শনিবার, ০৪ জুলাই, ২০২০
শীতের রাতে বৃদ্ধাকে সড়কে ফেলে গেল স্বজনেরা!
Published : Friday, 22 November, 2019 at 8:56 PM

শীতের রাতে বরিশাল নগরীতে এক বৃদ্ধাকে সড়কে ফেলে স্বজনেরা চলে গেছেন। বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) রাত ১০টার দিকে শহরের আগরপুর রোডে সরকারি মহিলা কলেজের সামনে জোহরা বেগম (৬৫) নামের ওই বৃদ্ধাকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় তুলে ড্রেনের ওপর রেখেছে। পাশাপাশি তাকে উষ্ণতা দিতে কাথার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। কিন্তু কে বা তার কোন স্বজন এখানে ফেলে গেছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এমনকি বৃদ্ধাও নিজের নাম ও বাড়ির ঠিকানা ব্যতিত তেমন কিছু বলতে পারছেন না। বৃদ্ধা স্থানীয়দের জানিয়েছেন, বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের চুড়ামন গ্রামের হাওলাদার বাড়ির বাসিন্দা তিনি। এবং তার ছেলে জামাল ইটালী প্রবাসী ও ছেলের স্ত্রীর নাম বিউটি বেগম। কিন্তু তাকে কে বা কারা ফেলে গেছেন সেই সম্পর্কে কোন তথ্য দিতে পারেনি। তবে স্থানীয়রা অনুমান করছে, বৃদ্ধাকে তার কোন স্বজন বরিশাল শহরে নিয়ে আসেন এবং তাকে ফেলে রেখে গেছেন। বিষয়টি বরিশাল জেলা সমাজসেবা অফিস কর্মকর্তাদের অবহিত করা হলে সেখানকার প্রবেশন অফিসার সাজ্জাদ পারভেজ জানান, বৃদ্ধাকে সড়ক থেকে তুলে নিয়ে আশ্রয় দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি কোতয়ালি থানা পুলিশকেও অবহিত করা হয়েছে। বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। বৃদ্ধাকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া এবং আশ্রয় দিতে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পাশাপাশি বৃদ্ধার স্বজনদের খুঁজে বের করতে চেষ্টা চলছে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি