বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯
বিয়ের স্বীকৃতি চাওয়ায় স্ত্রীকে দুই সহযোগী নিয়ে ধর্ষণ
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Sunday, 17 November, 2019 at 9:46 AM


বিয়ের স্বীকৃতি চাওয়ায় স্ত্রীকে দুই সহযোগী নিয়ে ধর্ষণজয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বাগুয়ান এলাকার ছোট যমুনা নদী তীরের নির্জন স্থানে এক গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে সাবেক স্বামী ও তার দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে। শনিবার সন্ধ্যায় ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। ধর্ষণের অভিযোগে রাতে উপজেলার কেশবপুর এলাকা থেকে গৃহবধূর সাবেক স্বামী ও তার সহযোগীকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন সাবেক স্বামী ও একই উপজেলার কেশবপুর গ্রামের সাইফুলের ছেলে মেহেরুল ইসলাম এবং ভোজন চন্দ্র বর্মনের ছেলে গোপাল চন্দ্র বর্মন।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুনসুর রহমান জানান, ফরিদপুরের এক তরুণী গার্মেন্ট শ্রমিকের সঙ্গে মেহেরুলের পরিচয় হয় ঢাকায়। এক বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। মেহেরুল মেয়েটিকে ঢাকায় ফেলে রেখে বাড়িতে এসে তালাকনামা পাঠিয়ে দেন। স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে ওই তরুণী চাপ দিতে থাকলে মেহেরুল তাকে একাই পাঁচবিবিতে আসতে বলেন। মেহেরুলের কথামত মেয়েটি পাঁচবিবি এলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তাকে বাড়ি নেওয়ার কথা বলে মেহেরুল নদীতীরের নির্জন স্থানে নিয়ে যান। সেখানে মেহেরুলসহ তিনজন পালাক্রমে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন। মেয়েটির আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তিনজন পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হপাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেয়।
পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে শনিবার রাত ৯টায় গোপালকে এবং রাত সাড়ে ১১টার দিকে মেহেরুলকে আটক করে।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি