বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯
বিনা টেন্ডার বিদেশি কোম্পানিকে আইটির কাজ দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Sunday, 22 September, 2019 at 4:55 PM


বিনা টেন্ডার বিদেশি কোম্পানিকে আইটির কাজ দিল বাংলাদেশ ব্যাংকবাংলাদেশ ব্যাংকের প্রযুক্তিগত নিরাপত্তা জোরদারের লক্ষে বিদেশি একটি আইটি কোম্পানিকে কোনো রকম টেন্ডার প্রক্রিয়া ছাড়াই ভালনারেবিলিটি অ্যাসেসমেন্ট এবং পেনিট্রেশন টেস্টিং এর কাজ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
লিথুনিয়ার ‘এনআরডি সাইবার সিকিউরিটি’ নামের ওই প্রতিষ্ঠানকে ইতোমধ্যে ব্যাংকের নিরাপত্তা ঝুঁকি নিরূপণের কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। চলতি মাস থেকেই প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ ব্যাংকের আইটি সিস্টেমের নিরাপত্তা দুর্বলতা খোঁজা শুরু করবে। তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এতো গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ কোনো রকম টেন্ডার প্রক্রিয়া ছাড়াই বিদেশি কোম্পানিকে দিয়ে দেওয়া আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত।

এদিকে বিদেশি প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেওয়ার দায় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগ ইনফরমেশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্ট। এই বিভাগের শীর্ষ এক কর্মকর্তা বলেন, সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশনা হচ্ছে আইটি অডিটের বিষয়টি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় পরামর্শ ও নির্দেশনা অনুযায়ী করতে হবে। আমরা কেবল তাদের পরামর্শ বাস্তবায়ন করছি। ২০১৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি রিজার্ভ চুরির ঘটনা ঘটার পর ওই বছরের ১৮ জুলাই সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ ব্যাংকের নিরাপত্তা জোরদারে বিশেষ বৈঠক করেন। বৈঠকে সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিতে বাংলাদেশ ব্যাংককে আইটি অডিট করানোর নির্দেশ দিয়ে বলা হয়, আইটি অডিটের বিষয়টি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় পরামর্শ ও নির্দেশনা অনুযায়ী করতে হবে। এক্ষেত্রে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সক্ষম হলে নিজস্ব জনবলের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের আইটি অডিট সম্পন্ন করবে। আর সেটি সম্ভব না হলে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে দেশীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কাজটি করাতে হবে। দেশে যোগ্য কাউকে পাওয়া না গেলে দেশি এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে আইটি অডিটের কাজ করবে।

নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংকের ইনফরমেশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট বিভাগ আইটি অডিটের সহযোগিতা চেয়ে গত বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে একটি চিঠি দেয়। আইসিটি বিভাগের ডাটা সেন্টারের পরিচালক এবং সিএ অপারেশন ও নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক তারেক এম বরকতউল্লাহ স্বাক্ষরিত ফিরতি চিঠিতে বলা হয়, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের সাইবার নিরাপত্তা টিমের স্পর্শকাতর গুরুত্বপূর্ণ সিস্টেমের ভিএপিটি করার সক্ষমতা ও অভিজ্ঞতা নেই।

এক্ষেত্রে কাজটি এনআরডি সাইবার সিকিউরিটি ও এনআরডি বাংলাদেশ লিমিটেডকে বরাদ্দের পরামর্শ দেওয়া হয়। এরপর কয়েক দফায় উভয় পক্ষের চিঠি চালাচালি শেষে বিসিসির পরামর্শে এনআরডি সাইবার সিকিউরিটিকে আইটি অডিটের জন্য চূড়ান্ত করা হয়।

আইটি অডিটের জন্য এনআরডি ২৫ হাজার ডলার (২১ লাখ টাকা) দাবি করে। তবে নিজেরা দরকষাকষি করে ১৮ হাজার ১৪৫ ডলারে চূড়ান্ত করে এনআরডিকে কার্যাদেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এনআরডি সাইবার সিকিউরিটি ২০১৬ সালে বাংলাদেশের জয়েন্ট স্টকে এনআরডি বাংলাদেশ লিমিটেড নামে নিবন্ধিত হয়; যার প্রায় শতভাগ মালিকানায় রয়েছে নরওয়ে।

এদিকে সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কত টাকায় অডিটটি করানো হচ্ছে এর চেয়ে বড় কথা হচ্ছে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হচ্ছে কিনা এবং যোগ্য ও বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান সেটি করছে কিনা। কেননা এই অডিটের মধ্যে ফাঁক থাকলে বিলিয়ন ডলারও হ্যাকারদের কব্জায় চলে যেতে পারে। দেশীয় বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান এখন ব্যাংকের আইটি অডিটের কাজ করছে।

টেন্ডার ছাড়াই এনআরডি সাইবার সিকিউরিটিকে কাজ দেওয়ার কথা স্বীকার করে তারেক এম বরকতউল্লাহ বলেন, দেশে কোনো যোগ্য প্রতিষ্ঠান নেই। এখানে আইটি অডিটে শুধু এনআরডি কাজ করবে না, আমরাও (বিসিসি) এবং বাংলাদেশ ব্যাংকও সম্পৃক্ত থাকবে। ফলে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। 


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি