মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭
আ.লীগের কমিটিতে ৩৫ বিএনপি ও জঙ্গি
Published : Thursday, 14 September, 2017 at 8:55 PM

 আ.লীগের কমিটিতে ৩৫ বিএনপি ও জঙ্গিস্টাফ রিপোর্টার॥ ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে নাম রাখা হয়েছে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের পুত্রবধূ সৈয়দা নাজমা ইসলামের। একই কমিটির সদস্য হিসেবে জায়গা পাওয়া জুয়েলারি ব্যবসায়ী মালিক মো: শহীদুল্লাহ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকর হওয়া কুখ্যাত জঙ্গি নেতা শায়খ আব্দুর রহমানের ভাগ্নে। তাকে ঘিরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বিতর্ক বা সমালোচনার কমতি নেই। বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান যখন প্রথমে জাগপা দল গঠন করেছিলেন সেই কমিটির সদস্য ছিলেন মাহমুদ হাসান প্রিন্স। পরবর্তীতে তিনি জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেন। অথচ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতির ‘দক্ষিণাস্ত’ হওয়ায় তাকেও প্রস্তাবিত কমিটিতে সহ-সভাপতির মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা হয়েছে। মোস্তফা মামুনুর রায়হান অসীম নামে একজনকে এ কমিটিতে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। অথচ তার মামা মুক্তাগাছায় সরকার বিরোধী আন্দোলনে নাশকতার মামলার আসামি। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে বিএনপি’র নেতাদের সঙ্গে একসঙ্গে উঠাবসা করে ব্যবসা বাণিজ্যে ফুলে উঠলেও দল বিরোধী এমন ব্যক্তিকে কমিটিতে জায়াগ দেয়ায় দলীয় পরিমন্ডলে তীব্র ক্ষোভ ও আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। অনুমোদনের জন্য গত ৭ সেপ্টেম্বর দলীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে জমা দেয়া ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটির এমন আরো ৩১ জনের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে। যাদের কেউ কেউ এলডিপি, হাইব্রিড এবং অনুপ্রবেশকারী হওয়ায় তাদের ‘আমলনামা’ সংক্রান্ত অভিযোগ জমা পড়েছে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে। জানা যায়, প্রস্তাবিত এ কমিটির সহ-সভাপতি তাজুল আলম রাজাকার বুচন মিয়ার পুত্র ও সাবেক গভর্নর মোনায়েম খানের নিকটাত্মীয়। আর একই কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর শহীদ উদ্দিন স্বাধীনতা বিরোধী পরিবারের সন্তান বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ কমিটির সহ-সভাপতি শাহজাহান পারভেজ কিশোরগঞ্জ জেলা আ.লীগের কমিটির সদস্য এবং তিনি ওই জেলার স্থানীয় বাসিন্দা। সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসেন জাহাঙ্গীর বাবুর বোন সালেমা সিদ্দিক জেসমিনও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে জায়গা পেয়েছেন।
কমিটির ১৫ নম্বর সদস্য সিদ্দিকুর রহমান ফেরদৌস আহম্মদ কোরাইশীর দলের সহ-সভাপতি ছিলেন। সহ-দপ্তর সম্পাদক হিসেবে প্রস্তাবিত হেলাল উদ্দিন হিমু কোনদিন ছাত্রলীগের রাজনীতির কোন পদে ছিলেন না। তাকে অনুপ্রবেশকারী (হাইব্রিড) হিসেবে অভিযুক্ত করা হয়েছে। কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. দেবাশীষ মন্ডল ছাত্রলীগের রাজনীতি করলেও নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় তাকে বেসরকারি সিবিএমসিবি হাসপাতালের চাকরি থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছিল। নৈতিক স্খলনের ঘটনায় অভিযুক্ত একজন ব্যক্তিকে কেন এবং কী কারণে কমিটিতে স্থান দেয়া হয়েছে এ নিয়েও নানা প্রশ্ন উঠেছে।
সূত্র জানায়, মহানগর আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত এ কমিটিকে নিয়ে দলে ক্ষোভ-অসন্তোষের কমতি নেই। এ কমিটির সভাপতি এহতেশামুল আলম দীর্ঘদিন একজন জনপ্রতিনিধির ‘বগলদাবা’ হয়ে রাজনৈতিক শ্বাস নিলেও হঠাৎ করেই তিনি ভোল পাল্টিয়ে ধর্মমন্ত্রীর পুত্র ও মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্ত’র সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন। মোটা অংকের লেনদেনের মাধ্যমে তারা দু’জনে মিলেই এমন পকেট কমিটি করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।
ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের সাবেক ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর জামাল হোসেন রোজ অভিযোগ করে বলেন, মহানগর আওয়ামীলীগের প্রস্তাবিত কমিটিতে বিএনপি-জামায়াত, জঙ্গিদের আত্মীয়, চিহ্নিত মাস্তান, খুনি ও ডাকাতদের রাখা হয়েছে।
একই রকম অভিযোগ করে শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহবুবুর রহমান দুলাল ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তাজ উদ্দিন রানা বলেন, বিএনপি, এলডিপি, জেএমবি, সরকারি তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী, খুন, চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি মামলায় জড়িতদের অন্তর্ভূক্ত কমিটি দলটির ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতারা প্রত্যাখ্যান করেছেন। দলীয় হাইকমান্ডের কাছে এ সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে।
এসব ব্যাপারে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এহতেশামুল আলম টেলিফোনে পূর্বপশ্চিমকে বলেন, আমরা কমিটির নাম প্রস্তাব করেছি। চূড়ান্তভাবে যাচাইবাছাই করে অনুমোদন দেবে কেন্দ্র। অনেকে বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকতে পারে কিন্তু তারা আওয়ামী লীগ রাজনীতির সঙ্গেই জড়িত। অনেকের আতœীয় হওয়াটা অন্যায় কিছু না। তিনি কোন রাজনীতির সঙ্গে জড়িত সেটাই বিবেচনা করা হয়েছে।
একই বিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে।



সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আইন উপদেষ্টা : এ্যাডভোকেট এম. সাইফুল আলম। আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : hazarikabd@gmail.com, Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি