সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, 2০২1
রাজধানীতে সংঘবদ্ধ হয়ে অপরাধ ঘটাচ্ছে কিশোর গ্যাং
হাজারিকা অণলাইন ডেস্ক
Published : Saturday, 28 November, 2020 at 4:14 PM

হরহামেশাই শোনা যায় কিশোর গ্যাং এর কথা। কেন সামাজিক সংঘাতে জড়াচ্ছে কিশোররা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন বাবা-মা'র অতিব্যস্ততা সন্তানদের ঠেলে দিচ্ছে অপরাধ জগতে। আর পুলিশ বলছে, তাদের একার পক্ষে সম্ভব নয় কিশোর অপরাধ নিয়ন্ত্রণ।  কিশোর গ্যাং, গত ক'বছরে বেশ পরিচিতি পেয়েছে। ছিনতাই, মাদক সেবন, হুমকি বা খুনের মতো অপরাধও ঘটাচ্ছে সংঘবদ্ধ হয়ে। সমাজ বা পরিবারের কোন নিয়ন্ত্রণই যেন কাজে আসছে না।

গ্যাং বিরোধের বলি কামরাঙ্গীরচরে ১৭ বছর বয়সী অপুর মা জানাচ্ছিলেন একমাত্র ছেলে হারানোর যন্ত্রণা। সম্প্রতি তৃতীয় এক পক্ষের ঝগড়া মিমাংসা করতে গিয়ে এলাকার সিনিয়র ও জুনিয়র বিরোধে সিনিয়র গ্যাং এর অপু খুন হয় জুনিয়র গ্যাং এর হাতে। নিহত অপুর বন্ধু বলেন, 'ওরা ঢুকতে ছিল আমরাও ঢুকতে ছিলাম। ওদের সাথে আমাদের মুখোমুখি হয়ে যায়। ওদের প্রায় ৩০/৪০ জন ছিল আর আমরা ছিলাম ১০/১২ জন। আমরা গেছিলাম মূলত মারামারি সমাধান করতে।'

কামরাঙ্গীরচর এলাকায় এমন ৩০ থেকে ৪০টি গ্যাং সক্রিয় বলে জানায় এলাকাবাসী। এলাকাবাসীদের মধ্যে একজন যুবক বলেন, 'ঝগড়াটা বেশি তৈরি হয় সিনিয়র জুনিয়র নিয়ে।' অন্য আরেকজন বলেন, 'প্রতিটা গলিতে ১০/১২ জন বাসার সামনে বসে আড্ডা দিবে। আমাদের এলাকায় আমার দেখা মতে ৩০/৪০ টা গ্যাং আছে।' আরেক যুবক বলেন, 'চাঁদার টাকা আছে, ছিনতায়ের টাকা আছে সব টাকা এক করে ভাগাভাগি করে নিয়ে নেয়।'

পুলিশ সদর দপ্তরের হিসেবে এ বছর প্রথম ছয় মাসে ৮২১ মামলায় গ্রেফতার হয়েছে ১ হাজার ১৯১ জন। পুলিশ ও অপরাধ বিশ্লেষকরা বলছেন, শুধু আইন দিয়ে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। সন্তানদের দিতে হবে পর্যাপ্ত সময় ও সঙ্গ। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, পরিচিত বন্ধুর বুকে তারা ছুরি বসিয়ে দেয়। কখনো কখনো সামান্য একটা কথার জন্য পথের পাশে থাকা ইট বা পাথর নিয়ে মাথায় আঘাত করে থাকে। পুলিশের একার পক্ষে এ ধরনের কিশোর গ্যাং নির্মূল করা সম্ভব না।' অপরাধ বিশ্লেষক অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন বলেন, সোজাসাপ্টা কোন সমাধান নেই। সমাজ রাষ্ট্রের ভেতর এত সহিংসতা রেখে আপনি শুধু শিশুদের সুস্থ চাইবেন সেটা কিন্তু হবে না।'

শুধু আইন আইন প্রয়োগ করে নয়। শিশুদের অপরাধ থেকে বাঁচাতে সবচেয়ে বেশি সহায়তা করে পরিবারগুলো। আর তাই বিশেষকরা বলছেন পরিবার থেকে মূল্যবোধ এর সৃষ্টি না হলে কিশোররা হয়ে উঠতে পারে আরও ভয়ঙ্কর ও আরও বেপরোয়া।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি