রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯
ফেনীতে অপহরণের মামলা করতে গিয়ে থানায় বিয়ে
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Thursday, 25 July, 2019 at 9:03 PM


ফেনীতে অপহরণের মামলা করতে গিয়ে থানায় বিয়েঅপহরণ চেষ্টার ঘটনাটি ঘটেছে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চর মজলিশপুর ইউনিয়নের দশআনি এলাকায় বুধবার (২৪ জুলাই) সন্ধ্যায়। বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে থানায় ওই মামলায় প্রস্তুতি নেওয়া হয়। বিয়ে সম্পন্ন হয় বিকেলে। সংশ্লিষ্ট যুবকের (বর) নাম ইয়াকুবুর রহমান (২৬)। এক যুবক মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা করেছেন, এমন অভিযোগে মা গেছেন থানায় মামলা করতে। মামলার এজাহারও প্রস্তুত। ঠিক এমন সময় থানায় উপস্থিত হয় ছেলের পক্ষ। তারা ওই দু’জনের মধ্যে বিয়ে দিতে মেয়ের পক্ষকে প্রস্তাব দেয়। একপর্যায়ে মেয়ের পক্ষ বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়। ফলে মামলার পরিবর্তে বিয়ের অনুষ্ঠান হয় থানার অভ্যন্তরে। সেখান থেকেই কনেকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বরের বাড়িতে।

জানা গেছে, ইয়াকুবুর রহমান মোটর সাইকেলে তার ছোট ভাই ইয়াছিনকে (২০) নিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় তাদের বাড়িতে যান। তরুণী আঙিনায় কাজ করছিলেন। ওই দুই ভাই তাকে জোর করে মোটর সাইকেলে তোলার চেষ্টা করেন। এ সময় পরিবারের সদস্যসহ আশপাশের লোকজন তাদের আটক করে পুলিশে খবর দেন। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার দুপুরে তরুণীর মা ওই দু’জনের বিরুদ্ধে মামলা করতে থানায় যান। ইয়াকুব ও ইয়াছিন ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বৈরাগীরহাট এলাকার নুর নবীর ছেলে।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও পরিবার দু’টির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই তরুণী চলতি বছর জেলা শহরের একটি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হন। যুবক ইয়াকুবুর রহমান বিদেশে থাকেন। এই দু’জনের মধ্যে আড়াই বছর ধরে মুঠোফোনে প্রেমের সম্পর্ক চলে। কয়েক মাস আগে ইয়াকুব দেশে ফেরেন। সম্প্রতি বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে তিনি ওই তরুণীর বাড়িতে বেড়াতে যান। কিন্তু ইয়াকুবের একটি আচরণ অপছন্দ হওয়ায় তরুণীর মা এই প্রস্তাব নাকচ করে তাকে ঘর থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। এতে ইয়াকুব ক্ষিপ্ত হন। এই ক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি তরুণীকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। সোনাগাজী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ময়নাল হোসেন বলেন, পুলিশ মামলা নেওয়ার পক্ষে ছিল। এজাহারও লেখা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু ছেলে পক্ষের প্রস্তাবে মেয়ের পক্ষ মামলা না করার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে ওই বিয়ে হয়।
সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈন উদ্দিন আহমেদ বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে ইয়াকুব তরুণীকে তুলে নেওয়ার চেষ্টাসহ অন্যান্য সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছেন। পাঁচ লাখ টাকা দেনমোহরে তাঁদের বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর মেয়েকে ছেলের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইয়াকুব ও তার ভাইয়ের কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি