রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯
ডেঙ্গু নিয়ে আমাদের প্ল্যানিংয়ের অভাব ছিল: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
Published : Friday, 9 August, 2019 at 8:32 PM

ডেঙ্গু নিয়ে আমাদের প্ল্যানিংয়ের অভাব ছিল: স্বাস্থ্যমন্ত্রীনিজস্ব প্রতিবেদক:
ডেঙ্গুতে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে চলার মাঝে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বীকার করেছেন, ডেঙ্গু নিয়ে প্ল্যানিংয়ের অভাব ছিল। তবে ডেঙ্গু নিয়ে ‘ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে বলার মতো কিছু নেই’ বলেও মনে করছেন তিনি। একইসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমের কাছ থেকে আরও দায়িত্বশীলতার আশা করেছেন।

বৃহস্পতিবার ঢাকায় দৈনিক যুগান্তর কার্যালয়ে আয়োজিত ‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও সচেতনতায় করণীয়’ শিরোনামে এক গোলটেবিল আলোচনায় যোগ দিয়ে তিনি একথা বলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, বৃহস্পতিবার বিকাল পর‌্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৬৬৬ জন। এদের মধ্যে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৮ হাজার ৭৬৫ জন। এর মধ্যে বুধবার সকার ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত নতুন রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ৩২৬ জন।

তবে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা নিয়ে মতভেদ রয়েছে। সরকারি হিসাবে এই পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ২৯ জন বলা হলেও গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে সংখ্যাটি ৯০ ছাড়িয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘রোগীর সংখ্যা ও মৃতের সংখ্যা হাইড করার কিছু নাই। তবে সংখ্যা ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে বলার মতো কিছু নাই। এমন কোনো ফিগার বলবেন না যেন আতঙ্কিত হয়ে হাসপাতালগুলোতে রোগীর লম্বা লাইন লেগে যায়। এটা থেকে বিরত থাকুন। ব্যঙ্গ করলে চলবে না। দেখতে হবে কতটুকু সেবা দিলাম, কতগুলো হাসপাতালে ভিজিটে গেলাম।’

গণমাধ্যমের কাছে দায়িত্বশীলতা আশা করে তিনি বলেন, ‘আপনাকে রেসপনসিবল হতে হবে। প্রত্যেককে যার যার অবস্থান থেকে রেসপনসিবিলিটি শো করতে হবে।’

ডেঙ্গুতে ভয়াবহতা যখন বাড়ছে, তখন সপরিবারে মালয়েশিয়া গিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। পরে সমালোচনার মুখে সফর সংক্ষিপ্ত করে তিনি দেশে ফিরে আসেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বিদেশ সফরে গিয়ে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছেন’ বলে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ও বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ আসে। বিএনপি নেতারা তার পদত্যাগের দাবিও জানিয়েছিলেন।

আর ক্ষমতাসীন দলের আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমও ডেঙ্গু মোকাবেলায় সমন্বয়হীনতার কথা বলেছিলেন।

সমালোচনার জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, ‘অনেকে অনেক কথা বলেছে। কজনে পাশে দাঁড়িয়েছে, কজনে হাসপাতালে ভিজিট করছে? এ বিষয়গুলো আমাদের বোঝার বিষয় আছে।’ তবে ডেঙ্গু মোকাবেলায় পরিকল্পনার অভাবের কথা স্বীকার করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘আমাদের প্ল্যানিংয়ের অভাব ছিল। তবে নাউ থিংস উইল বি অলরাইট। আমাদের সঠিক জায়গায় অ্যাকশনে যেতে হবে। প্রবলেম থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।’

মহামারির আকারে যায়নি ডেঙ্গু

ডেঙ্গুকে ‘মহামারি’ ঘোষণার যে দাবি উঠেছে তার প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ইট ইজ নট আ ন্যাশনাল ক্রাইসিস। এটা এপেডেমিক ফর্মে (মহামারি আকারে) কিছু হয় নাই।  এখানে আমরা কন্ট্রোল করতে পারছি এটা। আমরা যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছি, এটা ইনশাল্লাহ কন্ট্রোল হবে।’

সময়মতো সঠিক চিকিৎসা পেলে ডেঙ্গু আক্রান্ত একজন রোগীও মারা যেত না বলে মনে করছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে যত রোগী এসেছে, তারা সবাই ডিলে (দেরি) করে এসেছে। গাড়ি নিয়ে আসতে আসতে রোগীর অবস্থা খারাপ। বাড়িতে সাত আট দিন কাটাইছে, অন্য একটা জায়গায় কাটাইছে, যেখানে সঠিক ট্রিটমেন্ট দেয় নাই। একটা রোগীও মরতে পারে না, যদি সময়মতো সঠিক ট্রিটমেন্ট দেওয়া হয়।’

কিট সঙ্কট নেই

সরকারি হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু পরীক্ষার কিট সংকটের কথা গণমাধ্যমে এলেও স্বাস্থ্যমন্ত্রী তা নাকচ করে বলেন, ‘প্রতিদিনই এক লাখ, দুই লাখ করে কিট আমরা পাচ্ছি। কিটের কোনো অভাব নাই। আইভি ফ্লুইডের প্রডাকশন দ্বিগুণ, তিনগুণ করে আমরা প্রতিটি হাসপাতালকে কেনার জন্য পারমিশন দিয়েছি। কেউ কমপ্লেইন করতে পারবে না যে হাসপাতালে আইভি ফ্লুইড পাওয়া যায় নাই।’

ডেঙ্গু মোকাবেলায় সবগুলো মন্ত্রণালয়ের ‘সমান দায়িত্ব’ রয়েছে জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, ‘ন্যাশনাল ক্রাইসিসে আমরা সকলে ঝাঁপিয়ে পড়ব। কিন্ত দায়িত্ব যার যার কর্মক্ষেত্র ভাগ করা আছে। সে দায়িত্ব যেন আমরা আমরা সঠিকভাবে পালন করি। সমস্ত সমাজের দায়িত্ব রয়েছে, এটা আমাদের একার দায়িত্ব না।’



সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি