বুধবার, ০৫ আগস্ট, ২০২০
চোখ হারিয়েও কানা রমিজের রাজত্ব!
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Saturday, 7 December, 2019 at 4:34 PM

দুটো চোখ নেই, তবুও পুরো এলাকা তার নিয়ন্ত্রণে। র‌য়ে‌ছে নিজস্ব সন্ত্রাসী বা‌হিনী। তার নির্যাতন, হামলা আর অত্যাচারের শিকার হ‌য়ে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে কয়েকটি গ্রামের হাজারও মানুষ। কিছু দিন আগে এসব অত্যাচারে মানুষ অতিষ্ট হয়ে তার দু’টো চোখই উপড়ে নেয়। তবুও থামেনি তার সন্ত্রাসী কার্যক্রম। ফের গড়ে তুলেছেন নিজস্ব সন্ত্রাসী বাহিনী। বলছিলাম সম্প্রতি সরকার দলীয় দলে হঠাৎ অনুপ্রবেশকারী শরীয়তপুরের কানা রমিজের কথা। বর্তমানে তার নিজস্ব বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে মাদক, চোরাকারবারি, চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজীসহ রয়েছে নানা অপরাধের সাম্রাজ্য। থানায় হত্যা মামলাসহ রয়েছে ডজন খানেক মামলা, তবুও তিনি ধরা ছোঁয়ার বাহিরে। জানা গেছে, শরীয়তপুর সদর উপ‌জেলার চিকন্দি গ্রা‌মের বা‌সিন্দা মোতা‌লেব মাদবরের কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে এই কানা রমিজ। কিন্তু দাবিকৃত টাকা ‌দি‌তে অস্বীকার করায় কানা র‌মি‌জ বাহিনীর হামলায় এখন পঙ্গু হয়ে পড়ে আছে মোতালেব।

মতা‌লেব মাদবর ব‌লেন, আমাকে মার‌পি‌টের প‌র পা ভে‌ঙে‌ দিয়েছে কানা রমিজের বাহিনী। অভি‌যোগ করায় বা‌ড়ি-ঘ‌রে হামলা চালিয়ে লুটপাট ক‌রে নি‌য়ে গে‌ছে। এই সন্ত্রাসীর হাত থেকে মুক্তি চাই! একা‌ধিক ভুক্তভোগী অভি‌যোগ করে বলেন, কানা রমিজ বাহিনী চিক‌ন্দি ইউনিয়নের ক‌য়েক‌টি এলাকায় জি‌ম্মি ক‌রে রে‌খে‌ছে সাধারণ মানুষ‌কে। ব্যবসা প্র‌তিষ্ঠান খুলতে হয় তার কথায়; বা‌হিনীর সদস্যরা সময় ম‌তো এসে চাঁদার টাকা নিয়ে যায়। কেউ প্র‌তিবাদ কর‌লে উল্টো হয়রা‌নি হ‌তে হয় ভুক্তভু‌গী‌কে। এমনকি রাতের আঁধারে বাড়ি ঘরে লুটপাট ও আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

চিকন্দীর বাজারের বিল্লালের মোড়ের এক চা দোকানি বলেন, চা খেতে এসেছিলো কানা রমিজের ছেলে ও তার সন্ত্রাসী গ্রুপের কয়েকজন। এ সময় চা দিতে একটু দেরি হওয়ায় তাকে বেধরক মারপিট করে আহত করে তারা। কিন্তু এ ঘটনায় কেউ মামলা-হামলার ভয়ে প্রতিবাদ করেনি।
এই প্রভাবশালী সন্ত্রাসী বা‌হিনী নিয়ন্ত্রণ ক‌রার অভিযোগ র‌য়ে‌ছে শরীয়তপুর সদর উপজেলার চিকন্দী ইউনিয়নের আবুরা গ্রামের আব্দুল আজিজ খাঁর ছেলে রমিজ খাঁ ওরফে কানা রমিজের বিরুদ্ধে। এলাকাবাসীর কাছে যার নাম‌টিও আতংকের। য‌দিও এই কানা বলার পেছ‌নে র‌য়ে‌ছে একা‌ধিক ঘটনা। অন্যায় অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার মানুষ একত্রিত হয়ে তার তার দু‌টি চোখ উপড়ে ফেলে। তবুও থামা‌নো যায়‌নি তা‌কে, গ‌ড়ে তু‌লে‌ছেন ভয়ংকর বা‌হিনী।
শরীয়তপুরের চিকন্দীতে র‌য়ে‌ছে সদর সি‌নিয়র সহকা‌রি জজ আদালত। আর এই আদালত পাড়াকে ঘিরেই চলা‌চ্ছে এই সন্ত্রাসের রাজত্ব। ১৯৮৪ সালের ৬ মে এ আদালতে ডাকাতের হাতে খুন হয় কোর্টের মুনসেফ ও তার স্ত্রী। এই হত্যাকা‌ণ্ডসহ কয়েক ডজন মামলা র‌য়ে‌ছে কানা রমিজসহ তার বা‌হিনীর বিরু‌দ্ধে। রমিজ খাঁর বিরু‌দ্ধে এসব অভিযোগ নিয়ে তার বা‌ড়ি‌তে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার প্রথম স্ত্রী জানান, তার স্বামী ও সন্তানরা কোন অপরা‌ধী নয়। এলাকায় তা‌দের এ‌মন কোন অভিযোগ নেই। এলাকায় দরবার সালিশ করায় মানুষ এসব কথা ব‌লে।
এদিকে বা‌হিনীর প্রধান কানা রমিজের চোখ না থাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও তার বিরুদ্ধে নিতে পারে না তেমন কোনো পদক্ষেপ। বরাবরই থাকেন গ্রুপ নিয়ে সুবিধাবাদী রাজনীতির পেছনে। ফলে তার বিরুদ্ধে স্থানীয়রা কেউ কোনো অভিযোগ করতে সাহস পায় না। ‌এ বিষয়ে শরীয়তপুর পু‌লিশ সুপার আব্দুল মোমেন ব‌লেন, এ সকল বিষ‌য় আমার জানা নেই। তবে য‌দি কেউ সাধারণ মানুষ‌কে হয়রা‌নি ক‌রে থা‌কে অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। "সূত্র পূর্বপশ্চিম"


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি