়ারম্যানের ভাই-ছেলেসহ চার মাদককারবারি আটক http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110579 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668857_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668857_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">ফেনী প্রতিনিধি ॥<br>ফেনীর ফুলগাজী এলাকা থেকে মাদকসহ চারজনকে আটক করেছে বিজিবি। শনিবার রাতে উপজেলার ফেনাপুষ্কারিনী এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হচ্ছেন, আমজাদ হাট ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মির হোসেন মিরুর ছোট ভাই মো. লিটন মিয়া (৪০), সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম মজুমদারের ছেলে অপু মজুমদার (৩০), সাবেক ইউপি সদস্য হাফেজ আহাম্মদের ছেলে মো. জহিরুল ইসলাম রুবেল (৪০) ও সিএনজি চালক মো. শিপন মিয়া (৩৬)।<br>বিজিবি জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় সীমান্ত পিলার থেকে ৫০০ গজ ভেতরে বাংলাদেশের অংশে ১০০ পিস ভারতীয় ইয়াবা ও একটি মোটরসাইকেলসহ চারজনকে আটক করা হয়। বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ আবদুর রহিম জানান, আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে ফুলগাজী থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। <br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:07:24 1970-01-01 00:00:00 ভারতে সোহেল রানার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে আটক বাংলাদেশি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110578 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668831_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668831_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>বিএসএফের হাতে আটক হওয়া ই-কমার্স ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের অন্যতম মালিক বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ সোহেল রানার সঙ্গে ভারতে দেখা করতে গিয়ে এক বাংলাদেশি গ্রেপ্তার হয়েছেন।<br>ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে টিভি নাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে- আটক বাংলাদেশির নাম মোহাম্মদ বাহারুল। শিলিগুড়ি পুলিশ তাকে আটক করেছে।<br>পুলিশ সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বাহারুল শিলিগুড়ির একটি হোটেলে ঘাঁটি গেড়েছিলেন। সেখান থেকেই তিনি মেখলিগঞ্জের জেলে বন্দি সোহেলের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালাচ্ছিলেন।<br>অবৈধ পথে ভারত থেকে নেপালে যাওয়ার সময় চলতি মাসের শুরুর দিকে বিএসএফের হাতে আটক হন সোহেল রানা।<br>ই-অরেঞ্জের বিভিন্ন অনিয়মের তদন্ত করতে গিয়ে শুরু থেকেই পুলিশের বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ সোহেল রানার নাম আসে, যদিও বরাবর তিনি তা অস্বীকার করে আসছিলেন। তবে সমকালের হাতে আসা প্রতিষ্ঠানটির কিছু নথি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, 'অরেঞ্জ বাংলাদেশ' নামে প্রতিষ্ঠান খুলতে যে টিআইএন সনদ নেওয়া হয়, সেখানে পরিচালক হিসেবে সোহেল রানার নাম আছে। সোহেল রানা শুধু পরিচালক নন, প্রতিষ্ঠানটি থেকে আড়াই কোটি টাকা বিভিন্ন সময় তুলেও নিয়েছেন। আরও কয়েকজন এভাবে টাকা তুলে নিয়েছেন। সব মিলিয়ে ই-অরেঞ্জের দুটি ব্যাংক হিসাব থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৩৪৯ কোটি টাকা। এসব টাকা লোপাট করা হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। একাধিক সংস্থা বেহাত হওয়া অর্থের অনুসন্ধানে তদন্ত শুরু করেছে।<br>সোহেল রানাকে দেশে ফেরাতে বাংলাদেশ থেকে তিন দফায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। তবে ভারতীয় পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।<br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:06:55 1970-01-01 00:00:00 এসএসসি পরীক্ষার রুটিন চূড়ান্ত http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110577 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668804_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668804_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>মাধ্যমিক পর্যায়ের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার রুটিন চূড়ান্ত করা হয়েছে, যা সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) প্রকাশ করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। আন্তঃশিক্ষা সমন্বয় বোর্ড থেকে জানা গেছে, এসএসসি সমমান পরীক্ষা ১০, ১২, ১৪ ও ১৫ নভেম্বর শুরু করতে আলাদা চারটি প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। ১৫ নভেম্বর থেকে পরীক্ষা শুরু করে ২৮ নভেম্বর পরীক্ষা শেষ করতে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) আন্তঃশিক্ষা সমন্বয় বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, এসএসসি পরীক্ষা শুরু করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চারটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের পাঠানো প্রস্তাবের অনুমোদন এখনও হাতে আসেনি। সোমবার সেটি পাওয়ার কথা রয়েছে। পরীক্ষার রুটিন পেলে সব শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।<br>অন্যদিকে, চলতি বছরের দাখিল পরীক্ষা শুরু হবে ১৪ নভেম্বর। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার সময়সূচি আলাদাভাবে ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বাের্ড।<br>প্রতি বছর ১ ফেব্রুয়ারি এসএসসি, দাখিল ও কারিগরি পরীক্ষা হয়। এবার করোনার কারণে এসব পরীক্ষা পিছিয়ে আগামী নভেম্বরে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ও মাত্র তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষা হবে। পরীক্ষা কেন্দ্র নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনা সংক্রান্ত নির্দেশনায় এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।<br>তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষাবোর্ডের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এবার এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা একই দিন শুরু না হলেও একদিন আগে-পরে হতে পারে।<br>এবারের দাখিল পরীক্ষা আগামী ১৪ নভেম্বর শুরু হয়ে ২১ নভেম্বর শেষ হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত পরীক্ষা চলবে। <br><br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:06:34 1970-01-01 00:00:00 আবদুল গাফফার চৌধুরী হাসপাতালে ভর্তি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110576 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668782_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668782_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানের রচয়িতা, সাংবাদিক ও কলামিস্ট আবদুল গাফফার চৌধুরী অসুস্থ হয়ে যুক্তরাজ্যের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার বিকেলে তাকে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৮৭ বছর বয়সী এই ভাষা সৈনিক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন।<br>পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কাছে তার জন্য দোয়া চাওয়া হয়েছে। আবদুল গাফফার চৌধুরী ভাষা আন্দোলনের স্মরণীয় গান 'আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো' এর রচয?িতা। যুক্তরাজ্যপ্রবাসী বিশিষ্ট এ সাংবাদিক স্বাধীনতা যুদ্ধে মুজিবনগর সরকারের মাধ্যমে নিবন্ধিত স্বাধীন বাংলার প্রথম পত্রিকা সাপ্তাহিক জয় বাংলার প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী সম্পাদক ছিলেন।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:06:09 1970-01-01 00:00:00 ডাকাতিতে বাধা দেওয়ায় ট্রেনের ছাদে দুজনকে কুপিয়ে হত্যা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110575 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668749_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668749_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>ঢাকা থেকে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জগামী কমিউটার ট্রেনের ছাদে ডাকাতির ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। চলন্ত ট্রেনের ছাদে ডাকাতি করতে বাধা দেয়াতেই দুজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছে র‌্যাব। গতকাল রোববার দুপুরের দিকে র‌্যাব-১৪ কার্যালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। এর আগে গত শনিবার রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১৪। গ্রেপ্তাররা হলেন-নগরীর শিকারীকান্দা এলাকার আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন (২৬), বাঘমারা এলাকার মঞ্জু মিয়ার ছেরে মাকসুদুর হক রিশাদ (২৮), সাব্বির খানের ছেলে মো. হাসান (২২), মৃত আশরাফ আলীর ছেলে রুবেল মিয়া (৩১) এবং সাব্বির খানের ছেলে মোহাম্মদ (২৫)। র‌্যাব-১৪ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও মিডিয়া কর্মকর্তা মো. হান্নানুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জগামী কমিউটার ট্রেনের ছাঁদে ডাকাতির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন নামে একজনকে নগরীর শিকারিকান্দা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে তার কাছ থেকে লুন্ঠিত মোবাইল জব্দ করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে বাকি চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার করে র‌্যাব। তিনি আরও জানান, ঘটনার দিন ডাকাতির উদ্দেশ্যে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে চারজন পেশাদার ডাকাত ওই ট্রেনে ওঠেন। পরে রিশাস, হাসান এবং স্বাধীন নামে আরও তিনজন টঙ্গী স্টেশন থেকে তাদের সঙ্গে যুক্ত হন। ট্রেনটি ফাতেমা নগর স্টেশনে থামলে তাদের সাথে যোগ দেন মোহাম্মদ ও তার একজন সহযোগী। ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে চলতে শুরু করলে তারা ছাদে বসে থাকা যাত্রীদের মানিব্যাগ ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিতে শুরু করেন। একপর্যায়ে সাগর মিয়া ও নাহিদ তাদের বাধা দিলে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এ সময় ডাকাতরা তাদের হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে ওই দুজনের মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন। সাগর ও নাহিদ ট্রেনের ছাদে লুটিয়ে পড়লে ডাকাতরা ময়মনসিংহ রেলস্টেশনে ঢোকার আগের সিগন্যালে ট্রেনের গতি কমলে ট্রেন থেকে নেমে যান। র‌্যাব জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা স্বীকার করেছেন, এদের এই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার কমলাপুর এয়ারপোর্ট ও টঙ্গী রেলস্টেশন থেকে ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে ট্রেনে উঠতেন এবং তাদের কিছু সহযোগী গফরগাঁও ফাতেমা নগর স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠে সম্মিলিতভাবে ডাকাতি ও ছিনতাই করে ময়মনসিংহ স্টেশনে নেমে যেতেন। গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেযার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এর আগে, শুক্রবার রাত ১২টার দিকে ছুরিকাঘাতে নিহত সাগরের মা হনুফা খাতুন বাদী হয়ে ময়মনসিংহ জিআরপি থানায় অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দেওয়ানগঞ্জগামী জামালপুর কমিউটার ট্রেনটি গফরগাঁও স্টেশনে পৌঁছালে ছাদে কয়েকজন ডাকাত ওঠে। ডাকাতির সময় বাধা দিলে তারা প্রথমে নাহিদ মিয়া ও সাগর মিয়া নামে দুজনকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে। পরে রুবেল মিয়া নামে আরেকজনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। ট্রেনটি জামালপুর পৌঁছালে তিনজনকে ছাঁদ থেকে নামিয়ে হাসপাতালে নেয়া হলে নাহিদ ও সাগরকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।<br> and nbsp; <br></body></HTML> 2021-09-27 21:05:00 1970-01-01 00:00:00 কাল থেকে বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর টেস্ট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110574 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668715_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668715_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>বিদেশগামীদের জন্য হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্থাপিত আরটি-পিসিআর ল্যাবে আগামী মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) থেকে করোনার টেস্ট শুরু হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান। এখানে করোনা পরীক্ষার জন্য ১৬০০ টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।<br>রবিবার সচিবালয়ে বেবিচক ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, একটা এয়ারলাইন্সের টিকিট কাটা এবং প্রত্যেক যাত্রীকে ৪৮ ঘণ্টা আগে তাদের আরটি-পিসিআর টেস্ট করতে হবে। আশা করছি দুই-তিন দিনের ভেতরে পুরোপুরি যাত্রা শুরু হয়ে যাবে। আমরা এয়ারলাইন্সগুলোকে জানাবো। আশা করছি ২৮ তারিখ থেকে..., যেহেতু ৪৮ ঘণ্টা আমাদের সময় দিতে হবে।<br>প্রবাসীদের দীর্ঘদিনের আন্দোলনের পর শনিবার রাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বসানো হয় করোনা টেস্ট করার ল্যাব। শনিবার রাতে ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ হয়। এই করোনা টেস্ট ল্যাব স্থাপনের যে ছয় প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেওয়া হয় সে প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- স্টেমজ হেলথ কেয়ার (বিডি) লিমিটেড ঢাকা, সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার, এএমজেড হাসপাতাল লিমিটেড, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, গুলশান ক্লিনিক লিমিটেড ও ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক।<br>অনুমতি দেওয়ার সময় একেক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে আলাদা আলাদা মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু ল্যাব স্থাপনের পর করোনা টেস্টের জন্য অভিন্ন মূল্য নির্ধারণ করা হয়।<br>বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, একেক প্রতিষ্ঠানের একেক ধরনের মূল্য থাকলে সেটি নমুনা পরীক্ষায় সমস্যা তৈরি করবে। এজন্য অনেক আগেই আমি সব প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়ার প্রস্তাবনা দিয়েছিলাম। এখন সেই সিদ্ধান্ত হয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এক হাজার ৬০০ টাকা দিয়ে নমুনা পরীক্ষা করাতে পারবেন প্রবাসীরা।<br>সেইসঙ্গে নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে কোনো অসঙ্গতি পাওয়া গেলে র‌্যাপিড পিসিআর পরীক্ষার মতো বিকল্প ব্যবস্থাও থাকবে এখানে।<br>বিমানবন্দর সূত্র জানায়, প্রবাসীদের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার যাত্রা শুরুর ৬ ঘণ্টা আগে র?্যাপিড পিসিআর টেস্ট করানোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার বিমানবন্দরে এ ব্যবস্থা না থাকায় আমিরাতে ফিরতে পারছিলেন না প্রবাসীরা। তবে কয়েকদফা পেছানোর পর অবশেষে শনিবার ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে।<br>জানা গেছে, ল্যাব স্থাপনের পর পরীক্ষামূলকভাবে বিমানবন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারী মিলিয়ে ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষা করার কথা রয়েছে।<br><br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:05:03 1970-01-01 00:00:00 অনলাইনে নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান নওফেলের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110573 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668688_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668688_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ অনলাইনে দলের নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। গতকাল রোববার রাজধানীর আইডিইবি ভবনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীকে অনলাইনে সোচ্চার হতে হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট অবশ্যই আমরা সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড করবে। তবে গুরুত্বপূর্ণ সংগঠন হিসেবে যখন প্রয়োজন হবে বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে সাংস্কৃতিক কর্মীরা দাঁতভাঙা জবাব দেবে। তিনি আরও বলেন, উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ এখন এক নম্বরে। এটি শেখ হাসিনার অবদান। তাকে পুরস্কৃত করলো জাতিসংঘ। অথচ একটি গোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুকন্যার বিরুদ্ধে উদ্ভট কথা বলছে। এদের বিরুদ্ধে কথা না বলে শুধু স্লোগান দিয়ে লাভ নেই। তালেবানের সঙ্গে তারেক রহমানের সম্পর্ক রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আফগানিস্তানে যখন তালেবান ক্ষমতায় এলো বাংলাদেশের একটি গোষ্ঠী আগেরবার সেখানে প্রশিক্ষণ নিতে যায়। এদের সঙ্গে এক টেবিলে বসে দেশে খুন করার পরিকল্পনা শুরু করে তারা। যারা খুনের রাজনীতি বিশ্বাস করে, পরিকল্পিতভাবে খুন করে তাদের বাংলাদেশে রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই জানিয়ে নওফেল বলেন, আমাদের আহসানউল্লাহ মাস্টার সাহেবসহ অনেকেই তাদের হাতে খুন হয়েছেন। এ কারণে নেতাকর্মীদের এসব বিষয়ে আরও সোচ্চার হতে হবে। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ফাল্গুনী হামিদসহ আরও অনেকে।<br> and nbsp;<br><br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:04:36 1970-01-01 00:00:00 হাসপাতালে আরও ২৪২ ডেঙ্গুরোগী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=110572 http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668639_th.jpg <HTML><head></head><body style="font-family: SolaimanLipi; font-size: 16px"><img src="http://www.hazarikapratidin.com/2021/09/26/1632668639_th.jpg" alt="" style="margin-right: 7px;" border="0px" align="left">স্টাফ রিপোর্টার:<br>মাস শেষ হতে আরও চারদিন বাকি। এরপরও চলতি মাসের ২৬ দিনে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সাত হাজার ছাড়িয়েছে। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন করে আরও ২৪২ জন ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে চলতি মাসে হাসপাতালে ভর্তি মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে সাত হাজার একজনে। রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের পরিসংখ্যান সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ২৪২ জনের মধ্যে রাজধানীর হাসপাতালে ১৮৫ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে ৫৭ জন ভর্তি হন। এ নিয়ে বর্তমানে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা এক হাজার ৪৩ জন। হাসপাতালে ভর্তি এক হাজার ৪৩ জন ডেঙ্গুরোগীর মধ্যে রাজধানী ঢাকার সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৮১৪ জন ও ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২২৯ জন।<br>চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ (২৬ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১৭ হাজার ৩৫৭ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৬ হাজার ২৫৩ জন। সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ভর্তি ২৪২ রোগীর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালে ৬২ জন ও বেসরকারি হাসপাতাল এবং ক্লিনিকে ১২৩ জন ভর্তি হন। এছাড়া ঢাকার বাইরের বিভিন্ন বিভাগে ৫৭ জন ভর্তি হন।<br>চলতি বছর এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ১৭ হাজার ৩৫৭ জনের মধ্যে জানুয়ারিতে ৩২ জন, ফেব্রুয়ারিতে নয়জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে তিনজন, মে মাসে ৪৩ জন, জুনে ২৭২ জন, জুলাইয়ে দুই হাজার ২৮৬ জন, আগস্টে সাত হাজার ৬৯৮ জন ও ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সাত হাজার একজন রোগী ভর্তি হয়েছেন।<br>এছাড়া চলতি বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশে ৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে জুলাইয়ে ১২ জন, আগস্টে ৩৪ জন ও চলতি মাসে (২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) ১৫ জনের মৃত্যু হয়।<br><br></body></HTML> 2021-09-26 21:03:48 1970-01-01 00:00:00