বুধবার, ০৩ জুন, ২০২০
‘এখন শুধুই মৃত্যুর অপেক্ষা’ কান্নাভেজা কন্ঠে বললেন যুবলীগ নেতার স্ত্রী
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Tuesday, 31 March, 2020 at 9:28 AM

তিন মাসের শিশু সন্তান, বিধবা মা ও এক বোনকে নিয়ে এক প্রকার অবরুদ্ধ অবস্থায় জীবন যাপন করছেন নারায়ণগঞ্জের যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজউল্লাহ ফয়েজের স্ত্রী আরোহী হাওলাদার । ভয়ে বাসা থেকে বের হতে পারছেন না। তার উপর সারাক্ষণ আশপাশে ঘোরাঘুরি করছে বাড়িতে এসে হুমকি দিয়ে যাওয়া একদল বখাটে যুবক। পিস্তলের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে এবং তারপর যৌতুকের দাবিতে ঘরে তালাবদ্ধ করে প্রতিনিয়ত চলতে থাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে র‌্যাব পুলিশের সহায়তায় তাৎক্ষণিক রক্ষা পেলেও কারাগারে থাকা স্বামীর নিজস্ব বাহিনীর হুমকিতে জীবনের ঝুঁকির মুখে পড়েছেন নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ।

আরোহীর অভিযোগ, তার স্বামী যুবলীগ নেতা হওয়ায় কারাগারে থেকেও নানাভাবে প্রভাব খাটাচ্ছেন। মামলা তুলে নিতে তার নিজস্ব লোকজন বাড়িতে এসে মেরে ফেলাসহ নানা ধরনের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় পরিবারর নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন এবং যে কোনো সময় বাসায় হামলার আশঙ্কা করছেন তিনি। নারায়ণগঞ্জ শহরের আল্লামা ইকবাল রোডে ৩৬/১ হোল্ডিংয়ের ইলিয়াসের ১০ তলা বাড়ির ৭ম তলার একটি ফ্ল্যাটে বসবাস করেন। রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসী বিভাগে চতুর্থ সেমিস্টারে পর্যন্ত পড়াশুনা করেও স্বামী ফয়েজের চাপের মুখে বর্তমানে বন্ধ রয়েছে।

আরোহী বলেন, আমার স্বপ্ন ছিলো জীবনে বড় কিছু হবো। সেই আশা নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের আকাশ বাংলা, রিজেন্ট এয়ারলাইনস এবং ইউএস বাংলা এয়ারলাইনসে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েও চাকরিতে যোগদান করতে পারিনি। মৌখিক পরীক্ষার দিন ফয়েজ রাস্তা থেকে আমাকে তুলে নিয়ে আটকে রেখেছে যাতে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে না পারি। কান্নাভেজা কন্ঠে আক্ষেপ করে তিনি বলেন, আমার সুন্দর জীবনটা ধ্বংস করে দিয়েছে সে। বিমানে চাকরি করা হলো না আমার। আমি আমার ক্যারিয়ার হারিয়েছি, সমাজে অপমানিত হয়েছি। আমার হারানোর আর কিছু নেই। এখন শুধু মৃত্যুর অপেক্ষায় আছি। অন্যদিকে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ফয়েজ এর আগে তার দুলাভাই সন্ত্রাসী নুরুল আমিন মাকসুদের ভাগ্নি সোনিয়া ফারজানা সোমাকে বিয়ে করেন। ওই সংসারে ফয়েজের তিনটি মেয়ে। জামতলা এলাকায় রূপায়ন টাউনের ১৩ তলায় একটি ফ্ল্যাটে ফয়েজের এই পরিবার বসবাস করে।

আরোহী হাওলাদার জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনার পাশাপাশি স্বাবলম্বী হতে তিনি মেয়েদের রেডিমেট পোশাকের ব্যবসা শুরু করেন। ২০১৮ সালে শহরের চাষাঢ়ায় বেইলি টাওয়ারের নীচতলায় আরোহী প্লাস নামে একটি ফ্যাশন হাউসের শো রুমের মধ্য দিয়ে তার ব্যবসার যাত্রা শুরু হয়। তবে ওই ভবনের ৬ তলায় স্ত্রী সোমা ও তিন মেয়েকে নিয়ে থাকতেন যুবলীগ নেতা ফয়েজ। সেই সুবাদে ফয়েজ স্ত্রী ও মেয়েদের পোশাক কিনতে আরোহীর শো রুমে নিয়মিত আসতেন এবং আরোহীর প্রতি নজর দেন। কয়েকবার কুপ্রস্তাব দিয়ে ব্যর্থ হয়ে শেষে বিয়ের প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, আমার সমবয়সী মেয়ে আছে যার সেই লোককে বিয়ে করা প্রশ্নই আসে না। তবে ফয়েজ আমার পিছু লেগে থাকেন। অপ্রয়োজনে আমার শো-রুমে বসে থাকতেন এবং বিয়ে না করেও আমকে তার স্ত্রী হিসেবে পরিচিত সবাইকে বলে বেড়াতেন। পরে আমার বাবা-মায়ের কাছে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে ব্যর্থ হয়ে পিস্তল দেখিয়ে আমাদের পুরো পরিবারকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারাসহ নারায়ণগঞ্জ থেকে বিতাড়িত করার হুমকি দেন। সে সময় তার এই হুমকির বিষয়ে ফতুল্লা থানায় জিডি করেও আমি কোন আইনি সহায়তা পাই নি। তখন আরোহীর পরিবার থাকতেন জামতলা ধোপাপট্টি এলাকায়। ফয়েজদের পৈর্তৃক বাড়ির খুব কাছে। বাইরে আসা যাওয়ার পথেও আরোহীকে নানাভাবে উত্যক্ত করতো এবং কয়েকদিন রাস্তায় চড় থাপ্পড় দিয়েছে বলেও আরোহীর অভিযোগ।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি তারিখে অস্ত্রের মুখে জম্মি করে তুলে নিয়ে কাজী অফিসে জোর করে তাকে বিয়ে করেন ফয়েজ। এরপর আরোহীর লেখাপড়া বন্ধ করে দেন। আল্লামা ইকবাল রোডে ইলিয়াসের ১০ তলা বাড়ির ৭ম তলার একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে ফয়েজ সেখানে আরোহীকে নিয়ে রাখেন। মাঝেমধ্যে আসা যাওয়া করেন। বেশিরবাগ সময়ই রাতে থাকেন অন্যখানে।

বিয়ের পর ১০ লাখ টাকা যৗতুক দাবি করে আরোহীর উপর ফয়েজের নতুন করে অত্যাচার শুরু হয় বলে অভিযোগ করেন আরোহী। টাকার দাবিতে প্রতিনিয়ত চলতে থাকে মারধর ও মানসিক নির্যাতন।

প্রসঙ্গত, শনিবার (২৮ মার্চ) রাত সাড়ে নয়টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের জামতাল এলাকা থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণের সময় ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ নারায়ণগঞ্জের যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজউল্লাহ ফয়েজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি