শুক্রবার, ০৫ জুন, ২০২০
যুবলীগ কর্মী পরিচয় দিয়ে জঙ্গি কার্যক্রম
হাজারিকা অলাইন ডেস্ক
Published : Saturday, 9 May, 2020 at 6:32 PM

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে যুবলীগ কর্মী পরিচয় দিয়ে একটি পরিবার রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এমন অভিযোগে পরিবারটির এক সদস্যকে সম্প্রতি পুলিশ আটকের পর এর সতত্য বেরিয়ে এসেছে। পাশাপাশি মোমেন নিজেকে স্থানীয় যুবলীগ কর্মী বলেও থানা পুলিশের কাছে পরিচয় দিলেওে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরকে গ্রেপ্তারে ইতোমধ্যে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রুপগঞ্জ থানার (ওসি) মাহমুদুল হাসান।
গত মঙ্গলবার উপজেলার কাঞ্চন পৌর এলাকা থেকে মোমেন প্রধান নামের একজনকে আটকের পর তার পরিবারের অন্য সদস্যরা এলাকা ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে যান। তবে দূর্ধর্ষ জঙ্গী নেতা নিহত তামীম-সারোয়ার গ্রুপের অনুসারি উল্লেখিত পরিবারের আরও ৪ সদস্য ইতোপূর্বে জেএমবি সম্পৃক্ততায় আইন শৃংখলা বাহিনীর হাতে আটক হয়েছিলেন বলেও পুলিশের কাছে তথ্য প্রমাণ মিলেছে। জানা গেছে, সরকারের নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি) এর সর্বোচ্চ নেতা আব্দুর রহমান ও বাংলা ভাই আটকের পর সংগঠনের নের্তৃত্বে আসা তামীম-সারোয়ার গ্রুপের হাত ধরে কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়াপাড়া এলাকার হারুন অর রুশিদ(মুকালা হারুন) ও তার পরিবারের সকল সদস্য ওই সংগঠনে যোগদান করেন।

পরবর্তীতে তামীম-সারোয়ার ও তাদের বেশ কিছু অনুসারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হলে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হারুন মিয়া, তার ছেলে আব্দুর রহমান, ছোট ছেলে মাছুম মিয়া ও মেয়ে রাহিমার জামাতকে র‌্যাব গ্রেপ্তার করে। অনুসন্ধানে র‌্যাব জানতে পারে আব্দুর রহমান নারায়ণগঞ্জ জেলা জেএমবির সর্বোচ্চ নেতা। আটকের পর হারুন অর রশিদের অপর ছেলে আরমান মিয়া, মোমেন মিয়া, সোলাইমান মিয়া ও ওসমান মিয়া গা ঢাকা দেয়। দীর্ঘদিন কারাবাসের পর তারা জেল থেকে মুক্তি পেলে আটক জেএমবি নেতা আব্দুর রহমান তার নাম পাল্টে মুরাদ হোসেন নামে পরিচিত হন। তবে স্থানীয়রা জানান, বর্তমানে এই জঙ্গি পরিবারটি নিজেদের রক্ষা করতে কৌশলে কাঞ্চন পৌর আওয়ামী লীগ নেতাদের ছত্রছায়ার থেকে সরকারি দলের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন বলে অভিযোগ রয়েছে। তাদের ছায়াতলে থেকেই গোপনে অনলাইনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফের জেএমবির জঙ্গি প্রচারণামূলক কর্মকাণ্ড শুরু করেন।

থানা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, বিষয়টি জানতে পেরে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে পুলিশ তাদের কার্যক্রম নজরদারি শুরু করেন। সুনিদিষ্টভাবে সরকার বিরোধী কর্মকাণ্ডের প্রমাণের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ (গ) অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহিন ফরাজী ও রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসান উপজেলার কাঞ্চন থেকে হারুন অর রশিদের ছেলে মোমেন মিয়াকে মঙ্গলবার আটক করেন। এসময় পুলিশের স্টীকারযুক্ত একটি মোটর সাইকেলও জব্দ করেন তারা। খবর পেয়ে আত্মগোপনে চলে যান হারুন অর রশিদের পরিবার। পরে আটক মোমেনকে ৩ দিনের পুলিশ রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসে চাঞ্চল্যকর এসব তথ্য। তবে মোমেন প্রাথমিকভাবে নিজেকে যুবলীগের কর্মী হিসেবে পুলিশের কাছে নিজের পরিচয় দেন। এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রুপগঞ্জ পরিদর্শক জসিম উদ্দিন বলেন, আটক ব্যক্তি নিজেকে যুবলীগ কর্মী পরিচয় দিলেও তার কর্মকাণ্ড পর্যালোচনা করে দেখা গেছে সে রাষ্ট্রবিরোধী উগ্র মৌলবাদী গোষ্টির সক্রিয় সদস্য। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে এর বহু আলামত ও প্রমাণ রয়েছে। এছাড়া তাদের পরিবার পূর্বে জেএমবির সদস্য ছিলেন বলেও স্বীকার করেছে মোমেন।

রুপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহমুদুল হাসান এ ব্যাপারে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ সাপেক্ষেই মোমেনকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে জঙ্গি সদস্য বলে সে স্বীকার করেছে। আটক মোমেনকে তিনদিনের রিমান্ড শেষে আজ (শনিবার) আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যরা অনলাইনের মাধ্যেমে সরকারবিরোধী জঙ্গি কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছেন। আমরা তাদেরকে আটকের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি