বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, 2০২1
ধর্ষণ শেষে ধরে ফেলায় ছাত্রীর হাত কামড়ে পালালো ধর্ষক
Published : Wednesday, 2 December, 2020 at 8:03 PM

জেলা প্রতিনিধি ॥
ময়মনসিংহের নান্দাইলে নানার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে এক স্কুলছাত্রীকে (১৪) তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আকাশ মিয়া নামে এক বখাটের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় গেলো সোমবার রাতে ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষক আকাশ মিয়াকে আসামি করে নান্দাইল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত আকাশ মিয়া ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের কুমড়াশাসন গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে।
পুলিশ জানায়, গেলো শুক্রবার দুপুরে স্কুলছাত্রী নান্দাইল উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে পাশের গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিল। পথে জোরপূর্বক ওই স্কুলছাত্রীকে সিএনজি অটোরিকশায় ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের কুমড়াশাসন গ্রামে নিয়ে যায় ধর্ষক আকাশ মিয়া। সেখান থেকে আকাশ মিয়া তার আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ শেষে চলে যাওয়ার সময় আকাশ মিয়াকে জাপটে ধরে চিৎকার শুরু করে। ধর্ষক কুলকিনারা না পেয়ে ছাত্রীর হাত কামড়িয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটার পর বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়ভাবে ছাত্রীর পরিবারকে গ্রাম্য সালিশে বিচারের আশ্বাস দেয়। স্থানীয়ভাবে বিচার না পাওয়ায় ছাত্রীর বাবা গেলো সোমবার রাতে মামলা করেন।
এ বিষয়ে নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, মামলার পর থেকেই ধর্ষক আকাশ মিয়াকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। স্কুলছাত্রীকে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি